alt

জাতীয়

বেঁধে দেয়া দামে এলপি গ্যাস বিক্রিতে অনাগ্রহী ব্যবসায়ীরা

ফয়েজ আহমেদ তুষার : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন ২০২১
image

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) বেঁধে দেয়া দামে এলপি গ্যাস বিক্রি করতে চাইছেন না সংশ্লিষ্ট খাতের ব্যবসায়ীরা। তাদের দাবি, সরকার যে দাম ঘোষণা করেছে, সেই দামে এলপি গ্যাস বিক্রি করে ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ব্যবসায়ীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এলপি গ্যাসের দাম পুনঃনির্ধারণে আগামী ৭ জুলাই গণশুনানির উদ্যোগ নিয়েছে কমিশন। দেশে প্রথমবারের মতো তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস (এলপিজি)’র দাম বেঁধে দেয়ার তিন মাসের মাথায় আবারও গণশুনানির এ সিদ্ধান্ত নেয়া হলো।

এদিকে সারাদেশেই এলপি গ্যাসের দাম বৃদ্ধির খবর পাওয়া গেছে। এলপিজি অপারেটস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (লোয়াব)-এর পেছনে কলকাঠি নাড়ছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। সোনারগাঁয়ের খুচরা ব্যবসায়ী মো. শাহজালাল জানান, গত সপ্তাহে ৮৩০-৮৬০ টাকা দিয়ে ১২ কেজি সিলিন্ডার কিনেছেন তিনি। সোমবার একাধিক ডিলার ও এজেন্টের কাছে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন দাম বেড়ে গেছে। ৮৮০ থেক ৯২০ টাকায় সিলিন্ডার পাওয়া যাবে। গতকাল বুধবারের খবরে বাজার আরও চড়া। এখন বাজারে পাইকারি সিলিন্ডার ৯৫০ থেকে ১০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দাম বাড়ার খবর এসেছে, মুন্সীগঞ্জ, রংপুর, বগুড়াসহ আরও কিছু জেলা থেকে।

গত ১২ এপ্রিল দেশে প্রথমবারের মতো এলপিজির মূল্য নির্ধারণ করে দেয় বিইআরসি। এরপর প্রতি মাসেই আমদানি মূল্য বিবেচনায় নিয়ে এলপিজির দাম সমন্বয় করা হচ্ছে। কিন্তু এলপিজি ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত নানা খরচ দেখিয়ে শুরু থেকেই ঘোষিত মূল্যের বিরোধিতা করে আসছিলেন। সবশেষ ২৮টি কোম্পানির মধ্যে ১৮টি কোম্পানি মূল্য পুনঃনির্ধারণের জন্য চিঠি দেয় বিইআরসিকে। এ কারণেই পুনরায় গণশুনানিতে যাচ্ছে কমিশন।

এলপি গ্যাস বা এলপিজির দাম পুনঃনির্ধারণে জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে লোয়াব ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ১২৫৯ টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব করেছিল। লোয়াবের সেই প্রস্তাব নাকচ করে বিইআরসি দাম ঘোষণা করেছিল ১২ কেজির সিলিন্ডার ৯৭৫ টাকা। লোয়াবের যুক্তি খন্ডন করতে গিয়ে বিইআরসি তখন বলেছিল, ‘আপনারা যে দাম চাচ্ছেন, তার চেয়ে অনেক কম দামে বিক্রি করছেন। আমরা মার্কেট যাচাই করে দেখেছি, ৯৫০ টাকা থেকে ১০৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ কারণে আপনাদের প্রস্তাবের কোন যৌক্তিকতা দেখছি না।’

ওই দর ঘোষণার পরদিনই লোয়াব আবার দাম বাড়ানোর দাবি জানিয়ে চিঠি দেয় বিইআরসিকে। কিন্তু বিইআরসি সেই চিঠির জবাব দিয়ে বলেছে, গণশুনানি ছাড়া এলপিজির প্রফিট মার্জিন বাড়ানোর কোন পথ খোলা নেই। বর্তমানে শুধু আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজির দাম ওঠা-নামা করলে সেই পরিমাণ কমবেশি হবে। গণশুনানির আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষ কমিটি এটি সমন্বয় করছে। ১২ এপ্রিল ঘোষিত দরের বিষয়ে আপত্তি থাকলে লাইসেন্সিকে আবেদন করতে হবে।

এ নিয়ে টানাপড়েনের মধ্যে পরবর্তি দুই মাসে আরও দুই দফা এলপিজির দর ঘোষণা করে বিইআরসি। সর্বশেষ ৩১ মে জুন মাসের জন্য দর ঘোষণা করা হয়। সেখানে বিইআরসি চেয়ারম্যান বলেন, গত ৩০ মে ৬টি কোম্পানি দাম বাড়ানোর জন্য গণশুনানির আবেদন করেছে। আমরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ব্যবস্থা নেব।

এদিকে এলপিজির দাম পুনঃনির্ধারণের দাবিতে লোয়াবের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘বিইআরসি দর ঘোষণার সময়ে তাদের অনেকগুলো খাতের খরচকে বিবেচনা আনা হয়নি। অপারেটর প্রফিট, ব্যাংকের সুদ, আমদানি ব্যয়, ডিস্ট্রিবিউশন খরচ, ডিলার ও খুচরা বিক্রেতার কমিশন সবমিলিয়ে ৪৮১ টাকা চেয়েছিলাম, সেখানে বিইআরসি ১৯৪ টাকা অনুমোদন করেছে। ডিলার ও খুচরা বিক্রেতার প্রফিট যথাক্রমে ২৪ টাকা ২৭ টাকা ধরা হয়েছে এটি বাস্তবসম্মত হয়নি। এলপিজি শিল্পের অস্তিত্ব রক্ষায় ১২ কেজি সিলিন্ডারের ঘোষিত দরের সঙ্গে আরও ২৮৭ টাকা যুক্ত করা হোক।’

প্রথমবার এলপি গ্যাসের দর ঘোষণার সময় বিইআরসি বলেছিল, সৌদি রাষ্ট্রীয় কোম্পানি আরামকো ঘোষিত দরকে প্রতি মাসের ভিত্তি মূল্য অর্থাৎ গ্যাসের নিট মূল্য ধরা হয়েছে। সিপির দর উঠা-নামা করলে প্রতিমাসে দর সমন্বয় করা হবে। মার্চের সিপি (সৌদি আরামকো কন্ট্রাক্ট প্রাইস) দর ছিল যথাক্রমে প্রতি টন প্রোপেন বিউটেন ৬২৫ ও ৫৯৫ ডলার। পরের মাস এপ্রিলে হয় যথাক্রমে ৫৬০ ও ৫৩০ ইউএস ডলার। মে মাসে ৪৯৫ ও ৪৭৫ ডলারে নেমে আসে সে অনুযায়ী জুন মাসের জন্য ১২ কেজি বেসরকারি সিলিন্ডারের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৮৪২ টাকা পুনঃনির্ধারণ করা হয়।

সে অনুযায়ী জুনের শুরুতে কয়েকদিন কম দামেই কেনাবেচা হয়। কিন্তু গত মঙ্গলবার ও বুধবার সারাদেশে একযোগে পাইকারি দরেই ৮৯০ থেকে ১০০০ টাকায় বেচাকেনার খবর পাওয়া গেছে। সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র বলছে, আসন্ন গণশুনানিতে দাম বাড়ানোর অযুহাত দাঁড় করাতেই দেশব্যাপী মূল্যবৃদ্ধির এই কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে বিইআরসির এক কর্মকর্তা বলেন, বিইআরসি গণশুনানির মাধ্যমে নির্ধারিত একটি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে মাসে মাসে সৌদি আরামকো নির্ধারিত আমদানি খরচের সঙ্গে সমন্বয় করে বাসাবাড়ির রান্নার গ্যাস আর অটোগ্যাসের দাম নির্ধারণ করছে। কিন্তু এলপিজি অপারেটররা মজুতকরণ, বোতলজাতকরণ, ডিলার ও খুচরা পর্যায়ে মাশুলেও পরিবর্তন চান। এ কারণেই গণশুনানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। তিনি বলেন, ৭ জুলাই বিয়াম ফাউন্ডেশনে এই শুনানি হবে। একদিনে যদি আলোচনা শেষ করা না যায় তাহলে আরও একদিন অর্থাৎ ৮ জুলাইও রাখা হয়েছে শুনানির সুযোগ।

বিইআরসি এলপি গ্যাসের মূল্য বেঁধে দেয়ায় দীর্ঘদিন এলপি গ্যাসের বাজার নিয়ন্ত্রণে ব্যবসায়ীদের একচেটিয়া প্রভাব কিছুটা কমে এসেছিল। সাধারণ গ্রাহক সরকার নির্ধারিত মূল্যে এলপি গ্যাস না পেলে, বিক্রেতাকে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তবে নতুন করে গণশুনানির মাধ্যমে এলপিজির দাম বাড়ানো হলে বাজারে ব্যবসায়ীদের আধিপত্যই প্রতিষ্ঠিত হবে বলে মনে করছেন এ খাতের বিশ্লেষকরা।

ছবি

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তির বৈধতা প্রশ্নে হাইকোর্টের রুল

ছবি

মঙ্গলবার থেকে ৭ জেলায় লকডাউন ঘোষণা

ছবি

পদোন্নতি পেলেন ৬৯ বিচারক

ছবি

রাজধানীতে ফাইজার টিকা দেওয়া শুরু, ৩ কেন্দ্রে ভিড়

ছবি

ব্যয় কমাতে নতুন কোন বিদ্যুৎকেন্দ্র না করার সুপারিশ সিপিডির

ছবি

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ২৬টিতে নৌকার জয়

ছবি

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর এর সাথে ই-ক্যাবের যৌথসভা

ছবি

দেশে করোনায় আরও ৮২ জনের মৃত্যু, সাত সপ্তাহে সর্বোচ্চ

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেল আরও ৫৩ হাজার ভূমিহীন পরিবার

ছবি

অতিভারী বৃষ্টির প্রভাবে ভূমিধসের শঙ্কা

ছবি

আজ বিশ্ব বাবা দিবস

ছবি

কোরবানির জন্য দেশে পর্যাপ্ত পশু রয়েছে

ছবি

কবি সুফিয়া কামালের জন্মদিন আজ

ছবি

আজ ৫৩ হাজার পরিবার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের ঘরের চাবি পাচ্ছে

ছবি

দেশে করোনায় ৪৮ দিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু

ছবি

ঢাকায় বেড়েছে শনাক্তের হার মৃত্যু কমেছে

ছবি

আজ থেকে আবারও টিকাদান শুরু

ছবি

দেশে করোনায় দুই মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্তের হার, মৃত্যু ৫৪

ছবি

নিখোঁজের ৮ দিন পর খোঁজ মিলেছে আবু ত্ব-হার

ছবি

ঢাকায় পাতালরেল চলবে ২০২৬ সালে

ছবি

ঢাকায় করোনার ৬৮ শতাংশ ভারতীয় ধরন

ছবি

পুলিশ ও ইসি কর্মকর্তাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ছবি

মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্তদের বেশির ভাগ দরিদ্র, স্বল্পশিক্ষিত ও সুবিধাবঞ্চিত

ছবি

সাশ্রয়ী মূল্যে সবার জন্য টিকা নিশ্চিত করতে জাতিসংঘকে বাংলাদেশের আহ্বান

ছবি

ঢাকায় করোনার ৬৮ শতাংশ সংক্রমণই ভারতীয় ধরন

ছবি

দেশে করোনায় মৃত্যু আজও ঊর্ধ্বমুখী

ছবি

ক্লাব, মদ ও জুয়া নিয়ে জাতীয় সংসদে উত্তপ্ত বিতর্ক

ছবি

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের মৃত্যু

ছবি

দ্বিতীয় পর্যায়ে ভূমিসহ ঘর পাচ্ছে আরও ৫৩ হাজার পরিবার

ছবি

রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রত্যাবর্তনে জাতিসংঘের স্পষ্ট রোডম্যাপ চায় বাংলাদেশ

ছবি

টিকা সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে: চীনা রাষ্ট্রদূত

ছবি

গুলশানে অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগ পরীমনির বিরুদ্ধে

ছবি

ট্রান্সফরমার আতঙ্কে জুরাইন এলাকাবাসী

ছবি

চীনের সিনোফার্মের টিকা: কারা পাবেন তার তালিকা বললেন মন্ত্রী

ছবি

‘ত্রাণ চাই না বাঁধ চাই’, গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে সংসদে

ছবি

দেশে করোনায় মৃত্যু-শনাক্ত আরও ঊর্ধ্বমুখী

tab

জাতীয়

বেঁধে দেয়া দামে এলপি গ্যাস বিক্রিতে অনাগ্রহী ব্যবসায়ীরা

ফয়েজ আহমেদ তুষার
image

বৃহস্পতিবার, ১০ জুন ২০২১

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) বেঁধে দেয়া দামে এলপি গ্যাস বিক্রি করতে চাইছেন না সংশ্লিষ্ট খাতের ব্যবসায়ীরা। তাদের দাবি, সরকার যে দাম ঘোষণা করেছে, সেই দামে এলপি গ্যাস বিক্রি করে ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ব্যবসায়ীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এলপি গ্যাসের দাম পুনঃনির্ধারণে আগামী ৭ জুলাই গণশুনানির উদ্যোগ নিয়েছে কমিশন। দেশে প্রথমবারের মতো তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস (এলপিজি)’র দাম বেঁধে দেয়ার তিন মাসের মাথায় আবারও গণশুনানির এ সিদ্ধান্ত নেয়া হলো।

এদিকে সারাদেশেই এলপি গ্যাসের দাম বৃদ্ধির খবর পাওয়া গেছে। এলপিজি অপারেটস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (লোয়াব)-এর পেছনে কলকাঠি নাড়ছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। সোনারগাঁয়ের খুচরা ব্যবসায়ী মো. শাহজালাল জানান, গত সপ্তাহে ৮৩০-৮৬০ টাকা দিয়ে ১২ কেজি সিলিন্ডার কিনেছেন তিনি। সোমবার একাধিক ডিলার ও এজেন্টের কাছে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন দাম বেড়ে গেছে। ৮৮০ থেক ৯২০ টাকায় সিলিন্ডার পাওয়া যাবে। গতকাল বুধবারের খবরে বাজার আরও চড়া। এখন বাজারে পাইকারি সিলিন্ডার ৯৫০ থেকে ১০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দাম বাড়ার খবর এসেছে, মুন্সীগঞ্জ, রংপুর, বগুড়াসহ আরও কিছু জেলা থেকে।

গত ১২ এপ্রিল দেশে প্রথমবারের মতো এলপিজির মূল্য নির্ধারণ করে দেয় বিইআরসি। এরপর প্রতি মাসেই আমদানি মূল্য বিবেচনায় নিয়ে এলপিজির দাম সমন্বয় করা হচ্ছে। কিন্তু এলপিজি ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত নানা খরচ দেখিয়ে শুরু থেকেই ঘোষিত মূল্যের বিরোধিতা করে আসছিলেন। সবশেষ ২৮টি কোম্পানির মধ্যে ১৮টি কোম্পানি মূল্য পুনঃনির্ধারণের জন্য চিঠি দেয় বিইআরসিকে। এ কারণেই পুনরায় গণশুনানিতে যাচ্ছে কমিশন।

এলপি গ্যাস বা এলপিজির দাম পুনঃনির্ধারণে জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে লোয়াব ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ১২৫৯ টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব করেছিল। লোয়াবের সেই প্রস্তাব নাকচ করে বিইআরসি দাম ঘোষণা করেছিল ১২ কেজির সিলিন্ডার ৯৭৫ টাকা। লোয়াবের যুক্তি খন্ডন করতে গিয়ে বিইআরসি তখন বলেছিল, ‘আপনারা যে দাম চাচ্ছেন, তার চেয়ে অনেক কম দামে বিক্রি করছেন। আমরা মার্কেট যাচাই করে দেখেছি, ৯৫০ টাকা থেকে ১০৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ কারণে আপনাদের প্রস্তাবের কোন যৌক্তিকতা দেখছি না।’

ওই দর ঘোষণার পরদিনই লোয়াব আবার দাম বাড়ানোর দাবি জানিয়ে চিঠি দেয় বিইআরসিকে। কিন্তু বিইআরসি সেই চিঠির জবাব দিয়ে বলেছে, গণশুনানি ছাড়া এলপিজির প্রফিট মার্জিন বাড়ানোর কোন পথ খোলা নেই। বর্তমানে শুধু আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজির দাম ওঠা-নামা করলে সেই পরিমাণ কমবেশি হবে। গণশুনানির আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষ কমিটি এটি সমন্বয় করছে। ১২ এপ্রিল ঘোষিত দরের বিষয়ে আপত্তি থাকলে লাইসেন্সিকে আবেদন করতে হবে।

এ নিয়ে টানাপড়েনের মধ্যে পরবর্তি দুই মাসে আরও দুই দফা এলপিজির দর ঘোষণা করে বিইআরসি। সর্বশেষ ৩১ মে জুন মাসের জন্য দর ঘোষণা করা হয়। সেখানে বিইআরসি চেয়ারম্যান বলেন, গত ৩০ মে ৬টি কোম্পানি দাম বাড়ানোর জন্য গণশুনানির আবেদন করেছে। আমরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ব্যবস্থা নেব।

এদিকে এলপিজির দাম পুনঃনির্ধারণের দাবিতে লোয়াবের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ‘বিইআরসি দর ঘোষণার সময়ে তাদের অনেকগুলো খাতের খরচকে বিবেচনা আনা হয়নি। অপারেটর প্রফিট, ব্যাংকের সুদ, আমদানি ব্যয়, ডিস্ট্রিবিউশন খরচ, ডিলার ও খুচরা বিক্রেতার কমিশন সবমিলিয়ে ৪৮১ টাকা চেয়েছিলাম, সেখানে বিইআরসি ১৯৪ টাকা অনুমোদন করেছে। ডিলার ও খুচরা বিক্রেতার প্রফিট যথাক্রমে ২৪ টাকা ২৭ টাকা ধরা হয়েছে এটি বাস্তবসম্মত হয়নি। এলপিজি শিল্পের অস্তিত্ব রক্ষায় ১২ কেজি সিলিন্ডারের ঘোষিত দরের সঙ্গে আরও ২৮৭ টাকা যুক্ত করা হোক।’

প্রথমবার এলপি গ্যাসের দর ঘোষণার সময় বিইআরসি বলেছিল, সৌদি রাষ্ট্রীয় কোম্পানি আরামকো ঘোষিত দরকে প্রতি মাসের ভিত্তি মূল্য অর্থাৎ গ্যাসের নিট মূল্য ধরা হয়েছে। সিপির দর উঠা-নামা করলে প্রতিমাসে দর সমন্বয় করা হবে। মার্চের সিপি (সৌদি আরামকো কন্ট্রাক্ট প্রাইস) দর ছিল যথাক্রমে প্রতি টন প্রোপেন বিউটেন ৬২৫ ও ৫৯৫ ডলার। পরের মাস এপ্রিলে হয় যথাক্রমে ৫৬০ ও ৫৩০ ইউএস ডলার। মে মাসে ৪৯৫ ও ৪৭৫ ডলারে নেমে আসে সে অনুযায়ী জুন মাসের জন্য ১২ কেজি বেসরকারি সিলিন্ডারের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৮৪২ টাকা পুনঃনির্ধারণ করা হয়।

সে অনুযায়ী জুনের শুরুতে কয়েকদিন কম দামেই কেনাবেচা হয়। কিন্তু গত মঙ্গলবার ও বুধবার সারাদেশে একযোগে পাইকারি দরেই ৮৯০ থেকে ১০০০ টাকায় বেচাকেনার খবর পাওয়া গেছে। সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র বলছে, আসন্ন গণশুনানিতে দাম বাড়ানোর অযুহাত দাঁড় করাতেই দেশব্যাপী মূল্যবৃদ্ধির এই কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে বিইআরসির এক কর্মকর্তা বলেন, বিইআরসি গণশুনানির মাধ্যমে নির্ধারিত একটি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে মাসে মাসে সৌদি আরামকো নির্ধারিত আমদানি খরচের সঙ্গে সমন্বয় করে বাসাবাড়ির রান্নার গ্যাস আর অটোগ্যাসের দাম নির্ধারণ করছে। কিন্তু এলপিজি অপারেটররা মজুতকরণ, বোতলজাতকরণ, ডিলার ও খুচরা পর্যায়ে মাশুলেও পরিবর্তন চান। এ কারণেই গণশুনানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। তিনি বলেন, ৭ জুলাই বিয়াম ফাউন্ডেশনে এই শুনানি হবে। একদিনে যদি আলোচনা শেষ করা না যায় তাহলে আরও একদিন অর্থাৎ ৮ জুলাইও রাখা হয়েছে শুনানির সুযোগ।

বিইআরসি এলপি গ্যাসের মূল্য বেঁধে দেয়ায় দীর্ঘদিন এলপি গ্যাসের বাজার নিয়ন্ত্রণে ব্যবসায়ীদের একচেটিয়া প্রভাব কিছুটা কমে এসেছিল। সাধারণ গ্রাহক সরকার নির্ধারিত মূল্যে এলপি গ্যাস না পেলে, বিক্রেতাকে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তবে নতুন করে গণশুনানির মাধ্যমে এলপিজির দাম বাড়ানো হলে বাজারে ব্যবসায়ীদের আধিপত্যই প্রতিষ্ঠিত হবে বলে মনে করছেন এ খাতের বিশ্লেষকরা।

back to top