alt

আন্তর্জাতিক

দুই মেয়েকে বিক্রির পর নিজের কিডনিও বেচে দিলেন মা

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২

মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। নেই কোনো কাজ। তাতে দশ জনের পরিবারের খাবার মিলছে না। আর তাই বাধ্য হয়েই দুই মেয়েকে বিক্রি করে দেন আফগান মা। তবে এতেও সমস্যার সমাধান হয়নি। এ কারণে নিজের কিডনিও বিক্রি করে দিয়েছেন তিনি। ঘটনাটি আফগানিস্তানের।

চার বছর আগে দেশটির বাদঘিস প্রদেশের পারিবারিক বাড়ি ছেড়ে হেরাত শহরের একটি বস্তিতে বাস করছেন দেলরাম রহমতি। নেই কোনো কাজ। আট ছেলেমেয়ের মুখে খাবার জোটাতে দিশেহারা অবস্থা ৫০ বছর বয়সী রহমতির। এছাড়া অসুস্থ দুই ছেলের চিকিৎসা এবং তার স্বামীর ওষুধের খরচ দিতে হয়।

তিনি বলেন, আমি আট ও ছয় বছর বয়সী দুই মেয়েকে বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছি। কয়েক মাস আগে অপরিচিত মানুষের কাছে এক লাখ আফগান মুদ্রায় (প্রায় সাতশ’ পাউন্ড) মেয়েদের বিক্রি করেছেন তিনি। এক জন আট আর অন্যটার বয়স ছয়।

মেয়েদের বিক্রি করাই রহমতির একমাত্র যন্ত্রণাদায়ক সিদ্ধান্ত নয়, ঋণ ও ক্ষুধার তাড়নায় তাকে তার কিডনিও বিক্রি করতে হয়েছে। সে অস্ত্রোপচারের পর থেকে নিজেও অসুস্থ। কিন্তু চিকিৎসা করানোর জন্য অর্থ নেই তার হাতে।

রহমতি বলেন, মেয়েদের ভবিষ্যৎ বিক্রি করাটা যন্ত্রণার। তবে ঋণের বোঝা নামাতে আর খিদের জ্বালায় আমার কিডনিও বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছি। আমি ভীষণ অসুস্থ। এমনকি আমি হাঁটতে পারি না। কারণ, ক্ষত সংক্রমিত হয়েছে। এটি অত্যন্ত পীড়াদায়ক।

সাম্প্রতিককালের সবচেয়ে সঙ্কটময় পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে আফগানিস্তান। গত বছর তালেবান ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তানের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। অতিমারি ও খরার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন দেশের বহু মানুষ। বেড়েছে মুদ্রাস্ফীতি। বিপাকে পড়েছেন রহমতিরা।

নিজেদের কিডনি বিক্রি করাই রহমতিদের কাছে অর্থ উপার্জনের অন্যতম পথ হয়ে দাঁড়িয়েছে। রহমতি বলেন, এখনো ঠিক মতো হাঁটতে পারি না। শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। আমার ক্ষতের ঘা শুকোয়নি। হাসপাতাল থেকে চলে আসতে হয়েছে। তবে নিজের মরণ ভালো। কিন্তু সন্তানদের খিদের জ্বালায় কাতরাতে সহ্য করতে পারি না।

ছবি

যুদ্ধাপরাধ: ইউক্রেনে রুশ সৈন্যের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ছবি

ফিলিপাইনে যাত্রীবাহী ফেরিতে অগ্নিকাণ্ডে ৭ জনের মৃত্যু

ছবি

মাঙ্কিপক্স: বেলজিয়ামে ২১ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন

ছবি

ইউক্রেইন কোনো ছাড় বা যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব মানবে না

ছবি

বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৬৩ লাখ ছাড়াল

ছবি

কানাডায় ঝড়ে ৮ জনের মৃত্যু, লাখো মানুষ বিদ্যুৎহীন

ছবি

ডব্লিউএইচওর সতর্কতা : দ্রুত বিশ্বজুড়ে ছড়াচ্ছে মাঙ্কিপক্স

ছবি

মুখ ঢাকলেন আফগান টিভির নারী উপস্থাপকরা

ছবি

করোনা: ভারতসহ ১৬ দেশে সৌদির ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা

ছবি

সব নারী ক্রু নিয়ে সৌদি আরবে উড়ল প্রথম ফ্লাইট

ছবি

মালদ্বীপে বৈধ হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা

ছবি

ভারতে তরুণীকে গণধর্ষণের মামলায় ১১ বাংলাদেশির কারাদণ্ড

ছবি

ফিনল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করল রাশিয়া

ছবি

রাশিয়ার ‘সস্তার তেল’ চুপিসারে বেশি করে কিনছে চীন

ছবি

মাঙ্কিপক্স নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বসছে জরুরি বৈঠকে

ছবি

মারিউপোলে পূর্ণ বিজয় ঘোষণা রাশিয়ার

ছবি

তরুণীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ অস্বীকার করলেন মাস্ক

ছবি

লবণ পানি, আদা দিয়ে করোনা মোকাবেলা করছে উত্তর কোরিয়া

ছবি

জর্ডানে প্রিন্স হামজার গতিবিধি সীমিত করছেন বাদশা

ছবি

দেশের ক্ষতি করে খাদ্যপণ্য রপ্তানি করবে না রাশিয়া

ছবি

রাশিয়ার হামলায় ‘নরকে’ পরিণত হয়েছে ডনবাস: জেলেনস্কি

ছবি

শ্রীলঙ্কায় আরও ৯ মন্ত্রী নিয়োগ

ছবি

দীর্ঘদিন ধরে তীব্র ব্যথা, কিডনি থেকে বের হলো ২০৬টি পাথর

ছবি

২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যু কানাডায়, শনাক্ত উত্তর কোরিয়ায়

ছবি

যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ইউরোপে ছড়িয়ে পড়ছে ‘মাঙ্কিপক্স’

ছবি

পাম তেল রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করছে ইন্দোনেশিয়া

ছবি

এক জাহাজ পেট্রল কেনার টাকাও নেই শ্রীলঙ্কার

ছবি

‘বিশ্বজুড়ে আসছে দুর্ভিক্ষ, চলতে পারে বছরের পর বছর’

ছবি

তদন্ত ও বিচারের আগে পিকে হালদারকে বাংলাদেশে পাঠানো সম্ভব হবেনা, সিবিআই আইনজীবী

ছবি

ভারতের আসামে বন্যা : ঘরবাড়ি ছেড়েছে ৫ লাখ মানুষ, ৭ মত্যু

ছবি

শান্তি আলোচনা স্থবির, পরস্পরকে দুষছে রাশিয়া-ইউক্রেন

ছবি

করোনা মোকাবিলায় কর্মকর্তাদের অপরিপক্কতার তীব্র সমালোচনা কিমের

ছবি

দৈনিক সংক্রমণের শীর্ষে উ. কোরিয়া, বিশ্বে মৃত্যু আরও দেড় হাজার

ছবি

রুশভীতিতে সামরিক প্রশিক্ষণ নিচ্ছে ফিনল্যান্ডের মানুষ

ছবি

পি কে হালদার ও ৩ জনের আরও ১০দিনের রিমান্ড

ছবি

পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ বিলুপ্ত করল তালেবান

tab

আন্তর্জাতিক

দুই মেয়েকে বিক্রির পর নিজের কিডনিও বেচে দিলেন মা

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২

মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। নেই কোনো কাজ। তাতে দশ জনের পরিবারের খাবার মিলছে না। আর তাই বাধ্য হয়েই দুই মেয়েকে বিক্রি করে দেন আফগান মা। তবে এতেও সমস্যার সমাধান হয়নি। এ কারণে নিজের কিডনিও বিক্রি করে দিয়েছেন তিনি। ঘটনাটি আফগানিস্তানের।

চার বছর আগে দেশটির বাদঘিস প্রদেশের পারিবারিক বাড়ি ছেড়ে হেরাত শহরের একটি বস্তিতে বাস করছেন দেলরাম রহমতি। নেই কোনো কাজ। আট ছেলেমেয়ের মুখে খাবার জোটাতে দিশেহারা অবস্থা ৫০ বছর বয়সী রহমতির। এছাড়া অসুস্থ দুই ছেলের চিকিৎসা এবং তার স্বামীর ওষুধের খরচ দিতে হয়।

তিনি বলেন, আমি আট ও ছয় বছর বয়সী দুই মেয়েকে বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছি। কয়েক মাস আগে অপরিচিত মানুষের কাছে এক লাখ আফগান মুদ্রায় (প্রায় সাতশ’ পাউন্ড) মেয়েদের বিক্রি করেছেন তিনি। এক জন আট আর অন্যটার বয়স ছয়।

মেয়েদের বিক্রি করাই রহমতির একমাত্র যন্ত্রণাদায়ক সিদ্ধান্ত নয়, ঋণ ও ক্ষুধার তাড়নায় তাকে তার কিডনিও বিক্রি করতে হয়েছে। সে অস্ত্রোপচারের পর থেকে নিজেও অসুস্থ। কিন্তু চিকিৎসা করানোর জন্য অর্থ নেই তার হাতে।

রহমতি বলেন, মেয়েদের ভবিষ্যৎ বিক্রি করাটা যন্ত্রণার। তবে ঋণের বোঝা নামাতে আর খিদের জ্বালায় আমার কিডনিও বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছি। আমি ভীষণ অসুস্থ। এমনকি আমি হাঁটতে পারি না। কারণ, ক্ষত সংক্রমিত হয়েছে। এটি অত্যন্ত পীড়াদায়ক।

সাম্প্রতিককালের সবচেয়ে সঙ্কটময় পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে আফগানিস্তান। গত বছর তালেবান ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তানের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। অতিমারি ও খরার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন দেশের বহু মানুষ। বেড়েছে মুদ্রাস্ফীতি। বিপাকে পড়েছেন রহমতিরা।

নিজেদের কিডনি বিক্রি করাই রহমতিদের কাছে অর্থ উপার্জনের অন্যতম পথ হয়ে দাঁড়িয়েছে। রহমতি বলেন, এখনো ঠিক মতো হাঁটতে পারি না। শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। আমার ক্ষতের ঘা শুকোয়নি। হাসপাতাল থেকে চলে আসতে হয়েছে। তবে নিজের মরণ ভালো। কিন্তু সন্তানদের খিদের জ্বালায় কাতরাতে সহ্য করতে পারি না।

back to top