alt

জাতীয়

ঋতুপর্ণা-রুপনার সাফল্যে এলাকাবাসী পাচ্ছে সড়ক আর সেতু

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

অনেক বছর ধরে সড়কের জন্য আবেদন করেও সাড়া পায়নি এলাকাবাসী। নারী দলের সাফ শিরোপা জিতে নেয়ার পর বদলে গেল অনেক কিছু। সাফ ফুটবল বিজয়ী দলের রাঙামাটির দুই কন্যা ঋতুপর্ণা চাকমা আর রুপনা চাকমা তাদের এই সাফল্যে এলাকাবাসী উপহার পাচ্ছে সড়ক-সেতু।

ঋতুপর্ণার বাড়ি রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নের মগাছড়ির দুর্গম গ্রামে। রাঙামাটি-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে তার বাড়ি যেতে হাঁটতে হয় প্রায় তিন কিলোমিটার পথ। সেই পথের একটা বড় অংশে ধানি জমি। আইল ধরে হেঁটে বাড়ি থেকে যাতায়াত করতে হয় ঋতুপর্ণাদের। মগাছড়ি এলাকার সবাইকেই বর্ষা মৌসুমে পথ চলতে ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) যান ঋতুপর্ণার বাড়িতে। পথের অবস্থা দেখে ঘাগড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আজিম উদ্দিনকে তিনি সড়ক নির্মাণের কাজ শুরু করার নির্দেশ দেন। এতে দুর্গম ওই এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণের পথ তৈরি হলো।

ইউপি চেয়ারম্যান আজিম বলেন, ‘সড়ক নির্মাণের প্রত্যাশায় পুরো পাড়ার মানুষ দিনের পর দিন ঘুরেছেন এখানে সেখানে। সেই সড়কটি হঠাৎ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি পেয়ে আপ্লুত হয়ে পড়েছেন তারা।’

ঋতুপর্ণার মা বসুবতি চাকমা বললেন, ‘আমার মেয়ের সাফল্যে গ্রামের মানুষ যদি সড়ক পায়, এটা তো খুবই আনন্দের। আমাদের সবার জন্য সড়কটা খুব দরকার। বর্ষা মৌসুমে খুব কষ্ট হয় আমাদের। সড়ক নির্মাণ হলে খুব উপকার হবে।’

সাফজয়ী দলের রুপনা চাকমার ওপর দায়িত্ব অনেক, তিনি বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের গোলপোস্ট সামলান। কিন্তু নিজের বাড়ির পথে তাকে এতদিন যাতায়াত করতে হতো ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো পার হয়ে। সেই সাঁকোর জায়গায় এখন সেতু নির্মাণের তোরজোর শুরু হয়েছে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে।

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলার ৫ নম্বর ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের ভূঁইয়াদম এলাকার গাছামনি চাকমা ও কালা সোনা চাকমার মেয়ে রুপনা জন্মের পর বাবার মুখ দেখেননি। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট । আঁকাবাঁকা পাহাড়ি পথ আর ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো পার হয়ে যেতে হয় তাদের জরাজীর্ণ বাড়িতে।

জেলা প্রশাসকের নির্দেশের পর নানিয়ারচর উপজেলা প্রশাসক রুপনা চাকমার বাড়ির পথে সেতু নির্মাণের প্রস্তুতি শুরু করেছে। বিষয়টি জেনে এলাকার লোকজনর পাশাপাশি খুশি রুপনার মা কালাসোনা চাকমা বললেন, ‘এই সাঁকো খুবই বিপজ্জনক। সেতু হলে এলাকার মানুষের অনেক উপকার হবে।’

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, ‘রুপনা ও ঋতুপর্ণা আমাদের রাঙামাটির গর্ব। তাদের এই অর্জনে সারাদেশের মানুষ গর্বিত। রুপনার পরিবারের একটা ঘর এবং এলাকার ব্রিজ প্রয়োজন। আর ঋতুপর্ণার বাড়িতে যাওয়ার রাস্তা প্রয়োজন। আমি বিষয়গুলো দেখছি এবং যতটুকু করা সম্ভব তার সবই করবো।’

প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে রুপনাকে ঘর করে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন জানিয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘তার বাড়ি যাওয়ার পথের সেতুটি এবং ঋতুপর্ণার বাসায় যাওয়ার সড়ক করে দিতে নির্দেশ দিয়েছি আমি। আশা করছি, শীঘ্রই এসব কাজ শুরু হবে। মেয়ে দুটির জন্য কিছু করতে পারলে আমার নিজেরও ভালো লাগবে।’

ছবি

করোনা: একদিনে মৃত্যু বেড়ে ৫, শনাক্ত ৪৯১

ছবি

টুঙ্গিপাড়ায় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা

ছবি

র‌্যাবে নিষেধাজ্ঞা : যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

ইলিশ রপ্তানিতে আয় ১৪১ কোটি টাকা : মৎস্যমন্ত্রী

ছবি

মাইজিপি অ্যাপের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানার সুযোগ

ছবি

বাংলাদেশ সন্ত্রাস দমন করায় যুক্তরাষ্ট্র নাখোশ? প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

বেসরকারি হাসপাতালের ফি নির্ধারণ করছে সরকার: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

আন্ডার ফ্রিকোয়েন্সির কারণে বিদ্যুৎ বিপর্যয়: নসরুল হামিদ

ছবি

করোনা: শনাক্ত কমে ৪১০, ঢাকায় ২৮৪

ছবি

বিদায় নেওয়ার জন্য আমি প্রস্তুত: শেখ হাসিনা

ছবি

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী

ছবি

হজের প্রাক-নিবন্ধনে মানতে হবে যে নিয়ম

ছবি

ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞায় বিমান বাহিনীও দায়িত্ব পালন করবে

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বিকেলে

ছবি

বিদ্যুৎ বিপর্যয় ঠেকাতে প্রয়োজন স্মার্ট গ্রিড

জাতিসংঘে একাত্তরে গণহত্যার স্বীকৃতি দাবি

ছবি

বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী নিহতের তদন্ত চান জাতিসংঘ মহাসচিব

ছবি

পদ্মা সেতু হয়ে শুক্রবার টুঙ্গিপাড়া যাবেন রাষ্ট্রপতি

ছবি

মিনিকেট নামে চাল বিক্রি করা যাবে না: মন্ত্রিপরিষদ সচিব

ছবি

করোনা: একদিনে শনাক্ত ৫৪৯, মৃত্যু ২

ছবি

দেশে বুস্টার ডোজ পেলেন সাড়ে পাঁচ কোটির বেশি মানুষ

ছবি

বিশ্ব শিক্ষক দিবস আজ

ছবি

বিজয়া দশমী আজ

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আগামীকাল

গ্রিড বিপর্যয়ের কারণ খুজতে তদন্ত কমিটি : বিদ্যুৎ বিভাগের দুঃখ প্রকাশ

ছবি

বিদ্যুৎবিহীন ঢাকাসহ দেশের বড় অংশ

সমতা নিশ্চিতে কন্যাশিশুর অধিকার রক্ষা করতে হবে: ফজিলাতুন নেসা

জাপান সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

দুই বাসের রেষারেষি: প্রাণ হারান যুবলীগ নেতা ফারুক

ছবি

‘এই নারী প্রকৃতই একজন শক্তি’

বিশ্ব শিক্ষক দিবস কাল

এ মাসে ঢাকা আসবেন ব্রুনাইয়ের সুলতান

সরকারি সফরে সুইজারল্যান্ড গেলেন সেনাবাহিনী প্রধান

বাংলাদেশী ৩ শান্তিরক্ষী নিহত, আহত ১

ছবি

করোনা: নতুন শনাক্ত ৬৫৭, মৃত্যু ১

ছবি

বিদ্যুৎ বিপর্যয়: এটিএম সেবা বিঘ্নে ভোগান্তি

tab

জাতীয়

ঋতুপর্ণা-রুপনার সাফল্যে এলাকাবাসী পাচ্ছে সড়ক আর সেতু

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

অনেক বছর ধরে সড়কের জন্য আবেদন করেও সাড়া পায়নি এলাকাবাসী। নারী দলের সাফ শিরোপা জিতে নেয়ার পর বদলে গেল অনেক কিছু। সাফ ফুটবল বিজয়ী দলের রাঙামাটির দুই কন্যা ঋতুপর্ণা চাকমা আর রুপনা চাকমা তাদের এই সাফল্যে এলাকাবাসী উপহার পাচ্ছে সড়ক-সেতু।

ঋতুপর্ণার বাড়ি রাঙামাটির কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নের মগাছড়ির দুর্গম গ্রামে। রাঙামাটি-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে তার বাড়ি যেতে হাঁটতে হয় প্রায় তিন কিলোমিটার পথ। সেই পথের একটা বড় অংশে ধানি জমি। আইল ধরে হেঁটে বাড়ি থেকে যাতায়াত করতে হয় ঋতুপর্ণাদের। মগাছড়ি এলাকার সবাইকেই বর্ষা মৌসুমে পথ চলতে ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) যান ঋতুপর্ণার বাড়িতে। পথের অবস্থা দেখে ঘাগড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আজিম উদ্দিনকে তিনি সড়ক নির্মাণের কাজ শুরু করার নির্দেশ দেন। এতে দুর্গম ওই এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণের পথ তৈরি হলো।

ইউপি চেয়ারম্যান আজিম বলেন, ‘সড়ক নির্মাণের প্রত্যাশায় পুরো পাড়ার মানুষ দিনের পর দিন ঘুরেছেন এখানে সেখানে। সেই সড়কটি হঠাৎ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি পেয়ে আপ্লুত হয়ে পড়েছেন তারা।’

ঋতুপর্ণার মা বসুবতি চাকমা বললেন, ‘আমার মেয়ের সাফল্যে গ্রামের মানুষ যদি সড়ক পায়, এটা তো খুবই আনন্দের। আমাদের সবার জন্য সড়কটা খুব দরকার। বর্ষা মৌসুমে খুব কষ্ট হয় আমাদের। সড়ক নির্মাণ হলে খুব উপকার হবে।’

সাফজয়ী দলের রুপনা চাকমার ওপর দায়িত্ব অনেক, তিনি বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের গোলপোস্ট সামলান। কিন্তু নিজের বাড়ির পথে তাকে এতদিন যাতায়াত করতে হতো ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো পার হয়ে। সেই সাঁকোর জায়গায় এখন সেতু নির্মাণের তোরজোর শুরু হয়েছে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে।

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলার ৫ নম্বর ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের ভূঁইয়াদম এলাকার গাছামনি চাকমা ও কালা সোনা চাকমার মেয়ে রুপনা জন্মের পর বাবার মুখ দেখেননি। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট । আঁকাবাঁকা পাহাড়ি পথ আর ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো পার হয়ে যেতে হয় তাদের জরাজীর্ণ বাড়িতে।

জেলা প্রশাসকের নির্দেশের পর নানিয়ারচর উপজেলা প্রশাসক রুপনা চাকমার বাড়ির পথে সেতু নির্মাণের প্রস্তুতি শুরু করেছে। বিষয়টি জেনে এলাকার লোকজনর পাশাপাশি খুশি রুপনার মা কালাসোনা চাকমা বললেন, ‘এই সাঁকো খুবই বিপজ্জনক। সেতু হলে এলাকার মানুষের অনেক উপকার হবে।’

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, ‘রুপনা ও ঋতুপর্ণা আমাদের রাঙামাটির গর্ব। তাদের এই অর্জনে সারাদেশের মানুষ গর্বিত। রুপনার পরিবারের একটা ঘর এবং এলাকার ব্রিজ প্রয়োজন। আর ঋতুপর্ণার বাড়িতে যাওয়ার রাস্তা প্রয়োজন। আমি বিষয়গুলো দেখছি এবং যতটুকু করা সম্ভব তার সবই করবো।’

প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে রুপনাকে ঘর করে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন জানিয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘তার বাড়ি যাওয়ার পথের সেতুটি এবং ঋতুপর্ণার বাসায় যাওয়ার সড়ক করে দিতে নির্দেশ দিয়েছি আমি। আশা করছি, শীঘ্রই এসব কাজ শুরু হবে। মেয়ে দুটির জন্য কিছু করতে পারলে আমার নিজেরও ভালো লাগবে।’

back to top