alt

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা হলো একটি মহাসড়ক: মোস্তাফা জব্বার

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৩

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ১৯৬৪ সালে বাংলাদেশে প্রথম কম্পিউটার আসে। এরপরই বাংলাদেশের রূপান্তরের যাত্রা শুরু হয়। আমাদের অগ্রযাত্রাটা হলো একটি মহাসড়ক। করোনাকালে বাংলাদেশ এক অভূতপূর্ব অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে। ঘরে বসে অনলাইনে লেখাপড়া করা, ডাক্তার দেখানো, খাবার অর্ডার দেয়া এমনকি কোরবানির সময় অনলাইনে সাড়ে চার লাখ গরু বিক্রি হয়েছে। আর্থিক লেনদেন করাও অনেক সহজ হয়ে গেছে। প্রযুক্তির এই বিকাশ সবার সামনে তুলে ধরতেই আজকের এ আয়োজন।

আজ বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা-২০২৩ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ৭৫ পরবর্তী সময়ে কম্পিউটারের জন্য সরকারের কোন পৃষ্ঠপোষকতা লক্ষ্য করা যায়নি। ৯২ সালে আমরা বিনামূল্যে সাবমেরিন কেবলের সন্ধান পেয়েছিলাম। কিন্তু তখনকার সরকার এই সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হয়নি। এর বহুদিন পর ২০০৬ সালে আমরা সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হতে পেরেছিলাম। আজকের এই স্মার্ট বাংলাদেশের বীজবপন করে গিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আমরা ২০০৮ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশের ঘোষণা করেছি।

তিনি বলেন, মেলায় ইনোভেশন জোন করা হয়েছে। যেখানে আমাদের ছেলেমেয়েরা তাদের ইনোভেটিভ কাজ প্রদর্শন করবে। এতে বোঝা যায়, বাংলাদেশ এখন আর পশ্চাৎপদ দেশ নয়। বাংলাদেশ এখন নিজেই উদ্ভাবন করতে পারে। আমি তরুণ প্রজন্মের প্রতি আহ্বান জানাবো, প্রযুক্তির মাধ্যমে তারা যেন মেধা ও দক্ষতার বিকাশ ঘটায়।

গত বুধবার মেলা উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, স্মার্টফোনে বিজয় ব্যবহার গ্রাহকের জন্য বাধ্যতামূলক নয়। তিনি বলেন, ‘মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী তার ফোনে কোন সফটওয়্যার রাখবেন বা রাখবেন না, তা তার স্বাধীনতা। মোবাইল ফোন কেনার পরে তিনি এক সেকেন্ডও তার ফোনে বিজয় নাও রাখতে পারেন, আনইনস্টল করে দিতে পারেন। এতে কোনও বাধ্যবাধকতা নেই।’

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘বিজয় মোবাইল থাকা মানে ব্যবহারকারীকে ফ্যাসিলিটেট করা। ব্যবহারকারীকে আরেকটা সফটওয়্যার ডাউনলোড করে বাংলা ব্যবহার করতে হবে না। ব্যবহারকারী তার মোবাইলে একটা সফটওয়্যার পাচ্ছেন। তিনি ব্যবহার করবেন, ফেলে দেবেন, নতুন ইনস্টল করবেন কী করবেন না সেটা সম্পূর্ণ ব্যবহারকারীর স্বাধীনতা।’

শুধু বিজয় নয়, একাধিক সফটওয়্যার ব্যবহারের নির্দেশনা আপনারা দেবেন কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘বিকজ একাধিক সফটওয়্যার স্ট্যান্ডার্ড না। স্ট্যান্ডার্ড হলে সেগুলোও থাকতো। আপনারা স্ট্যান্ডার্ড বানিয়ে দেন, সেটাও ঢুকিয়ে দেয়া হবে।’

ছবি

কাঠ দিয়ে কৃত্রিম উপগ্রহ বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিল জাপান

ছবি

৫০ জিবির বেশি ডাটাও এখন যোগ হবে নতুন প্যাকেজে

ছবি

বর্তমান অর্থবছরের মধ্যে বিটিসিএলকে লাভজনক করতে হবে : পলক

ছবি

এক চার্জে ৫০ বছর চলবে এই ব্যাটারি

ছবি

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কাজ করতে চায় বাংলাদেশ

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে স্ক্রিন শেয়ার প্রতারণা থেকে বাঁচার কৌশল

ছবি

ইউটিউবে আয় বাড়ানোর নতুন ফিচার

ঢাকায় একটি বিদ্যুৎ বিতরণ পরিকল্পনা প্রণয়নে সরকারকে সহায়তা করবে জাইকা

ছবি

বিটিআরসির নতুন চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেদ

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে নতুন ফিচার, লক করা যাবে গুরুত্বপূর্ণ চ্যাট

ছবি

বরখাস্ত হলেন ওপেনএআইয়ের সিইও

ছবি

মোবাইল নম্বর ছাড়াই চলবে হোয়াটসঅ্যাপ

ছবি

প্রথম বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সাইবার নিরাপত্তা অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ছয় ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান

ছবি

শেখ রাসেল দিবসে ৫টি ‘স্মার্ট‘ উদ্যোগ চালু করলো এটুআই

ছবি

ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারেও এখন টাকা লাগবে

ছবি

প্রতিষ্ঠার ২৫ বছরে গুগল

ছবি

জাতিসংঘের এসডিজি ডিজিটাল গেম চেঞ্জার অ্যাওয়ার্ড পেলো এটুআই-এর একশপ

ছবি

শিবচরে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অফ ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি এর নির্মাণ কাজ উদ্বোধন

ছবি

ডিজিটাল বৈষম্য কমিয়ে আনতে ‘জিরো ডিজিটাল ডিভাইড’ গ্লোবাল ক্যাম্পেইন উদ্বোধন

ছবি

৯ম বাংলাদেশ জুনিয়র সায়েন্স অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে একাধিক অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের সুবিধা আসছে

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপে ‘এইচডি কোয়ালিটি’র ছবি পাঠানোর সহজ পদ্ধতি

ছবি

অনুমোদনহীন বেতার যন্ত্র বেচাকেনা,সতর্ক করল বিটিআরসি

ছবি

ইনস্টাগ্রামের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে ১০ লাখ টাকা হারালেন তরুণী!

ছবি

আইটি মাদ্রাস ও চেন্নাইয়ের রেলা ইনস্টিটিউট পরিদর্শন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক

ছবি

‘সুপারফাস্ট’ চার্জিং, ১০ মিনিটের চার্জে চলবে ৪০০ কিলোমিটার

ছবি

ভারতের যেসব খাতে হামলার টার্গেট করেছে বাংলাদেশি হ্যাকাররা

ছবি

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে আসছে নতুন ফিচার

ছবি

ফেসবুক ভিডিওতে আসছে চমৎকার কিছু সুবিধা

ছবি

তিন মাসে বাংলাদেশের ৪২ লাখ ভিডিও ডিলিট করেছে টিকটক

ছবি

কম্পিউটার মনিটর থেকে কত দূরে বসতে হবে

ছবি

ঘোড়াঘাটে বিকাশ কর্মকারের তৈরী বিদ্যুৎচালিত ‘হ্যামার’, কমেছে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম

ছবি

টুইটারকে পেছনে ফেলে দ্রুত বাড়ছে থ্রেডসের জনপ্রিয়তা

ছবি

গুগলের গোপনীয়তা নীতিমালায় হঠাৎ পরিবর্তন, কিন্তু কেন

ছবি

এবার স্টোরি দেওয়া যাবে টেলিগ্রামেও

ছবি

দুই দিনে ঢাকা ছেড়েছেন সাড়ে ৫০ লাখ সিমধারী

tab

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা হলো একটি মহাসড়ক: মোস্তাফা জব্বার

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৩

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ১৯৬৪ সালে বাংলাদেশে প্রথম কম্পিউটার আসে। এরপরই বাংলাদেশের রূপান্তরের যাত্রা শুরু হয়। আমাদের অগ্রযাত্রাটা হলো একটি মহাসড়ক। করোনাকালে বাংলাদেশ এক অভূতপূর্ব অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে। ঘরে বসে অনলাইনে লেখাপড়া করা, ডাক্তার দেখানো, খাবার অর্ডার দেয়া এমনকি কোরবানির সময় অনলাইনে সাড়ে চার লাখ গরু বিক্রি হয়েছে। আর্থিক লেনদেন করাও অনেক সহজ হয়ে গেছে। প্রযুক্তির এই বিকাশ সবার সামনে তুলে ধরতেই আজকের এ আয়োজন।

আজ বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলা-২০২৩ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ৭৫ পরবর্তী সময়ে কম্পিউটারের জন্য সরকারের কোন পৃষ্ঠপোষকতা লক্ষ্য করা যায়নি। ৯২ সালে আমরা বিনামূল্যে সাবমেরিন কেবলের সন্ধান পেয়েছিলাম। কিন্তু তখনকার সরকার এই সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হয়নি। এর বহুদিন পর ২০০৬ সালে আমরা সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হতে পেরেছিলাম। আজকের এই স্মার্ট বাংলাদেশের বীজবপন করে গিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আমরা ২০০৮ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশের ঘোষণা করেছি।

তিনি বলেন, মেলায় ইনোভেশন জোন করা হয়েছে। যেখানে আমাদের ছেলেমেয়েরা তাদের ইনোভেটিভ কাজ প্রদর্শন করবে। এতে বোঝা যায়, বাংলাদেশ এখন আর পশ্চাৎপদ দেশ নয়। বাংলাদেশ এখন নিজেই উদ্ভাবন করতে পারে। আমি তরুণ প্রজন্মের প্রতি আহ্বান জানাবো, প্রযুক্তির মাধ্যমে তারা যেন মেধা ও দক্ষতার বিকাশ ঘটায়।

গত বুধবার মেলা উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, স্মার্টফোনে বিজয় ব্যবহার গ্রাহকের জন্য বাধ্যতামূলক নয়। তিনি বলেন, ‘মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী তার ফোনে কোন সফটওয়্যার রাখবেন বা রাখবেন না, তা তার স্বাধীনতা। মোবাইল ফোন কেনার পরে তিনি এক সেকেন্ডও তার ফোনে বিজয় নাও রাখতে পারেন, আনইনস্টল করে দিতে পারেন। এতে কোনও বাধ্যবাধকতা নেই।’

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘বিজয় মোবাইল থাকা মানে ব্যবহারকারীকে ফ্যাসিলিটেট করা। ব্যবহারকারীকে আরেকটা সফটওয়্যার ডাউনলোড করে বাংলা ব্যবহার করতে হবে না। ব্যবহারকারী তার মোবাইলে একটা সফটওয়্যার পাচ্ছেন। তিনি ব্যবহার করবেন, ফেলে দেবেন, নতুন ইনস্টল করবেন কী করবেন না সেটা সম্পূর্ণ ব্যবহারকারীর স্বাধীনতা।’

শুধু বিজয় নয়, একাধিক সফটওয়্যার ব্যবহারের নির্দেশনা আপনারা দেবেন কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘বিকজ একাধিক সফটওয়্যার স্ট্যান্ডার্ড না। স্ট্যান্ডার্ড হলে সেগুলোও থাকতো। আপনারা স্ট্যান্ডার্ড বানিয়ে দেন, সেটাও ঢুকিয়ে দেয়া হবে।’

back to top