alt

জাতীয়

বিজয়ের মাস শুরু

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২

শুরু হলো বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ আর দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে এ মাসেই জাতির চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। ধরা দেয় হাজার বছরের স্বপ্নের স্বাধীনতা।

বাঙালির সুদীর্ঘ রাজনৈতিক ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ ঘটনা ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামের এক ঐতিহাসিক ঘটনার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির কয়েক হাজার বছরের সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্বপ্নসাধ পূরণ হয় এ মাসে।

বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন মুক্তিযুদ্ধের অবিস্মরণীয় গৌরবদীপ্ত চূড়ান্ত বিজয় আসে এ মাসের ১৬ ডিসেম্বর। স্বাধীন জাতি হিসেবে সমগ্র বিশ্বে আত্মপরিচয় লাভ করে বাঙালিরা। অর্জন করে নিজস্ব ভূখণ্ড আর সবুজের বুকে লাল সূর্য খচিত নিজস্ব জাতীয় পতাকা। ভাষার ভিত্তিতে যে জাতীয়তাবাদ গড়ে উঠেছিল, এক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর বিজয়ের মাধ্যমে ঘোষিত স্বাধীনতা পূর্ণতা পায় এ দিনে।

বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্নপূরণ হওয়ার পাশাপাশি বহু তরতাজা প্রাণ বিসর্জন আর মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এ অর্জন হওয়ায় বেদনাবিধুর এক শোকগাঁথার মাসও এ ডিসেম্বর।

এ মাসেই স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি তাদের এ দেশীয় দোসর রাজাকার, আলবদর, আল-শামসদের সহযোগিতায় হানাদার গোষ্ঠী দেশের মেধাবি, শ্রেষ্ঠ সন্তান-বুদ্ধিজীবী হত্যার নৃশংস হত্যাযজ্ঞে মেতে উঠেছিল। সমগ্র জাতিকে মেধাহীন করে দেওয়ার এ ধরনের ঘৃণ্য হত্যাযজ্ঞের দ্বিতীয় কোনো নজির বিশ্বে নেই।

১৯৭১ সালের ডিসেম্বর মাসের শুরু থেকেই মুক্তিযোদ্ধাদের গেরিলা আক্রমণ আর ভারতীয় মিত্রবাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনীর জল, স্থল আর আকাশপথে সাঁড়াশি আক্রমণের মুখে বর্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর পরাজয়ের খবর চারদিক থেকে ভেসে আসতে থাকে।

১৬ ডিসেম্বর ঢাকার ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। যেখান থেকে ৭ মার্চ স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম,’ বলে স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন, সেখানেই পরাজয়ের দলিলে স্বাক্ষর করেন পাকিস্তানি জেনারেল নিয়াজী।

বঙ্গবন্ধু একাত্তরের ২৫ মার্চ রাতে পাক বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার আগে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন এবং তার ডাকে বাঙালি জাতি ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। দীর্ঘ নয় মাসের সশস্ত্র জনযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ এবং দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে ১৬ ডিসেম্বর জাতির চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়।

মহান এ বিজয়ের মাস উদযাপনে জাতীয় কর্মসূচির পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

ছবি

হিরো আলমকে নিয়ে আ.লীগ-বিএনপির উপহাস করার অধিকার নেই: টিআইবি

ছবি

বুয়েট শিক্ষার্থী ফারদিন আত্মহত্যা করেছেন, উল্লেখ করে প্রতিবেদন তদন্ত কর্মকর্তার

ছবি

দেশের চূড়ান্ত জনসংখ্যা ১৬ কোটি ৯৮ লাখ

ছবি

নতুন করে ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত

ছবি

বইমেলায় স্টল বরাদ্দ চেয়ে আদর্শ প্রকাশনীর রিটের শুনানি আগামীকাল

ছবি

সারাহ ইসলামের কিডনি নেওয়া দুই নারীর অবস্থা উন্নতির দিকে

ছবি

১৯৭১ সালের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেতে সিএমএইচআরে বাংলাদেশের আবেদন

ছবি

জুট করপোরেশনের ১৯০ একর জমি বেদখলে

ছবি

বেলজিয়ামের রানি মাথিল্ডে ঢাকা পৌঁছেছেন

ছবি

বায়ুদূষণের দিক থেকে আজও শীর্ষে ঢাকা

ছবি

ভর্তুকি আর কত, গ্যাস-বিদ্যুৎ দেয়া যাবে ক্রয়মূল্যে : প্রধানমন্ত্রী

মার্চে আসবে আদানির বিদ্যুৎ, ‘কোন শঙ্কা নেই’ : নসরুল হামিদ

দেশে ১৫ লাখ ক্যান্সারের রোগী: ডা. শারফুদ্দিন

ছবি

হজের নিবন্ধন শুরু ৮ ফেব্রুয়ারি

ছবি

সবার মতামতের ভিত্তিতে সীমানা নির্ধারণ: ইসি

ছবি

বাংলাদেশের কাছে ক্ষমা চাওয়ার বিষয় এড়িয়ে গেলেন হিনা রাব্বানি

ছবি

অভিবাসন ব্যয় কমানোর আশ্বাস মালয়েশিয়ান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

ছবি

মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানোর আহ্বান

ছবি

ক্যান্সারের চিকিৎসায় বৈষম্য কমানোর চেষ্টা করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

মালয়েশিয়ায় যাওয়ার খরচ কমানোর আশ্বাস

ছবি

দূষিত শহরের তালিকায় ফের শীর্ষে ঢাকা

ছবি

পাকিস্তানের আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাওয়া উচিত, হিনাকে মোমেন

ছবি

গ্যাস-বিদ্যুতে কেন ভর্তুকি দেব, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

ওয়াসার মিটারের গর্তে জমে থাকা পানি এডিস মশার বংশ বিস্তারের উৎস

ছবি

লাইব্রেরিতে শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার পরিবেশ সৃষ্টিতে মনোযোগী হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

সরকারকে গুম ও নির্যাতনের তদন্ত করতে আহ্বান হিউম্যান রাইটস ওয়াচের

ছবি

কলম্বোতে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে পাকিস্তানের প্রতিমন্ত্রী হিনা রাব্বানির বৈঠক

ছবি

একদিনে ১২ জন কোভিডে আক্রান্ত

ছবি

জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনা: প্রতিদিন প্রায় ২০ জন নিহত, ৩৫ শতাংশই বাইক আরোহী

ছবি

সম্পর্ক আরও এগিয়ে নিতে চায় বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

নিপা ভাইরাস : সতর্কতামূলক ব্যবস্থার নির্দেশনা স্বাস্থ্যের

ছবি

এক সপ্তাহের মধ্যে ঢাকায় আসবেন দুই মার্কিন প্রতিনিধি

ছবি

রিজার্ভ চুরির ৭ বছর : টাকা পাওয়ার সম্ভাবনা কম

নকশায় ত্রুটি, প্রকৌশলীদের গাফিলতি ও পিডির ব্যর্থতায় শেষ হচ্ছে না প্রকল্পের কাজ

ছবি

নিপাহ ভাইরাসের সংক্রমণ ২৮ জেলায়: হাসপাতাল প্রস্তুতের নির্দেশ

ছবি

একদিনে ১০ জন করোনায় আক্রান্ত

tab

জাতীয়

বিজয়ের মাস শুরু

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২

শুরু হলো বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ আর দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে এ মাসেই জাতির চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। ধরা দেয় হাজার বছরের স্বপ্নের স্বাধীনতা।

বাঙালির সুদীর্ঘ রাজনৈতিক ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ ঘটনা ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামের এক ঐতিহাসিক ঘটনার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির কয়েক হাজার বছরের সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্বপ্নসাধ পূরণ হয় এ মাসে।

বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন মুক্তিযুদ্ধের অবিস্মরণীয় গৌরবদীপ্ত চূড়ান্ত বিজয় আসে এ মাসের ১৬ ডিসেম্বর। স্বাধীন জাতি হিসেবে সমগ্র বিশ্বে আত্মপরিচয় লাভ করে বাঙালিরা। অর্জন করে নিজস্ব ভূখণ্ড আর সবুজের বুকে লাল সূর্য খচিত নিজস্ব জাতীয় পতাকা। ভাষার ভিত্তিতে যে জাতীয়তাবাদ গড়ে উঠেছিল, এক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর বিজয়ের মাধ্যমে ঘোষিত স্বাধীনতা পূর্ণতা পায় এ দিনে।

বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্নপূরণ হওয়ার পাশাপাশি বহু তরতাজা প্রাণ বিসর্জন আর মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এ অর্জন হওয়ায় বেদনাবিধুর এক শোকগাঁথার মাসও এ ডিসেম্বর।

এ মাসেই স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি তাদের এ দেশীয় দোসর রাজাকার, আলবদর, আল-শামসদের সহযোগিতায় হানাদার গোষ্ঠী দেশের মেধাবি, শ্রেষ্ঠ সন্তান-বুদ্ধিজীবী হত্যার নৃশংস হত্যাযজ্ঞে মেতে উঠেছিল। সমগ্র জাতিকে মেধাহীন করে দেওয়ার এ ধরনের ঘৃণ্য হত্যাযজ্ঞের দ্বিতীয় কোনো নজির বিশ্বে নেই।

১৯৭১ সালের ডিসেম্বর মাসের শুরু থেকেই মুক্তিযোদ্ধাদের গেরিলা আক্রমণ আর ভারতীয় মিত্রবাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনীর জল, স্থল আর আকাশপথে সাঁড়াশি আক্রমণের মুখে বর্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর পরাজয়ের খবর চারদিক থেকে ভেসে আসতে থাকে।

১৬ ডিসেম্বর ঢাকার ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। যেখান থেকে ৭ মার্চ স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম,’ বলে স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন, সেখানেই পরাজয়ের দলিলে স্বাক্ষর করেন পাকিস্তানি জেনারেল নিয়াজী।

বঙ্গবন্ধু একাত্তরের ২৫ মার্চ রাতে পাক বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার আগে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন এবং তার ডাকে বাঙালি জাতি ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। দীর্ঘ নয় মাসের সশস্ত্র জনযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ এবং দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে ১৬ ডিসেম্বর জাতির চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়।

মহান এ বিজয়ের মাস উদযাপনে জাতীয় কর্মসূচির পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

back to top