alt

জাতীয়

ঢাকায় যানজটে বার্ষিক ক্ষতি ৫১ হাজার ১০০ কোটি টাকা

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ০২ এপ্রিল ২০২৪

রাজধানীতে যানজট থেকে নিষ্কৃতি মিলছে না কিছুতেই। বিমানবন্দর সড়কে নিত্যদিনই একই চিত্র-সংবাদ

রাজধানী ঢাকায় প্রতিদিন যানজটের কারণে যতো কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে তাতে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১৪০ কোটি টাকা বলে জানিয়েছে ঢাকার ব্যবসায়ীদের একটি সংগঠন। এ হিসেবে ঢাকার যানজটের বার্ষিক ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে প্রায় ৫১ হাজার ১০০ কোটি টাকা। ঢাকার যানজটে দেশের সামগ্রিক দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ‘প্রায় ২ দশমিক ৯ শতাংশ কম’ হচ্ছে বলেও জানায় ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)।

‘পুরান ঢাকার ব্যবসা-বাণিজ্যে যানজটের প্রভাব ও উত্তরণের উপায় চিহ্নিতকরণ’ শীর্ষক মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) এক মতবিনিময় সভায় উঠে আসে ব্যবসা-বাণিজ্যে পুরান ঢাকার অর্থনৈতিক গুরুত্ব। এতে বলা হয়, পুরান ঢাকা বাংলাদেশের জিডিপিতে আনুমানিক ২০ শতাংশ অবদান রাখছে। মৌলভীবাজার, চকবাজার, বেগম বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় প্রতিদিন গড়ে হাজার কোটি টাকার বেশি লেনদেন হয়। তবে যানজটের কারণে সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্য ব্যাহত হচ্ছে।

সভার স্বাগত বক্তব্যে ডিসিসিআই’র সভাপতি আশরাফ আহমেদ বলেন, ‘সড়কের খোঁড়াখুঁড়ি, অবৈধ ফুটপাত দখল, অপরিকল্পিত গাড়ি পার্কিং, অপ্রতুল সড়ক অবকাঠামো ও অকার্যকর ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার কারণে বিশেষ করে পুরান ঢাকায় সৃষ্ট অসহনীয় যানজট পরিস্থিতিতে ব্যবসা পরিচালনায় ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে।’

পরিবহন পরিকল্পনার অভাবে বিদ্যমান পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করেন বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) সাবেক পরিচালক এস এম সালেহ উদ্দিন।

সভায় এই পরিবহন ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘আমরা ইচ্ছেমতো বাড়ি, হাসপাতাল, স্কুল, কলেজ, দোকান তৈরি করেছি, কিন্তু এগুলো ব্যবহারের রাস্তা কেমন হবে, তা ভাবিনি। মানুষ আগে রাস্তা ঠিক করে; সে অনুযায়ী ভবন নির্মাণ হয়। আমরা করেছি উল্টো। তাই আজকে ঢাকা শহরে মানুষের নাভিশ্বাস উঠে গেছে।’ দায়ী তো আমরাই : মেয়র

সভায় প্রধান অতিথি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘৪০০ বছরের পুরাতন শহরকে আমরা সবাই ভালোবাসি। আমাদের জন্ম এ শহরে, বেড়ে ওঠা এ শহরে। কিন্তু আজকে শহরের এ অবস্থার জন্য দায়ী কে? বহির্বিশ্বের কোনো শত্রু বা ষড়যন্ত্রকারী তো দায়ী নয়, দায়ী তো আমরাই। অপরিকল্পিত নগরায়ণকে উৎসাহিত করা হয়েছে এতদিন। আজকে তাই বসবাসের জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে এ শহর।’

মেয়র বলেন, ‘ঢাকা শহরের পরিকল্পনা কে করবে, তা নিয়েই তো দ্বন্দ্ব। এতগুলো সংস্থার মধ্যে ভাগ বাটোয়ারা। আমরা এসে এটা বন্ধ করেছি। আমরা প্রথমেই এটা ঠিক করে নিয়েছি যে, শহরের পরিকল্পনা করার দায়িত্ব কেবল সিটি করপোরেশনের।’

তিনি বলেন, ‘রায়েরবাজার সুয়েজগেট থেকে পোস্তগোলা পর্যন্ত রাস্তাকে প্রশস্ত করার কাজ শুরু হচ্ছে। এখানে ৮ সারি রাস্তা হবে। এই এক্সপ্রেস রোড দিয়ে যাত্রাবাড়ী থেকে সরাসরি গাবতলী দিয়ে বের হয়ে যাওয়া যাবে। এর ফলে বাস বা ট্রাকের ঢাকা শহরের ভেতরে ঢোকার প্রয়োজন হবে না। এতে যানজট অনেক কমে আসবে।’

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরকে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। ‘কামরাঙ্গীরচর ম্যানহাটন-সাংহাই শহরের মতো দেখতে হবে। ভৌগোলিকভাবে এর ম্যানহাটন বা সাংহাই হওয়ার যোগ্যতা আছে। একইসঙ্গে চকবাজার ও মতিঝিলকে আমরা আবার পুনরুজ্জীবিত করার কাজ করছি,’ বলেন মেয়র।

পুরান ঢাকায় সার্কুলার রোড করার পরিকল্পনা ডিটিসিএ’র

সভায় ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের (ডিটিসিএ) নির্বাহী পরিচালক নীলিমা আক্তার বলেন, ‘পুরান ঢাকায় যানজট নিরসনে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। তবে বিদেশে এরকম একটা কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন যত সহজ, আমাদের এখানে তা কঠিন। কারণ জনসংখ্যার ঘনত্ব। এত মানুষ এই শহরে বাস করে যে, যানজট মোকাবিলাসংক্রান্ত পরিকল্পনা বাস্তবায়ন এখানে কঠিন।’

তিনি বলেন, ‘পুরান ঢাকার প্রতিটি এলাকার সঙ্গে মানুষের বহু আবেগ জড়িত। এখানে চাইলেই আমরা মেট্রোরেল বা বাস স্টেশনের কাজ করতে পারি না। এটা করতে গেলে পুরান ঢাকার চরিত্র হারিয়ে যাবে।’

ডিটিসিএ’র নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘আমরা পুরান ঢাকার চারদিকে একটি সার্কুলার রোড তৈরি করতে চাই, যার মাধ্যমে সমগ্র ঢাকার সঙ্গে সংযোগ তৈরি হবে। অনেকে রিকশা তুলে দেয়ার কথা বলেন। পুরান ঢাকায় আমরা যতদিন বিকল্প গণপরিবহন ব্যবস্থা তৈরি করতে না পারছি, ততদিন মানুষের কষ্টের লাঘব হবে না।’

তিনি বলেন, ‘গণপরিবহন ব্যবস্থা কীভাবে পুরান ঢাকায় চালু করা যায়, তা নিয়ে আলাদা করে আমাদের কাজ চলছে। সময় লাগলেও আমরা আশা করছি, প্রকল্পগুলো শেষ হলে যানজটের পরিস্থিতি পাল্টে যাবে।’

বুড়িগঙ্গার উপর আরও সেতু হতে পারে
ঢাকার যানজট নিরসনে সভায় ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত সংস্থাগুলোর সমন্বয়, বাস টার্মিনাল সরানো, স্কাইওয়াক স্থাপন ও স্মার্ট পার্কিং চালুসহ বিভিন্ন প্রস্তাব দিয়েছেন বক্তারা।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালক আবদুল বাকি মিয়া বলেন, ঢাকা শহরে সব মেট্রোরেলের রুট খুলে দিলে যানজট অনেকখানি কমবে।

‘গোলাপশাহ মাজার থেকে নয়াবাজার হয়ে সদরঘাটে একটি ব্রাঞ্চ লাইন তৈরি করার আলোচনা চলছে। এসব যদি শেষ করা যায়, তাহলে পুরান ঢাকার যানজট কিছুটা কমবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বুড়িগঙ্গা পার হওয়ার জন্য আরও কিছু সেতু নির্মাণ করা যেতে পারে। এতেও যানজট হ্রাস পাবে।’

সভায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মুনিবুর রহমান বলেন, ‘ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার সঙ্গে ১৮টি স্টেকহোল্ডার রয়েছে। সবার মধ্যে সমন্বয় বাড়ানো গেলে যানজট কমানো সম্ভব হবে।’

ছবি

দাবদাহ : হাসপাতালগুলোকে প্রস্তুত রাখার নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

ছবি

নাফ নদীতে মায়ানমার নৌবাহিনীর গুলি, ২ বাংলাদেশি গুলিবিদ্ধ

ছবি

বোরো মৌসুমে ৩২ টাকা কেজি দরে ধান কিনবে সরকার

ছবি

ব্যারিস্টার খোকনকে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম থেকে অব্যাহতি

ছবি

‘মুজিব ব্যাটারি’ কমপ্লেক্স উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

দীর্ঘ ছুটি শেষে খুলেছে সুপ্রিম কোর্ট

ছবি

হিট অ্যালার্টের মধ্যেই ৬০ কি.মি. বেগে ঝড় বয়ে যেতে পারে

দাবদাহে ‘কপাল পোড়ার’ শঙ্কায় কৃষক, শুকিয়ে যাচ্ছে ধান ক্ষেত, মরছে সবজির গাছ

ছবি

সোমবার থেকে ৪ দিনব্যাপী ন্যাপ এক্সপো, উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

অনিবন্ধিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধ করে দেয়া হবে:প্রতিমন্ত্রী

ছবি

গরমের কারণে সব সরকারি স্কুল, কলেজ আরও ৭ দিন বন্ধ

ছবি

ট্রাফিক সদস্যদের ছাতা-স্যালাইন-জুস-শরবত দিলেন আইজিপি

ছবি

ঈদযাত্রায় ৪১৯ দুর্ঘটনায় নিহত ৪৩৮ : যাত্রী কল্যাণ সমিতি

ছবি

ফুলেল শ্রদ্ধায় শিব নারায়ণ দাশকে বিদায়

ছবি

দেশে ইন্টারনেট সেবায় ব্যাঘাত

ছবি

তীব্র দাবদাহ : প্রাথমিক স্কুলে অ্যাসেম্বলি বন্ধ রাখার নির্দেশ

ছবি

শিব নারায়ণের কর্নিয়ায় আলো ফুটবে দুই অন্ধের চোখে

ছবি

একদিনে করোনায় আক্রান্ত ১৬ জন

ছবি

তাপপ্রবাহ নিয়ে ৭২ ঘণ্টার সতর্ক বার্তা আবহাওয়া অধিদপ্তরের

ছবি

বঙ্গবন্ধু টানেলে টোল ফ্রি সুবিধা পেল যেসব গাড়ি

ছবি

সারাদেশে তিন দিনের হিট অ্যালার্ট জারি

ছবি

জাতীয় পতাকার নকশাকার শিবনারায়ণ দাস আর নেই

ছবি

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা ও অভিজ্ঞতা বিনিময় করা হবে : আরাফাত

স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র এবং মুজিবনগর দিবস সম্পর্কে নতুন প্রজন্মেকে জানাতে হবে

ছবি

স্থানীয় সরকার নির্বাচ‌নে ভোটার উপ‌স্থি‌তি সংসদ নির্বাচ‌নের ‌চে‌য়ে বে‌শি থাকবে

ছবি

প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

ছবি

থাইল্যান্ড সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

জুন-জুলাইয়ে দেশে ইনফ্লুয়েঞ্জার হার বেশি

মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতির ওপর নজর রাখতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

এথেন্স সম্মেলনে দায়িত্বশীল ও টেকসই সমুদ্র ব্যবস্থাপনায় সম্মিলিত প্রয়াসের আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ছবি

কৃষকরাই অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি: স্পিকার

ছবি

মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতির ওপর নজর রাখার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

লালমনিরহাট সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে সাবেক ইউপি সদস্য গুলিবিদ্ধ

ছবি

তৃতীয় ধাপে ১১২ উপজেলায় ভোট ২৯ মে

ছবি

এমভি আবদুল্লাহ : ২১ নাবিক দেশে ফিরবেন জাহাজে, বাকি দুজন বিমানে

ছবি

৯৬ হাজার ৭৩৬ শিক্ষক নিয়োগে প্রক্রিয়া শুরু, আবেদনের নিয়ম

tab

জাতীয়

ঢাকায় যানজটে বার্ষিক ক্ষতি ৫১ হাজার ১০০ কোটি টাকা

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

রাজধানীতে যানজট থেকে নিষ্কৃতি মিলছে না কিছুতেই। বিমানবন্দর সড়কে নিত্যদিনই একই চিত্র-সংবাদ

মঙ্গলবার, ০২ এপ্রিল ২০২৪

রাজধানী ঢাকায় প্রতিদিন যানজটের কারণে যতো কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে তাতে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১৪০ কোটি টাকা বলে জানিয়েছে ঢাকার ব্যবসায়ীদের একটি সংগঠন। এ হিসেবে ঢাকার যানজটের বার্ষিক ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে প্রায় ৫১ হাজার ১০০ কোটি টাকা। ঢাকার যানজটে দেশের সামগ্রিক দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ‘প্রায় ২ দশমিক ৯ শতাংশ কম’ হচ্ছে বলেও জানায় ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)।

‘পুরান ঢাকার ব্যবসা-বাণিজ্যে যানজটের প্রভাব ও উত্তরণের উপায় চিহ্নিতকরণ’ শীর্ষক মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) এক মতবিনিময় সভায় উঠে আসে ব্যবসা-বাণিজ্যে পুরান ঢাকার অর্থনৈতিক গুরুত্ব। এতে বলা হয়, পুরান ঢাকা বাংলাদেশের জিডিপিতে আনুমানিক ২০ শতাংশ অবদান রাখছে। মৌলভীবাজার, চকবাজার, বেগম বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় প্রতিদিন গড়ে হাজার কোটি টাকার বেশি লেনদেন হয়। তবে যানজটের কারণে সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্য ব্যাহত হচ্ছে।

সভার স্বাগত বক্তব্যে ডিসিসিআই’র সভাপতি আশরাফ আহমেদ বলেন, ‘সড়কের খোঁড়াখুঁড়ি, অবৈধ ফুটপাত দখল, অপরিকল্পিত গাড়ি পার্কিং, অপ্রতুল সড়ক অবকাঠামো ও অকার্যকর ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার কারণে বিশেষ করে পুরান ঢাকায় সৃষ্ট অসহনীয় যানজট পরিস্থিতিতে ব্যবসা পরিচালনায় ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে।’

পরিবহন পরিকল্পনার অভাবে বিদ্যমান পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করেন বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) সাবেক পরিচালক এস এম সালেহ উদ্দিন।

সভায় এই পরিবহন ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘আমরা ইচ্ছেমতো বাড়ি, হাসপাতাল, স্কুল, কলেজ, দোকান তৈরি করেছি, কিন্তু এগুলো ব্যবহারের রাস্তা কেমন হবে, তা ভাবিনি। মানুষ আগে রাস্তা ঠিক করে; সে অনুযায়ী ভবন নির্মাণ হয়। আমরা করেছি উল্টো। তাই আজকে ঢাকা শহরে মানুষের নাভিশ্বাস উঠে গেছে।’ দায়ী তো আমরাই : মেয়র

সভায় প্রধান অতিথি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘৪০০ বছরের পুরাতন শহরকে আমরা সবাই ভালোবাসি। আমাদের জন্ম এ শহরে, বেড়ে ওঠা এ শহরে। কিন্তু আজকে শহরের এ অবস্থার জন্য দায়ী কে? বহির্বিশ্বের কোনো শত্রু বা ষড়যন্ত্রকারী তো দায়ী নয়, দায়ী তো আমরাই। অপরিকল্পিত নগরায়ণকে উৎসাহিত করা হয়েছে এতদিন। আজকে তাই বসবাসের জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে এ শহর।’

মেয়র বলেন, ‘ঢাকা শহরের পরিকল্পনা কে করবে, তা নিয়েই তো দ্বন্দ্ব। এতগুলো সংস্থার মধ্যে ভাগ বাটোয়ারা। আমরা এসে এটা বন্ধ করেছি। আমরা প্রথমেই এটা ঠিক করে নিয়েছি যে, শহরের পরিকল্পনা করার দায়িত্ব কেবল সিটি করপোরেশনের।’

তিনি বলেন, ‘রায়েরবাজার সুয়েজগেট থেকে পোস্তগোলা পর্যন্ত রাস্তাকে প্রশস্ত করার কাজ শুরু হচ্ছে। এখানে ৮ সারি রাস্তা হবে। এই এক্সপ্রেস রোড দিয়ে যাত্রাবাড়ী থেকে সরাসরি গাবতলী দিয়ে বের হয়ে যাওয়া যাবে। এর ফলে বাস বা ট্রাকের ঢাকা শহরের ভেতরে ঢোকার প্রয়োজন হবে না। এতে যানজট অনেক কমে আসবে।’

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরকে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। ‘কামরাঙ্গীরচর ম্যানহাটন-সাংহাই শহরের মতো দেখতে হবে। ভৌগোলিকভাবে এর ম্যানহাটন বা সাংহাই হওয়ার যোগ্যতা আছে। একইসঙ্গে চকবাজার ও মতিঝিলকে আমরা আবার পুনরুজ্জীবিত করার কাজ করছি,’ বলেন মেয়র।

পুরান ঢাকায় সার্কুলার রোড করার পরিকল্পনা ডিটিসিএ’র

সভায় ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের (ডিটিসিএ) নির্বাহী পরিচালক নীলিমা আক্তার বলেন, ‘পুরান ঢাকায় যানজট নিরসনে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। তবে বিদেশে এরকম একটা কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন যত সহজ, আমাদের এখানে তা কঠিন। কারণ জনসংখ্যার ঘনত্ব। এত মানুষ এই শহরে বাস করে যে, যানজট মোকাবিলাসংক্রান্ত পরিকল্পনা বাস্তবায়ন এখানে কঠিন।’

তিনি বলেন, ‘পুরান ঢাকার প্রতিটি এলাকার সঙ্গে মানুষের বহু আবেগ জড়িত। এখানে চাইলেই আমরা মেট্রোরেল বা বাস স্টেশনের কাজ করতে পারি না। এটা করতে গেলে পুরান ঢাকার চরিত্র হারিয়ে যাবে।’

ডিটিসিএ’র নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘আমরা পুরান ঢাকার চারদিকে একটি সার্কুলার রোড তৈরি করতে চাই, যার মাধ্যমে সমগ্র ঢাকার সঙ্গে সংযোগ তৈরি হবে। অনেকে রিকশা তুলে দেয়ার কথা বলেন। পুরান ঢাকায় আমরা যতদিন বিকল্প গণপরিবহন ব্যবস্থা তৈরি করতে না পারছি, ততদিন মানুষের কষ্টের লাঘব হবে না।’

তিনি বলেন, ‘গণপরিবহন ব্যবস্থা কীভাবে পুরান ঢাকায় চালু করা যায়, তা নিয়ে আলাদা করে আমাদের কাজ চলছে। সময় লাগলেও আমরা আশা করছি, প্রকল্পগুলো শেষ হলে যানজটের পরিস্থিতি পাল্টে যাবে।’

বুড়িগঙ্গার উপর আরও সেতু হতে পারে
ঢাকার যানজট নিরসনে সভায় ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত সংস্থাগুলোর সমন্বয়, বাস টার্মিনাল সরানো, স্কাইওয়াক স্থাপন ও স্মার্ট পার্কিং চালুসহ বিভিন্ন প্রস্তাব দিয়েছেন বক্তারা।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালক আবদুল বাকি মিয়া বলেন, ঢাকা শহরে সব মেট্রোরেলের রুট খুলে দিলে যানজট অনেকখানি কমবে।

‘গোলাপশাহ মাজার থেকে নয়াবাজার হয়ে সদরঘাটে একটি ব্রাঞ্চ লাইন তৈরি করার আলোচনা চলছে। এসব যদি শেষ করা যায়, তাহলে পুরান ঢাকার যানজট কিছুটা কমবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বুড়িগঙ্গা পার হওয়ার জন্য আরও কিছু সেতু নির্মাণ করা যেতে পারে। এতেও যানজট হ্রাস পাবে।’

সভায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মুনিবুর রহমান বলেন, ‘ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার সঙ্গে ১৮টি স্টেকহোল্ডার রয়েছে। সবার মধ্যে সমন্বয় বাড়ানো গেলে যানজট কমানো সম্ভব হবে।’

back to top