alt

জাতীয়

জাতীয় পথশিশু দিবস আজ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : রোববার, ০২ অক্টোবর ২০২২

আজ রোববার (২ অক্টোবর) জাতীয় পথশিশু দিবস। দেশের পথশিশুদের সুরক্ষা ও তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রতিবছর আমাদের দেশে পালিত হয় এই দিবস।

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যত। মায়ের কোল হলো তাদের নিরাপদ আশ্রয়। ক্ষুধার জ্বালায় মায়ের কোল ছেড়ে শিশুরা যখন মা-বাবার ঘর ছেড়ে অজানার পথে পা বাড়ায় তখনই তাদের পরিচয় হয় পথশিশু। অবহেলিত শব্দটি পথশিশুদের জীবনের সঙ্গে যেন কোনো না কোনোভাবে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে তারা বিভিন্ন ধরনের অবহেলা আর বঞ্চনার শিকার। রাস্তাঘাটে এক টাকা-দুই টাকার জন্য তারা পথচারীকে অনুরোধ করে নানাভাবে। কেউ কেউ আবার কাগজ কুড়ায়। তীব্র শীতের মধ্যেও তাদের প্রায়ই গরম কাপড় ছাড়া দেখা যায়, যা অমানবিক ও দুঃখজনক।

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শহরে হাজার হাজার পথশিশু রয়েছে। রাস্তাঘাট, রেলস্টেশন, বাস টার্মিনাল, অফিস চত্বর, পার্ক আর খোলা আকাশের নিচে তাদের বাস। তারা বড় অসহায়। ঠিকমতো খেতে পারে না, ঘুমাতে পারে না, পরতে পারে না ভালো কোনো পোশাক। পায় না ভালো আচরণ।

স্বাধীন দেশে এ পথশিশুদেরও সমান সুযোগ-সুবিধা নিয়ে বড় হওয়ার অধিকার আছে। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা এ মৌলিক চাহিদাগুলো যথোপযুক্তভাবে পাওয়ার অধিকার তাদেরও আছে। পথিশিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা বাস্তবায়নের অঙ্গীকারে আজ পালিত হবে জাতীয় পথশিশু দিবস।

উন্নত দেশগুলোতে দেখা যায়, প্রত্যেকটি শিশুর দায়িত্ব রাষ্ট্র কোনো না কোনোভাবে পালন করে। বেশি খেয়াল রাখা হয় প্রত্যেক শিশুর সুস্থ জীবনযাপনের প্রতি। অথচ আশঙ্কাজনক হারে বাংলাদেশে বেড়ে চলেছে পথশিশুর সংখ্যা। এদের বেশির ভাগই অপুষ্টি, যৌনরোগ ও মাদকের নেশায় আক্রান্ত। সর্বনাশা মাদকের বিষে আসক্ত হয়ে পড়েছে হাজার হাজার পথশিশু।

বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের তথ্য মতে, পথশিশুদের ৮৫ ভাগই কোনো না কোনোভাবে মাদক সেবন করে। এর মধ্যে ১৯ শতাংশ হেরোইন। ৪৪ শতাংশ ধূমপান, ২৮ শতাংশ বিভিন্ন ট্যাবলেট ও আট শতাংশ ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে নেশা করে থাকে।

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের মতে, ঢাকা বিভাগে মাদকাসক্ত শিশুর প্রায় ৩০ শতাংশ ছেলে এবং ১৭ শতাংশ মেয়ে। মাদকাসক্ত ১০ থেকে ১৭ বছর বয়সী ছেলে এবং মেয়ে শিশুরা শারীরিক ও মানসিকভাবে প্রচণ্ড ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এদের সঠিক তদারকি না করা হলে তারা ভবিষ্যতের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে। দেশের সমৃদ্ধির জন্য সবচেয়ে বড় অন্তরায় হতে পারে তারা।

ছবি

চিকিৎসা শেষে আজ দেশে ফিরছেন রওশন এরশাদ

ছবি

বুস্টার ডোজের আওতায় ৫ কোটি ৮৯ লাখের বেশি মানুষ

ছবি

পদ্মা ও মেঘনা নামে বিভাগের সিদ্ধান্ত স্থগিত

ছবি

১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ৮৩০

ছবি

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন ৬ ডিসেম্বর

ছবি

দুদক রাঘববোয়াল নয়, চুনোপুঁটি ধরতে ব্যস্ত : হাইকোর্ট

ছবি

জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হলো আরও ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ

ছবি

দুপুরে সচিবদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বুস্টার ডোজের আওতায় ৫ কোটি ৮৯ লাখের বেশি মানুষ

ছবি

শহীদ ডা. মিলন দিবস আজ

ছবি

সংলাপ হবে না, সহিংসতা করলে ছাড়ব না : শেখ হাসিনা

দেশে ৩৭% মানুষ ইন্টারনেটে, নারীরা পিছিয়ে

করোনা শনাক্ত ২৩, মৃত্যু নেই

ছবি

বায়ু দূষণের তালিকায় ‘চতুর্থ’ স্থানে ঢাকা

ছবি

সময় হলে আমরাও বিদেশিদের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে যাব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

বিআরটিএ ও ডামের উদ্যোগে ৫৭০ গণপরিবহণ চালককে প্রশিক্ষণ

ছবি

কৌশলে লুকিয়ে আছে বলে মেজর জিয়াকে ধরা যাচ্ছে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

যে সময়ে হতে পারে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল

ছবি

বঙ্গবন্ধু টানেলের প্রথম টিউবের কাজ সমাপ্তি ঘোষণা

ছবি

বঙ্গবন্ধু টানেলে যান চলাচল জানুয়ারিতে : জানালেন মুখ্যসচিব

ছবি

পর্যাপ্ত রিজার্ভ রয়েছে, জনসাধারণের কল্যাণে ব্যবহার করা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

ডোলমা খাং শিখর জয়ের গল্প অভিযাত্রীদের মুখে

ছবি

করোনায় মৃত্যুহীন দিনে শনাক্ত ১৯

ছবি

সর্দি-কাশি হলেই কিছু লোক বিদেশে যায়: প্রধানমন্ত্রী

সচেতনতাই নির্যাতন প্রতিরোধের হাতিয়ার

গ্রাহক পর্যায়ে ফেব্রুয়ারিতে বাড়বে বিদ্যুতের দাম

ভুয়া বন্ধকে ঋণ: দুদককে ৩ মাসের মধ্যে অনুসন্ধানের নির্দেশ

ছবি

বিএনপি শর্তসাপেক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি পাবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

যশোরবাসীর কাছে নৌকায় ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

জানুয়ারিতে গ্যাস সংকট কাটবে : বাণিজ্যমন্ত্রী

ছবি

রাজপথে শক্তি না দেখিয়ে ভোটের মাঠে ভারসাম্য তৈরি করুন : সিইসি

ছবি

এবার ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর আবেদন

ছবি

আমাদের অর্থনীতি এখনও গতিশীল আছে: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

জাপানি রাষ্ট্রদূতকে কেউ হয়তো পুশ করেছে

ছবি

ভোটার তালিকা হালনাগাদ: ১ কোটি নাগরিকের তথ্য সংগ্রহ

ছবি

২৩ জেলায় নতুন ডিসি

tab

জাতীয়

জাতীয় পথশিশু দিবস আজ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

রোববার, ০২ অক্টোবর ২০২২

আজ রোববার (২ অক্টোবর) জাতীয় পথশিশু দিবস। দেশের পথশিশুদের সুরক্ষা ও তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রতিবছর আমাদের দেশে পালিত হয় এই দিবস।

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যত। মায়ের কোল হলো তাদের নিরাপদ আশ্রয়। ক্ষুধার জ্বালায় মায়ের কোল ছেড়ে শিশুরা যখন মা-বাবার ঘর ছেড়ে অজানার পথে পা বাড়ায় তখনই তাদের পরিচয় হয় পথশিশু। অবহেলিত শব্দটি পথশিশুদের জীবনের সঙ্গে যেন কোনো না কোনোভাবে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে তারা বিভিন্ন ধরনের অবহেলা আর বঞ্চনার শিকার। রাস্তাঘাটে এক টাকা-দুই টাকার জন্য তারা পথচারীকে অনুরোধ করে নানাভাবে। কেউ কেউ আবার কাগজ কুড়ায়। তীব্র শীতের মধ্যেও তাদের প্রায়ই গরম কাপড় ছাড়া দেখা যায়, যা অমানবিক ও দুঃখজনক।

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শহরে হাজার হাজার পথশিশু রয়েছে। রাস্তাঘাট, রেলস্টেশন, বাস টার্মিনাল, অফিস চত্বর, পার্ক আর খোলা আকাশের নিচে তাদের বাস। তারা বড় অসহায়। ঠিকমতো খেতে পারে না, ঘুমাতে পারে না, পরতে পারে না ভালো কোনো পোশাক। পায় না ভালো আচরণ।

স্বাধীন দেশে এ পথশিশুদেরও সমান সুযোগ-সুবিধা নিয়ে বড় হওয়ার অধিকার আছে। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা এ মৌলিক চাহিদাগুলো যথোপযুক্তভাবে পাওয়ার অধিকার তাদেরও আছে। পথিশিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা বাস্তবায়নের অঙ্গীকারে আজ পালিত হবে জাতীয় পথশিশু দিবস।

উন্নত দেশগুলোতে দেখা যায়, প্রত্যেকটি শিশুর দায়িত্ব রাষ্ট্র কোনো না কোনোভাবে পালন করে। বেশি খেয়াল রাখা হয় প্রত্যেক শিশুর সুস্থ জীবনযাপনের প্রতি। অথচ আশঙ্কাজনক হারে বাংলাদেশে বেড়ে চলেছে পথশিশুর সংখ্যা। এদের বেশির ভাগই অপুষ্টি, যৌনরোগ ও মাদকের নেশায় আক্রান্ত। সর্বনাশা মাদকের বিষে আসক্ত হয়ে পড়েছে হাজার হাজার পথশিশু।

বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের তথ্য মতে, পথশিশুদের ৮৫ ভাগই কোনো না কোনোভাবে মাদক সেবন করে। এর মধ্যে ১৯ শতাংশ হেরোইন। ৪৪ শতাংশ ধূমপান, ২৮ শতাংশ বিভিন্ন ট্যাবলেট ও আট শতাংশ ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে নেশা করে থাকে।

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের মতে, ঢাকা বিভাগে মাদকাসক্ত শিশুর প্রায় ৩০ শতাংশ ছেলে এবং ১৭ শতাংশ মেয়ে। মাদকাসক্ত ১০ থেকে ১৭ বছর বয়সী ছেলে এবং মেয়ে শিশুরা শারীরিক ও মানসিকভাবে প্রচণ্ড ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এদের সঠিক তদারকি না করা হলে তারা ভবিষ্যতের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে। দেশের সমৃদ্ধির জন্য সবচেয়ে বড় অন্তরায় হতে পারে তারা।

back to top