alt

আন্তর্জাতিক

অনলাইনে প্রয়াত প্রেসিডেন্টকে ‘অপমানকারীদের’ গ্রেপ্তারের নির্দেশ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

প্রয়াত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসকে ‘অপমান করে’ অনলাইনে মন্তব্য, ছবি বা ভিডিও পোস্ট করা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন ইরানের প্রসিকিউটর জেনারেল মোহাম্মদ কাজেম মোবাহহেদি আজাদ।

সোমবার প্রেসিডেন্ট রাইসির নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত হওয়ার পরপরই প্রসিকিউটর জেনারেল আজাদ অনলাইনে রাইসকে ‘অপমানকারীদের’ গ্রেপ্তার করার কথা বলেন বলে জানায় বিবিসি।

গত রোববার হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দোল্লাহিয়ানসহ তাদের সঙ্গে থাকা মোট নয়জন।

সেদিন তারা আজারবাইজান সীমান্তবর্তী এলাকায় আরাস নদীর ওপর একটি বাঁধ প্রকল্প উদ্বোধনের পর উত্তর-পূর্বাঞ্চলের শহর তাবরিজে ফিরছিলেন। ঘন কুয়াশার মধ্যে হেলিকপ্টারটি পার্বত্যাঞ্চলে দুর্ঘটনায় পড়ে বলে জানান ইরানি কর্মকর্তারা। দুর্ঘটনাস্থল থেকে সোমবার মৃতদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।

রাইসির মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়ার পরপরই কট্টোর ইসলামিক সরকারপন্থি ইরানিরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের শোক প্রকাশ করা শুরু করেন।

অন্যদিকে, ভিন্ন মতাবলম্বীরা ইরানে ইসলামিক বিপ্লবের পর ১৯৮০-র দশকে কয়েক হাজার রাজনৈতিক কারাবন্দিকে হত্যার ঘটনায় রাইসির সংশ্লিষ্টতাকে তুলে ধরেন। কেউ কেউ রাইসির আমলে ইরানজুড়ে ছড়িয়ে পড়া হিজাব বিরোধী আন্দোলনে যেভাবে নিপীড়নের মাধ্যমে ইরান সরকার আন্দোলন দমন করে সে কথা তুলে ধরে তার মৃত্যুতে খুশি প্রকাশ করেছেন।

২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে তেহরানে নীতি পুলিশের হেফাজতে কুর্দি তরুণী মাশা আমিনির মৃত্যু ঘিরে ইরানে হিজাব বিরোধী আন্দোলন গড়ে উঠেছিল। যে আন্দোলনের নেতৃত্বে ছিলেন নারীরা। হিজাব বিরোধী ওই আন্দোলন একসময় ইরানের কট্টোরপন্থি ইসলামিক শাসকদের বিরুদ্ধে এবং তাদের পতনের দাবিতে গণআন্দোলনে পরিণত হয়। যে আন্দোলন ১৯৭৯ সালের বিপ্লবের পর দেশটিতে সবচেয়ে বড় গণআন্দোলনে পরিণত হয়েছিল। কয়েক মাস ধরে সরকার পতনের দাবিতে ইরান জুড়ে ওই আন্দোলন চললেও শেষ পর্যন্ত রাইসি সরকারের কঠোর দমন-পীড়নে মাঝপথেই রণেভঙ্গ দিতে হয় আন্দোলনকারীদের। কয়েকশ বিক্ষোভকারী নিহত হন বলে জানায় নানা মানবাধিকার সংগঠন। গ্রেপ্তার করা হয় হাজার হাজার বিক্ষোভকারীকে।

বিবিসি জানায়, রোববার রাতে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হওয়ার খবর প্রকাশের পর অনলাইনে অনেক ইরানি আতশবাজি ফাটানোর ভিডিও শেয়ার করা শুরু করেন। যা দেখে মনে হচ্ছিল, প্রেসিডেন্টের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়ার আগেই তারা তার মারা যাওয়ার খুশি উদযাপন করছেন।

অন্য অনেকে অবশ্য যে দুর্গম পার্বত্যাঞ্চলে দুর্ঘটনা ঘটেছে সেখানে চরম বিরূপ আবহাওয়ার মধ্যে উদ্ধারকর্মীদের পৌঁছানোর চেষ্টার প্রশংসা করেছেন।

ইরানে ইসলামিক বিপ্লবের পর কয়েক হাজার ভিন্ন মতাবলম্বীকে বিনাবিচারে হত্যা করা হয়। যে হত্যাকাণ্ডে রাইসি নেতৃত্বের ভূমিকায় ছিলেন। ইরানের বর্তমান ক্ষমতাধররা অবশ্য কখনোই ওই গণহত্যার কথা স্বীকার করেনি। তবে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছে, প্রায় পাঁচ হাজার ইরানি কিংবা হয়তো তার থেকেও বেশি ভিন্ন মতাবলম্বী ইরানিকে ইসলামিক বিপ্লবের পর প্রথম এক দশকে হত্যা করা হয়। যে কারণে, অনেক ইরানি রাইসিকে ঘৃণা করেন।

তবে রাইসির সমর্থকরা বলেন, তিনি সুবিধাবঞ্চিত এবং গরীবদের প্রেসিডেন্ট। রাইসির আমলে বিচারবিভাগে বেশ কিছু সংস্কার করা হয়। যার ফলে দীর্ঘদিন ধরে আদালতে চলতে থাকা অনেক মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুযোগ তৈরি হয়। এছাড়া, রাইসির আমলে বেশ কয়েকজন ইরানি কর্মকর্তার পরিবার ও স্বজনদের দুর্নীতি ও ঘুষ গ্রহণের দায়ে গ্রেপ্তার করা হয়।

ছবি

পশ্চিমবঙ্গে রেল দুর্ঘটনায় নিহত ৮, আহত ৫০

ছবি

ক্যান্সার চিকিৎসার পর প্রথমবার জনসমক্ষে কেট মিডলটন

ছবি

যুদ্ধ বন্ধে ইউক্রেনকে যে শর্ত দিলেন পুতিন

ছবি

লেবাননে ইসরায়েলের বিমান হামলা

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পেট্রো-ডলার চুক্তি নবায়ন করবে না সৌদি, বৈশ্বিক অর্থনীতির বাঁকবদল

ছবি

ঈদের আগে পেট্রোলের দাম কমালেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

ছবি

ফের গাজার ভাসমান বন্দর সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

গাজাকে বসবাসের অযোগ্য করে ফেলা হয়েছে : ইউএনআরডব্লিউএ

ছবি

দুবাইয়ে টেকসই ফ্যাশন শো অনুষ্ঠানে কনসালটেন্ট জেনারেল

ছবি

সারাবিশ্বে ১২ কোটি মানুষ জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হয়েছে : জাতিসংঘ

ছবি

গাজায় ৫ বছরের কম বয়সী ৮ হাজার শিশু তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে

ছবি

গাজায় বিপুল হত্যাযজ্ঞ মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের সামিল: জাতিসংঘ

ছবি

মায়ানমারের অর্থনৈতিক বিপর্যয়: গৃহযুদ্ধ ও দারিদ্র্যের গভীরতা

ছবি

কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ৩৯

ছবি

হজের সময় এবার মক্কায় থাকতে পারে প্রচণ্ড গরম

ছবি

ভারতের জম্মু-কাশ্মিরে সেনা ঘাঁটিতে হামলা, চলছে গোলাগুলি

ছবি

ঝাঁকুনিতে আহত যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স

ছবি

গাজায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে হামাসের ইতিবাচক অবস্থান

ছবি

মালাবির ভাইস প্রেসিডেন্ট বহনকারী বিমানের কেউ বেঁচে নেই

ছবি

গাজায় বাইডেনের শান্তি প্রস্তাব প্রশ্নের মুখে

ছবি

মন্ত্রিত্ব নিয়ে মোদীর জোটে অসন্তোষ, উঠলো বৈষম্যের অভিযোগ

ছবি

মোজাম্বিকে সড়ক দুর্ঘটনায় ২২ জন নিহত

ছবি

মালাউইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমান নিখোঁজ

ছবি

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব পাস

ছবি

গাজায় নিহত আরও ২৮৩, প্রাণহানি ছাড়িয়ে গেল ৩৭ হাজার

ছবি

ফ্রান্সে পার্লামেন্ট ভেঙে দিলেন ম্যাক্রোঁ, আগাম নির্বাচনের ঘোষণা

ছবি

গাজা যুদ্ধ : ইসরায়েলের কাছে কয়লা বিক্রি বন্ধ করেছে কলম্বিয়া

ছবি

মোদীর নতুন মেয়াদ বিশ্বে যেসব প্রভাব ফেলতে পারে

ছবি

গাজায় যুদ্ধবিরতির আহ্বান ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁর

ছবি

কলকাতার বাগজোলা খাল থেকে হাড় উদ্ধার

ছবি

ভারত ম্যাচের আগে স্বস্তির খবর পাকিস্তানের

ছবি

টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদির শপথ আজ

ছবি

থাকছেন ৮ হাজার অতিথি, দিল্লিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা

ছবি

শেখ হাসিনা ছাড়াও মোদির শপথে থাকছেন যেসব বিদেশি নেতা

ছবি

সামরিক সহায়তা পাঠাতে দেরি হওয়ায় জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চাইলেন বাইডেন

ছবি

রাশিয়াতে চার ভারতীয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

tab

আন্তর্জাতিক

অনলাইনে প্রয়াত প্রেসিডেন্টকে ‘অপমানকারীদের’ গ্রেপ্তারের নির্দেশ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

প্রয়াত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসকে ‘অপমান করে’ অনলাইনে মন্তব্য, ছবি বা ভিডিও পোস্ট করা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন ইরানের প্রসিকিউটর জেনারেল মোহাম্মদ কাজেম মোবাহহেদি আজাদ।

সোমবার প্রেসিডেন্ট রাইসির নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত হওয়ার পরপরই প্রসিকিউটর জেনারেল আজাদ অনলাইনে রাইসকে ‘অপমানকারীদের’ গ্রেপ্তার করার কথা বলেন বলে জানায় বিবিসি।

গত রোববার হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দোল্লাহিয়ানসহ তাদের সঙ্গে থাকা মোট নয়জন।

সেদিন তারা আজারবাইজান সীমান্তবর্তী এলাকায় আরাস নদীর ওপর একটি বাঁধ প্রকল্প উদ্বোধনের পর উত্তর-পূর্বাঞ্চলের শহর তাবরিজে ফিরছিলেন। ঘন কুয়াশার মধ্যে হেলিকপ্টারটি পার্বত্যাঞ্চলে দুর্ঘটনায় পড়ে বলে জানান ইরানি কর্মকর্তারা। দুর্ঘটনাস্থল থেকে সোমবার মৃতদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।

রাইসির মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়ার পরপরই কট্টোর ইসলামিক সরকারপন্থি ইরানিরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের শোক প্রকাশ করা শুরু করেন।

অন্যদিকে, ভিন্ন মতাবলম্বীরা ইরানে ইসলামিক বিপ্লবের পর ১৯৮০-র দশকে কয়েক হাজার রাজনৈতিক কারাবন্দিকে হত্যার ঘটনায় রাইসির সংশ্লিষ্টতাকে তুলে ধরেন। কেউ কেউ রাইসির আমলে ইরানজুড়ে ছড়িয়ে পড়া হিজাব বিরোধী আন্দোলনে যেভাবে নিপীড়নের মাধ্যমে ইরান সরকার আন্দোলন দমন করে সে কথা তুলে ধরে তার মৃত্যুতে খুশি প্রকাশ করেছেন।

২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে তেহরানে নীতি পুলিশের হেফাজতে কুর্দি তরুণী মাশা আমিনির মৃত্যু ঘিরে ইরানে হিজাব বিরোধী আন্দোলন গড়ে উঠেছিল। যে আন্দোলনের নেতৃত্বে ছিলেন নারীরা। হিজাব বিরোধী ওই আন্দোলন একসময় ইরানের কট্টোরপন্থি ইসলামিক শাসকদের বিরুদ্ধে এবং তাদের পতনের দাবিতে গণআন্দোলনে পরিণত হয়। যে আন্দোলন ১৯৭৯ সালের বিপ্লবের পর দেশটিতে সবচেয়ে বড় গণআন্দোলনে পরিণত হয়েছিল। কয়েক মাস ধরে সরকার পতনের দাবিতে ইরান জুড়ে ওই আন্দোলন চললেও শেষ পর্যন্ত রাইসি সরকারের কঠোর দমন-পীড়নে মাঝপথেই রণেভঙ্গ দিতে হয় আন্দোলনকারীদের। কয়েকশ বিক্ষোভকারী নিহত হন বলে জানায় নানা মানবাধিকার সংগঠন। গ্রেপ্তার করা হয় হাজার হাজার বিক্ষোভকারীকে।

বিবিসি জানায়, রোববার রাতে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হওয়ার খবর প্রকাশের পর অনলাইনে অনেক ইরানি আতশবাজি ফাটানোর ভিডিও শেয়ার করা শুরু করেন। যা দেখে মনে হচ্ছিল, প্রেসিডেন্টের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়ার আগেই তারা তার মারা যাওয়ার খুশি উদযাপন করছেন।

অন্য অনেকে অবশ্য যে দুর্গম পার্বত্যাঞ্চলে দুর্ঘটনা ঘটেছে সেখানে চরম বিরূপ আবহাওয়ার মধ্যে উদ্ধারকর্মীদের পৌঁছানোর চেষ্টার প্রশংসা করেছেন।

ইরানে ইসলামিক বিপ্লবের পর কয়েক হাজার ভিন্ন মতাবলম্বীকে বিনাবিচারে হত্যা করা হয়। যে হত্যাকাণ্ডে রাইসি নেতৃত্বের ভূমিকায় ছিলেন। ইরানের বর্তমান ক্ষমতাধররা অবশ্য কখনোই ওই গণহত্যার কথা স্বীকার করেনি। তবে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছে, প্রায় পাঁচ হাজার ইরানি কিংবা হয়তো তার থেকেও বেশি ভিন্ন মতাবলম্বী ইরানিকে ইসলামিক বিপ্লবের পর প্রথম এক দশকে হত্যা করা হয়। যে কারণে, অনেক ইরানি রাইসিকে ঘৃণা করেন।

তবে রাইসির সমর্থকরা বলেন, তিনি সুবিধাবঞ্চিত এবং গরীবদের প্রেসিডেন্ট। রাইসির আমলে বিচারবিভাগে বেশ কিছু সংস্কার করা হয়। যার ফলে দীর্ঘদিন ধরে আদালতে চলতে থাকা অনেক মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুযোগ তৈরি হয়। এছাড়া, রাইসির আমলে বেশ কয়েকজন ইরানি কর্মকর্তার পরিবার ও স্বজনদের দুর্নীতি ও ঘুষ গ্রহণের দায়ে গ্রেপ্তার করা হয়।

back to top