alt

আন্তর্জাতিক

‘কর্তৃত্ববাদী’ জোটের মুখে আছে পশ্চিমা দেশগুলো: ন্যাটোপ্রধান

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : রোববার, ০৭ এপ্রিল ২০২৪

নেটো প্রধান ইয়েন্স স্টলটেনবার্গ সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, পশ্চিমা গণতান্ত্রিক দেশগুলোর বিরুদ্ধে অনেক বেশি ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে ‘কর্তৃত্ববাদী শক্তির দেশগুলোর একটি জোট’।

বিবিসি-কে স্টলটেনবার্গ বলেন, রাশিয়া, ইরান, চীন এবং উত্তর কোরিয়া ক্রমেই আরও বেশি করে জোটবদ্ধ হচ্ছে।

স্টলটেনবার্গ পশ্চিমা সামরিক জোট নেটোর প্রধান হয়েছে ১০ বছর আগে। এই জোটের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিবিসি-কে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি। রোববার সেটি প্রচারিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এই সাক্ষাৎকারেই সাংবাদিক লরা কেসেনবার্গকে স্টলটেনবার্গ বলেছেন, বিশ্ব এখন অনেক বেশি বিপজ্জনক। অনেক বেশি অনিশ্চিত এবং অনেক বেশি সহিংস। বিশ্বে এখন একটি কর্তৃত্ববাদী জোট আছে, যারা একে অপরকে বাস্তবিক সমর্থন দিচ্ছে এবং উত্তরোত্তর একাট্টা হচ্ছে।

বিষয়টি ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, “যুদ্ধে রাশিয়ার অর্থনীতির চালিকাশক্তি হিসাবে কাজ করছে চীন। প্রতিরক্ষাখাতে গুরুত্বপূর্ণ সাজ-সরঞ্জাম সরবরাহ করছে তারা। বিনিময়ে রাশিয়াও তাদের ভবিষ্যৎ চীনের কাছে গচ্ছিত রাখছে।”

ওদিকে, ইরান ও উত্তর কোরিয়া থেকে গোলাবারুদ এবং সামরিক যন্ত্রপাতি পাওয়ার বিনিময়ে রাশিয়া দেশদুটিকে প্রযুক্তি সহায়তা দিচ্ছে।

কর্তৃত্ববাদী শক্তির এই জোটের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হলে নেটো জোটকে এর ভৌগলিক সীমানার বাইরে গিয়ে অন্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করতে হবে (যেমন: জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ার মতো দেশ) বলে মত দেন স্টলটেনবার্গ।

নেটো প্রধান স্টলটেনবার্গ সাম্প্রতিক দিনগুলোতে ইউক্রেইনকে আরও অর্থসহায়তা দিতে আরও বেশি দেশকে রাজি করানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন।

নেটো দেশগুলো আগামী জুলাইয়ের মধ্যে ইউক্রেইনে অর্থায়নের একটি চুক্তিতে পৌঁছতে পারবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন। যদিও এখনও কিছু দেশ এমন সহায়তা করতে এ সপ্তাহেই দ্বিধা প্রকাশ করেছে।

স্টলটেনবার্গ বলেন, ইউক্রেইনকে দীর্ঘমেয়াদে সমর্থন দিয়ে যাওয়া এবং যুদ্ধের পরও পুনর্গঠনে সহায়তা করাটা এখন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

“আমরা যদি এটি বিশ্বাস এবং আশাও করি যে, অদূর ভবিষ্যতে যুদ্ধ শেষ হবে,তাহলেও ভবিষ্যতে কোনরকম আগ্রাসন ঠেকাতে আমাদেরকে ইউক্রেইনের প্রতিরক্ষা গড়ে তোলার জন্য বহু বহু বছর ধরে সহায়তা করে যেতে হবে।

ইউক্রেইন থেকে রাশিয়াকে তাড়াতে এবং রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে তার দখলদারিত্বে লক্ষ্য থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য কিইভকে সামরিক সহায়তা দেওয়া জরুরি বলে উল্লেখ করেন স্টলটেনবার্গ। তবে তিনি এও বলেন যে, ইউক্রেইনকেও শেষ পর্যন্ত কিছু ছাড় দিতে হতে পারে।

ছবি

পাপুয়া নিউ গিনির ভূমিধসে ‘চাপা: ২ হাজারেরও বেশি’

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে ঝড়ে নিহত অন্তত ১৮

ছবি

ইরানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ইঙ্গিত আহমাদিনেজাদের

ছবি

রিমালের ছোবলে পশ্চিমবঙ্গে একজনের মৃত্যু, বৃষ্টিপাত অব্যাহত

ছবি

গাজায় বাস্তুচ্যুতদের শিবিরে ইসরায়েলের ভয়াবহ হামলা, নিহত অন্তত ৩৫

ছবি

গাজায় ইসরায়েলি সেনা আটকের দাবি হামাসের

ছবি

গুজরাটে খেলাধুলার স্থানে ভয়াবহ আগুন, ২৪ জনের মৃত্যু

ছবি

জাতিসংঘ আদালতের রায় : আর ঘোষণা নয়,পদক্ষেপ চান ফিলিস্তিনিরা

ছবি

রাফায় অভিযান : জাতিসংঘ আদালতের রায় প্রত্যাখ্যান ইসরায়েলের

ছবি

মহড়ার মাধ্যমে তাইওয়ান দখলের সক্ষমতা যাচাই করছে চীন

ছবি

গাজাজুড়ে ইসরায়েলের ভয়াবহ হামলা

ছবি

ইসরায়েলের আরও ৩ জিম্মির মরদেহ উদ্ধার

ছবি

জর্জিয়ার ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

ভিয়েতনামে বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪

ছবি

তীর্থে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের নিহত ৭

ছবি

মায়ানমারের রাখাইনে নতুন সংঘাত, উদ্বাস্তু হাজারো মানুষ

ছবি

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের সেই ফ্লাইটের ২০ আরোহী আইসিইউতে

ছবি

আমেরিকার কাছে সিরিজ হারের পর যা বললেন সাকিব

ছবি

গাজাজুড়ে ইসরায়েলের ভয়াবহ হামলা, নিহত অন্তত ৫০

ছবি

তাইওয়ানের চারপাশে চীনের সামরিক মহড়া ‘উদ্বেগজনক’ : যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

প্যালেস্টাইন রাষ্ট্রকে ‘একতরফা স্বীকৃতি’ দেয়ার বিরোধিতা হোয়াইট হাউসের

ছবি

মেক্সিকোয় নির্বাচনী প্রচারণার মঞ্চ ভেঙে নিহত ৯

ছবি

গাজা যুদ্ধ : মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা থেকে সরে যাওয়ার হুমকি মিসরের

ছবি

গাজায় আরও হামলা চালানোর হুমকি ইসরায়েলের

ছবি

আগাম নির্বাচনের ঘোষণা যুক্তরাজ্যে

ছবি

দুবাই মেট্রো রেড লাইন পরিষেবা ২ ঘন্টা পর পুনরায় চালু

ছবি

ফিলিস্তিনকে আজই রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দেবে আয়ারল্যান্ড: রয়টার্স

ছবি

নাইজেরিয়ায় বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত ৪০

ছবি

অনলাইনে প্রয়াত প্রেসিডেন্টকে ‘অপমানকারীদের’ গ্রেপ্তারের নির্দেশ

ছবি

ভারতের উত্তরে তীব্র তাপপ্রবাহ, দক্ষিণে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস

ছবি

হেলিকপ্টার বিধ্বস্তে রাইসির মৃত্যু, যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা পায়নি ইরান

ছবি

ইসরায়েলি বাহিনী গাজায় গণহত্যা চালাচ্ছে না : বাইডেন

ছবি

রাইসির মৃত্যুতে ইরানে পাঁচ দিনের শোক

ছবি

রাইসির মৃত্যুতে বিশ্বনেতাদের শোক

ছবি

ইরানে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, প্রেসিডেন্ট রাইসির লাশ উদ্ধার

ছবি

ইরানের অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন মোহাম্মদ মোখবার

tab

আন্তর্জাতিক

‘কর্তৃত্ববাদী’ জোটের মুখে আছে পশ্চিমা দেশগুলো: ন্যাটোপ্রধান

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

রোববার, ০৭ এপ্রিল ২০২৪

নেটো প্রধান ইয়েন্স স্টলটেনবার্গ সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, পশ্চিমা গণতান্ত্রিক দেশগুলোর বিরুদ্ধে অনেক বেশি ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে ‘কর্তৃত্ববাদী শক্তির দেশগুলোর একটি জোট’।

বিবিসি-কে স্টলটেনবার্গ বলেন, রাশিয়া, ইরান, চীন এবং উত্তর কোরিয়া ক্রমেই আরও বেশি করে জোটবদ্ধ হচ্ছে।

স্টলটেনবার্গ পশ্চিমা সামরিক জোট নেটোর প্রধান হয়েছে ১০ বছর আগে। এই জোটের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিবিসি-কে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি। রোববার সেটি প্রচারিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এই সাক্ষাৎকারেই সাংবাদিক লরা কেসেনবার্গকে স্টলটেনবার্গ বলেছেন, বিশ্ব এখন অনেক বেশি বিপজ্জনক। অনেক বেশি অনিশ্চিত এবং অনেক বেশি সহিংস। বিশ্বে এখন একটি কর্তৃত্ববাদী জোট আছে, যারা একে অপরকে বাস্তবিক সমর্থন দিচ্ছে এবং উত্তরোত্তর একাট্টা হচ্ছে।

বিষয়টি ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, “যুদ্ধে রাশিয়ার অর্থনীতির চালিকাশক্তি হিসাবে কাজ করছে চীন। প্রতিরক্ষাখাতে গুরুত্বপূর্ণ সাজ-সরঞ্জাম সরবরাহ করছে তারা। বিনিময়ে রাশিয়াও তাদের ভবিষ্যৎ চীনের কাছে গচ্ছিত রাখছে।”

ওদিকে, ইরান ও উত্তর কোরিয়া থেকে গোলাবারুদ এবং সামরিক যন্ত্রপাতি পাওয়ার বিনিময়ে রাশিয়া দেশদুটিকে প্রযুক্তি সহায়তা দিচ্ছে।

কর্তৃত্ববাদী শক্তির এই জোটের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হলে নেটো জোটকে এর ভৌগলিক সীমানার বাইরে গিয়ে অন্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করতে হবে (যেমন: জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ার মতো দেশ) বলে মত দেন স্টলটেনবার্গ।

নেটো প্রধান স্টলটেনবার্গ সাম্প্রতিক দিনগুলোতে ইউক্রেইনকে আরও অর্থসহায়তা দিতে আরও বেশি দেশকে রাজি করানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন।

নেটো দেশগুলো আগামী জুলাইয়ের মধ্যে ইউক্রেইনে অর্থায়নের একটি চুক্তিতে পৌঁছতে পারবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন। যদিও এখনও কিছু দেশ এমন সহায়তা করতে এ সপ্তাহেই দ্বিধা প্রকাশ করেছে।

স্টলটেনবার্গ বলেন, ইউক্রেইনকে দীর্ঘমেয়াদে সমর্থন দিয়ে যাওয়া এবং যুদ্ধের পরও পুনর্গঠনে সহায়তা করাটা এখন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

“আমরা যদি এটি বিশ্বাস এবং আশাও করি যে, অদূর ভবিষ্যতে যুদ্ধ শেষ হবে,তাহলেও ভবিষ্যতে কোনরকম আগ্রাসন ঠেকাতে আমাদেরকে ইউক্রেইনের প্রতিরক্ষা গড়ে তোলার জন্য বহু বহু বছর ধরে সহায়তা করে যেতে হবে।

ইউক্রেইন থেকে রাশিয়াকে তাড়াতে এবং রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে তার দখলদারিত্বে লক্ষ্য থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য কিইভকে সামরিক সহায়তা দেওয়া জরুরি বলে উল্লেখ করেন স্টলটেনবার্গ। তবে তিনি এও বলেন যে, ইউক্রেইনকেও শেষ পর্যন্ত কিছু ছাড় দিতে হতে পারে।

back to top