alt

জাতীয়

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ১০ কি.মি যানজট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১
image

ঈদুল ফিতর সামনে রেখে রাজধানী থেকে লোকজন যাচ্ছেন গ্রামের বাড়ি। নিষেধাজ্ঞা থাকলেও সেটির তোয়াক্কা না করে মানুষ ছুটছে যে যার মতো ব্যবস্থায়। কেউ পায়ে হেঁটে আবার কেউ কোনোভাবে ঢাকার বাইরে গিয়ে চড়ছেন গণপরিবহনে। জানা গেছে, গ্রামের বাড়িতে ফিরতে মরিয়া মানুষগুলোকে বহনকারী যানগুলোর বিশাল জট সৃষ্টি হয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে। আজ মঙ্গলবার ভোর থেকে সৃষ্ট এ তীব্র জট পৌঁছেছে দাউদকান্দির শহীদনগর থেকে পুটিয়া পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার।

দেশের তাপমাত্রা কিছুটা কম থাকলেও দীর্ঘ সময় যানজটে বসে থাকতে পারছেন না মানুষ। জ্যামের ভোগান্তি মাথায় নিয়ে অনেকেই হেঁটে গন্তব্যে রওনা দিয়েছেন। কয়েকজন যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভোর পাঁচটায় ঢাকায় সায়দাবাদ থেকে একটি বাসে চড়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা দেন তারা। জ্যাম ঠেলে দাউদকান্দির গৌরীপুর পর্যন্ত আসতে তাদের সময় লেগেছে চার ঘণ্টা। বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছাতে কত সময় লাগবে, জানা নেই তাদের।

আকরাম নামে এক যাত্রী জানান, ভোরে রওনা দিয়ে দুপুর ১২টার দিকে কুমিল্লার মুরাদনগর পর্যন্ত তিনি আসতে পেরেছেন। জ্যামের কারণে নোয়াখালি পর্যন্ত যেতে আরও ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা লাগতে পারে।

অনেক যাত্রীর অভিযোগ, উল্টো পথে যানবাহন চলা, মহাসড়কের বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে লোকাল বাসের স্ট্যান্ড থাকা ও পণ্যবাহী যানবাহনের কারণে তীব্র এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

কয়েকজন বাস চালক জানিয়েছেন, ঈদের যাত্রা হলেও যাত্রীদের পাশাপাশি তাদেরও ভোগান্তি অনেক। দীর্ঘক্ষণ জ্যামে বসে থাকার কারণে বাসের তেল-গ্যাস পুড়ছে। এতে তাদের আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি দিন-রাতের যাতায়াতে ভোগান্তি হচ্ছে।

সোহেল খান চাকরি সুবাদের থাকেন ঢাকায়। তার গ্রামের বাড়ি চান্দিনা সদরে। তিনি জানান, বাসা থেকে রওনা দিয়ে কোনো রকম দাউদকান্দির গৌরীপুর পর্যন্ত আসেন। পরে সাত কিলোমিটার হেঁটে বাড়ি পৌঁছান তিনি।

দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. আবদুল্লাহ বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সার্বক্ষণিক হাইওয়ে পুলিশ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। যানজট নিরসনের চেষ্টা চলছে।’

ছবি

গুলশানে অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ পরীমনির বিরুদ্ধে

ছবি

ট্রান্সফরমার আতঙ্কে জুরাইন এলাকাবাসী

ছবি

চীনের সিনোফার্মের টিকা: কারা পাবেন তার তালিকা বললেন মন্ত্রী

ছবি

‘ত্রাণ চাই না বাঁধ চাই’, গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে সংসদে

ছবি

দেশে করোনায় মৃত্যু-শনাক্ত আরও ঊর্ধ্বমুখী

ছবি

চলমান বিধি-নিষেধ আরও এক মাস বাড়লো

ছবি

দাম প্রকাশ করায় চীন থেকে টিকা পেতে দেরী হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

‘রিসোর্ট কিংবা বার হোক, আইন ভঙ্গ হলেই ব্যবস্থা’

ছবি

সুন্দরবনের আয়তন বাড়ছে: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘের জরুরি পদক্ষেপ চায় বাংলাদেশ

ছবি

সীমান্ত জেলা থেকে আম কিনে লক্ষ্মীপুরে সংক্রমণ ধরা পড়ল ব্যবসায়ীর

ছবি

রাজধানীর আশপাশে, বিভিন্ন জেলায় বাড়ছে সংক্রমণ

ছবি

জনসনের টিকার অনুমোদন দিল বাংলাদেশ

ছবি

দেশে করোনায় আরও ৫০ জনের মৃত্যু,শনাক্ত ৩৩১৯

ছবি

হজ ও ওমরা নিয়ে অনিয়ম করলে বিচারের বিধান রেখে বিল পাস

ছবি

‘গার্ড অব অনার’ নারী থাকা নিয়ে আপত্তির বিষয়ে সংসদে ক্ষোভ

ছবি

আজ বর্ষার প্রথম দিন

ছবি

ঢাকায় দুই সিটিতে বসবে ২৪টি পশুর হাট

ছবি

ফাইজার ও সিনোফার্মের টিকা দেয়া আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু :স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

ছবি

দিনাজপুর-চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদায় আজ থেকে কঠোর লকডাউন

ছবি

ফরিদপুরে একদিনে শনাক্ত বেড়েছে ৩০০ শতাংশ

ছবি

বোট ক্লাব থেকে নাসির উদ্দিনসহ ৩ জনকে বহিষ্কার

ছবি

মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ নারী বিদ্বেষী ও সংবিধানবিরোধী: নির্মূল কমিটি

ছবি

টিকা ক্রয়ের পাশপাশি দেশে উৎপাদন ও উদ্ভাবনের পরামর্শ ফারুক খানের

ছবি

সংসদীয় কমিটি পুনর্গঠন: আইনে শহীদুজ্জামান-বিদ্যুতে ওয়াসিকা সভাপতি

ছবি

দেশে ৩৬ দিন পর করোনায় সর্বাধিক মৃত্যু, শনাক্ত ৩ হাজার ছাড়ালো

ছবি

এবার ঢাকা মেডিক্যালে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত

ছবি

১৯ জুন থেকে দেওয়া হবে ফাইজার-সিনোফার্মের টিকা: স্বাস্থ্য অধিদফতর

ছবি

রোগীদের হয়রানি রোধে ঢাকা মেডিকেলে ৫ বিশেষ ব্যবস্থা

ছবি

ঈদুল আজহায় বৈধ বা অবৈধ কোন গরু ভারত থেকে আনা যাবে না

ছবি

৩ দিন গ্যাস সংকটে থাকবে রাজধানীসহ পুরো দেশ

ছবি

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ‘গার্ড অব অনারে’ নারী কর্মকর্তায় আপত্তি সংসদীয় কমিটির

ছবি

চীনের উপহারের আরও ৬ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন ঢাকায়

ছবি

দেশে করোনায় ৪৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৪৩৬

ছবি

লিবিয়ায় ভূমধ্যসাগর থেকে ১৬৪ বাংলাদেশিকে উদ্ধার

ছবি

‌এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষা না হলে বিকল্প চিন্তা : শিক্ষামন্ত্রী

tab

জাতীয়

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ১০ কি.মি যানজট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১

ঈদুল ফিতর সামনে রেখে রাজধানী থেকে লোকজন যাচ্ছেন গ্রামের বাড়ি। নিষেধাজ্ঞা থাকলেও সেটির তোয়াক্কা না করে মানুষ ছুটছে যে যার মতো ব্যবস্থায়। কেউ পায়ে হেঁটে আবার কেউ কোনোভাবে ঢাকার বাইরে গিয়ে চড়ছেন গণপরিবহনে। জানা গেছে, গ্রামের বাড়িতে ফিরতে মরিয়া মানুষগুলোকে বহনকারী যানগুলোর বিশাল জট সৃষ্টি হয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে। আজ মঙ্গলবার ভোর থেকে সৃষ্ট এ তীব্র জট পৌঁছেছে দাউদকান্দির শহীদনগর থেকে পুটিয়া পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার।

দেশের তাপমাত্রা কিছুটা কম থাকলেও দীর্ঘ সময় যানজটে বসে থাকতে পারছেন না মানুষ। জ্যামের ভোগান্তি মাথায় নিয়ে অনেকেই হেঁটে গন্তব্যে রওনা দিয়েছেন। কয়েকজন যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভোর পাঁচটায় ঢাকায় সায়দাবাদ থেকে একটি বাসে চড়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা দেন তারা। জ্যাম ঠেলে দাউদকান্দির গৌরীপুর পর্যন্ত আসতে তাদের সময় লেগেছে চার ঘণ্টা। বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছাতে কত সময় লাগবে, জানা নেই তাদের।

আকরাম নামে এক যাত্রী জানান, ভোরে রওনা দিয়ে দুপুর ১২টার দিকে কুমিল্লার মুরাদনগর পর্যন্ত তিনি আসতে পেরেছেন। জ্যামের কারণে নোয়াখালি পর্যন্ত যেতে আরও ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা লাগতে পারে।

অনেক যাত্রীর অভিযোগ, উল্টো পথে যানবাহন চলা, মহাসড়কের বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে লোকাল বাসের স্ট্যান্ড থাকা ও পণ্যবাহী যানবাহনের কারণে তীব্র এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

কয়েকজন বাস চালক জানিয়েছেন, ঈদের যাত্রা হলেও যাত্রীদের পাশাপাশি তাদেরও ভোগান্তি অনেক। দীর্ঘক্ষণ জ্যামে বসে থাকার কারণে বাসের তেল-গ্যাস পুড়ছে। এতে তাদের আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি দিন-রাতের যাতায়াতে ভোগান্তি হচ্ছে।

সোহেল খান চাকরি সুবাদের থাকেন ঢাকায়। তার গ্রামের বাড়ি চান্দিনা সদরে। তিনি জানান, বাসা থেকে রওনা দিয়ে কোনো রকম দাউদকান্দির গৌরীপুর পর্যন্ত আসেন। পরে সাত কিলোমিটার হেঁটে বাড়ি পৌঁছান তিনি।

দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. আবদুল্লাহ বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সার্বক্ষণিক হাইওয়ে পুলিশ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। যানজট নিরসনের চেষ্টা চলছে।’

back to top