alt

জাতীয়

আন্তর্জাতিক পানি সম্মেলন : ‘রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে তিস্তা রক্ষার কথা ভাবতে হবে’

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২

তিস্তাসহ দেশের সব কটি নদ-নদীর পানি এবং প্রতিবেশব্যবস্থাকে রক্ষা করতে হবে। কারণ, এ অঞ্চলের নদীগুলো শুধু পানির উৎস নয়; এটিকে কেন্দ্র করে মানুষের জীবন, জীবিকা ও সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে। ফলে পানিকেন্দ্রিক এই জীবন-জীবিকা রক্ষায় তিস্তার মতো নদীকে রক্ষা করতে হবে। এ জন্য এই নদীর তীরবর্তী মানুষকে যুক্ত করতে হবে, তাদের মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে। রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে মানুষ ও প্রাণ–প্রকৃতিকে রক্ষা করে আমাদের এগোতে হবে।

আজ শনিবার ঢাকায় শেষ হওয়া সপ্তম আন্তর্জাতিক পানি সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনে বক্তারা এসব কথা বলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় বিভিন্ন দেশের পানি বিশেষজ্ঞরা বক্তব্য দেন। সভাপতির বক্তব্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিখ্যাত বক্তব্য ‘মানুষের প্রতি বিশ্বাস হারানো পাপ’—এ মন্তব্য উদ্বৃত্ত করে ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, ‘যেকোনো সম্মেলনের শেষ বলে কিছু নেই। এটা তিস্তা নিয়ে আমাদের আলোচনার নতুন করে সূত্রপাত হতে পারে।’

সূচনা বক্তব্যে অ্যাকশনএইড, বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির বলেন, ‘১৫টি দেশের মানুষ এই সম্মেলনে অংশ নেন। তিস্তা নিয়ে সমন্বিত অববাহিকাভিত্তিক একটি ব্যবস্থাপনা দরকার। এই নদীকে বাণিজ্যিক দৃষ্টিতে দেখলে হবে না; একে প্রাণ-প্রকৃতির অংশ হিসেবে দেখতে হবে। আমাদের জীবন, সংস্কৃতি ও জীবিকার অংশ হিসেবে এই নদীকে বিবেচনা করতে হবে। সর্বোপরি একে একটি জীবন্ত সত্তা হিসেবে দেখতে হবে।’

সাবেক পররাষ্ট্রসচিব শহিদুল হক বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলার আলোকে নদীকে দেখতে হবে। পানি একটি কৌশলগত সম্পদ। ফলে এর ব্যবস্থাপনাকে সেই দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখতে হবে। বাংলাদেশ ও ভারতের নীতিনির্ধারকদের সরকারকেন্দ্রিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে সরে এসে জনগণকে কেন্দ্রে রেখে তিস্তা নিয়ে চিন্তা ও পরিকল্পনা করতে হবে।

আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্লোবাল নেটওয়ার্ক অন ওয়াটার মিউজিয়ামের নির্বাহী পরিচালক এরিবার্টো ইউলিসি বলেন, ‘পানি জাদুঘর বিশ্বের পানিসম্পদের ধরন ও এর সঙ্গে যুক্ত মানুষের সংস্কৃতিকে ধরে রাখে। পরবর্তী প্রজন্মের কাছে সেগুলো তুলে ধরে। এ ছাড়া প্রতিটি নদীর পানির বৈশিষ্ট্য, প্রতিবেশ ব্যবস্থাপনা এবং এর পরিবর্তন সম্পর্কেও এটি আমাদের ধারণা দেয়।’

ছবি

মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা

ছবি

১৬৫ যাত্রী নিয়ে ঢাকা ছাড়ল মৈত্রী এক্সপ্রেস

ছবি

ক্ষমতাসীন দল চায় তারা যা বলবে পুলিশ তাই করবে : সাবেক আইজিপি

ছবি

বিশ্ববিদ্যালয়ে সময়োপযোগী কারিকুলাম প্রণয়নের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির

ছবি

দায়িত্বে চাপ ছিল, বিদেশে চাকরির প্রলোভনও ছিল: দাবি মসিউরের

ছবি

করোনা: শনাক্ত ২৮ রোগী, ২০ জনই ঢাকার

ছবি

ক্ষমতাসীনরা চায় তারা যা বলবে পুলিশ তাই করবে: সাবেক আইজিপি

ছবি

বর্ষার আগে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগী বাড়ছে

ছবি

রাজধানীকে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

মানুষ চাইলে তিন বেলা মাংস খেতে পারে: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

ছবি

স্ত্রীর পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত গাফ্‌ফার চৌধুরী

ছবি

অবৈধ ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক রোববারের মধ্যে বন্ধ না হলে ব্যবস্থা

ছবি

কর্মমুখী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে

ছবি

লাল সবুজের পতাকায় আবৃত গাফফার চৌধুরীর কফিনে ফুলেল শ্রদ্ধা

ছবি

শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধায় সিক্ত গাফ্‌ফার চৌধুরী

ছবি

বাংলাদেশ-ভারত জেসিসি পিছিয়েছে

ছবি

বাংলাদেশি দুই শান্তিরক্ষী পেলেন দ্যাগ হ্যামারশোল্ড পদক

ছবি

ঢাকায় পৌঁছেছে আবদুল গাফফার চৌধুরীর মরদেহ

ছবি

হজের নিবন্ধন শেষ হচ্ছে আজ, খোলা থাকবে ব্যাংক

ছবি

আজ দুপুরে শহীদ মিনারে গাফফার চৌধুরীকে শেষ শ্রদ্ধা

আউয়াল কমিশনের প্রথম নির্বাচন : মাঠ পর্যায়ে যাচ্ছেন কমিশনাররা

ছবি

পদ্মা সেতু চালু হলেও বন্ধ হবে না ফেরি সার্ভিস

ছবি

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে এশীয় নেতাদের সহযোগিতা চান প্রধানমন্ত্রী

ছবি

গাফ্‌ফার চৌধুরীর মরদেহ আসছে শনিবার, দুপুরে রাখা হবে শহীদ মিনারে

ছবি

করোনা: টানা ৪ দিন মৃত্যু নেই, শনাক্ত ২৩

ছবি

৪৪তম বিসিএস প্রিলি: আসনপ্রতি লড়ছেন ২০৫ জন

ছবি

ভারত-বাংলাদেশের নতুন দরজা ‘স্বাধীনতা সড়ক’ শীঘ্রই খোলছে

সারাদেশে ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা চলছে

ছবি

নতুন দল নিবন্ধনের জন্য আবেদন আহ্বান ইসির

ছবি

করোনা: শনাক্ত ২৮ রোগীর ১৭ জন ঢাকার

শিক্ষাক্ষেত্রে লক্ষ্য অর্জনে সমন্বিত উদ্যোগ জরুরি : শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

‘টাকা পাচারকারীরা সাধারণ ক্ষমার আওতায় আসছে’

ছবি

হজের খরচ বাড়লো আরও ৫৯ হাজার টাকা

ছবি

৭২ ঘণ্টার মধ্যে অনিবন্ধিত ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধের নির্দেশ

ছবি

‘বাংলাদেশের সভাপতিত্বে ‘সিভিএফ’ ন্যায্য কণ্ঠস্বর হিসেবে আবির্ভূত হয়’

ছবি

বাংলাদেশ থেকে দক্ষ কর্মী নিতে আগ্রহী সার্বিয়া

tab

জাতীয়

আন্তর্জাতিক পানি সম্মেলন : ‘রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে তিস্তা রক্ষার কথা ভাবতে হবে’

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২

তিস্তাসহ দেশের সব কটি নদ-নদীর পানি এবং প্রতিবেশব্যবস্থাকে রক্ষা করতে হবে। কারণ, এ অঞ্চলের নদীগুলো শুধু পানির উৎস নয়; এটিকে কেন্দ্র করে মানুষের জীবন, জীবিকা ও সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে। ফলে পানিকেন্দ্রিক এই জীবন-জীবিকা রক্ষায় তিস্তার মতো নদীকে রক্ষা করতে হবে। এ জন্য এই নদীর তীরবর্তী মানুষকে যুক্ত করতে হবে, তাদের মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে। রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে মানুষ ও প্রাণ–প্রকৃতিকে রক্ষা করে আমাদের এগোতে হবে।

আজ শনিবার ঢাকায় শেষ হওয়া সপ্তম আন্তর্জাতিক পানি সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনে বক্তারা এসব কথা বলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় বিভিন্ন দেশের পানি বিশেষজ্ঞরা বক্তব্য দেন। সভাপতির বক্তব্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিখ্যাত বক্তব্য ‘মানুষের প্রতি বিশ্বাস হারানো পাপ’—এ মন্তব্য উদ্বৃত্ত করে ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, ‘যেকোনো সম্মেলনের শেষ বলে কিছু নেই। এটা তিস্তা নিয়ে আমাদের আলোচনার নতুন করে সূত্রপাত হতে পারে।’

সূচনা বক্তব্যে অ্যাকশনএইড, বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির বলেন, ‘১৫টি দেশের মানুষ এই সম্মেলনে অংশ নেন। তিস্তা নিয়ে সমন্বিত অববাহিকাভিত্তিক একটি ব্যবস্থাপনা দরকার। এই নদীকে বাণিজ্যিক দৃষ্টিতে দেখলে হবে না; একে প্রাণ-প্রকৃতির অংশ হিসেবে দেখতে হবে। আমাদের জীবন, সংস্কৃতি ও জীবিকার অংশ হিসেবে এই নদীকে বিবেচনা করতে হবে। সর্বোপরি একে একটি জীবন্ত সত্তা হিসেবে দেখতে হবে।’

সাবেক পররাষ্ট্রসচিব শহিদুল হক বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলার আলোকে নদীকে দেখতে হবে। পানি একটি কৌশলগত সম্পদ। ফলে এর ব্যবস্থাপনাকে সেই দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখতে হবে। বাংলাদেশ ও ভারতের নীতিনির্ধারকদের সরকারকেন্দ্রিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে সরে এসে জনগণকে কেন্দ্রে রেখে তিস্তা নিয়ে চিন্তা ও পরিকল্পনা করতে হবে।

আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্লোবাল নেটওয়ার্ক অন ওয়াটার মিউজিয়ামের নির্বাহী পরিচালক এরিবার্টো ইউলিসি বলেন, ‘পানি জাদুঘর বিশ্বের পানিসম্পদের ধরন ও এর সঙ্গে যুক্ত মানুষের সংস্কৃতিকে ধরে রাখে। পরবর্তী প্রজন্মের কাছে সেগুলো তুলে ধরে। এ ছাড়া প্রতিটি নদীর পানির বৈশিষ্ট্য, প্রতিবেশ ব্যবস্থাপনা এবং এর পরিবর্তন সম্পর্কেও এটি আমাদের ধারণা দেয়।’

back to top