alt

আন্তর্জাতিক

ডলারের বিকল্প অন্যান্য মুদ্রা কিনে রাখছে রাশিয়া

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২

নিষেধাজ্ঞার কারণে ডলার বা ইউরো কিনতে পারছে না রাশিয়া। এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় বন্ধুপ্রতিম দেশগুলোর মুদ্রায় রিজার্ভ সংরক্ষণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। ফলে তারা চীনা মুদ্রা ইউয়ান, ভারতীয় মুদ্রা রুপি, তুরস্কের মুদ্রা লিরা কিনছে। লক্ষ্য হচ্ছে, এই দেশগুলোর সঙ্গে নিজস্ব মুদ্রাবিনিময়ের মাধ্যমে বাণিজ্য করা।

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলেছে, তারা এখন রুবলের বিনিময়মূল্য বাজারের ওপর ছেড়ে দিচ্ছে। তবে কৃচ্ছ্রসাধনের নীতি জরুরি আবার চালু করা দরকার। কারণ, তারা মনে করছে তেল বিক্রির অতিরিক্ত অর্থ আপৎকালীন তহবিলে রাখা জরুরি।

তবে এসব মুদ্রার বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে সতর্ক বাণী দিয়েছেন। তাঁরা বলেছেন, এসব মুদ্রার প্রাপ্যতা নিয়ে অনিশ্চয়তা যেমন আছে, তেমনি ঝুঁকিও আছে। জুন মাসে তুরস্কের মূল্যস্ফীতি ২৪ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ ৮০ শতাংশে উঠেছে বলে জানিয়েছে তারা।

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রথম ডেপুটি গভর্নর আলেক্সেই জাবোৎকিন শুক্রবার মুদ্রানীতি ঘোষণা করেছেন। তিনি সেদিন বলেন, ইউয়ান-রুবল বাণিজ্যের ক্ষেত্রে তারল্য ইউরো-রুবলের তারল্যের পর্যায়ে চলে গেছে। বছরের প্রথম ছয় মাসে ইউয়ানের গড় দৈনিক লেনদেন ১২ গুণ বেড়েছে।

এর আগে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, চীনের মুদ্রা ইউয়ান দিয়ে রাশিয়ার কাছ থেকে কয়লা কিনছে ভারত। তবে এবার শুধু ইউয়ান নয়; আরব আমিরাতের দিরহাম ও হংকংয়ের ডলার ব্যবহার করে ভারত রাশিয়ার কাছ থেকে কয়লা কিনছে বলে জানা গেছে। ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরই রাশিয়া থেকে তেল ও কয়লা কেনা ব্যাপকভাবে বাড়িয়েছে ভারত। এসব কারণে নিষেধাজ্ঞার আঁচ মস্কোর গায়ে তেমন একটা লাগছে না। বিনিময়ে কাঁচামাল কেনার ক্ষেত্রে ভারতকে অন্যান্য দেশের চেয়ে বেশি ছাড় দিচ্ছে রাশিয়া।

জুন মাসে রাশিয়ার কয়লা কিনতে যে পরিমাণ ডলার-বহির্ভূত মুদ্রা ব্যবহার করা হয়েছে, তার ৩১ শতাংশ ছিল ইউয়ান ও ২৮ শতাংশ ছিল হংকং ডলার। ইউরো ব্যবহার করা হয়েছে ২৫ শতাংশের কম এবং আমিরাতের দিরহাম ব্যবহার করা হয়েছে প্রায় ৬ ভাগের ১ ভাগ।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্য দিয়ে নতুন বিশ্বব্যবস্থা গড়ে ওঠার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে। হার্ড কারেন্সি হিসেবে ডলারের ওপর নির্ভরশীলতা হ্রাস করে নিজস্ব মুদ্রাবিনিময়ের মাধ্যমে ব্যবসা করার চেষ্টা করছে রাশিয়া, চীন, ভারতসহ বেশ কিছু দেশ।

ছবি

ইমরান খানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা, বাড়ি ঘিরে রেখেছে সমর্থকেরা

ছবি

ব্রাজিলের প্রথম রাউন্ডের ভোটেই প্রেসিডেন্ট হয়ে যেতে পারেন লুলা

ছবি

ফ্লোরিডায় ইয়ানের আঘাত; ৬৬ জনের মৃত্যু

ছবি

ই-গেমে ৩৭.৭ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা সৌদি যুবরাজের

ছবি

লিমানে রুশ সেনাদের ঘিরে ফেলেছে ইউক্রেনীয় বাহিনী

ছবি

বেপরোয়া পুতিনকে যুক্তরাষ্ট্র ভয় পায় না: বাইডেন

ছবি

জাতিসংঘে মস্কোবিরোধী নিন্দা প্রস্তাবে ভোট দিল না চীন-ভারত

ছবি

রাশিয়ার ওপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আরও নিষেধাজ্ঞা

ছবি

ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রায় ভূমিকম্পে ১ জনের মৃত্যু

ছবি

হারিকেন ইয়ানের আঘাতে যুক্তরাষ্ট্রে ৪৫ জনের মৃত্যু

ছবি

ইউক্রেনের ৪ অঞ্চল রাশিয়ার, ঘোষণা পুতিনের

ছবি

ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়ায় রুশ ক্ষেপণান্ত্র হামলায় নিহত ২৩

ছবি

হিজাব বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল ইরান, দুই সপ্তাহে নিহত ৮৩

ছবি

হাতিয়ায় দুই জলদস্যু বাহিনীর মধ্যে গোলাগুলি, নিহত ৩

ছবি

রাজধানীতে কিশোর খুন, গ্রেপ্তার ৪ প্রতিবেশী

ছবি

হারিকেন ইয়ানের আঘাতে ১২ জনের মৃত্যু

ছবি

ফ্লোরিডার ইতিহাসে সবচেয়ে মারাত্মক ঘূর্ণিঝড় হতে পারে ইয়ান: বাইডেন

ছবি

সৌদির ক্রাউন প্রিন্স সালমানকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ

মিয়ানমারে ৫ দশমিক ৬ মাত্রার ভূমিকম্প, প্রভাব পড়েছে বাংলাদেশ-ভারতেও

ছবি

পুতিনের ঘোষণায় ইউক্রেনের ৪ অঞ্চল রাশিয়ার হচ্ছে আজ

ছবি

অবিবাহিত নারীদের গর্ভপাতের অধিকার দিলো ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট

ছবি

কেবিন ক্রুদের শালীন পোশাক পড়তে পিআইএ’র নির্দেশনা

ছবি

ফেইসবুককে অবশ্যই রোহিঙ্গাদের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে বলে দাবি : অ্যামনেস্টি

ছবি

মার্কিন নাগরিকদের অবিলম্বে রাশিয়া ত্যাগের আহ্বান

ছবি

মৃত্যু দুঃখজনক, কিন্তু বিশৃঙ্খলা অগ্রহণযোগ্য : ইরানের প্রেসিডেন্ট

ছবি

ভারতের প্রতিরক্ষা বাহিনীর নতুন প্রধান অনিল চৌহান

ছবি

সু চির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড

ছবি

ইরাকের কুর্দি অঞ্চলে ইরানের হামলা, নিহত ১৩

ছবি

রোহিঙ্গাদের ক্ষতিপূরণ দিতে ফেইসবুক-এর প্রতি আহবান জানিয়েছে অ্যামনেস্টি

ছবি

মেক্সিকোতে বন্দুক হামলায় ছয় পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় ইয়ানের তাণ্ডব, ২০ লাখ মানুষ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

ছবি

ইউরোপে গ্যাস সরবরাহের লাইনে ‘বিস্ফোরণ ঘটিয়ে’ ফাটানো হয়েছে

ছবি

ইউক্রেনের ৪ অঞ্চলে গণভোটে জয় দাবি রাশিয়ার

ছবি

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সে মাঝ আকাশে বোমা আতঙ্ক

ছবি

খোলা চুলে বিক্ষোভে সেই টিকটকার পুলিশের গুলিতে নিহত

ছবি

শি জিনপিং সেনা অভ্যুত্থানের গুজব উড়িয়ে প্রকাশ্যে

tab

আন্তর্জাতিক

ডলারের বিকল্প অন্যান্য মুদ্রা কিনে রাখছে রাশিয়া

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২

নিষেধাজ্ঞার কারণে ডলার বা ইউরো কিনতে পারছে না রাশিয়া। এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় বন্ধুপ্রতিম দেশগুলোর মুদ্রায় রিজার্ভ সংরক্ষণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। ফলে তারা চীনা মুদ্রা ইউয়ান, ভারতীয় মুদ্রা রুপি, তুরস্কের মুদ্রা লিরা কিনছে। লক্ষ্য হচ্ছে, এই দেশগুলোর সঙ্গে নিজস্ব মুদ্রাবিনিময়ের মাধ্যমে বাণিজ্য করা।

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলেছে, তারা এখন রুবলের বিনিময়মূল্য বাজারের ওপর ছেড়ে দিচ্ছে। তবে কৃচ্ছ্রসাধনের নীতি জরুরি আবার চালু করা দরকার। কারণ, তারা মনে করছে তেল বিক্রির অতিরিক্ত অর্থ আপৎকালীন তহবিলে রাখা জরুরি।

তবে এসব মুদ্রার বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে সতর্ক বাণী দিয়েছেন। তাঁরা বলেছেন, এসব মুদ্রার প্রাপ্যতা নিয়ে অনিশ্চয়তা যেমন আছে, তেমনি ঝুঁকিও আছে। জুন মাসে তুরস্কের মূল্যস্ফীতি ২৪ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ ৮০ শতাংশে উঠেছে বলে জানিয়েছে তারা।

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রথম ডেপুটি গভর্নর আলেক্সেই জাবোৎকিন শুক্রবার মুদ্রানীতি ঘোষণা করেছেন। তিনি সেদিন বলেন, ইউয়ান-রুবল বাণিজ্যের ক্ষেত্রে তারল্য ইউরো-রুবলের তারল্যের পর্যায়ে চলে গেছে। বছরের প্রথম ছয় মাসে ইউয়ানের গড় দৈনিক লেনদেন ১২ গুণ বেড়েছে।

এর আগে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, চীনের মুদ্রা ইউয়ান দিয়ে রাশিয়ার কাছ থেকে কয়লা কিনছে ভারত। তবে এবার শুধু ইউয়ান নয়; আরব আমিরাতের দিরহাম ও হংকংয়ের ডলার ব্যবহার করে ভারত রাশিয়ার কাছ থেকে কয়লা কিনছে বলে জানা গেছে। ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরই রাশিয়া থেকে তেল ও কয়লা কেনা ব্যাপকভাবে বাড়িয়েছে ভারত। এসব কারণে নিষেধাজ্ঞার আঁচ মস্কোর গায়ে তেমন একটা লাগছে না। বিনিময়ে কাঁচামাল কেনার ক্ষেত্রে ভারতকে অন্যান্য দেশের চেয়ে বেশি ছাড় দিচ্ছে রাশিয়া।

জুন মাসে রাশিয়ার কয়লা কিনতে যে পরিমাণ ডলার-বহির্ভূত মুদ্রা ব্যবহার করা হয়েছে, তার ৩১ শতাংশ ছিল ইউয়ান ও ২৮ শতাংশ ছিল হংকং ডলার। ইউরো ব্যবহার করা হয়েছে ২৫ শতাংশের কম এবং আমিরাতের দিরহাম ব্যবহার করা হয়েছে প্রায় ৬ ভাগের ১ ভাগ।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্য দিয়ে নতুন বিশ্বব্যবস্থা গড়ে ওঠার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে। হার্ড কারেন্সি হিসেবে ডলারের ওপর নির্ভরশীলতা হ্রাস করে নিজস্ব মুদ্রাবিনিময়ের মাধ্যমে ব্যবসা করার চেষ্টা করছে রাশিয়া, চীন, ভারতসহ বেশ কিছু দেশ।

back to top