alt

আন্তর্জাতিক

চীনে বিক্ষোভ বাড়ছেই, সাংহাইতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

করোনাপরিস্থিতি নিয়ে চীনের সাংহাইয়ে কঠোর বিধি নিষেধ আরোপের তৃতীয় দিনে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। বিক্ষোভের এক পর্যায়ে স্থানীয় বাসিন্দারের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। শুধু তাই নয় চীনের অন্যান্য অঞ্চলেও এ বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। খবর আল জাজিরা।

চীনে এ ধরনের বিক্ষোভ হয়েছিল গত এক দশক আগে। তখন চীনের ক্ষমতায় সবেমাত্র শি জিন পিং প্রবেশ করেন। ইউরুকি’র ওই বিক্ষোভে ১০ জন নিহত হয়। এবার নতুন করে করোনার বিধি-নিষেধ নিয়ে আবারও বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

তিন বছর আগে চীনের উহান প্রদেশ থেকে করোনার উৎপত্তি হওয়ার পর নড়েচড়ে বসে চীনের প্রশাসন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যাপক পরীক্ষা চালানো হয়। এছাড়া কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়। লকডাউনের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রদেশের চলাফেরা নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

চীনের সবচেয়ে বড় শহর সাংহাই। গত কয়েকদিন ধরে করোনা পরিস্থিতি আবারও বেড়ে যাওয়ায় এখানে বিধি নিষেধ আরোপ করতে শুরু করে সরকার। যেটি স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া একজন বিক্ষোভকারী বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, “আমি এখানে বিক্ষোভ করতে এসেছি। কারণ আমি আমার দেশকে ভালোবাসি। কিন্তু আমি সরকারকে ভালোবাসি না। আমি স্বাধীনভাবে বাইরে চলাফেরা করতে চাই। কিন্তু সেটি পারছি না। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আমাদের সরকার খেলা খেলছে। যার সঙ্গে বিজ্ঞানের কোনো সম্পর্ক নেই।

রোববার বিকাল থেকে শত শত বিক্ষোভকারীরা জড়ো হতে শুরু করে। বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রণে আগে থেকেই এখানে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এ সময় বিক্ষোভকারীদের হাতে সাদা কাগজ দেখা যায়। যা নিয়ে তারা প্রতিবাদ জানায়।

এদিকে বিক্ষোভের নিউজ সংগ্রহ করতে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হন বিবিসির একজন সাংবাদিক। পরে তাকে কয়েক ঘণ্টা আটকে রাখার পর ছেড়ে দেওয়া হয়।

বিবিসিও বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে। আটককৃত ওই সাংবাদিকের নাম ইডি লরেন্স। সাংহাইতে খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে তিনি পুলিশের হাতে আটক হন। এ সময় পুলিশ তাকে হাতকড়া পড়িয়ে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে তাকে ছেড়ে দেওয়া হলেও পুলিশের হাতে নির্যাতনের শিকার হন তিনি।

চীনের উহান এবং চেংদু শহরেও রোববার থেকে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া চীনের রাজধানীতে প্রায় এক হাজার মানুষ জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। তাদের দাবি তারা কোনো বিধি-নিষেধ চান। তারা ঘোরাফেরার স্বাধীনতা চান।

ছবি

তুরস্ক-সিরিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, নিহত অগণন

ছবি

আদানি বিতর্ক: সোমবারও অচল ভারতের পার্লামেন্ট

ছবি

তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা ২৩শ ছাড়িয়েছে

ছবি

ল্যাটিন আমেরিকার আকাশে দ্বিতীয় বেলুনটিও নিজেদের দাবি করল চীন

ছবি

দ্বিতীয়বার ভূমিকম্পে কেঁপেছে তুরস্ক

ছবি

ভূমিকম্পে সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় ১৪৭ জনের মৃত্যু

ছবি

তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্প: দেশ দুটিকে সহায়তার প্রস্তাব পুতিনের

ছবি

তুরস্কে ভূমিকম্পের ভয়াবহ বর্ণনা দিলেন এক তরুণ

ছবি

তুরস্কে ৮০ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ভূমিকম্প, দুই দেশে নিহত বেড়ে ১৩ শতাধিক

ছবি

শক্তিশালী ভূমিকম্পে তুরস্ক ও সিরিয়ায় নিহত ৫ শতাধিক

ছবি

ইউটিউবার মেয়েকে ঘুমের মধ্যে হত্যা, থানায় গেলেন বাবা

ছবি

তুরস্ক-সিরিয়া সীমান্তে ৭.৮ মাত্রার ভূমিকম্পে নিহত ৫২৯

ছবি

ধর্ষণ মামলায় ফাঁসানোর হুমকি পেয়ে গলায় ফাঁস নিলেন যুবক

ছবি

তুরস্ক, সিরিয়ায় ভূমিকম্পঃ শতাধিক নিহত, বাড়ছে মৃতের সংখ্যা

ছবি

তুষারধসে অস্ট্রিয়া ও সুইজারল্যান্ডে ১০ জনের মৃত্যু

ছবি

গৃহকর্মীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে পুড়িয়ে দেয় চাকরিদাতার কিশোর ছেলে

ছবি

দুই ছিনতাইকারীকে জীবন্ত পুড়িয়ে দিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা

ছবি

তুরস্কে ৭.৮ মাত্রার ভূমিকম্প

ছবি

ইউক্রেন-ইইউ সম্মেলন পশ্চিমা আধিপত্যবাদের প্রতি সমর্থন: রাশিয়া

ছবি

তুরস্কের ২৩৮ ফ্লাইট বাতিল

ছবি

বেলুন ধ্বংসের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চটেছে চীন

ছবি

নেতানিয়াহুর পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ, টালমাটাল ইসরায়েল

ছবি

যুদ্ধের বর্ষপূর্তিতে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আসছে বড় নিষেধাজ্ঞা

ছবি

পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফ মারা গেছেন

ছবি

অস্ট্রেলিয়ায় হাঙরের আক্রমণে প্রাণ গেল কিশোরীর

ছবি

যেভাবে চীনের বেলুন ভূপাতিত করল যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

চিলিতে শতাধিক দাবানলে নিহত ২৩, আহত ৯৭৯

ছবি

যুক্তরাষ্ট্র আরও অস্ত্র দিলে পরিস্থিতি পরমাণু যুদ্ধ পর্যন্ত গড়াতে পারে: রাশিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট মেদভেদেভ

ছবি

আপত্তিকর কনটেন্ট না সরানোয় পাকিস্তানে উইকিপিডিয়া নিষিদ্ধ

ছবি

রাশিয়ার অর্থ জব্দ করে ইউক্রেনকে দিতে অনুমতি যুক্তরাষ্ট্রের

ছবি

ভূমধ্যসাগরে নারী-শিশুসহ ১০ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

ছবি

নাইজেরিয়ায় ডাকাত-রক্ষীবাহিনীর সংঘর্ষে নিহত ৫১

ছবি

চিলিতে দাবানলে ১৩ মৃত্যু

ছবি

আকাশে বেলুন : ব্লিনকেনের চীন সফর বন্ধ করল যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

বাখমুতে আত্মসমর্পণ না করার ঘোষণা জেলেনস্কির

ছবি

পাকিস্তানের রিজার্ভ তলানীতে, মিটবে না তিন সপ্তাহ আমদানি ব্যয়ও

tab

আন্তর্জাতিক

চীনে বিক্ষোভ বাড়ছেই, সাংহাইতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

করোনাপরিস্থিতি নিয়ে চীনের সাংহাইয়ে কঠোর বিধি নিষেধ আরোপের তৃতীয় দিনে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। বিক্ষোভের এক পর্যায়ে স্থানীয় বাসিন্দারের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। শুধু তাই নয় চীনের অন্যান্য অঞ্চলেও এ বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। খবর আল জাজিরা।

চীনে এ ধরনের বিক্ষোভ হয়েছিল গত এক দশক আগে। তখন চীনের ক্ষমতায় সবেমাত্র শি জিন পিং প্রবেশ করেন। ইউরুকি’র ওই বিক্ষোভে ১০ জন নিহত হয়। এবার নতুন করে করোনার বিধি-নিষেধ নিয়ে আবারও বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

তিন বছর আগে চীনের উহান প্রদেশ থেকে করোনার উৎপত্তি হওয়ার পর নড়েচড়ে বসে চীনের প্রশাসন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যাপক পরীক্ষা চালানো হয়। এছাড়া কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়। লকডাউনের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রদেশের চলাফেরা নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

চীনের সবচেয়ে বড় শহর সাংহাই। গত কয়েকদিন ধরে করোনা পরিস্থিতি আবারও বেড়ে যাওয়ায় এখানে বিধি নিষেধ আরোপ করতে শুরু করে সরকার। যেটি স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া একজন বিক্ষোভকারী বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, “আমি এখানে বিক্ষোভ করতে এসেছি। কারণ আমি আমার দেশকে ভালোবাসি। কিন্তু আমি সরকারকে ভালোবাসি না। আমি স্বাধীনভাবে বাইরে চলাফেরা করতে চাই। কিন্তু সেটি পারছি না। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আমাদের সরকার খেলা খেলছে। যার সঙ্গে বিজ্ঞানের কোনো সম্পর্ক নেই।

রোববার বিকাল থেকে শত শত বিক্ষোভকারীরা জড়ো হতে শুরু করে। বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রণে আগে থেকেই এখানে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এ সময় বিক্ষোভকারীদের হাতে সাদা কাগজ দেখা যায়। যা নিয়ে তারা প্রতিবাদ জানায়।

এদিকে বিক্ষোভের নিউজ সংগ্রহ করতে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হন বিবিসির একজন সাংবাদিক। পরে তাকে কয়েক ঘণ্টা আটকে রাখার পর ছেড়ে দেওয়া হয়।

বিবিসিও বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে। আটককৃত ওই সাংবাদিকের নাম ইডি লরেন্স। সাংহাইতে খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে তিনি পুলিশের হাতে আটক হন। এ সময় পুলিশ তাকে হাতকড়া পড়িয়ে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে তাকে ছেড়ে দেওয়া হলেও পুলিশের হাতে নির্যাতনের শিকার হন তিনি।

চীনের উহান এবং চেংদু শহরেও রোববার থেকে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া চীনের রাজধানীতে প্রায় এক হাজার মানুষ জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। তাদের দাবি তারা কোনো বিধি-নিষেধ চান। তারা ঘোরাফেরার স্বাধীনতা চান।

back to top