alt

জাতীয়

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকেও জঙ্গিদের উত্থান হতে পারে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকেও জঙ্গিদের উত্থান হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। এই সমস্যা যদি শেষ না হয় তাহলে নতুন মাত্রায় জঙ্গিবাদের উত্থান হয়ে যেতে পারে।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত ‘মুম্বাইয়ে সন্ত্রাসী হামলার ১৩তম বার্ষিকী’ উপলক্ষে আয়োজিত আলোকচিত্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

এসময় মন্ত্রী বলেন, অতি সম্প্রতি আপনারা দেখেছেন, মিয়ানমার থেকে ১১ লাখ বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জোর করে আমাদের দেশে, আমাদেরকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা এটুকু বলতে চাই, এই যে ১১ লাখ, এখান থেকেও জঙ্গির উত্থান হতে পারে। তারা ইজি ইন পে হতে পারে টেরোরিস্টদের, যেটা আমরা সবসময় বলে আসি। কাজেই এই প্রবলেমটা যদি শীঘ্রয় শেষ না হয়, তাহলে হয়তো আমাদের নতুন মাত্রার জঙ্গির উত্থান হয়েও যেতে পারে।

এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী আমরা ঢেলে সাজিয়েছি। আমরা মনে তারা যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য তৈরি হয়ে থাকে। সেজন্যই এখন যেকোন বড় ধরনের আক্রমণ তারা আগে থেকে ডিটেক্ট করতে পারছে। আমাদের দেশের জনগণও ঘুরে দাঁড়িয়েছিলেন জঙ্গি নিরসনে। আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতসহ অন্যান্য দেশও এগিয়ে আসছে এই কাজে। তাদের টেকনোলজি আমাদের দিয়ে সহযোগিতা করেছে। এজন্য আমারা আরও সহজভাবে এগুলো করতে পারছি।

তিনি বলেন, ভারতের মুম্বাইয়ে হামলা আর ২১শে আগস্টের গ্রেনেড হামলা একই রকম বিষয়। একটি গোষ্ঠি জাতির জনক ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করেও ক্ষান্ত হয়নি। শেষে শেখ হাসিনার উপরও হামলা করা হয়। তারা কারা? যারা পরাজিত শক্তি, যারা যুদ্ধে পরাজিত হয়েছিল, যাদের আদর্শ পরাজিত হয়েছিল, তারাই ঘাপটি মেরে বসেছিল।

আয়োজনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, মুম্বাইয়ে হামলার ঘটনা আমরা ভুলতে পারিনা। কেননা আর কোথাও এমন ঘটনা ঘটেনি। একটি রাষ্ট্র অন্য একটি রাষ্ট্রকে টার্গেট করে এটা করেছে। আর সেসময় এমন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাঙালিরা আমাদের অনুপ্রেরণা ছিল। এটা বলায় যায় যে ১৯৭১ এবং ২০০৮ এর ঘটনা প্রায় একইরকম। বাংলাদেশ এবং ভারত একসঙ্গে সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে। আর এই পথচলা আরও দীর্ঘ হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল আব্দুর রশীদ, সাংসদ আরমা দত্ত, শহীদ জয়া শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী এবং বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

ছবি

গ্যাসের দাম ‘এক লাফে দ্বিগুণ’ করার প্রস্তাব

ছবি

জনগণকে সেবাদান দয়া-দাক্ষিণ্য নয়: ডিসিদের রাষ্ট্রপতি

ছবি

করোনা: শনাক্তের হার ২৪ শতাংশ ছুঁইঁছুঁই, আক্রান্ত ৮৪০৭

ছবি

প্রকল্প তদারকিতে কমিটি চান ডিসিরা, সায় নেই সরকারের

ছবি

শনাক্ত রোগীর ২০ শতাংশই ওমিক্রনে আক্রান্ত

ছবি

শহিদ ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ভিক্ষা করবে আমি দেখতে চাই না : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে শিশুদের মেরুদন্ডের বাঁকা হাড় সোজা করণ ইউনিট চালু

ছবি

৫ জেলায় শৈত্যপ্রবাহ

ছবি

নির্বাচন কমিশনের জন্য সার্চ কমিটি গঠনের খসড়া আইন

প্রশিক্ষণ নিতে আসা ২২ জন বিচারক করোনাক্রান্ত

ছবি

জাপা এমপি বললেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পাওয়া র‌্যাব কর্মকর্তারা ‘দেশপ্রেমিক’

ছবি

ঢাকায় ৬৯% এখন ওমিক্রনে সংক্রমিত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

আওয়ামী লীগ বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নিল

‘নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের মানুষ বুঝতে পেরেছে ভোট কতটা সুষ্ঠু হয় ইভিএমের মাধ্যমে। ’

ইউটিউব বন্ধের দাবি সংসদে

১২-১৮ বছর বয়সী ৬৪% শিক্ষার্থী টিকা পেয়েছে : সংসদে নওফেল

হারুনের বক্তব্যে সংসদে উত্তেজনা

ইসি গঠনে আইনের খসড়া মন্ত্রীসভায় অনুমোদন

ছবি

সার্চ কমিটি রেখেই ইসি গঠনের আইন হচ্ছে

ছবি

যৌন হয়রানির শিকার হয়ে একবছরে আত্মহত্যা করেছে ৮১ শিশু

ছবি

৫০ বছর হলেই বুস্টার ডোজ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণে টিএইচ খানের জানাজা অনুষ্ঠিত

ছবি

সংশোধন হচ্ছে পর্যটন কর্পোরেশন আইন, বদলাচ্ছে পর্যটকের সংজ্ঞাও

ছবি

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আ.লীগের সংলাপ বিকালে

ছবি

জরুরী সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন স্বাস্থ্যের ডিজি

ছবি

আরও দুই-একদিন থাকবে মৃদু শৈত্য প্রবাহ

শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল প্রযুক্তিতে দক্ষ করে তুলতে হবে : মোস্তাফা জব্বার

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা শাস্তি নয়, সতর্কতার জন্য : কৃষিমন্ত্রী

ছবি

নাসিক নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৫০ শতাংশ: ইসি

ছবি

নতুন বছরের প্রথম সংসদ অধিবেশন শুরু

ছবি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি: শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

করোনা: একদিনে শনাক্ত ৫ হাজার ছাড়াল, হার ১৭.৮২

ছবি

ভোট সুষ্ঠু ও স্বাভাবিক হয়েছে : রিটার্নিং কর্মকর্তা

ছবি

বিদায়লগ্নে ভালো নির্বাচন দেখতে চাই: মাহবুব তালুকদার

ছবি

পরিবহন ধর্মঘট ময়মনসিংহে, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

ছবি

২০২২ সালের প্রথম অধিবেশন বসছে আজ

tab

জাতীয়

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকেও জঙ্গিদের উত্থান হতে পারে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকেও জঙ্গিদের উত্থান হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। এই সমস্যা যদি শেষ না হয় তাহলে নতুন মাত্রায় জঙ্গিবাদের উত্থান হয়ে যেতে পারে।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত ‘মুম্বাইয়ে সন্ত্রাসী হামলার ১৩তম বার্ষিকী’ উপলক্ষে আয়োজিত আলোকচিত্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

এসময় মন্ত্রী বলেন, অতি সম্প্রতি আপনারা দেখেছেন, মিয়ানমার থেকে ১১ লাখ বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জোর করে আমাদের দেশে, আমাদেরকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা এটুকু বলতে চাই, এই যে ১১ লাখ, এখান থেকেও জঙ্গির উত্থান হতে পারে। তারা ইজি ইন পে হতে পারে টেরোরিস্টদের, যেটা আমরা সবসময় বলে আসি। কাজেই এই প্রবলেমটা যদি শীঘ্রয় শেষ না হয়, তাহলে হয়তো আমাদের নতুন মাত্রার জঙ্গির উত্থান হয়েও যেতে পারে।

এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী আমরা ঢেলে সাজিয়েছি। আমরা মনে তারা যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য তৈরি হয়ে থাকে। সেজন্যই এখন যেকোন বড় ধরনের আক্রমণ তারা আগে থেকে ডিটেক্ট করতে পারছে। আমাদের দেশের জনগণও ঘুরে দাঁড়িয়েছিলেন জঙ্গি নিরসনে। আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতসহ অন্যান্য দেশও এগিয়ে আসছে এই কাজে। তাদের টেকনোলজি আমাদের দিয়ে সহযোগিতা করেছে। এজন্য আমারা আরও সহজভাবে এগুলো করতে পারছি।

তিনি বলেন, ভারতের মুম্বাইয়ে হামলা আর ২১শে আগস্টের গ্রেনেড হামলা একই রকম বিষয়। একটি গোষ্ঠি জাতির জনক ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করেও ক্ষান্ত হয়নি। শেষে শেখ হাসিনার উপরও হামলা করা হয়। তারা কারা? যারা পরাজিত শক্তি, যারা যুদ্ধে পরাজিত হয়েছিল, যাদের আদর্শ পরাজিত হয়েছিল, তারাই ঘাপটি মেরে বসেছিল।

আয়োজনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, মুম্বাইয়ে হামলার ঘটনা আমরা ভুলতে পারিনা। কেননা আর কোথাও এমন ঘটনা ঘটেনি। একটি রাষ্ট্র অন্য একটি রাষ্ট্রকে টার্গেট করে এটা করেছে। আর সেসময় এমন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাঙালিরা আমাদের অনুপ্রেরণা ছিল। এটা বলায় যায় যে ১৯৭১ এবং ২০০৮ এর ঘটনা প্রায় একইরকম। বাংলাদেশ এবং ভারত একসঙ্গে সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে। আর এই পথচলা আরও দীর্ঘ হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল আব্দুর রশীদ, সাংসদ আরমা দত্ত, শহীদ জয়া শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী এবং বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

back to top