alt

আন্তর্জাতিক

পাপুয়া নিউ গিনির ভূমিধসে ‘চাপা: ২ হাজারেরও বেশি’

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : সোমবার, ২৭ মে ২০২৪

পাপুয়া নিউ গিনির ব্যাপক ভূমিধসের ঘটনায় দেশটির জাতীয় দুর্যোগ কেন্দ্র সম্ভাব্য চাপা পড়া মানুষের সংখ্যা ২০০০ বলে জাতিসংঘকে পাঠানো এক চিঠিতে জানিয়েছে। চিঠিটি সোমবার প্রকাশিত হলেও তাতে রোববারের তারিখ দেওয়া আছে। খবর-রয়টার্স

দেশটির সরকার জানিয়েছে, অপ্রত্যাশিত বিপদের ঝুঁকিতে ভরা বন্ধুর ভূমিরূপের কারণে এলাকাটিতে প্রয়োজনীয় সহায়তা পাঠানো কঠিন হয়ে আছে, এতে জীবিতদের খুঁজে না পাওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যাচ্ছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) সম্ভাব্য মৃতের সংখ্যা আরও অনেক কম, ৬৭০ জনের মতো হতে পারে বলে জানিয়েছিল।

এসব ভিন্নতায় এলাকাটির দূরবর্তীতা ও সেখানকার প্রকৃত জনসংখ্যার হিসাব পাওয়ার জটিলতাই প্রতিফলিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। পাপুয়া নিউ গিনির শেষ বিশ্বাসযোগ্য আদমশুমারি অনুযায়ী, ওই এলাকার বিচ্ছিন্ন পার্বত্য গ্রামগুলোতে অনেক মানুষ বসবাস করে।

শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোররাত ৩টার দিকে ভূমিধসের ঘটনাটি ঘটে। তখন ওই গ্রামগুলোর অধিকাংশ মানুষই ঘুমিয়ে ছিলেন। ভূমিধসে ইয়াম্বলি গ্রামটি পুরোপুরি চাপা পড়েছে। এখানে প্রায় দোতালা সমান উঁচু মাটি ও আবর্জনার নিচে ১৫০টিরও বেশি বাড়ি চাপা পড়েছে।

উদ্ধারকর্মীরা স্থানীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তারা মাটির নিচে থেকে আসা আর্তনাদের আওয়াজ পেয়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা এভিট কাম্বু রয়টার্সকে বলেন, “যেখানে আমি দাঁড়িয়ে আছি এখানে এই মাটি ও আবর্জনার নিচে চাপা পড়ে আছে আমার পরিবারের ১৮ জন সদস্য আর এই গ্রামের আরও বহু পরিবারের সদস্যরা, আমি গুণতে পারছি না। আমি এসব মৃতদেহ তুলতে পারছি না তাই অসহায়ের মতো এখানে দাঁড়িয়ে আছি।”

ঘটনার পর তিন দিন পেছে, কিন্তু এখনও কোদাল, লাঠি ও খালি হাতে উদ্ধারকাজ চালানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এভাবেই রাশি রাশি মাটি ও আবর্জনা সরিয়ে জীবিতদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন উদ্ধার প্রচেষ্টায় নিয়োজিতরা।

এ পরিস্থিতির মধ্যেই কাছেই দুই স্থানীয় জাতিগোষ্ঠীর ভেতরে লড়াই চলছে। নিরাপত্তাজনিত কারণে সেনা পাহারায় একটি বহরে থাকা উদ্ধারকারীদের দল তাদের ভারী যন্ত্রপাতিসহ প্রায় ৬০ কিলোমিটার দূরে প্রাদেশিক রাজধানীতে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে।

জাতিসংঘের সংস্থার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এসব লড়াইয়ে শনিবার আটজন নিহত হয়েছেন ও ৩০টি বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সোমবার ধোঁয়া উঠতে থাকা ওইসব বাড়ির পাশ দিয়ে ত্রাণবাহী একটি গাড়িবহর পার হয়েছে।

এর আগে রোববার রাতে ঘটনাস্থলে প্রথম এক্সকাভেটর পৌঁছতে সক্ষম হয়। তারপর থেকে মাত্র ছয়টি মৃতদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বলে এক জাতিসংঘ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

ছবি

পশ্চিমবঙ্গে রেল দুর্ঘটনায় নিহত ৬, আহত ৫০

ছবি

ক্যান্সার চিকিৎসার পর প্রথমবার জনসমক্ষে কেট মিডলটন

ছবি

যুদ্ধ বন্ধে ইউক্রেনকে যে শর্ত দিলেন পুতিন

ছবি

লেবাননে ইসরায়েলের বিমান হামলা

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পেট্রো-ডলার চুক্তি নবায়ন করবে না সৌদি, বৈশ্বিক অর্থনীতির বাঁকবদল

ছবি

ঈদের আগে পেট্রোলের দাম কমালেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

ছবি

ফের গাজার ভাসমান বন্দর সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

গাজাকে বসবাসের অযোগ্য করে ফেলা হয়েছে : ইউএনআরডব্লিউএ

ছবি

দুবাইয়ে টেকসই ফ্যাশন শো অনুষ্ঠানে কনসালটেন্ট জেনারেল

ছবি

সারাবিশ্বে ১২ কোটি মানুষ জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হয়েছে : জাতিসংঘ

ছবি

গাজায় ৫ বছরের কম বয়সী ৮ হাজার শিশু তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে

ছবি

গাজায় বিপুল হত্যাযজ্ঞ মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের সামিল: জাতিসংঘ

ছবি

মায়ানমারের অর্থনৈতিক বিপর্যয়: গৃহযুদ্ধ ও দারিদ্র্যের গভীরতা

ছবি

কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ৩৯

ছবি

হজের সময় এবার মক্কায় থাকতে পারে প্রচণ্ড গরম

ছবি

ভারতের জম্মু-কাশ্মিরে সেনা ঘাঁটিতে হামলা, চলছে গোলাগুলি

ছবি

ঝাঁকুনিতে আহত যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স

ছবি

গাজায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে হামাসের ইতিবাচক অবস্থান

ছবি

মালাবির ভাইস প্রেসিডেন্ট বহনকারী বিমানের কেউ বেঁচে নেই

ছবি

গাজায় বাইডেনের শান্তি প্রস্তাব প্রশ্নের মুখে

ছবি

মন্ত্রিত্ব নিয়ে মোদীর জোটে অসন্তোষ, উঠলো বৈষম্যের অভিযোগ

ছবি

মোজাম্বিকে সড়ক দুর্ঘটনায় ২২ জন নিহত

ছবি

মালাউইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমান নিখোঁজ

ছবি

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব পাস

ছবি

গাজায় নিহত আরও ২৮৩, প্রাণহানি ছাড়িয়ে গেল ৩৭ হাজার

ছবি

ফ্রান্সে পার্লামেন্ট ভেঙে দিলেন ম্যাক্রোঁ, আগাম নির্বাচনের ঘোষণা

ছবি

গাজা যুদ্ধ : ইসরায়েলের কাছে কয়লা বিক্রি বন্ধ করেছে কলম্বিয়া

ছবি

মোদীর নতুন মেয়াদ বিশ্বে যেসব প্রভাব ফেলতে পারে

ছবি

গাজায় যুদ্ধবিরতির আহ্বান ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁর

ছবি

কলকাতার বাগজোলা খাল থেকে হাড় উদ্ধার

ছবি

ভারত ম্যাচের আগে স্বস্তির খবর পাকিস্তানের

ছবি

টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদির শপথ আজ

ছবি

থাকছেন ৮ হাজার অতিথি, দিল্লিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা

ছবি

শেখ হাসিনা ছাড়াও মোদির শপথে থাকছেন যেসব বিদেশি নেতা

ছবি

সামরিক সহায়তা পাঠাতে দেরি হওয়ায় জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চাইলেন বাইডেন

ছবি

রাশিয়াতে চার ভারতীয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

tab

আন্তর্জাতিক

পাপুয়া নিউ গিনির ভূমিধসে ‘চাপা: ২ হাজারেরও বেশি’

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

সোমবার, ২৭ মে ২০২৪

পাপুয়া নিউ গিনির ব্যাপক ভূমিধসের ঘটনায় দেশটির জাতীয় দুর্যোগ কেন্দ্র সম্ভাব্য চাপা পড়া মানুষের সংখ্যা ২০০০ বলে জাতিসংঘকে পাঠানো এক চিঠিতে জানিয়েছে। চিঠিটি সোমবার প্রকাশিত হলেও তাতে রোববারের তারিখ দেওয়া আছে। খবর-রয়টার্স

দেশটির সরকার জানিয়েছে, অপ্রত্যাশিত বিপদের ঝুঁকিতে ভরা বন্ধুর ভূমিরূপের কারণে এলাকাটিতে প্রয়োজনীয় সহায়তা পাঠানো কঠিন হয়ে আছে, এতে জীবিতদের খুঁজে না পাওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যাচ্ছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) সম্ভাব্য মৃতের সংখ্যা আরও অনেক কম, ৬৭০ জনের মতো হতে পারে বলে জানিয়েছিল।

এসব ভিন্নতায় এলাকাটির দূরবর্তীতা ও সেখানকার প্রকৃত জনসংখ্যার হিসাব পাওয়ার জটিলতাই প্রতিফলিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। পাপুয়া নিউ গিনির শেষ বিশ্বাসযোগ্য আদমশুমারি অনুযায়ী, ওই এলাকার বিচ্ছিন্ন পার্বত্য গ্রামগুলোতে অনেক মানুষ বসবাস করে।

শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোররাত ৩টার দিকে ভূমিধসের ঘটনাটি ঘটে। তখন ওই গ্রামগুলোর অধিকাংশ মানুষই ঘুমিয়ে ছিলেন। ভূমিধসে ইয়াম্বলি গ্রামটি পুরোপুরি চাপা পড়েছে। এখানে প্রায় দোতালা সমান উঁচু মাটি ও আবর্জনার নিচে ১৫০টিরও বেশি বাড়ি চাপা পড়েছে।

উদ্ধারকর্মীরা স্থানীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তারা মাটির নিচে থেকে আসা আর্তনাদের আওয়াজ পেয়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা এভিট কাম্বু রয়টার্সকে বলেন, “যেখানে আমি দাঁড়িয়ে আছি এখানে এই মাটি ও আবর্জনার নিচে চাপা পড়ে আছে আমার পরিবারের ১৮ জন সদস্য আর এই গ্রামের আরও বহু পরিবারের সদস্যরা, আমি গুণতে পারছি না। আমি এসব মৃতদেহ তুলতে পারছি না তাই অসহায়ের মতো এখানে দাঁড়িয়ে আছি।”

ঘটনার পর তিন দিন পেছে, কিন্তু এখনও কোদাল, লাঠি ও খালি হাতে উদ্ধারকাজ চালানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এভাবেই রাশি রাশি মাটি ও আবর্জনা সরিয়ে জীবিতদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন উদ্ধার প্রচেষ্টায় নিয়োজিতরা।

এ পরিস্থিতির মধ্যেই কাছেই দুই স্থানীয় জাতিগোষ্ঠীর ভেতরে লড়াই চলছে। নিরাপত্তাজনিত কারণে সেনা পাহারায় একটি বহরে থাকা উদ্ধারকারীদের দল তাদের ভারী যন্ত্রপাতিসহ প্রায় ৬০ কিলোমিটার দূরে প্রাদেশিক রাজধানীতে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে।

জাতিসংঘের সংস্থার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এসব লড়াইয়ে শনিবার আটজন নিহত হয়েছেন ও ৩০টি বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সোমবার ধোঁয়া উঠতে থাকা ওইসব বাড়ির পাশ দিয়ে ত্রাণবাহী একটি গাড়িবহর পার হয়েছে।

এর আগে রোববার রাতে ঘটনাস্থলে প্রথম এক্সকাভেটর পৌঁছতে সক্ষম হয়। তারপর থেকে মাত্র ছয়টি মৃতদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বলে এক জাতিসংঘ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

back to top