alt

আন্তর্জাতিক

চীনে বিক্ষোভকারীদের হাতে কেন ‘সাদা কাগজ’

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে চীনে বড় ধরনের বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে। করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধে আরোপিত কঠোর বিধিনিষেধের প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ শুরু হয়।

বিশেষ করে গত বৃহস্পতিবার জিনজিয়াং প্রদেশের উরুমকিতে একটি আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ১০ জনের মৃত্যুর পর চীনের বড় শহরগুলোতে এ বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

অগ্নিকাণ্ডে হতাহতদের স্মরণে রোববার সন্ধ্যায় সাংহাইয়ে জমায়েত হন বিক্ষোভকারীরা। তাদের হাতে ছিল সাদা কাগজ, যাতে লেখা ছিল না কিছু। মূলত বিক্ষোভকারীরা খালি কাগজ তুলে ধরে সরকারের বিরুদ্ধে ভিন্ন এক প্রতিবাদ দেখিয়েছেন।

বিবিসি ও সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বিক্ষোভে অংশ নেওয়া চীনের তরুণদের হাতে ‘এ ফোর সাইজের’ সাদা কাগজ দেখা যায়। এ জন্য চলমান আন্দোলনকে অনেকে ‘সাদা কাগজের বিক্ষোভ কিংবা সাদা কাগজের বিপ্লব’ বলছেন।

বিবিসি লিখেছে, প্রায়ই কোনো একটি উপকরণ গোটা আন্দোলনকে তুলে ধরে, আর চীনের এ আন্দোলনে সেই প্রতীক হয়ে উঠছে সাদা কাগজ।

সাংহাইয়ের মত একইভাবে বেইজিংয়ের নামকরা সিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়েও কাগজের টুকরা নিয়ে জমায়েত হন বিক্ষোভকারীরা। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, চীনের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ ঝেজিয়াংয়ে উঝেনের রাস্তায় এক নারী কবজিতে শিকল, মুখে টেপ লাগানো এবং হাতে সাদা কাগজ নিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

চীনে শি জিনপিংয়ের পদত্যাগের দাবিতে বা কমিউনিস্ট পার্টির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে এমন বিক্ষোভ বিরল। কারণ সেখানে সরকারের সরাসরি কোনো সমালোচনার ফল হতে পারে কঠোর শাস্তি।

কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরেই সরকারের ‘শূন্য কোভিড নীতি’ নিয়ে অসন্তোষ চলছে। এর মধ্যে গত ২৪ নভেম্বর শিনজিয়াংয়ে কঠোর লকডাউনে ঘরে বন্দি থাকার অবস্থায় অগ্নিকাণ্ডে ১০ জনের মৃত্যুতে বিক্ষোভ জোরালো হয়।

আন্দোলনকারীরা এখন যেমন চীনের কমিউনিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে সাদা কাগজ তুলে ধরে যে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন, এর আগে তেমন বিক্ষোভ দেখা গিয়েছিল ২০২০ সালে হংকংয়ে। সেখানেও জাতীয় নিরাপত্তা আইনের প্রতিবাদে সাদা কাগজ তুলে ধরে বিক্ষোভে অংশ নেয় মানুষ।

২০১৯ সালের গণবিক্ষোভে হংকংয়ে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছিল এবং সরকারি কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভকারীদের ওপর সহিংস দমন-পীড়ন চালায়। তাদের স্লোগান নিষিদ্ধ করা হয়। ওই সাঁড়াশি অভিযান আর নির্যাতনের বিরুদ্ধে খালি কাগজ তুলে ধরে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন বিক্ষোভকারীরা।

কেউ কেউ যুক্তি দিয়েছেন, চীনে বিক্ষোভকারীদের এই প্রতিবাদ কেবল ‘ভিন্নমতের নীরবতা’ বোঝাচ্ছে না। এটি সরকারি কর্তৃপক্ষের জন্যও একটি চ্যালেঞ্জ, কারণ তারা কার্যত প্রশ্ন ছুড়ে দিচ্ছে – ‘কোনোকিছু না বলার প্রতীক তুলে ধরার জন্যই আপনি আমাকে গ্রেপ্তার করতে যাচ্ছেন?’

সাংহাইয়ে বিক্ষোভে যোগ দেওয়া এক নারী বিবিসিকে বলেন, “কাগজে আসলেই কিছু ছিল না, তবে আমরা জানি সেখানে কী আছে।”

বেইজিংয়ে বিক্ষোভকারী ২৬ বছর বয়সী জনি রয়টার্সকে বলেন, “আমরা যা বলতে পারি না, তার সবকিছুই তুলে ধরছে এই কাগজ।”

চীনের মিডিয়া বিশ্লেষক বিবিসির কেরি অ্যালেন তার পর্যবেক্ষণে বলেছেন, চীনের সেন্সরশিপ আরোপকারী কর্মকর্তারা দেশটির সামাজিক যোগাযোগ প্ল্যাটফর্মগুলোতে প্রবেশ করে নজরদারি করেন। সেখানে এক কোটির মত পোস্ট মুছে ফেলা হয়েছে। ‘ব্ল্যাঙ্ক শিট অব পেপার’ ও ‘হোয়াইট পেপার’ লিখে সার্চ দিলে খুব সামান্য ফলাফল দেখাচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেন্সরের বিষয়টি নিয়ে অনলাইনে অসন্তোষ ছড়িয়েছে। একজন লিখেছেন, “আপনি যদি একটি খালি কাগজে ভয় পান, তার মানে আপনি ভেতরে ভেতরেও দুর্বল।”

বিবিসি লিখেছে, ‘জাতীয় নিরাপত্তার কারণে’ সমস্ত ‘এ-ফোর’ আকারের কাগজ সরিয়ে নেওয়ারও গুজব রটেছে চীনে। তবে তা অস্বীকার করে কাগজ প্রস্তুতকারক সাংহাই এম অ্যান্ড জে স্টেশনারি বলেছে, তাদের উত্পাদন কার্যক্রম সব স্বাভাবিক। অনলাইনে ছড়ানো একটি ভুয়া নথির বিষয়ে তারা পুলিশকে অবহিতও করেছিল। ওই জাল নথিই কাগজ উৎপাদনকারী কোম্পানির ব্যাপারে গুজব ছড়িয়েছিল।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি রাগান্বিত হয়ে একজন বিক্ষোভকারীর হাত থেকে খালি কাগজ ছিনিয়ে নিচ্ছেন। ঘটনাটি চীনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর নানজিংয়ের ‘কমিউনিকেশন ইউনিভার্সিটি’ এলাকার বলে ধারণা দিয়েছে বিবিসি।

শনিবার রাতের আরেকটি ভিডিওতে দেখা গেছে, কয়েক ডজন শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে সাদা কাগজের টুকরো তুলে ধরে নীরবে দাঁড়িয়ে আছেন। এ ছাড়া সিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে কিছু ছাত্রকে ফ্রাইডম্যানের সমীকরণ আঁকা কাগজের টুকরো ধরে থাকতে দেখা গেছে।

চীনে বিক্ষোভে প্রতীক হিসাবে কাগজের ব্যবহার সাধারণ দৃশ্য। আধুনিক প্রতিবাদের এমন প্রতীক হিসাবে হংকংয়ে ছাতা, থাইল্যান্ডে রবারের হাঁস, বেলারুশে ফুলের মতো উপাদানগুলো ব্যবহৃত হয়।

ছবি

তুরস্ক-সিরিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, নিহত অগণন

ছবি

আদানি বিতর্ক: সোমবারও অচল ভারতের পার্লামেন্ট

ছবি

তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা ২৩শ ছাড়িয়েছে

ছবি

ল্যাটিন আমেরিকার আকাশে দ্বিতীয় বেলুনটিও নিজেদের দাবি করল চীন

ছবি

দ্বিতীয়বার ভূমিকম্পে কেঁপেছে তুরস্ক

ছবি

ভূমিকম্পে সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় ১৪৭ জনের মৃত্যু

ছবি

তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্প: দেশ দুটিকে সহায়তার প্রস্তাব পুতিনের

ছবি

তুরস্কে ভূমিকম্পের ভয়াবহ বর্ণনা দিলেন এক তরুণ

ছবি

তুরস্কে ৮০ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ভূমিকম্প, দুই দেশে নিহত বেড়ে ১৩ শতাধিক

ছবি

শক্তিশালী ভূমিকম্পে তুরস্ক ও সিরিয়ায় নিহত ৫ শতাধিক

ছবি

ইউটিউবার মেয়েকে ঘুমের মধ্যে হত্যা, থানায় গেলেন বাবা

ছবি

তুরস্ক-সিরিয়া সীমান্তে ৭.৮ মাত্রার ভূমিকম্পে নিহত ৫২৯

ছবি

ধর্ষণ মামলায় ফাঁসানোর হুমকি পেয়ে গলায় ফাঁস নিলেন যুবক

ছবি

তুরস্ক, সিরিয়ায় ভূমিকম্পঃ শতাধিক নিহত, বাড়ছে মৃতের সংখ্যা

ছবি

তুষারধসে অস্ট্রিয়া ও সুইজারল্যান্ডে ১০ জনের মৃত্যু

ছবি

গৃহকর্মীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে পুড়িয়ে দেয় চাকরিদাতার কিশোর ছেলে

ছবি

দুই ছিনতাইকারীকে জীবন্ত পুড়িয়ে দিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা

ছবি

তুরস্কে ৭.৮ মাত্রার ভূমিকম্প

ছবি

ইউক্রেন-ইইউ সম্মেলন পশ্চিমা আধিপত্যবাদের প্রতি সমর্থন: রাশিয়া

ছবি

তুরস্কের ২৩৮ ফ্লাইট বাতিল

ছবি

বেলুন ধ্বংসের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চটেছে চীন

ছবি

নেতানিয়াহুর পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ, টালমাটাল ইসরায়েল

ছবি

যুদ্ধের বর্ষপূর্তিতে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আসছে বড় নিষেধাজ্ঞা

ছবি

পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফ মারা গেছেন

ছবি

অস্ট্রেলিয়ায় হাঙরের আক্রমণে প্রাণ গেল কিশোরীর

ছবি

যেভাবে চীনের বেলুন ভূপাতিত করল যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

চিলিতে শতাধিক দাবানলে নিহত ২৩, আহত ৯৭৯

ছবি

যুক্তরাষ্ট্র আরও অস্ত্র দিলে পরিস্থিতি পরমাণু যুদ্ধ পর্যন্ত গড়াতে পারে: রাশিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট মেদভেদেভ

ছবি

আপত্তিকর কনটেন্ট না সরানোয় পাকিস্তানে উইকিপিডিয়া নিষিদ্ধ

ছবি

রাশিয়ার অর্থ জব্দ করে ইউক্রেনকে দিতে অনুমতি যুক্তরাষ্ট্রের

ছবি

ভূমধ্যসাগরে নারী-শিশুসহ ১০ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

ছবি

নাইজেরিয়ায় ডাকাত-রক্ষীবাহিনীর সংঘর্ষে নিহত ৫১

ছবি

চিলিতে দাবানলে ১৩ মৃত্যু

ছবি

আকাশে বেলুন : ব্লিনকেনের চীন সফর বন্ধ করল যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

বাখমুতে আত্মসমর্পণ না করার ঘোষণা জেলেনস্কির

ছবি

পাকিস্তানের রিজার্ভ তলানীতে, মিটবে না তিন সপ্তাহ আমদানি ব্যয়ও

tab

আন্তর্জাতিক

চীনে বিক্ষোভকারীদের হাতে কেন ‘সাদা কাগজ’

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে চীনে বড় ধরনের বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে। করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ রোধে আরোপিত কঠোর বিধিনিষেধের প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ শুরু হয়।

বিশেষ করে গত বৃহস্পতিবার জিনজিয়াং প্রদেশের উরুমকিতে একটি আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ১০ জনের মৃত্যুর পর চীনের বড় শহরগুলোতে এ বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

অগ্নিকাণ্ডে হতাহতদের স্মরণে রোববার সন্ধ্যায় সাংহাইয়ে জমায়েত হন বিক্ষোভকারীরা। তাদের হাতে ছিল সাদা কাগজ, যাতে লেখা ছিল না কিছু। মূলত বিক্ষোভকারীরা খালি কাগজ তুলে ধরে সরকারের বিরুদ্ধে ভিন্ন এক প্রতিবাদ দেখিয়েছেন।

বিবিসি ও সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বিক্ষোভে অংশ নেওয়া চীনের তরুণদের হাতে ‘এ ফোর সাইজের’ সাদা কাগজ দেখা যায়। এ জন্য চলমান আন্দোলনকে অনেকে ‘সাদা কাগজের বিক্ষোভ কিংবা সাদা কাগজের বিপ্লব’ বলছেন।

বিবিসি লিখেছে, প্রায়ই কোনো একটি উপকরণ গোটা আন্দোলনকে তুলে ধরে, আর চীনের এ আন্দোলনে সেই প্রতীক হয়ে উঠছে সাদা কাগজ।

সাংহাইয়ের মত একইভাবে বেইজিংয়ের নামকরা সিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়েও কাগজের টুকরা নিয়ে জমায়েত হন বিক্ষোভকারীরা। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, চীনের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ ঝেজিয়াংয়ে উঝেনের রাস্তায় এক নারী কবজিতে শিকল, মুখে টেপ লাগানো এবং হাতে সাদা কাগজ নিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

চীনে শি জিনপিংয়ের পদত্যাগের দাবিতে বা কমিউনিস্ট পার্টির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে এমন বিক্ষোভ বিরল। কারণ সেখানে সরকারের সরাসরি কোনো সমালোচনার ফল হতে পারে কঠোর শাস্তি।

কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরেই সরকারের ‘শূন্য কোভিড নীতি’ নিয়ে অসন্তোষ চলছে। এর মধ্যে গত ২৪ নভেম্বর শিনজিয়াংয়ে কঠোর লকডাউনে ঘরে বন্দি থাকার অবস্থায় অগ্নিকাণ্ডে ১০ জনের মৃত্যুতে বিক্ষোভ জোরালো হয়।

আন্দোলনকারীরা এখন যেমন চীনের কমিউনিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে সাদা কাগজ তুলে ধরে যে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন, এর আগে তেমন বিক্ষোভ দেখা গিয়েছিল ২০২০ সালে হংকংয়ে। সেখানেও জাতীয় নিরাপত্তা আইনের প্রতিবাদে সাদা কাগজ তুলে ধরে বিক্ষোভে অংশ নেয় মানুষ।

২০১৯ সালের গণবিক্ষোভে হংকংয়ে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছিল এবং সরকারি কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভকারীদের ওপর সহিংস দমন-পীড়ন চালায়। তাদের স্লোগান নিষিদ্ধ করা হয়। ওই সাঁড়াশি অভিযান আর নির্যাতনের বিরুদ্ধে খালি কাগজ তুলে ধরে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন বিক্ষোভকারীরা।

কেউ কেউ যুক্তি দিয়েছেন, চীনে বিক্ষোভকারীদের এই প্রতিবাদ কেবল ‘ভিন্নমতের নীরবতা’ বোঝাচ্ছে না। এটি সরকারি কর্তৃপক্ষের জন্যও একটি চ্যালেঞ্জ, কারণ তারা কার্যত প্রশ্ন ছুড়ে দিচ্ছে – ‘কোনোকিছু না বলার প্রতীক তুলে ধরার জন্যই আপনি আমাকে গ্রেপ্তার করতে যাচ্ছেন?’

সাংহাইয়ে বিক্ষোভে যোগ দেওয়া এক নারী বিবিসিকে বলেন, “কাগজে আসলেই কিছু ছিল না, তবে আমরা জানি সেখানে কী আছে।”

বেইজিংয়ে বিক্ষোভকারী ২৬ বছর বয়সী জনি রয়টার্সকে বলেন, “আমরা যা বলতে পারি না, তার সবকিছুই তুলে ধরছে এই কাগজ।”

চীনের মিডিয়া বিশ্লেষক বিবিসির কেরি অ্যালেন তার পর্যবেক্ষণে বলেছেন, চীনের সেন্সরশিপ আরোপকারী কর্মকর্তারা দেশটির সামাজিক যোগাযোগ প্ল্যাটফর্মগুলোতে প্রবেশ করে নজরদারি করেন। সেখানে এক কোটির মত পোস্ট মুছে ফেলা হয়েছে। ‘ব্ল্যাঙ্ক শিট অব পেপার’ ও ‘হোয়াইট পেপার’ লিখে সার্চ দিলে খুব সামান্য ফলাফল দেখাচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেন্সরের বিষয়টি নিয়ে অনলাইনে অসন্তোষ ছড়িয়েছে। একজন লিখেছেন, “আপনি যদি একটি খালি কাগজে ভয় পান, তার মানে আপনি ভেতরে ভেতরেও দুর্বল।”

বিবিসি লিখেছে, ‘জাতীয় নিরাপত্তার কারণে’ সমস্ত ‘এ-ফোর’ আকারের কাগজ সরিয়ে নেওয়ারও গুজব রটেছে চীনে। তবে তা অস্বীকার করে কাগজ প্রস্তুতকারক সাংহাই এম অ্যান্ড জে স্টেশনারি বলেছে, তাদের উত্পাদন কার্যক্রম সব স্বাভাবিক। অনলাইনে ছড়ানো একটি ভুয়া নথির বিষয়ে তারা পুলিশকে অবহিতও করেছিল। ওই জাল নথিই কাগজ উৎপাদনকারী কোম্পানির ব্যাপারে গুজব ছড়িয়েছিল।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি রাগান্বিত হয়ে একজন বিক্ষোভকারীর হাত থেকে খালি কাগজ ছিনিয়ে নিচ্ছেন। ঘটনাটি চীনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর নানজিংয়ের ‘কমিউনিকেশন ইউনিভার্সিটি’ এলাকার বলে ধারণা দিয়েছে বিবিসি।

শনিবার রাতের আরেকটি ভিডিওতে দেখা গেছে, কয়েক ডজন শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে সাদা কাগজের টুকরো তুলে ধরে নীরবে দাঁড়িয়ে আছেন। এ ছাড়া সিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে কিছু ছাত্রকে ফ্রাইডম্যানের সমীকরণ আঁকা কাগজের টুকরো ধরে থাকতে দেখা গেছে।

চীনে বিক্ষোভে প্রতীক হিসাবে কাগজের ব্যবহার সাধারণ দৃশ্য। আধুনিক প্রতিবাদের এমন প্রতীক হিসাবে হংকংয়ে ছাতা, থাইল্যান্ডে রবারের হাঁস, বেলারুশে ফুলের মতো উপাদানগুলো ব্যবহৃত হয়।

back to top