alt

জাতীয়

টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রতিনিধি, মুন্সিগঞ্জ : শনিবার, ২৫ জুন ২০২২

মাওয়া প্রান্তে টোল দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক ভাবে পদ্মা সেতুতে প্রথমবারে মত টোল আদায় হল। শনিবার (২৫ জুন) মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সুধী সমাবেশে বক্তব্য শেষে মাওয়া প্রান্তে টোল দিয়ে পদ্মা সেতু প্রান্তে প্রবেশ করেন।

এর আগে শনিবার (২৫ জুন) মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা সেতুকে সিমেন্ট, পাথরের নেহায়েত একটি স্থাপনা হিসেবে দেখছেন না প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এটি নির্মাণের উদ্যোগ নেয়ার পর থেকে নানা ঘাত প্রতিঘাতের কথা তুলে ধরে তিনি বলেছেন, এটি বাঙালি জাতির গর্ব, মর্যাদা, সক্ষমতা ও সাহসের প্রতীক।

১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজধানীর সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলে সড়ক যোগাযোগের প্রধান বাধা পদ্মা নদীর ওপর সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেন শেখ হাসিনা। ২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে সেটি এগিয়ে নেন। দুই যুগের বেশি সময়ের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

নিজের বাবার করা উচ্চারণের সুরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘পদ্মা সেতুর ৪২ টি স্তম্ভ বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি। বঙ্গবন্ধু আমাদের বলেছিলেন, কেউ দাবায় রাখতে পারবা না, কেউ দাবায় রাখতে পারেনি। আমরা বিজয়ী হয়েছি।’

পদ্মা সেতু নির্মাণে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে ঋণচুক্তি হলেও নানা ঘটনাপ্রবাহের কারণে পরে নিজস্ব অর্থে সেতু নির্মাণ করে সরকার। শুরুতে কেবল সড়ক সেতু নির্মাণের চিন্তা থাকলেও পরে তাকে যুক্ত করা হয়েছে রেল। আর এক তলার বদলে নির্মিত হয়েছে দ্বিতল সেতু। পুরোটা কংক্রিটের বদলে নির্মিত হয়েছে স্টিল স্ট্রাকচারড সেতু।

এই প্রকল্প থেকে বিশ্বব্যাংক সরে যায় পরামর্শক নিয়োগে দুর্নীতি চেষ্টার অভিযোগ তুলে। শুরু থেকেই সরকার এই অভিযোগ অস্বীকার করে একে চক্রান্ত আখ্যা দিয়ে আসছিল।

বিশ্বব্যাংকের অভিযোগ ছিল, কানাডীয় প্রতিষ্ঠান এস এন সি লাভালিন এই পরামর্শকের কাজ পেতে ঘুষ দেয়ার পরিকল্পনা করছে। পরে কানাডায় এই বিষয়টি নিয়ে এস এন সি লাভালিনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। ২০১৭ সালে দেশটির একটি আদালত এই মামলা নাকচ করে বলেছে, বিশ্বব্যাংকের অভিযোগ ‘বায়বীয়’, ‘গালগপ্প’।

প্রধানমন্ত্রী নানা সময় বলে এসেছেন, গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মুহম্মদ ইউনুসকে তার পদ ছাড়তে হওয়ায় তিনি ও তার বলয়ে থাকা ব্যক্তিরা বিশ্বব্যাংককে দিয়ে এই কাজ করিয়েছেন। ড. ইউনুসের সঙ্গে সে সময় যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের ঘনিষ্ঠতা রয়েছে এবং হিলারি নিজেও চাপ দিয়েছেন বিষয়টি নিয়ে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে উঠেই আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ আজ গর্বিত, আমিও আনন্দিত ও গর্বিত। অনেক বাঁধা, ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে আজ আমরা এই সেতু নির্মাণ করতে পেড়েছি।’

পদ্মা সেতু নিয়ে দেশি বিদেশি ‘ষড়যন্ত্রের কারণে’ সেতু নির্মাণের কাজ দুই বছর বিলম্বিত হওয়ার কথাও বলেন তিনি। তবে এ নিয়ে হতাশ নন, বরং এর মধ্য দিয়ে দেশের শক্তিমত্তার প্রমাণ মিলেছে বলে মনে করেন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা শুধু সেতু নয়, শুধু ইট-সিমেন্টের অবকাঠামো নয়, এ সেতু আমাদের গর্ব, মর্যাদা আর সক্ষমতার প্রতীক। এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে আমাদের আবেগ, সাহসিকতা ও প্রত্যয়। ষড়যন্ত্রের জন্য দুই বছর নির্মাণ কাজ বিলম্বিত হয়। কিন্তু আমরা হতাশায় ভুগিনি, আত্মবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে গিয়েছি।

তিনি বলেন, ‘সবাই জানেন, এই সেতু যখন নির্মাণ করতে যাই, অনেক ষড়যন্ত্র হয়। মিথ্যা অপবাদ দিয়ে একেকটি পরিবার ও মানুষকে মানসিক যন্ত্রণা দেয়া হয়। শেখ রেহানা, সজিব ওয়াজেদ, সায়মা ওয়াজেদ, রাদওয়ান সিদ্দকীসহ প্রত্যকেটি পরিবারকে মিথ্যা অপবাদ দেয়া হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সে সময় আমার উপদেষ্টা মশিউর রহমান, সৈয়দ আবুল হোসেন, সচিব মোশাররফ হোসেন ভূইয়া সহ যারা ছিলো তাদের মিথ্যা অপবাদ দেয়া হয়। তাদের পরিবার যে যন্ত্রণা ভোগ করেছে আমি সহমর্মিতা জানাই।’

মির্জা ফখরুলের দাবি : চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড ও গার্ডার দুর্ঘটনার বিচার করতে হবে

ছবি

বিআরটিতে একাধিক গার্ডার দুর্ঘটনা

ছবি

শ্রদ্ধায় জনককে স্মরণ করল জাতি, কমিশন গঠনের দাবি

খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফেরাতে জোর চেষ্টা চলছে : হাইকমিশন

ছবি

বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশনের জাতীয় শোক দিবস পালন

ছবি

করোনা: একজনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৫৯

ছবি

বঙ্গবন্ধু হত্যা ষড়যন্ত্র উদঘাটন করতে কমিশন গঠন প্রক্রিয়া ‘চূড়ান্ত পর্যায়ে’

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা

ছবি

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

ছবি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই টিকা পাবে শিশুরা : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের দেশে এনে ফাঁসি কার্যকর করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

টুঙ্গিপাড়া পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

ভাড়া বাড়াল পাঠাও, ওভাইয়ে গাড়ির ভাড়াও বাড়ছে

ছবি

প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী : ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের সম্পূর্ণ বিচার হয়নি!

ছবি

১৫ আগস্ট : ঘাতকদের রক্তের হোলিখেলা

ছবি

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

ছবি

জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ শেখ হাসিনা

ছবি

আজ জাতির জনক হারানোর শোকের দিন : জাতীয় শোক দিবস

ছবি

পলাতক তিনজনের বিষয়ে তথ্য নেই, দুইজনকে ফেরানো যাচ্ছে না

ছবি

গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, বিচারবহির্ভূত হত্যা, গুম নিয়ে প্রশ্ন মিশেল ব্যাচেলেটের

ছবি

বঙ্গবন্ধু হত্যার ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজতে এ বছরই কমিশন গঠন : আইনমন্ত্রী

ছবি

সেপ্টেম্বরের শেষে লোডশেডিং বন্ধের আশাবাদ প্রতিমন্ত্রীর

ছবি

আপনারা সবাই আমারে খায়া ফেললেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

সেপ্টেম্বর থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে ১৫ টাকা কেজিতে চাল

ছবি

করোনা: একজনের মৃত্যু, শনাক্ত ২২৬

ছবি

এক মাসের আগে কমছে না জ্বালানি তেলের দাম

ছবি

দক্ষিণ সিটির ময়লার গাড়ি চুরি

ছবি

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে বিরোধীরা আন্দোলন করলে গ্রেফতার না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

মানুষ ভীষন কষ্টে আছে : বানিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সি

ছবি

নিরাপত্তা ঝুঁকিতে আমাদের প্রধানমন্ত্রী: ডিএমপি কমিশনার

ছবি

বৈধ এজেন্সির অবৈধ চক্র: পাচার হওয়া দুই নারী ফিরেছেন দেশে, বিদেশে আটকে এখনও শতাধিক

ছবি

সাগরে নিম্নচাপ, ভারি বৃষ্টির আশঙ্কা দক্ষিণাঞ্চলে

ছবি

ঢাকায় পৌঁছালেন জাতিসংঘের মানবাধিকার হাইকমিশনার

ছবি

সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য রাষ্ট্রকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিয়েছে: হাইকোর্ট

সুইস ব্যাংকে অর্থপাচার : তিনবার তথ্য চেয়েছে বাংলাদেশ, হাইকোর্টে দুদক

ছবি

ঢাকা আসছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান

tab

জাতীয়

টোল দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রতিনিধি, মুন্সিগঞ্জ

শনিবার, ২৫ জুন ২০২২

মাওয়া প্রান্তে টোল দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক ভাবে পদ্মা সেতুতে প্রথমবারে মত টোল আদায় হল। শনিবার (২৫ জুন) মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সুধী সমাবেশে বক্তব্য শেষে মাওয়া প্রান্তে টোল দিয়ে পদ্মা সেতু প্রান্তে প্রবেশ করেন।

এর আগে শনিবার (২৫ জুন) মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা সেতুকে সিমেন্ট, পাথরের নেহায়েত একটি স্থাপনা হিসেবে দেখছেন না প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এটি নির্মাণের উদ্যোগ নেয়ার পর থেকে নানা ঘাত প্রতিঘাতের কথা তুলে ধরে তিনি বলেছেন, এটি বাঙালি জাতির গর্ব, মর্যাদা, সক্ষমতা ও সাহসের প্রতীক।

১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজধানীর সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলে সড়ক যোগাযোগের প্রধান বাধা পদ্মা নদীর ওপর সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেন শেখ হাসিনা। ২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে সেটি এগিয়ে নেন। দুই যুগের বেশি সময়ের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

নিজের বাবার করা উচ্চারণের সুরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘পদ্মা সেতুর ৪২ টি স্তম্ভ বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি। বঙ্গবন্ধু আমাদের বলেছিলেন, কেউ দাবায় রাখতে পারবা না, কেউ দাবায় রাখতে পারেনি। আমরা বিজয়ী হয়েছি।’

পদ্মা সেতু নির্মাণে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে ঋণচুক্তি হলেও নানা ঘটনাপ্রবাহের কারণে পরে নিজস্ব অর্থে সেতু নির্মাণ করে সরকার। শুরুতে কেবল সড়ক সেতু নির্মাণের চিন্তা থাকলেও পরে তাকে যুক্ত করা হয়েছে রেল। আর এক তলার বদলে নির্মিত হয়েছে দ্বিতল সেতু। পুরোটা কংক্রিটের বদলে নির্মিত হয়েছে স্টিল স্ট্রাকচারড সেতু।

এই প্রকল্প থেকে বিশ্বব্যাংক সরে যায় পরামর্শক নিয়োগে দুর্নীতি চেষ্টার অভিযোগ তুলে। শুরু থেকেই সরকার এই অভিযোগ অস্বীকার করে একে চক্রান্ত আখ্যা দিয়ে আসছিল।

বিশ্বব্যাংকের অভিযোগ ছিল, কানাডীয় প্রতিষ্ঠান এস এন সি লাভালিন এই পরামর্শকের কাজ পেতে ঘুষ দেয়ার পরিকল্পনা করছে। পরে কানাডায় এই বিষয়টি নিয়ে এস এন সি লাভালিনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। ২০১৭ সালে দেশটির একটি আদালত এই মামলা নাকচ করে বলেছে, বিশ্বব্যাংকের অভিযোগ ‘বায়বীয়’, ‘গালগপ্প’।

প্রধানমন্ত্রী নানা সময় বলে এসেছেন, গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মুহম্মদ ইউনুসকে তার পদ ছাড়তে হওয়ায় তিনি ও তার বলয়ে থাকা ব্যক্তিরা বিশ্বব্যাংককে দিয়ে এই কাজ করিয়েছেন। ড. ইউনুসের সঙ্গে সে সময় যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের ঘনিষ্ঠতা রয়েছে এবং হিলারি নিজেও চাপ দিয়েছেন বিষয়টি নিয়ে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে উঠেই আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ আজ গর্বিত, আমিও আনন্দিত ও গর্বিত। অনেক বাঁধা, ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে আজ আমরা এই সেতু নির্মাণ করতে পেড়েছি।’

পদ্মা সেতু নিয়ে দেশি বিদেশি ‘ষড়যন্ত্রের কারণে’ সেতু নির্মাণের কাজ দুই বছর বিলম্বিত হওয়ার কথাও বলেন তিনি। তবে এ নিয়ে হতাশ নন, বরং এর মধ্য দিয়ে দেশের শক্তিমত্তার প্রমাণ মিলেছে বলে মনে করেন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা শুধু সেতু নয়, শুধু ইট-সিমেন্টের অবকাঠামো নয়, এ সেতু আমাদের গর্ব, মর্যাদা আর সক্ষমতার প্রতীক। এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে আমাদের আবেগ, সাহসিকতা ও প্রত্যয়। ষড়যন্ত্রের জন্য দুই বছর নির্মাণ কাজ বিলম্বিত হয়। কিন্তু আমরা হতাশায় ভুগিনি, আত্মবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে গিয়েছি।

তিনি বলেন, ‘সবাই জানেন, এই সেতু যখন নির্মাণ করতে যাই, অনেক ষড়যন্ত্র হয়। মিথ্যা অপবাদ দিয়ে একেকটি পরিবার ও মানুষকে মানসিক যন্ত্রণা দেয়া হয়। শেখ রেহানা, সজিব ওয়াজেদ, সায়মা ওয়াজেদ, রাদওয়ান সিদ্দকীসহ প্রত্যকেটি পরিবারকে মিথ্যা অপবাদ দেয়া হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সে সময় আমার উপদেষ্টা মশিউর রহমান, সৈয়দ আবুল হোসেন, সচিব মোশাররফ হোসেন ভূইয়া সহ যারা ছিলো তাদের মিথ্যা অপবাদ দেয়া হয়। তাদের পরিবার যে যন্ত্রণা ভোগ করেছে আমি সহমর্মিতা জানাই।’

back to top