alt

জাতীয়

মার্চে বিদ্যুতের দাম বাড়ছে: প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ডলারের বিপরীতে টাকার দরপতনের চাপ সামাল দিতে এক বছর পর আগামী মার্চে বিদ্যুতের দাম বাড়াতে যাচ্ছে সরকার।

ওই মাসে নতুন করে পাইকারি ও ভোক্তা পর্যায়ে দাম ‘সামান্য’ বাড়ানো হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। খুচরা ও পাইকারি পর্যায়ে ৩ থেকে ৪ শতাংশ দাম বাড়ানো হতে পারে বলে তার কথায় আভাস পাওয়া গেছে।

বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সম্প্রতি মন্ত্রণালয়ে বৈঠক করেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। সেখানে দাম কতটুকু এবং কীভাবে বাড়ানো হবে সেই প্রস্তাব তৈরি করা হয়।

এর আগে সবশেষ ২০২৩ সালের মার্চ থেকে খুচরায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছিল। তখন সরকার বলেছিল, নিয়মিত মূল্য সমন্বয়ের অংশ হিসেবে দাম বাড়ানো হয়।

এবার দাম বাড়ানোর পদক্ষেপের বিষয়ে জানতে চাইলে মঙ্গলবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, “স্বল্প মূল্যের বিদ্যুৎ পেতে আমরা কয়লাভিত্তিক অনেক কেন্দ্র চালু করলেও ডলারের বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়নের কারণে সেই সুফল পুরোপুরি পাওয়া যায়নি।

গত এক বছরে কয়লার দাম বেড়ে আবার কমে গেলেও টাকার বিপরীতে ডলার অনেক শক্তিশালী হয়েছে। ফলে বিদ্যুতের উৎপাদন খরচ বেড়ে গেছে। এখন দাম কিছুটা বাড়াতেই হচ্ছে।“

সরকার যখন বেশ কয়েকটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অনুমোদন দেয় তখন এক ডলারের বিপরীতে বাংলাদেশি মুদ্রার মান ছিল ৭৫ টাকা। বর্তমানে তা ১১০ থেকে ১১৫ টাকার মধ্যে ওঠানামা করছে। কয়লার দামও ঘনঘন ওঠানামা করছে।

টাকার অবমূল্যায়নের বিষয়টি সামনে এনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডলারের কারণে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর উৎপাদন খরচ বেড়ে গেছে। সে কারণে দর কিছুটা সমন্বয় করা হবে।

দাম বাড়লেও নিম্ন আয়ের মানুষের ওপর এর প্রভাব পড়বে না মন্তব্য করে তিনি বলেন, খুচরা ও পাইকারি পর্যায়ে দাম ৩ থেকে ৪ শতাংশ বাড়তে পারে। তবে এতে লাইফ লাইনের গ্রাহকদের ওপর প্রভাব পড়বে না।

“এই মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব যেন বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী গ্রাহকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে আমরা সেভাবেই সিদ্ধান্ত নেব।“

দেশে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র ছাড়াও রামপাল, পায়রা, মাতারবাড়ি ও বাঁশখালীতে নতুন তিনটি কয়লাভিত্তিক বা তাপবিদ্যুৎকেন্দ্র উৎপাদন শুরু করেছে, যেখানে পাঁচ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে।

সরকারি সংস্থা পিজিসিবির হিসাবে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘন্টাপ্রতি সাড়ে ১১ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়। সেখানে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের উৎপাদন ছিল প্রায় সাড়ে তিন হাজার মেগাওয়াট।

এর আগে নিয়মিত মূল্য সমন্বয়ের অংশ হিসেবে ২০২৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি খুচরায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয় সরকার, যা মার্চ থেকে কার্যকর করা হয়। সেসময় খুচরায় ৫ শতাংশ বাড়িয়ে বিদ্যুতের নতুন মূল্যহার নির্ধারণ করা হয়।

ওই দর অনুযায়ী খুচরায় গ্রাহক পর্যায়ে গড়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ভারিত গড় হয় ৮ টাকা ২৪ পয়সা, যা ফেব্রুয়ারিতে ৭ টাকা ৮৫ পয়সা ছিল। আর জানুয়ারিতে ছিল ৭ টাকা ৪৮ পয়সা।

ওই সময় তিন মাসের মধ্যে তিন দফায় দাম বাড়ানো হয়েছিল।

সবশেষ দফায় ফেব্রুয়ারিতে দাম নির্ধারণের ঘোষণার পর বিদ্যুৎ সচিব হাবিবুর রহমান বলছিলেন, “বিদ্যুতের খুচরা মূল্য গড়ে ৫ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। তবে বিভিন্ন শ্রেণির গ্রাহকের জন্য তা বিভিন্ন হারে কার্যকর হবে।”

তবে সেবার খুচরায় বাড়লেও পাইকারিতে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়নি মার্চ মাসে। ফেব্রুয়ারিতে ভারিত গড়ে পাইকারি বিদ্যুতের প্রতি ইউনিটের দাম ৬ টাকা ২০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৬ টাকা ৭০ পয়সা করা হয়।

এর আগে, গত ৩১ জানুয়ারি সরকারের নির্বাহী আদেশে বিদ্যুতের দাম পাইকারি পর্যায়ে ৮ শতাংশ এবং গ্রাহক পর্যায়ে ৫ শতাংশ বাড়ানো হয়। তার আগে ১২ জানুয়ারি ভোক্তাপর্যায়ে বিদ্যুতের খুচরা দাম গড়ে প্রতি ইউনিটে ৫ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

ছবি

সোমালিয়ার জলদস্যুদের কাছ থেকে এমভি আবদুল্লাহর ২৩ নাবিক মুক্ত

ছবি

আজ পহেলা বৈশাখ,নতুন বছর বরণের দিন,বাঙালির উৎসবের দিন

ছবি

চালের বস্তায় যেসব লেখা বাধ্যতামূলক করল সরকার

ছবি

নাবিকরা শিগগিরই মুক্তি পাবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

পহেলা বৈশাখে নারীরা হেনস্তার শিকার হলে জানাবেন: র‌্যাব ডিজি

ছবি

নববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচছা, ‘সুন্দর ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে’ একযোগে কাজ করার আহবান

ছবি

বৈশাখের শুরুতে বৃষ্টির আভাস, বাড়বে গরম

ছবি

সদরঘাটে দুর্ঘটনা: দুই লঞ্চের আটক ৫

ছবি

সদরঘাটে দুর্ঘটনায় ২ লঞ্চের রুট পারমিট বাতিলসহ তদন্তে কমিটি গঠন

ছবি

ঢাকা মিরপুর চিড়িয়াখানায় হাতির আছাড়ে নিহত কিশোর

ছবি

পরিদর্শনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী: ছুটিতে হাসপাতাল কেমন চলছে?

ছবি

দেশ থেকে অপরাজনীতি চিরতরে দূর হওয়া প্রযোজন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

আওয়ামী লীগ নিতে নয় মানুষকে দিতে এসেছে:

ঢকায় বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত

ছবি

আজ ঈদুল ফিতর, মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব

ছবি

প্রধানমন্ত্রী ঈদের দিন গণভবনে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন

ছবি

রাষ্ট্রপতি ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন

ছবি

প্রধানমন্ত্রী দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন

ছবি

জলদস্যুদের হাতে জিম্মি নাবিক ও জাহাজ উদ্ধারে অনেক অগ্রগতি হয়েছে :পররাষ্ট্রমন্ত্রী

উপেক্ষিত, তবুও উন্নয়নে অন্যদের পাশে থাকতে চান তারা

ছবি

“বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সাথে থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ”

ছবি

বাংলাদেশে ঈদ বৃহস্পতিবার

ছবি

চিকিৎসকদের রোগী দেখার সংখ্যা নির্দিষ্ট করে দিয়ে স্বাস্থ্যসেবা ও সুরক্ষা আইন করা হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জাতীয় লজিস্টিক নীতির খসড়া অনুমোদন

বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর চিরুনি অভিযানে গ্রেপ্তার ৫৩

ছবি

ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী: জি-২০ আলোচনায় বাংলাদেশের প্রশংসায়

ছবি

সৌদি আরবে ঈদ কবে জানালো কর্তৃপক্ষ

ছবি

দুই মন্ত্রণালয়কে কিশোর গ্যাং’ সংশোধনে উপর জোর দেওয়া নির্দেশ: প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

বাংলাদেশের সঙ্গে ব্রাজিলের বাণিজ্য বাড়ানোর ব্যাপক সুযোগ রয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বায়তুল মোকাররমে পাঁচ জামাত জাতীয় ঈদগাহে সাড়ে ৮টায়

ছবি

দেশে ঈদ কবে মঙ্গলবার জানাবে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি

ছবি

ব্রাজিল বাংলাদেশ থেকে সরাসরি তৈরি পোশাক আমদানি করতে পারে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

পদ্মা সেতুর প্রভাব : যাত্রী নেই গাবতলীতে

ছবি

রুমা ও থানচির নিরাপত্তায় যুক্ত হলো ৪টি সাঁজোয়া যান এপিসি

ছবি

রেলের যাত্রী ভোগান্তির জন্য যদি একজন দালালও পাই কঠোর ব্যবস্থা

ছবি

লিবিয়ায় অপহৃত চার যুবককে ফেরত চায় স্বজনরা

tab

জাতীয়

মার্চে বিদ্যুতের দাম বাড়ছে: প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ডলারের বিপরীতে টাকার দরপতনের চাপ সামাল দিতে এক বছর পর আগামী মার্চে বিদ্যুতের দাম বাড়াতে যাচ্ছে সরকার।

ওই মাসে নতুন করে পাইকারি ও ভোক্তা পর্যায়ে দাম ‘সামান্য’ বাড়ানো হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। খুচরা ও পাইকারি পর্যায়ে ৩ থেকে ৪ শতাংশ দাম বাড়ানো হতে পারে বলে তার কথায় আভাস পাওয়া গেছে।

বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সম্প্রতি মন্ত্রণালয়ে বৈঠক করেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। সেখানে দাম কতটুকু এবং কীভাবে বাড়ানো হবে সেই প্রস্তাব তৈরি করা হয়।

এর আগে সবশেষ ২০২৩ সালের মার্চ থেকে খুচরায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছিল। তখন সরকার বলেছিল, নিয়মিত মূল্য সমন্বয়ের অংশ হিসেবে দাম বাড়ানো হয়।

এবার দাম বাড়ানোর পদক্ষেপের বিষয়ে জানতে চাইলে মঙ্গলবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, “স্বল্প মূল্যের বিদ্যুৎ পেতে আমরা কয়লাভিত্তিক অনেক কেন্দ্র চালু করলেও ডলারের বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়নের কারণে সেই সুফল পুরোপুরি পাওয়া যায়নি।

গত এক বছরে কয়লার দাম বেড়ে আবার কমে গেলেও টাকার বিপরীতে ডলার অনেক শক্তিশালী হয়েছে। ফলে বিদ্যুতের উৎপাদন খরচ বেড়ে গেছে। এখন দাম কিছুটা বাড়াতেই হচ্ছে।“

সরকার যখন বেশ কয়েকটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অনুমোদন দেয় তখন এক ডলারের বিপরীতে বাংলাদেশি মুদ্রার মান ছিল ৭৫ টাকা। বর্তমানে তা ১১০ থেকে ১১৫ টাকার মধ্যে ওঠানামা করছে। কয়লার দামও ঘনঘন ওঠানামা করছে।

টাকার অবমূল্যায়নের বিষয়টি সামনে এনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডলারের কারণে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর উৎপাদন খরচ বেড়ে গেছে। সে কারণে দর কিছুটা সমন্বয় করা হবে।

দাম বাড়লেও নিম্ন আয়ের মানুষের ওপর এর প্রভাব পড়বে না মন্তব্য করে তিনি বলেন, খুচরা ও পাইকারি পর্যায়ে দাম ৩ থেকে ৪ শতাংশ বাড়তে পারে। তবে এতে লাইফ লাইনের গ্রাহকদের ওপর প্রভাব পড়বে না।

“এই মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব যেন বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী গ্রাহকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে আমরা সেভাবেই সিদ্ধান্ত নেব।“

দেশে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র ছাড়াও রামপাল, পায়রা, মাতারবাড়ি ও বাঁশখালীতে নতুন তিনটি কয়লাভিত্তিক বা তাপবিদ্যুৎকেন্দ্র উৎপাদন শুরু করেছে, যেখানে পাঁচ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে।

সরকারি সংস্থা পিজিসিবির হিসাবে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘন্টাপ্রতি সাড়ে ১১ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়। সেখানে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের উৎপাদন ছিল প্রায় সাড়ে তিন হাজার মেগাওয়াট।

এর আগে নিয়মিত মূল্য সমন্বয়ের অংশ হিসেবে ২০২৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি খুচরায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয় সরকার, যা মার্চ থেকে কার্যকর করা হয়। সেসময় খুচরায় ৫ শতাংশ বাড়িয়ে বিদ্যুতের নতুন মূল্যহার নির্ধারণ করা হয়।

ওই দর অনুযায়ী খুচরায় গ্রাহক পর্যায়ে গড়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ভারিত গড় হয় ৮ টাকা ২৪ পয়সা, যা ফেব্রুয়ারিতে ৭ টাকা ৮৫ পয়সা ছিল। আর জানুয়ারিতে ছিল ৭ টাকা ৪৮ পয়সা।

ওই সময় তিন মাসের মধ্যে তিন দফায় দাম বাড়ানো হয়েছিল।

সবশেষ দফায় ফেব্রুয়ারিতে দাম নির্ধারণের ঘোষণার পর বিদ্যুৎ সচিব হাবিবুর রহমান বলছিলেন, “বিদ্যুতের খুচরা মূল্য গড়ে ৫ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। তবে বিভিন্ন শ্রেণির গ্রাহকের জন্য তা বিভিন্ন হারে কার্যকর হবে।”

তবে সেবার খুচরায় বাড়লেও পাইকারিতে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়নি মার্চ মাসে। ফেব্রুয়ারিতে ভারিত গড়ে পাইকারি বিদ্যুতের প্রতি ইউনিটের দাম ৬ টাকা ২০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৬ টাকা ৭০ পয়সা করা হয়।

এর আগে, গত ৩১ জানুয়ারি সরকারের নির্বাহী আদেশে বিদ্যুতের দাম পাইকারি পর্যায়ে ৮ শতাংশ এবং গ্রাহক পর্যায়ে ৫ শতাংশ বাড়ানো হয়। তার আগে ১২ জানুয়ারি ভোক্তাপর্যায়ে বিদ্যুতের খুচরা দাম গড়ে প্রতি ইউনিটে ৫ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

back to top