alt

অপরাধ ও দুর্নীতি

পরিচয় পাল্টেও শেষ রক্ষা হলো না, ৮ বছর পর ধরা পড়লেন খুনের আসামি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

নাম–পরিচয় পাল্টে দেশের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপন করে ঘন ঘন পেশা বদল করছিলেন ইকবাল হোসেন তারেক। এমনকি মাদক–সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে গ্রেপ্তারের পরও পরিচয় গোপন করেন তিনি।

কিছুদিন পর জামিনেও বেরিয়ে যান। অথচ কেউ জানতেও পারেনি তিনি হত্যা মামলার আসামি। আট বছর আগে ঢাকার মগবাজারে রমনা থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রানা হত্যা মামলার অভিযোগপত্রে তাঁর নাম এসেছে। তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে।

তবে ইকবাল হোসেনের শেষ রক্ষা হয়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে র‍্যাব তাঁকে গ্রেপ্তার করে। তাঁকে গ্রেপ্তারের পর এসব তথ্য জানিয়েছেন র‍্যাবের কর্মকর্তারা।

এ নিয়ে আজ শুক্রবার দুপুরে ঢাকার কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-৩–এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, আট বছর আগে ইকবাল মগবাজারের সুইফ কেব্‌ল লিমিটেড নামে ডিশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন।

ওই প্রতিষ্ঠানের মালিক ছিলেন কামরুল ইসলাম এবং তানভিরুজ্জামান রনি নামের দুই ব্যক্তি। তাঁদের সঙ্গে মাহবুবুর রহমান রানার ব্যবসায়িক বিরোধ ছিল। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বিভিন্ন সময় মারামারিও হয়েছে। এই বিরোধ থেকেই মাহবুবুর রহমানকে ২০১৪ সালের ২৩ জানুয়ারি মগবাজারে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

র‍্যাব-৩–এর অধিনায়ক বলেন, মাহবুবুর রহমান হত্যার ঘটনা তদন্ত শেষে ১৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা। তাঁদের মধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন ১০ জন। পলাতক চারজনের একজন ছিলেন ইকবাল।

সখীপুরে তিন গরু চোর গ্রেপ্তার

বগুড়ার শেরপুরে এক সন্ত্রাসীকে কুপিয়ে হত্যা

শিবালয়ে চাল লুটপাটকারী পুরস্কৃত, অভিযোগকারীরা বহিস্কৃত

ছবি

একাত্তরের রাজাকার খলিলকে ধরা হলো যেভাবে

ছবি

জামিন পেলেন ক্রিকেটার আল আমিন

ছবি

১০ বছরে ৫ শতাধিক চুরি করেছে ‘স্পাইডারম্যান’ বিল্লাল

ছবি

ঝুমন দাসের জামিন ফের নামঞ্জুর

ছবি

ডিসি অফিসের আট কর্মচারীসহ ১১ জনের ৭ বছরের জেল

মুন্সীগঞ্জে হাসপাতালে ভর্তি কিশোরীকে ধর্ষণ, ওয়ার্ড বয় গ্রেফতার

ঘোড়াঘাটে মাদকাসক্ত ছেলের ৬ মাসের কারাদন্ড

ছবি

গভীর ষড়যন্ত্র হয়েছে, আমি নির্দোষ: জিকে শামীম

ছবি

স্বর্ণ চোরাচালান মামলা, চীনা নাগরিকের ৭ বছর কারাদণ্ড

ছবি

বনজ কুমারের বিরুদ্ধে বাবুল আক্তারের মামলার আবেদন খারিজ

ময়মনসিংহে মোটর সাইকেলের সাথে ধাক্কা লাগায় সিএনজি চালককে পিটিয়ে হত্যা

ছবি

জি কে শামীম ও ৭ দেহরক্ষীর যাবজ্জীবন, প্রথম মামলার রায়

সখীপুরে ভূমিহীন নারীর চেক নিয়ে প্রতারণা

ছবি

গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা, গ্রেপ্তার এক

ছবি

আজ জি কে শামীমসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে রায়

ছবি

এক দশক পর ধরা পড়লেন ফাঁসির আসামি

ভোলায় স্ত্রীকে উক্তত্যের প্রতিবাদ করায় পুলিশ কনস্টেবলকে কূপিয়ে জখম

ধামইরহাটে সরকারী রাস্তা দখল করে স্থাপনা নির্মানের অভিযোগ

ড্রাইভার দেলোয়ার হোসেনকে অবশেষে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

কারাগারে আটক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রার্থী মান্নানের নামে আরো ১ টি মামলা দায়ের

সাভারে ছুরিকাঘাতে যুবকের মৃত্যু

ছবি

ডিজিটাল প্রতারণার মাধ্যমে গ্রাহকের টাকা আত্মসাৎ করেন ই-অরেঞ্জের সোহেল

নোয়াখালীতে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে গলা কেটে হত্যা

ছবি

পি কে হালদারসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু

ছবি

ইয়াবা পাচার মামলায় তৃতীয় লিঙ্গের রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন

ছবি

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এক মাঝিকে কুপিয়ে হত্যা

ছবি

হোশি কুনিও হত্যা : ৪ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল, খালাস ১

‘ত্রুটিযুক্ত’ লিজে দুর্বলতা কী, খতিয়ে দেখছে দুদক

ছবি

সাংসদ জাফর আলম ও তার স্ত্রী-সন্তানকে জিজ্ঞাসাবাদ করল দুদক

ছবি

বিয়ের ৭ দিনের মাথায় স্ত্রীকে গলাকেটে খুন, স্বামীর যাবজ্জীবন

ছবি

ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ চেয়ে হাইকোর্টে রিট

ছবি

দুই নারী মাদক কারবারি গ্রেপ্তার

রোগ নির্ণয়ে মেয়াদ উত্তীর্ণ রিএজেন্ট ব্যবহার: ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

tab

অপরাধ ও দুর্নীতি

পরিচয় পাল্টেও শেষ রক্ষা হলো না, ৮ বছর পর ধরা পড়লেন খুনের আসামি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

নাম–পরিচয় পাল্টে দেশের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপন করে ঘন ঘন পেশা বদল করছিলেন ইকবাল হোসেন তারেক। এমনকি মাদক–সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে গ্রেপ্তারের পরও পরিচয় গোপন করেন তিনি।

কিছুদিন পর জামিনেও বেরিয়ে যান। অথচ কেউ জানতেও পারেনি তিনি হত্যা মামলার আসামি। আট বছর আগে ঢাকার মগবাজারে রমনা থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রানা হত্যা মামলার অভিযোগপত্রে তাঁর নাম এসেছে। তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে।

তবে ইকবাল হোসেনের শেষ রক্ষা হয়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে র‍্যাব তাঁকে গ্রেপ্তার করে। তাঁকে গ্রেপ্তারের পর এসব তথ্য জানিয়েছেন র‍্যাবের কর্মকর্তারা।

এ নিয়ে আজ শুক্রবার দুপুরে ঢাকার কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-৩–এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, আট বছর আগে ইকবাল মগবাজারের সুইফ কেব্‌ল লিমিটেড নামে ডিশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন।

ওই প্রতিষ্ঠানের মালিক ছিলেন কামরুল ইসলাম এবং তানভিরুজ্জামান রনি নামের দুই ব্যক্তি। তাঁদের সঙ্গে মাহবুবুর রহমান রানার ব্যবসায়িক বিরোধ ছিল। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বিভিন্ন সময় মারামারিও হয়েছে। এই বিরোধ থেকেই মাহবুবুর রহমানকে ২০১৪ সালের ২৩ জানুয়ারি মগবাজারে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

র‍্যাব-৩–এর অধিনায়ক বলেন, মাহবুবুর রহমান হত্যার ঘটনা তদন্ত শেষে ১৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা। তাঁদের মধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন ১০ জন। পলাতক চারজনের একজন ছিলেন ইকবাল।

back to top