alt

আন্তর্জাতিক

অসহনীয় হয়ে উঠেছে দমনপীড়ন : ইমরান খান

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ৩০ মে ২০২৩

পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তুমুল চাপের কয়েকটি সপ্তাহ পার করলেন; এই সময়ের মধ্যেই তার কয়েক হাজার কর্মী জেলে গেছেন, দলও ছেড়েছেন কয়েক ডজন নেতা।

দেশের মধ্যে বিপুল জনসমর্থন থাকা সত্ত্বেও সামরিক স্থাপনায় হামলাকে ঘিরে তার দল নিষিদ্ধ হয়ে যেতে পারে, নিজেও সামরিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি হতে পারেন- এমন সব আশঙ্কা মনে থাকলেও তেহরিক ই ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান কিন্তু এখনও অবিচল।

“আপনারা মনে করতে পারেন এটা আমার জন্য বড় সংকট। আমি মনে করছি না,” বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এমনটাই বলেছেন।

লাহোরের জামান পার্কের বাড়ির উঠানে সহজে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া যায় এমন একটি কক্ষকে ইমরান এখন মিডিয়া রুম হিসেবে ব্যবহার করছেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি সরাসরি যত ভাষণ দেন, তার প্রায় সবই এখান থেকে হয়। বিবিসিকে সাক্ষাৎকারও তিনি একই স্থানেই দিয়েছেন।

তার চোখেমুখে দৃঢ়তার ছাপ ছিল; নির্বাচন হলে তাতে যে তিনি বিজয়ী হবেন, সেই আত্মবিশ্বাস দেখানোর চেষ্টায় কার্পণ্য করেননি পিটিআই চেয়ারম্যান।

কিন্তু দলের নেতাকর্মীরা তাতে আস্থা রাখছেন বলে মনে হচ্ছে না। অল্প কয়েকদিনের মধ্যে ইমরান পিটিআইয়ের সাবেক সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ফাওয়াদ চৌধুরী এবং একসময় তার মানবাধিকার বিষয়ক মন্ত্রী শিরিন মাজারিসহ দুই ডজনের বেশি সহকর্মী হারিয়েছেন।

“প্রথমত, যারা চলে গেছে, তাদের জায়গাগুলো ভরাট করতে হবে। তরুণরা আসবে। হয়তো তারাও গ্রেপ্তার হবে,” বলেন চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিক বনে যাওয়া ইমরান।

এভাবে কোনো দল চলতে পারে- বিবিসির এমন প্রশ্নের জবাবে পিটিআই চেয়ারম্যান বলেন,“আপনি এই ধরনের সন্ত্রাসী কৌশল অল্প সময়ে জন্যই ব্যবহার করতে পারেন। তবে পুরো পরিস্থিতিই অসহনীয় হয়ে উঠেছে।”

সরকারের এই দমনপীড়ন কমে আসবে, এমন কোনো লক্ষণও দেখা যাচ্ছে না।

পরিস্থিতি যে জটিল, তা ইমরানের সমর্থকরাও স্বীকার করছেন। তবে কেউ কেউ বলছেন, এমন সংকটময় মুহূর্তেই ইমরানের সেরাটা বেরিয়ে আসে, লড়াই তিনি উপভোগ করেন।

তবে এখন তাকে আগের তুলনায় খানিকটা জনবিচ্ছিন্নই মনে হচ্ছে। আগে তার বাড়ির সামনে ভক্ত-সমর্থকদের বিপুল ভিড় থাকত। এখন ফটকের ভেতর থাকাদের বেশিরভাগই দলীয় আইনজীবী।

ইমরানের কণ্ঠেও আগের তেজ নেই। অনেকেরই ধারণা, সেনাবাহিনীর সঙ্গে ঝামেলা পাকানোর কারণেই তাকে ক্ষমতা হারাতে হয়েছে, আর এখন ইমরান সেই সেনাবাহিনীর সঙ্গেই কথা বলতে আগ্রহী।

পাকিস্তানের রাজনীতিতে সেনাবাহিনীর কোনো ভূমিকাই থাকবে না, এমনটা বোকার স্বর্গেই ভাবা সম্ভব, বলেছেন তিনি।

“তারা কী ভাবছে, তা জানতে আগ্রহী আমি। তারা মানে, ক্ষমতা কাঠামোতে যারা আছে, তারা। এই ক্ষমতার দৌড় থেকে আমাকে হটিয়ে দিলে পাকিস্তানের কী লাভ হবে?”

সেনাবাহিনীর সঙ্গে বৈঠক করা কিছুদিন আগেও খুব একটা সহজ ছিল না ইমরানের জন্য, কিন্তু এখন তার রাজনৈতিক অবস্থান তো আরও দুর্বল; এই অবস্থায় সেনাবাহিনী কেনইবা তার সঙ্গে কথা বলতে রাজি হবে? পিটিআই চেয়ারম্যানের ঝোলায় কী এমন আছে, যা সেনাবাহিনীকে আকৃষ্ট করবে?

ইমরান এসব নিয়ে কিছু বলতে আগ্রহী হননি। বলেছেন, তিনি কেবল আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছেন, অন্য কিছু নয়।

গত বছর ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে ‍দুর্নীতি থেকে শুরু করে রাষ্ট্রদ্রোহীতা পর্যন্ত ডজনের বেশি অভিযোগ আনা হয়েছে। যে কারণে মে-র দ্বিতীয় সপ্তাহে তাকে গ্রেপ্তার করাটা খুব একটা অপ্রত্যাশিতও ছিল না।

তার আগে প্রাদেশিক ও জাতীয় নির্বাচন কখন হবে, তা নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা চলছিল। সেই আলোচনা ভেঙে গেল, এরপর ইমরানকে গ্রেপ্তার পরিস্থিতি নাজুক করে তুলল।

এখন তার দলের নেতাদের যেভাবে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে, তার সঙ্গে তার শাসনামলে বিরোধীদের কারাগারে পাঠানোর মিল নেই বলেও দাবি করেন গত বছর আস্থা ভোটে ক্ষমতা হারানো ইমরান।

“বিরোধীদের বিরুদ্ধে যেসব মামলা ছিল, তার ৯৫ শতাংশই করা হয়েছিল, আমরা ক্ষমতায় যাওয়ার আগেই। আমরা কেবল মামলাগুলো চালিয়ে নিয়েছি,” বলেন তিনি।

দৃশ্যত, ইমরান বেশ চাপেই আছেন। এখান থেকে বের হতে কোনো বিরাট পরিকল্পনা আছে কী, নাকি তা জানাতে চান না- পিটিআই চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চায় বিবিসি।

“আমি কেবল পুরো পরিস্থিতি দেখছি, অপেক্ষা করছি। হতে পারে, তারা আমাকে জেলে পাঠাবে। তাদের ধারণা হচ্ছে, আমি হয়তো হাল ছেড়ে দেবো, বা আমি পুরো ব্যাপারটা মেনে নেবো এবং চুপ থাকবো। তেমন কিছু হবে না,” এর বেশি কিছু আর বলতে চাননি ইমরান।

ছবি

গাজায় ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ৭১ জন নিহত

ছবি

গাজায় হেপাটাইটিসে আক্রান্ত ৭০ হাজারের বেশি মানুষ

ছবি

নাইজেরিয়ায় ধসে পড়েছে স্কুল, নিহত ২১

ছবি

কুকুর লেলিয়ে প্রতিবন্ধী ফিলিস্তিনিকে হত্যা করল ইসরায়েলি সেনারা

ছবি

নির্বাচনে আমি থাকছি, আর আমিই জিতবো : বাইডেন

ছবি

নাইজেরিয়ায় স্কুলভবনে ধস, ২২ শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

পাকিস্তানের পার্লামেন্টে সংরক্ষিত আসন পেতে যাচ্ছে ইমরানের পিটিআই দল

ছবি

বাইডেনের পরপর ভুল মন্তব্যে উদ্বেগ, তবুও নির্বাচনী প্রচারণায় অটল

ছবি

নেপালে ভূমিধসে নদীতে ছিটকে পড়ল দুই বাস, নিখোঁজ অন্তত ৬৩

ছবি

অরুণাচলে বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে ভারতের পদক্ষেপ, চীনের তীব্র প্রতিক্রিয়া

ছবি

যুক্তরাজ্যের নতুন সরকারে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলীও

ছবি

গাজায় বাস্তুচ্যুতদের ক্যাম্পে ইসরায়েলের বর্বর হামলা, নিহত ২৯

ছবি

ভারতে এক্সপ্রেসওয়েতে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, নিহত অন্তত ১৮

ছবি

শিশু হাসপাতালসহ ইউক্রেনজুড়ে রাশিয়ার ব্যাপক হামলা, নিহত ৪১

ছবি

উরুগুয়েতে নার্সিং হোমে অগ্নিকাণ্ডে ১০ বয়স্ক নাগরিক নিহত

ছবি

গাজায় ইসরায়েলি আগ্রাসন গড়াল দশম মাসে

ছবি

গাজায় অভিযানে ৩২৪ ইসরায়েলি সেনা নিহত

ছবি

ইউক্রেইনে তেলবাহী লরির সঙ্গে মিনিবাসের সংঘর্ষে নিহত ১৪

ছবি

টেক্সাসে মঙ্গলের অনুরূপ এক মিশন শেষ করলেন চার বিজ্ঞানী

ছবি

ভারতীয় কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে ৮ জন নিহত

ছবি

নেপালে বন্যা-ভূমিধসে নিহত অন্তত ১১

ছবি

ইউক্রেনে রাশিয়ার ভয়াবহ হামলা, বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন ১ লাখ মানুষ

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে আবারো বন্দুক হামলা, নিহত ৪

ছবি

আসামে বন্যায় গৃহহীন সাড়ে ২৪ লাখ, নিহত ৫৮

ছবি

জাতিসংঘ পরিচালিত স্কুলে ইসরায়েলি হামলায় নিহত ১৬

ছবি

বেবি কেয়ার ব্যবসায় পরিবর্তন আনছে জাপানের প্রবীণরা

ছবি

যুক্তরাজ্যের নতুন মন্ত্রিসভায় যারা আছেন

ছবি

‘একমাত্র ঈশ্বর আদেশ দিলে আমি সরবো’, সাক্ষাৎকারে বাইডেন

ছবি

ইরানের নতুন প্রেসিডেন্ট মাসুদ পেজেশকিয়ান

ছবি

প্রথম নারী অর্থমন্ত্রী পেলো যুক্তরাজ্য

ছবি

পদত্যাগ করলেন ঋষি সুনাক, ছাড়বেন দলীয় পদও

ছবি

রাজভবনের নিরাপত্তা কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে রাখতে দরবার রাজ্যপাল সি ভি আনন্দের

ছবি

গাজার ৯০ শতাংশ মানুষ বাস্তুচ্যুত

ছবি

ভারত : হাথরাসে মৃতদের পরিবারের পাশে রাহুল গান্ধী

ছবি

২৪ ঘণ্টার মধ্যে ডাউনিং স্ট্রিট ছাড়তে হবে ঋষি সুনাককে

ছবি

পঞ্চমবারের মতো বিজয়ী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলী

tab

আন্তর্জাতিক

অসহনীয় হয়ে উঠেছে দমনপীড়ন : ইমরান খান

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ৩০ মে ২০২৩

পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তুমুল চাপের কয়েকটি সপ্তাহ পার করলেন; এই সময়ের মধ্যেই তার কয়েক হাজার কর্মী জেলে গেছেন, দলও ছেড়েছেন কয়েক ডজন নেতা।

দেশের মধ্যে বিপুল জনসমর্থন থাকা সত্ত্বেও সামরিক স্থাপনায় হামলাকে ঘিরে তার দল নিষিদ্ধ হয়ে যেতে পারে, নিজেও সামরিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি হতে পারেন- এমন সব আশঙ্কা মনে থাকলেও তেহরিক ই ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান কিন্তু এখনও অবিচল।

“আপনারা মনে করতে পারেন এটা আমার জন্য বড় সংকট। আমি মনে করছি না,” বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এমনটাই বলেছেন।

লাহোরের জামান পার্কের বাড়ির উঠানে সহজে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া যায় এমন একটি কক্ষকে ইমরান এখন মিডিয়া রুম হিসেবে ব্যবহার করছেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি সরাসরি যত ভাষণ দেন, তার প্রায় সবই এখান থেকে হয়। বিবিসিকে সাক্ষাৎকারও তিনি একই স্থানেই দিয়েছেন।

তার চোখেমুখে দৃঢ়তার ছাপ ছিল; নির্বাচন হলে তাতে যে তিনি বিজয়ী হবেন, সেই আত্মবিশ্বাস দেখানোর চেষ্টায় কার্পণ্য করেননি পিটিআই চেয়ারম্যান।

কিন্তু দলের নেতাকর্মীরা তাতে আস্থা রাখছেন বলে মনে হচ্ছে না। অল্প কয়েকদিনের মধ্যে ইমরান পিটিআইয়ের সাবেক সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ফাওয়াদ চৌধুরী এবং একসময় তার মানবাধিকার বিষয়ক মন্ত্রী শিরিন মাজারিসহ দুই ডজনের বেশি সহকর্মী হারিয়েছেন।

“প্রথমত, যারা চলে গেছে, তাদের জায়গাগুলো ভরাট করতে হবে। তরুণরা আসবে। হয়তো তারাও গ্রেপ্তার হবে,” বলেন চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিক বনে যাওয়া ইমরান।

এভাবে কোনো দল চলতে পারে- বিবিসির এমন প্রশ্নের জবাবে পিটিআই চেয়ারম্যান বলেন,“আপনি এই ধরনের সন্ত্রাসী কৌশল অল্প সময়ে জন্যই ব্যবহার করতে পারেন। তবে পুরো পরিস্থিতিই অসহনীয় হয়ে উঠেছে।”

সরকারের এই দমনপীড়ন কমে আসবে, এমন কোনো লক্ষণও দেখা যাচ্ছে না।

পরিস্থিতি যে জটিল, তা ইমরানের সমর্থকরাও স্বীকার করছেন। তবে কেউ কেউ বলছেন, এমন সংকটময় মুহূর্তেই ইমরানের সেরাটা বেরিয়ে আসে, লড়াই তিনি উপভোগ করেন।

তবে এখন তাকে আগের তুলনায় খানিকটা জনবিচ্ছিন্নই মনে হচ্ছে। আগে তার বাড়ির সামনে ভক্ত-সমর্থকদের বিপুল ভিড় থাকত। এখন ফটকের ভেতর থাকাদের বেশিরভাগই দলীয় আইনজীবী।

ইমরানের কণ্ঠেও আগের তেজ নেই। অনেকেরই ধারণা, সেনাবাহিনীর সঙ্গে ঝামেলা পাকানোর কারণেই তাকে ক্ষমতা হারাতে হয়েছে, আর এখন ইমরান সেই সেনাবাহিনীর সঙ্গেই কথা বলতে আগ্রহী।

পাকিস্তানের রাজনীতিতে সেনাবাহিনীর কোনো ভূমিকাই থাকবে না, এমনটা বোকার স্বর্গেই ভাবা সম্ভব, বলেছেন তিনি।

“তারা কী ভাবছে, তা জানতে আগ্রহী আমি। তারা মানে, ক্ষমতা কাঠামোতে যারা আছে, তারা। এই ক্ষমতার দৌড় থেকে আমাকে হটিয়ে দিলে পাকিস্তানের কী লাভ হবে?”

সেনাবাহিনীর সঙ্গে বৈঠক করা কিছুদিন আগেও খুব একটা সহজ ছিল না ইমরানের জন্য, কিন্তু এখন তার রাজনৈতিক অবস্থান তো আরও দুর্বল; এই অবস্থায় সেনাবাহিনী কেনইবা তার সঙ্গে কথা বলতে রাজি হবে? পিটিআই চেয়ারম্যানের ঝোলায় কী এমন আছে, যা সেনাবাহিনীকে আকৃষ্ট করবে?

ইমরান এসব নিয়ে কিছু বলতে আগ্রহী হননি। বলেছেন, তিনি কেবল আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছেন, অন্য কিছু নয়।

গত বছর ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে ‍দুর্নীতি থেকে শুরু করে রাষ্ট্রদ্রোহীতা পর্যন্ত ডজনের বেশি অভিযোগ আনা হয়েছে। যে কারণে মে-র দ্বিতীয় সপ্তাহে তাকে গ্রেপ্তার করাটা খুব একটা অপ্রত্যাশিতও ছিল না।

তার আগে প্রাদেশিক ও জাতীয় নির্বাচন কখন হবে, তা নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা চলছিল। সেই আলোচনা ভেঙে গেল, এরপর ইমরানকে গ্রেপ্তার পরিস্থিতি নাজুক করে তুলল।

এখন তার দলের নেতাদের যেভাবে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে, তার সঙ্গে তার শাসনামলে বিরোধীদের কারাগারে পাঠানোর মিল নেই বলেও দাবি করেন গত বছর আস্থা ভোটে ক্ষমতা হারানো ইমরান।

“বিরোধীদের বিরুদ্ধে যেসব মামলা ছিল, তার ৯৫ শতাংশই করা হয়েছিল, আমরা ক্ষমতায় যাওয়ার আগেই। আমরা কেবল মামলাগুলো চালিয়ে নিয়েছি,” বলেন তিনি।

দৃশ্যত, ইমরান বেশ চাপেই আছেন। এখান থেকে বের হতে কোনো বিরাট পরিকল্পনা আছে কী, নাকি তা জানাতে চান না- পিটিআই চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চায় বিবিসি।

“আমি কেবল পুরো পরিস্থিতি দেখছি, অপেক্ষা করছি। হতে পারে, তারা আমাকে জেলে পাঠাবে। তাদের ধারণা হচ্ছে, আমি হয়তো হাল ছেড়ে দেবো, বা আমি পুরো ব্যাপারটা মেনে নেবো এবং চুপ থাকবো। তেমন কিছু হবে না,” এর বেশি কিছু আর বলতে চাননি ইমরান।

back to top