alt

আন্তর্জাতিক

ইউক্রেনে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ১৭

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

ইউক্রেনের ঐতিহাসিক শহর চেরনিগিভে তিনটি রুশ ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে। এতে ১৭ জন নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সময় বুধবার এই হামলা চালানো হয়। ইউক্রেনের কর্মকর্তারা মিত্রদের কাছ থেকে আরো বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে, এর মধ্যেই এমন ঘটনা ঘটে।

ইউক্রেন কর্তৃপক্ষের প্রকাশ করা কিছু ছবিতে দেখা যায়, হামলায় ঘটনাস্থলে রক্ত ছড়িয়ে রয়েছে। উদ্ধারকারীরা ধ্বংসস্তূপের মধ্যে বেঁচে থাকা ব্যক্তিদের সন্ধান করছে এবং আহতদের স্ট্রেচারে করে নিয়ে যাচ্ছে।

চেরনিগিভের বাসিন্দা ওলগা সামোইলেঙ্কো এএফপিকে বলেছেন, প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র বিস্ফোরণ হওয়ার পরে সুরক্ষার জন্য তার সন্তানদের সঙ্গে তাদের অ্যাপার্টমেন্ট বিল্ডিংয়ের করিডরে ঢুকেছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রতিবেশীরা আগে থেকেই সেখানে ছিল।

আমরা সবাই মেঝেতে পড়ে যাওয়ার জন্য চিৎকার করতে লাগলাম। তখন আরো দুটি বিস্ফোরণ হয়। তারপরে আমরা পার্কিং লটে ছুটে যাই।’ দিনের বেলায় সরকারিভাবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭ জনে পৌঁছেছে কিন্তু যখন জরুরি পরিষেবাগুলো বলেছে ৬০ জন।

মেয়র ওলেকজান্ডার লোমাকো বলেছেন, হামলায় বেশ কয়েকটি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং অন্যান্য কর্মকর্তারা বলেছেন, বেশ কয়েকটি যানবাহন এবং চিকিৎসা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

হামলার কারণে একটি আটতলা হোটেল ভবন ধসে পড়ে। উদ্ধারকর্মীরা একটি ক্রেন ব্যবহার করে ধ্বংসাবশেষ পরিষ্কার করছিলেন বলে ঘটনাস্থলে অবস্থানরত এএফপি সাংবাদিকরা জানিয়েছেন। এ ছাড়া আশপাশের অ্যাপার্টমেন্ট, একটি বিউটি সেলুন এবং দোকানের জানালা হামলায় উড়ে যায়।

চেরনিহিভের ভারপ্রাপ্ত মেয়র অলেকজান্ডার লোমাকো বলেন, স্থানীয় সময় সকাল ৯টার পর শহরের একটি ব্যস্ততম অংশে তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানে। হামলার পর লোকজন বাস থেকে নেমে নিরাপদ স্থানে যেতে ছুটতে থাকে। আহতদের চিকিৎসায় জরুরি পরিষেবা এবং চিকিৎসকরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। এদিকে হামলার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

তিনি বলেন, ইউক্রেন যদি পর্যাপ্ত বিমান প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম পেত এবং যদি রাশিয়ার সন্ত্রাসী কার্যক্রম প্রতিহত করতে বিশ্বের শক্তিশালী রাষ্ট্রগুলো দৃঢ় পদক্ষেপ নিত তাহলে এ হামলার ঘটনা ঘটত না।

ছবি

ইসরায়েলি বাহিনী গাজায় গণহত্যা চালাচ্ছে না : বাইডেন

ছবি

রাইসির মৃত্যুতে ইরানে পাঁচ দিনের শোক

ছবি

রাইসির মৃত্যুতে বিশ্বনেতাদের শোক

ছবি

ইরানে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, প্রেসিডেন্ট রাইসির লাশ উদ্ধার

ছবি

ইরানের অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন মোহাম্মদ মোখবার

ছবি

হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত : ইরানের রাষ্ট্রপতি, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মারা গেছেন

ছবি

রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষের ছবি-ভিডিও প্রকাশ্যে

ছবি

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের ৫ম দফার ভোটগ্রহণ শুরু

ছবি

দূঘর্টনায় পড়া ইরানের প্রেসিডেন্টকে উদ্ধারে চলছে অনুসন্ধান

ছবি

বাড়ির উঠানে পাওয়া গ্রেনেড নিয়ে খেলছিলো শিশুরা, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বোমা ডিসপোজাল ইউনিট

ছবি

ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত

ছবি

দুর্ঘটনার কবলে ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার

ছবি

যুদ্ধোত্তর পরিকল্পনা না করলে পদত্যাগের হুমকি ইসরায়েলি মন্ত্রীর

ছবি

২৪ ঘণ্টায় অন্তত ১২১ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরায়েল

ছবি

ট্রাম্পের মস্তিষ্ক বিকৃত, গণতন্ত্রের জন্য হুমকি বাইডেন

ছবি

ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে ৭৫টি রকেট ছুড়ল হিজবুল্লাহ

ছবি

তিন দশকের মধ্যে গড় আয়ু বাড়বে পাঁচ বছর

ছবি

২৬ চীনা কোম্পানির তুলায় যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা

ছবি

সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

ছবি

বিদ্যুৎ স্থাপনায় একের পর এক রুশ হামলা, অন্ধকারে পুরো ইউক্রেন

ছবি

নিষেধাজ্ঞার মার্কিন হুমকিকে উড়িয়ে দিলেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

ইসরায়েলকে নতুন করে অস্ত্র দেয়ার পরিকল্পনা বাইডেনের

ছবি

গুলিবিদ্ধ স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী, অবস্থা আশঙ্কাজনক

ছবি

পেরুতে বাস দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহত

ছবি

সাহিত্যে নোবেলজয়ী এলিস মুনরো আর নেই

ছবি

মুম্বাইয়ে ঝড়ে বিলবোর্ড ভেঙে পড়ে নিহত ১৪

ছবি

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত ৩

ছবি

রাফায় হামলা চালিয়ে হামাসকে নির্মূল করা যাবে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

ইউক্রেনের হামলায় রাশিয়ায় নিহত ১৫

ছবি

পাকিস্তানে জঙ্গি হামলায় ৭ নিরাপত্তা সদস্য নিহত

ছবি

প্রধানমন্ত্রী হওয়া নিয়ে কেজরিওয়ালের মন্তব্যের জবাব দিলেন অমিত শাহ

ছবি

শিখ নেতা নিজ্জর হত্যাকাণ্ড : কানাডায় আরও একজন গ্রেপ্তার

ছবি

হামাস জিম্মিদের মুক্তি দিলে আগামীকালই যুদ্ধবিরতি সম্ভব: বাইডেন

ছবি

আফগানিস্তানে বন্যায় মৃত্যু বেড়ে ১৫৩

ছবি

কুয়েতে ভেঙে দেওয়া হলো পার্লামেন্ট, সংবিধানের কিছু অনুচ্ছেদ স্থগিত

ছবি

ফিলিস্তিনকে জাতিসংঘের পূর্ণ সদস্য করার পক্ষে সাধারণ পরিষদে প্রস্তাব পাস

tab

আন্তর্জাতিক

ইউক্রেনে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ১৭

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

ইউক্রেনের ঐতিহাসিক শহর চেরনিগিভে তিনটি রুশ ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে। এতে ১৭ জন নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সময় বুধবার এই হামলা চালানো হয়। ইউক্রেনের কর্মকর্তারা মিত্রদের কাছ থেকে আরো বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে, এর মধ্যেই এমন ঘটনা ঘটে।

ইউক্রেন কর্তৃপক্ষের প্রকাশ করা কিছু ছবিতে দেখা যায়, হামলায় ঘটনাস্থলে রক্ত ছড়িয়ে রয়েছে। উদ্ধারকারীরা ধ্বংসস্তূপের মধ্যে বেঁচে থাকা ব্যক্তিদের সন্ধান করছে এবং আহতদের স্ট্রেচারে করে নিয়ে যাচ্ছে।

চেরনিগিভের বাসিন্দা ওলগা সামোইলেঙ্কো এএফপিকে বলেছেন, প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র বিস্ফোরণ হওয়ার পরে সুরক্ষার জন্য তার সন্তানদের সঙ্গে তাদের অ্যাপার্টমেন্ট বিল্ডিংয়ের করিডরে ঢুকেছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রতিবেশীরা আগে থেকেই সেখানে ছিল।

আমরা সবাই মেঝেতে পড়ে যাওয়ার জন্য চিৎকার করতে লাগলাম। তখন আরো দুটি বিস্ফোরণ হয়। তারপরে আমরা পার্কিং লটে ছুটে যাই।’ দিনের বেলায় সরকারিভাবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭ জনে পৌঁছেছে কিন্তু যখন জরুরি পরিষেবাগুলো বলেছে ৬০ জন।

মেয়র ওলেকজান্ডার লোমাকো বলেছেন, হামলায় বেশ কয়েকটি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং অন্যান্য কর্মকর্তারা বলেছেন, বেশ কয়েকটি যানবাহন এবং চিকিৎসা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

হামলার কারণে একটি আটতলা হোটেল ভবন ধসে পড়ে। উদ্ধারকর্মীরা একটি ক্রেন ব্যবহার করে ধ্বংসাবশেষ পরিষ্কার করছিলেন বলে ঘটনাস্থলে অবস্থানরত এএফপি সাংবাদিকরা জানিয়েছেন। এ ছাড়া আশপাশের অ্যাপার্টমেন্ট, একটি বিউটি সেলুন এবং দোকানের জানালা হামলায় উড়ে যায়।

চেরনিহিভের ভারপ্রাপ্ত মেয়র অলেকজান্ডার লোমাকো বলেন, স্থানীয় সময় সকাল ৯টার পর শহরের একটি ব্যস্ততম অংশে তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানে। হামলার পর লোকজন বাস থেকে নেমে নিরাপদ স্থানে যেতে ছুটতে থাকে। আহতদের চিকিৎসায় জরুরি পরিষেবা এবং চিকিৎসকরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। এদিকে হামলার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

তিনি বলেন, ইউক্রেন যদি পর্যাপ্ত বিমান প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম পেত এবং যদি রাশিয়ার সন্ত্রাসী কার্যক্রম প্রতিহত করতে বিশ্বের শক্তিশালী রাষ্ট্রগুলো দৃঢ় পদক্ষেপ নিত তাহলে এ হামলার ঘটনা ঘটত না।

back to top