alt

জাতীয়

আমাদের অর্থনীতি এখনও গতিশীল আছে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর ২০২২

দেশের জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনে বিমান বাহিনীর নবীন কর্মকর্তাদের দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) সকালে যশোর বিমান বাহিনী একাডেমিতে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, অনেক দেশে যখন দুর্ঘটনা দুর্বিপাক হয়, আমরা কিন্তু তাদের সহযোগিতা করি। আবার আমাদের দেশে যখন ঝড়-বন্যা বা কোনোরকম দুর্ঘটনা ঘটে বিমান বাহিনীর সদস্য বা সশস্ত্র বাহিনীর সকল সদস্যরা জনগণের পাশে দাঁড়ায়, জনগণের সেবা করে।

এটাই হচ্ছে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ যে, জনগণের আস্থা বিশ্বাস। যেকোন একটা যুদ্ধে জয়ী হওয়ার জন্য এটা একান্তভাবে দরকার।

এদিন ‘বাংলাদেশ বিমান বাহিনী একাডেমির রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ (শীতকালীন) ২০২২’ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে পাসিং আউট কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, দেশ এবং দেশমাতৃকার প্রতি এবং দেশের জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ থাকতে হবে। যেটা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব তার ভাষণেও বলেছেন যে, দেশ ও দেশের জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ এটাই হচ্ছে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ।

কাজেই আমি আশা করি, আমাদের নবীন যারা আজকে থেকে নতুন কর্মস্থলে যোগ দেবে তাদের জন্য এই কথাটা অনেক প্রযোজ্য।

সকলের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বের নীতির কথা মনে করিয়ে দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, তারপরও দক্ষতার দিক থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আমাদের সবধরনের উৎকর্ষতা বজায় রেখে চলতে হবে এবং সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে চলতে হবে।

বিমান বাহিনীর সদস্যদের কল্যাণে আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, নবীন কর্মকর্তাদের জীবন সুন্দর ও সফল হোক। আমরা বাংলাদেশ যেন আমাদের ক্যাডেটদের নিয়ে গর্ব করতে পারে।

বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণের গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সাথে চলতে হয়। সেজন্য প্রশিক্ষণের কথা সবসময় মনে রাখতে হবে। প্রশিক্ষণের উপর সবসময় গুরুত্ব দিতে হবে। প্রশিক্ষণ উৎকর্ষতা বৃদ্ধি করে এই কথাটা সব সময় মনে রাখতে হবে।

মহামারী আর যুদ্ধে বিশ্ব পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, আমরা অনেক কাজ আমরা করে যাচ্ছিলাম। তবে কোভিড-১৯ এবং ইউক্রেন যুদ্ধ স্যাংশান, যার কারণে সারা বিশ্বব্যাপী মন্দা দেখা দিয়েছে। তবে এই মন্দা থেকে যেন আমরা উত্তোরণ ঘটাতে পারি সেই বিষয়েও আমরা যথেষ্ট সজাগ এবং আমাদের অর্থনীতি এখনো গতিশীল আছে, নিরাপদ আছে, সেইটুকু অন্তত আমি বলতে পারি।

ওয়াসার এমডির নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে সুমনের রিট

ছবি

নভেম্বরে ৪৬৩ সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৫৪ জনের প্রাণহানি

ছবি

চট্টগ্রামে রাষ্ট্রপতি প্যারেডে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

৯ সরকারি হাইস্কুল প্রকল্পে অনিয়ম, অগ্রিম বিল পরিশোধের পর নির্মাণ কাজে স্থবিরতা

‘প্রতিবন্ধী মানুষের নেতৃত্বে আসতে হবে’

ছবি

১৫ বছর পর লাভের মুখ দেখলো বিটিসিএল

ছবি

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টির আভাস

ছবি

শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের ক্ষীণ সম্ভাবনাও দেখি না : সন্তু লারমা

ছবি

পার্বত্য অঞ্চলের শান্তিচুক্তি: বাস্তবায়নে ‘বিশেষ মহল’ অপ্রচার

‘নারীরা সংগ্রাম করলেও ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণে কেবল পুরুষরাই’

ছবি

অপরাধীদের দিয়ে পাহাড়কে অশান্ত করেছে জিয়া : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

ছবি

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে পদ সংখ্যা বাড়ছে

ছবি

দেশে প্রথম মেরুদণ্ড জোড়ালাগা দুই শিশু আলাদা করা হবে

প্রশাসনিক কর্মকর্তা পদে ৫২ জনের পদোন্নতি

ছবি

দেশে একবছরে এইডসে মারা গেছেন ২৩২ জন

ছবি

ডিসেম্বরকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস ঘোষণার দাবি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

‘গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত’

ছবি

বিজয়ের মাস শুরু

ছবি

সব বয়সী মানুষকে উচ্চশিক্ষার সুযোগ দিতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

২ কোটি ২০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনবে সরকার

ছবি

সংবিধান ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রস্তুত থাকতে হবে : সেনাপ্রধান

ছবি

বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় : ভার্মা

ছবি

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে ট্রেন চলাচল সাময়িক বন্ধ

ছবি

খালেদা জিয়া সমাবেশে যোগ দিলে দেখবে আদালত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

দশ দফা দাবিতে ট্রেন আটকে যাত্রীদের অবস্থান কর্মসূচি

ছবি

বিশ্বকাপ আয়োজনে ‘৪০০-৫০০ শ্রমিক’ মারা গেছে, স্বীকার করল কাতার

ছবি

করোনা টিকার ৪র্থ ডোজ দেয়ার সুপারিশ

ছবি

ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খান ১৩ বছরে ৫ কোটি ৭৯ লাখ টাকা বেতন নিয়েছেন, হাইকোর্টে প্রতিবেদন

ছবি

সংকটকালে ১০ শতাংশ গ্যাস উৎপাদন বাড়ালো এসজিএফএল

সরকারিভাবে মালয়েশিয়ায় কর্মী যাওয়া শুরু হয়েছে

ছবি

কর ব্যবস্থাপনা গণমুখী করতে সবাইকে কাজ করে যেতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ দেখালেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

জঙ্গিদের নিয়ে আমরাও উদ্বিগ্ন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ৭১ লাখ বাংলাদেশি বাস্তচ্যুত : ডব্লিউএইচও

ছবি

কেউ শত্রু নয়, দুর্নীতির বিরুদ্ধে বলাই উদ্দেশ্য : হাইকোর্ট

ছবি

রোহিঙ্গাদের সহায়তায় সাড়ে ৭ মিলিয়ন ডলার দেবে নেদারল্যান্ডস

tab

জাতীয়

আমাদের অর্থনীতি এখনও গতিশীল আছে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর ২০২২

দেশের জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনে বিমান বাহিনীর নবীন কর্মকর্তাদের দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) সকালে যশোর বিমান বাহিনী একাডেমিতে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, অনেক দেশে যখন দুর্ঘটনা দুর্বিপাক হয়, আমরা কিন্তু তাদের সহযোগিতা করি। আবার আমাদের দেশে যখন ঝড়-বন্যা বা কোনোরকম দুর্ঘটনা ঘটে বিমান বাহিনীর সদস্য বা সশস্ত্র বাহিনীর সকল সদস্যরা জনগণের পাশে দাঁড়ায়, জনগণের সেবা করে।

এটাই হচ্ছে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ যে, জনগণের আস্থা বিশ্বাস। যেকোন একটা যুদ্ধে জয়ী হওয়ার জন্য এটা একান্তভাবে দরকার।

এদিন ‘বাংলাদেশ বিমান বাহিনী একাডেমির রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ (শীতকালীন) ২০২২’ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে পাসিং আউট কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, দেশ এবং দেশমাতৃকার প্রতি এবং দেশের জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ থাকতে হবে। যেটা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব তার ভাষণেও বলেছেন যে, দেশ ও দেশের জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ এটাই হচ্ছে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ।

কাজেই আমি আশা করি, আমাদের নবীন যারা আজকে থেকে নতুন কর্মস্থলে যোগ দেবে তাদের জন্য এই কথাটা অনেক প্রযোজ্য।

সকলের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বের নীতির কথা মনে করিয়ে দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, তারপরও দক্ষতার দিক থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আমাদের সবধরনের উৎকর্ষতা বজায় রেখে চলতে হবে এবং সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে চলতে হবে।

বিমান বাহিনীর সদস্যদের কল্যাণে আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, নবীন কর্মকর্তাদের জীবন সুন্দর ও সফল হোক। আমরা বাংলাদেশ যেন আমাদের ক্যাডেটদের নিয়ে গর্ব করতে পারে।

বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণের গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সাথে চলতে হয়। সেজন্য প্রশিক্ষণের কথা সবসময় মনে রাখতে হবে। প্রশিক্ষণের উপর সবসময় গুরুত্ব দিতে হবে। প্রশিক্ষণ উৎকর্ষতা বৃদ্ধি করে এই কথাটা সব সময় মনে রাখতে হবে।

মহামারী আর যুদ্ধে বিশ্ব পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, আমরা অনেক কাজ আমরা করে যাচ্ছিলাম। তবে কোভিড-১৯ এবং ইউক্রেন যুদ্ধ স্যাংশান, যার কারণে সারা বিশ্বব্যাপী মন্দা দেখা দিয়েছে। তবে এই মন্দা থেকে যেন আমরা উত্তোরণ ঘটাতে পারি সেই বিষয়েও আমরা যথেষ্ট সজাগ এবং আমাদের অর্থনীতি এখনো গতিশীল আছে, নিরাপদ আছে, সেইটুকু অন্তত আমি বলতে পারি।

back to top