alt

আন্তর্জাতিক

বিভাজনের প্রচারই কী গড়ে দিলো ব্যাবধান

দীপক মুখার্জী, কলকাতা : রোববার, ০২ মে ২০২১
image

কংগ্রেসের দুই ঘাঁটিতে চমকে দেয়ার মত ফল। মুর্শিদাবাদ ও মালদার ফলাফল দেখলেই বোঝা যায় সংখ্যালঘু ভোট একুশের বিধানসভা নির্বাচনে কতটা একাট্রা হয়ে তৃণমূলের পক্ষে গিয়েছে। মালদার একটা কেন্দ্র সুজাইপুরে কংগ্রেস কোনোদিন হারেনি । এই আসনে বহুবার বিপুল জয় পেয়েছেন প্রয়াত এবিএ গনি খান চৌধুরী। এবার সেই কেন্দ্রে কংগ্রেস প্রার্থী তৃণমূলের কাছে হেরে গেলেন ১লাখ ৩০ হাজার ভোটের ব্যবধানে।

বিভাজনের রাজনীতির প্রচারে বড় সাফল্য পেয়েছে তৃণমূল। যেমন বাঙালি-অবাঙালি বিভেদের ব্যাপারে তৃণমূল নেত্রীর ‘অভিমত’ বাঙালি ভোটারদের মনে প্রভাব ফেলেছে। বিজেপির ‘এনআরসি’ ইস্যুটি সংখ্যালঘুদের যে বিপদ ডেকে আনবে এই বার্তাটি তৃণমূল ভালো মত ঢুকাতে পেরেছে তাদের মনের মাঝে। তাই সংখ্যালঘুরা তৃণমূলকে এক যোগে ভোট দিয়েছে।

এর পাশাপাশি এই নির্বাচনে বিভিন্ন প্রতশ্রুতি নিশ্চিতভাবে অনেক এগিয়ে দিয়েছে তৃণমূলকে। সেই সঙ্গে নারীদের প্রবল সমর্থন। তৃণমূল ক্ষমতায় আসলে বিধবারা প্রতিমাসে পাবেন এক হাজার টাকা ভাতা, প্রত্যেক গৃহবধূকে হাত খরচের জন্য ৫০০ টাকা এবং তপশিলী জাতি ও উপজাতির ক্ষেত্রে সেটা বেড়ে হবে এক হাজার টাকা। এ ছাড়া কণ্যাশ্রী, রুপশ্রী এ সব কর্মসূচী মেয়েদের আকৃষ্ট করেছে।

সব চেয়ে বেশি আকৃষ্ট করেছে পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেক পরিবারকে স্বাস্থ্যসেবার জন্য এককালীন পাঁচলক্ষ টাকার সুবিধা দিতে ভোটের মুখে সবাইকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড পৌছে দেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পটি বিশেষ করে নারীদের আকৃষ্ট করেছে। এর সাথে আরও অনেকগুলো মাত্রা যোগ হয়ে তৃণমূলকে ২শরও বেশী আসনে জয়লাভ করতে সহায়তা করেছে।

নির্বাচনের আগে নন্দীগ্রামে মমতা বন্দোপাধ্যায় পায়ে গুরুতর আঘাত পান। এর পর দেখা যায় তিনি হুইল চেয়ারে বসে রোডশো, সমাবেশ ও জনসভা করেছেন। পশ্চিমবাংলার অনেকেই তার এই চোটকে সহনুভূতির চোখেই দেখেছেন। বিশেষ করে নারীরা।

নির্বাচনের আগে বিজেপিও তাদের দলীয় ইস্তেহারে প্রচুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। ‘সোনার বাংলা’ গড়ার জন্য কি কি করবেন তারা, সেই সমস্ত বিষয় বহুবার তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তবে ভোটের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে মানুষ ভরসা রেখেছেন এতদিন ধরে যেগুলি পেয়ে এসেছেন তার ওপরেই। অর্থাৎ চেনা নেতৃত্বকেই ধরে রেখেছে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ। আর সেখানই বাজিমাত করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ছবি

শিয়া তরুণের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করলো সৌদি আবর

ছবি

ভারতে ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে আক্রান্ত, কমেছে মৃত্যু

ছবি

সোমালিয়ায় আত্মঘাতী বোমা হামলা, নিহত ১৫

ছবি

বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত আবারও বেড়েছে

ছবি

দ্রুত ছড়াচ্ছে ডেল্টা ধরন, ৭৪ দেশে শনাক্ত

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ‘বঙ্গবন্ধু লাউঞ্জ’ উদ্বোধন

ছবি

সু চির বিচার শুরু হচ্ছে আজ

ছবি

সোমালিয়ায় সেনা অভিযানে ৫০ আল-শাবাব জঙ্গি নিহত

ছবি

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেনেটের শপথ

ছবি

আক্রান্ত বেড়ে ১৭ কোটি ৬৭ লাখ

ছবি

ভারতে দুই মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন করোনা শনাক্ত

ছবি

মৃত্যু ৩৮ লাখ ১০ হাজার ছাড়াল

ছবি

নাইজেরিয়ায় বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ৫৩

ছবি

যে কারণে জনসনের ৬ কোটি করোনা টিকা ফেলে দিতে হবে

ছবি

চার বছর পর বিজেপি ছেড়ে ফের তৃণমূলে পুত্রসহ মুকুল রায়

ছবি

দুর্ভিক্ষের কবলে ইথিওপিয়ার উত্তরাঞ্চল

ছবি

ফাইজার, মডার্নার করোনার টিকায় তরুণদের হৃদযন্ত্রে প্রদাহ: সিডিসি

ছবি

দরিদ্র দেশগুলোকে ১০০ কোটি ডোজ টিকা দেবে জি-৭, আশা জনসনের

ছবি

ভারতে করোনায় একদিনে ৩৪০৩ জনের মৃত্যু

ছবি

মালালাকে হত্যার হুমকি, পাকিস্তানে ধর্মীয় নেতাকে গ্রেপ্তার

ছবি

ব্রাজিলিয়ানদের ‘জঙ্গল’ ডেকে বিপাকে আর্জেন্টাইন প্রেসিডেন্ট

ছবি

মুম্বাইয়ে ভবন ধসে ১১ জনের মৃত্যু

ছবি

মিয়ানমারে সামরিক বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ১২

ছবি

সব রেকর্ড ছাড়িয়ে একদিনে ৬ হাজারের বেশি মৃত্যু ভারতে

ছবি

ডায়ানার সাক্ষাৎকার বিতর্ক : ঘটনা ও তদন্ত

ছবি

৮০ শতাংশ মানুষকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে টিকা দেবে ইতালি

ছবি

কানাডা-যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তের বিধিনিষেধ নিয়ে সিদ্ধান্ত শুক্রবার

ছবি

আমদানি-রপ্তানি শুরুর ব্যবস্থা নিতে দাবি দু’দেশের ব্যবসায়ীদের

ছবি

একদিনেই মৃত সাড়ে ১০ হাজার

ছবি

উত্তরপ্রদেশে বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ১৭

ছবি

ভারতে ৬৬ দিন পর সর্বনিম্ন শনাক্ত, মৃত্যু ছাড়াল সাড়ে ৩ লাখ

ছবি

ভারতে নাগরিকত্ব প্রশ্নে দীর্ঘমেয়াদি ভিসা, দ্বন্দ্বে আসাম সরকার

ছবি

ফের বিশ্বে করোনায় বেড়েছে মৃত্যু

ছবি

কানাডায় ট্রাক চাপায় মুসলিম পরিবারের ৪ জনকে হত্যা

ছবি

মহারাষ্ট্রে স্যানিটাইজার কারখানায় ভয়াবহ আগুন, নিহত ১৭

পূর্ব মিয়ানমারের গ্রামগুলো ফাঁকা, ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে জঙ্গলে!

tab

আন্তর্জাতিক

বিভাজনের প্রচারই কী গড়ে দিলো ব্যাবধান

দীপক মুখার্জী, কলকাতা
image

রোববার, ০২ মে ২০২১

কংগ্রেসের দুই ঘাঁটিতে চমকে দেয়ার মত ফল। মুর্শিদাবাদ ও মালদার ফলাফল দেখলেই বোঝা যায় সংখ্যালঘু ভোট একুশের বিধানসভা নির্বাচনে কতটা একাট্রা হয়ে তৃণমূলের পক্ষে গিয়েছে। মালদার একটা কেন্দ্র সুজাইপুরে কংগ্রেস কোনোদিন হারেনি । এই আসনে বহুবার বিপুল জয় পেয়েছেন প্রয়াত এবিএ গনি খান চৌধুরী। এবার সেই কেন্দ্রে কংগ্রেস প্রার্থী তৃণমূলের কাছে হেরে গেলেন ১লাখ ৩০ হাজার ভোটের ব্যবধানে।

বিভাজনের রাজনীতির প্রচারে বড় সাফল্য পেয়েছে তৃণমূল। যেমন বাঙালি-অবাঙালি বিভেদের ব্যাপারে তৃণমূল নেত্রীর ‘অভিমত’ বাঙালি ভোটারদের মনে প্রভাব ফেলেছে। বিজেপির ‘এনআরসি’ ইস্যুটি সংখ্যালঘুদের যে বিপদ ডেকে আনবে এই বার্তাটি তৃণমূল ভালো মত ঢুকাতে পেরেছে তাদের মনের মাঝে। তাই সংখ্যালঘুরা তৃণমূলকে এক যোগে ভোট দিয়েছে।

এর পাশাপাশি এই নির্বাচনে বিভিন্ন প্রতশ্রুতি নিশ্চিতভাবে অনেক এগিয়ে দিয়েছে তৃণমূলকে। সেই সঙ্গে নারীদের প্রবল সমর্থন। তৃণমূল ক্ষমতায় আসলে বিধবারা প্রতিমাসে পাবেন এক হাজার টাকা ভাতা, প্রত্যেক গৃহবধূকে হাত খরচের জন্য ৫০০ টাকা এবং তপশিলী জাতি ও উপজাতির ক্ষেত্রে সেটা বেড়ে হবে এক হাজার টাকা। এ ছাড়া কণ্যাশ্রী, রুপশ্রী এ সব কর্মসূচী মেয়েদের আকৃষ্ট করেছে।

সব চেয়ে বেশি আকৃষ্ট করেছে পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেক পরিবারকে স্বাস্থ্যসেবার জন্য এককালীন পাঁচলক্ষ টাকার সুবিধা দিতে ভোটের মুখে সবাইকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড পৌছে দেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পটি বিশেষ করে নারীদের আকৃষ্ট করেছে। এর সাথে আরও অনেকগুলো মাত্রা যোগ হয়ে তৃণমূলকে ২শরও বেশী আসনে জয়লাভ করতে সহায়তা করেছে।

নির্বাচনের আগে নন্দীগ্রামে মমতা বন্দোপাধ্যায় পায়ে গুরুতর আঘাত পান। এর পর দেখা যায় তিনি হুইল চেয়ারে বসে রোডশো, সমাবেশ ও জনসভা করেছেন। পশ্চিমবাংলার অনেকেই তার এই চোটকে সহনুভূতির চোখেই দেখেছেন। বিশেষ করে নারীরা।

নির্বাচনের আগে বিজেপিও তাদের দলীয় ইস্তেহারে প্রচুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। ‘সোনার বাংলা’ গড়ার জন্য কি কি করবেন তারা, সেই সমস্ত বিষয় বহুবার তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তবে ভোটের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে মানুষ ভরসা রেখেছেন এতদিন ধরে যেগুলি পেয়ে এসেছেন তার ওপরেই। অর্থাৎ চেনা নেতৃত্বকেই ধরে রেখেছে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ। আর সেখানই বাজিমাত করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

back to top