alt

আন্তর্জাতিক

দার্জিলিংয়ে মৌসুমের প্রথম তুষারপাত, টানছে পর্যটকদের

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩

মৌসুমের প্রথম তুষারপাত দেখা গেল দার্জিলিংয়ের সান্দাকফুতে। বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) বিকেলে সান্দাকফু-সহ আশপাশের বেশ কয়েকটি এলাকায় তুষারপাত শুরু হয়। তাতে বাড়ির ছাদে বরফের স্তর জমে যায়। সাদা বরফের চাদরে ঢেকেছে যায় রাস্তাঘাট। আর হঠাৎ এমন তুষারপাতে দার্জিলিংয়ে অবস্থান করা পর্যটকদের যেন কপাল খুলেছে।

ডিসেম্বর মাসের শুরুতেই এমন তুষারপাত হবে তা কেউ ভাবতে পারেননি। তবে যাই হোক এতে বেশ খুশিই হয়েছেন পর্যটকরা।

বৃহস্পতিবার দার্জিলিংয়ের বেশ কিছু অংশের আকাশ মেঘলা হয়ে আসে। দুপুরের পর শুরু হয় বৃষ্টি। যদিও পরে তা থেমে যায়। আর বিকেল থেকে দার্জিলিং জেলার সান্দাকফু–সহ চন্দ্রু হ্রদে তুষারপাত শুরু হয়। বাড়ির চাল, মাঠ, রাস্তা ঢেকে যায় বরফের চাদরে। গাছের পাতা থেকে গড়িয়ে পড়ে বরফ। এমন নৈসর্গিক দৃশ্য দেখে মেতে ওঠেন পর্যটকরা।

অন্যদিকে এখন দার্জিলিংয়ের তাপমাত্রা ৫ থেকে ১৩ ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করছে। সান্দাকফু, টাইগার হিল উঁচু জায়গায় হওয়ায় তাপমাত্রা অনেক কম। এদিন তাপমাত্রা কমে হিমাঙ্কের নিচে নেমে যায়। আর তার জেরেই তুষারপাত শুরু হয় সান্দাকফুতে। সেখানে থাকা পর্যটকরা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি শেয়ার করেন। দার্জিলিংয়ে পর্যটকদের ভিড় নিয়মিত থাকে। কিন্তু নিয়মিত দেখা যায় না তুষারপাত। তাছাড়া এখানে ঝকঝকে কাঞ্চনজঙ্ঘা পাহাড় দেখা যায়। তাই দেখতেই বারবার ছুটে আসেন পর্যটকরা। তবে এবার ডিসেম্বর মাসে তুষারপাত মেলায় আলাদা পরিবেশ তৈরি হয়েছে।

আর পাহাড়ের অন্যান্য অংশে এখন জাঁকিয়ে পড়েছে শীত। ভিড় বেড়েছে পর্যটকদের। তবে উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। তা নিয়ে চিন্তায় পড়তেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার পর্যটকদের কথা মাথায় রেখে বাড়তি বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এনবিএসটিসি কলকাতা থেকে শিলিগুড়ি এবং শিলিগুড়ি থেকে কলকাতায় চারটি বাড়তি বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দার্জিলিং, কার্শিয়াং এবং বিভিন্ন এলাকায় শুরু হয়েছে মাঝারি বৃষ্টিপাত। বইছে ঠাণ্ডা হাওয়াও। শুক্রবারও দার্জিলিং, কালিম্পংয়ে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

ছবি

হাইতিতে জেল ভেঙে ৪০০০ বন্দিকে মুক্ত করেছে অপরাধী দলগুলো

ছবি

পাকিস্তানে বৃষ্টি ও তুষারপাতজনিত ঘটনায় ১৮ শিশুসহ ২৭ জনের মৃত্যু

ছবি

মালয়েশিয়ায় ট্রেনের ধাক্কায় ৩ বাংলাদেশি নিহত

ছবি

গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বিমান হামলা, ২০ ফিলিস্তিনি নিহত

ছবি

দেশের মানুষ ভালো আছে : অর্থমন্ত্রী

ছবি

বাংলাদেশিকে ধরিয়ে দিতে ২০ হাজার ডলার পুরস্কার ঘোষণা এফবিআইয়ের

ছবি

পাকিস্তানের ২৪তম প্রধানমন্ত্রী হলেন শাহবাজ শরিফ

ছবি

ইউক্রেনের ওডেসায় রাশিয়ার ড্রোন হামলা, নিহত ৮

ছবি

মিশিগানসহ তিন অঙ্গরাজ্যের ককাশে জিতে দলের মনোনয়ন পাকাপোক্ত করলেন ট্রাম্প

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবল তুষারঝড়, বিদ্যুৎহীন অর্ধলক্ষাধিক মানুষ

ছবি

প্রথমবারের মত গাজাবাসীর জন্য উড়োজাহাজ থেকে খাবার ফেলল যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

রাফাহতে আশ্রয় শিবিরে ইসরায়েলের হামলা, নিহত ১১ ফিলিস্তিনি

ছবি

রাখাইনের রাজধানী থেকে পালাচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ

ছবি

গাজায় ইসরায়েলি বাহিনীর বোমায় নিহত ৭ জিম্মি: হামাস

ছবি

পাকিস্তানের নতুন সরকারকে স্বীকৃতি না দিতে বাইডেনকে চিঠি

ছবি

সেনেগাল উপকূলে অভিবাসীবাহী নৌকাডুবি, মৃত ২০

ছবি

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ড

ছবি

রোজার আগে আরব আমিরাতে খেজুরের দাম কমলো ৪০ শতাংশ

ছবি

ইসরায়েলি তাণ্ডব: গাজায় নিহত প্রায় ৩০ হাজার

ছবি

মধ্যপ্রদেশে পিকআপ উল্টে নিহত ১৪, আহত ২১

ছবি

দক্ষিণ কোরিয়ায় নিম্ন জন্ম হারের নতুন রেকর্ড

ছবি

সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে সৌদি আরবে এক দিনে সাতজনের শিরশ্ছেদ

ছবি

হামাস যুদ্ধবিরতিতে সায় দিলে হামলা থামাবে হিজবুল্লাহও

ছবি

আমি ইহুদিবাদী, ইসরায়েল না থাকলে কোনও ইহুদি নিরাপদ নয়: বাইডেন

ছবি

মালিতে সেতু থেকে নদীতে পড়ল বাস, নিহত ৩১

ছবি

“কে ডাকবে বাবা?”

আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে ইসরায়েলের দখলদারিত্বের অবসানে রায় প্রদানের আহ্বান

ছবি

সোমবারের মধ্যে গাজায় যুদ্ধবিরতি শুরুর আশা বাইডেনের

ছবি

তাপমাত্রা ক্রমেই বাড়তে পারে

ছবি

গাজায় আগামী সপ্তাহে যুদ্ধবিরতির আশা বাইডেনের

ছবি

বুরকিনা ফাসোতে ফজরের নামাজের সময় মসজিদে হামলা, বহু মুসল্লি নিহত

ছবি

বাংলাদেশকে যেসব বার্তা দিল যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

পাকিস্তানের পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হলেন মরিয়ম নওয়াজ

ছবি

চালক ছাড়াই ৭০ কি.মি. পাড়ি দিলো ভারতীয় ট্রেন

ছবি

ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

ছবি

জ্ঞানবাপী মসজিদের বেজমেন্টে পূজা চলবে, রায় হাইকোর্টের

tab

আন্তর্জাতিক

দার্জিলিংয়ে মৌসুমের প্রথম তুষারপাত, টানছে পর্যটকদের

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩

মৌসুমের প্রথম তুষারপাত দেখা গেল দার্জিলিংয়ের সান্দাকফুতে। বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) বিকেলে সান্দাকফু-সহ আশপাশের বেশ কয়েকটি এলাকায় তুষারপাত শুরু হয়। তাতে বাড়ির ছাদে বরফের স্তর জমে যায়। সাদা বরফের চাদরে ঢেকেছে যায় রাস্তাঘাট। আর হঠাৎ এমন তুষারপাতে দার্জিলিংয়ে অবস্থান করা পর্যটকদের যেন কপাল খুলেছে।

ডিসেম্বর মাসের শুরুতেই এমন তুষারপাত হবে তা কেউ ভাবতে পারেননি। তবে যাই হোক এতে বেশ খুশিই হয়েছেন পর্যটকরা।

বৃহস্পতিবার দার্জিলিংয়ের বেশ কিছু অংশের আকাশ মেঘলা হয়ে আসে। দুপুরের পর শুরু হয় বৃষ্টি। যদিও পরে তা থেমে যায়। আর বিকেল থেকে দার্জিলিং জেলার সান্দাকফু–সহ চন্দ্রু হ্রদে তুষারপাত শুরু হয়। বাড়ির চাল, মাঠ, রাস্তা ঢেকে যায় বরফের চাদরে। গাছের পাতা থেকে গড়িয়ে পড়ে বরফ। এমন নৈসর্গিক দৃশ্য দেখে মেতে ওঠেন পর্যটকরা।

অন্যদিকে এখন দার্জিলিংয়ের তাপমাত্রা ৫ থেকে ১৩ ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করছে। সান্দাকফু, টাইগার হিল উঁচু জায়গায় হওয়ায় তাপমাত্রা অনেক কম। এদিন তাপমাত্রা কমে হিমাঙ্কের নিচে নেমে যায়। আর তার জেরেই তুষারপাত শুরু হয় সান্দাকফুতে। সেখানে থাকা পর্যটকরা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি শেয়ার করেন। দার্জিলিংয়ে পর্যটকদের ভিড় নিয়মিত থাকে। কিন্তু নিয়মিত দেখা যায় না তুষারপাত। তাছাড়া এখানে ঝকঝকে কাঞ্চনজঙ্ঘা পাহাড় দেখা যায়। তাই দেখতেই বারবার ছুটে আসেন পর্যটকরা। তবে এবার ডিসেম্বর মাসে তুষারপাত মেলায় আলাদা পরিবেশ তৈরি হয়েছে।

আর পাহাড়ের অন্যান্য অংশে এখন জাঁকিয়ে পড়েছে শীত। ভিড় বেড়েছে পর্যটকদের। তবে উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। তা নিয়ে চিন্তায় পড়তেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার পর্যটকদের কথা মাথায় রেখে বাড়তি বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এনবিএসটিসি কলকাতা থেকে শিলিগুড়ি এবং শিলিগুড়ি থেকে কলকাতায় চারটি বাড়তি বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দার্জিলিং, কার্শিয়াং এবং বিভিন্ন এলাকায় শুরু হয়েছে মাঝারি বৃষ্টিপাত। বইছে ঠাণ্ডা হাওয়াও। শুক্রবারও দার্জিলিং, কালিম্পংয়ে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

back to top