alt

জাতীয়

শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও নির্বাচন চেয়ে ইইউ ও ১৪ দেশের বিবৃতি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক: : বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২

‘আগামী ১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আমরা মানবাধিকার সুরক্ষা ও উন্নয়ন উৎসাহিত করার ক্ষেত্রে গণতন্ত্রের মৌলিক ভূমিকাকে তুলে ধরতে চাই’।

বাংলাদেশে অবস্থিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও ১৪ দেশের রাষ্ট্রদূত এই দিবস উপলক্ষে এক যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন। এতে তারা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ এবং নির্বাচনি প্রক্রিয়ার গুরুত্ব পুনর্ব্যক্ত করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশ দূতাবাসের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে মঙ্গলবার রাতে বাংলা ও ইংরেজিতে এ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, “আমরা বাংলাদেশের বন্ধু ও অংশীদার হিসেবে এদেশের সাফল্যকে আরও উৎসাহিত করতে আগ্রহী এবং মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষণার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে অবাধ, সুষ্ঠু, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন প্রক্রিয়ার গুরুত্ব পুনর্ব্যক্ত করছি।”

বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বজায় থাকার প্রত্যাশা জানিয়ে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “অর্থপূর্ণ অংশগ্রহণ, সমতা, নিরাপত্তা ও অন্তর্ভুক্তিমূলক মানবিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য অনুসরণীয় মূল্যবোধ ও নীতি হিসেবে আমরা গণতান্ত্রিক শাসনকে সমর্থন ও উৎসাহিত করি।”

পরবর্তী সংসদ নির্বাচনের বছর খানেক আগে বাংলাদেশে যখন রাজনীতির মাঠে উত্তপ্ত হয়ে উঠছে, তখন বেশ কয়েকজন রাষ্ট্রদূত ভোট নিয়ে বক্তব্য রাখেন, যা নিয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া আসে সরকারের কাছ থেকে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে কূটনীতিকদের শিষ্টাচার মেনে চলার পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি বলেন, বাংলাদেশ এখন কারও উপনিবেশ নয়।

মঙ্গলবার বিদেশি কূটনীতিকদের বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “আগামী ১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আমরা মানবাধিকার সুরক্ষা ও উন্নয়ন উৎসাহিত করার ক্ষেত্রে গণতন্ত্রের মৌলিক ভূমিকাকে তুলে ধরতে চাই।

“আমরা মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষণাপত্রে সংরক্ষিত স্বাধীনতা উদযাপন করি এবং ঘোষণাপত্রে বর্ণিত বিভিন্ন অঙ্গীকারের মধ্যে স্বাধীন মতপ্রকাশ, শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও নির্বাচন বিষয়ে জাতিসংঘের সব সদস্য রাষ্ট্রের অঙ্গীকার রক্ষার গুরুত্ব তুলে ধরি।”

বিবৃতিদাতা মিশনগুলো হলো- যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, স্পেন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, জাপান, কানাডা ও অস্ট্রেলিয়া।

ছবি

হঠাৎ একসঙ্গে বন্ধ বড় ৪ বিদ্যুৎকেন্দ্র

ছবি

বাইডেনের চিঠির জবাব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি

ছেলে না মেয়ে? জম্মের আগে প্রকাশ করা যাবে না লিঙ্গ পরিচয়

ছবি

নারী উদ্যোক্তা তৈরি ও জলবায়ু জন্য বিশ্ব ব্যাংকের কাছে বিশেষ তহবিল চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

চিকিৎসাব্যবস্থায় দুর্নীতির কারণে আস্থা হারাচ্ছে মানুষ: হানিফ

বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক নতুন মাত্রায় নিয়ে যেতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল এসেছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

সংরক্ষিত আসনে ৫০ সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

ছবি

শিল্পনগরীতে ১,৩০৪ শিল্প প্লট খালি: শিল্পমন্ত্রী

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর ‘কড়া নির্দেশ’ জিরো টলারেন্স দেখাতে বলেছেন : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

ভুয়া খবর বন্ধে ‘আরও আইন’ আসছে: সংসদে আইনমন্ত্রী

ছবি

জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

চাহিদার বিপরীতে গ্যাসের ঘাটতি প্রায় ১ হাজার মিলিয়ন ঘনফুট: প্রতিমন্ত্রী

ছবি

পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন

ছবি

পিলখানার চূড়ান্ত বিচার দ্রুত শেষ হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

পিলখানার দুঃসহ স্মৃতির ১৫ বছর

ছবি

পবিত্র শবে বরাত আজ

ছবি

বাজার কারসাজির বিরুদ্ধে ইশতেহার অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেবে সরকার : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

স্বাধীন বিচার বিভাগ ও শক্তিশালী সংসদ দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিতে পারে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

‘বঙ্গবন্ধু অ্যাপ’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে সরকার: রিজভী

ছবি

বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইটি ৬ ভাষায়

ছবি

ন্যায়বিচার প্রাপ্তিতে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছে সরকার

ছবি

বাংলাদেশে আসছেন বিশ্বব্যাংকের এমডি

ছবি

এবার ৪০০ পুলিশ সদস্য পাচ্ছেন

ছবি

টাঙ্গাইল শাড়ি আমাদের : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি

প্রশ্নফাঁস হয়নি, প্রতারক চক্র গুজব ছড়াচ্ছে : ঢাবি উপাচার্য

ছবি

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ট্রাফিক লাইট সচলের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

মাটি ও মানুষের সঙ্গে সংযোগ আছে, দেশে এমন রাজনৈতিক দলের অভাব : শেখ হাসিনা

ছবি

মজুতকারীদের গণধোলাই দেওয়া উচিত: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

রাজধানীতে কিশোর গ্যাংয়ের ৩৮ সদস্য গ্রেফতার

ছবি

লিবিয়া থেকে ফিরলেন আরও ১৪৪ বাংলাদেশি

ছবি

জার্মানি সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন শুরু

ছবি

নতুন সরকার গঠনের পর প্রথম সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

চেম্বার ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অ্যানেসথেসিয়া দেয়া যাবে না

দ্রব্যমূলের উর্ধ্বগতি অনেকেই কষ্টে দিন কাটছে বলে অভিযোগ

ছবি

সেনাবাহিনীর ভেটেরিনারি কোরের বাৎসরিক অধিনায়ক সম্মেলন ঃ প্রথম কোর পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত

tab

জাতীয়

শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও নির্বাচন চেয়ে ইইউ ও ১৪ দেশের বিবৃতি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক:

বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২

‘আগামী ১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আমরা মানবাধিকার সুরক্ষা ও উন্নয়ন উৎসাহিত করার ক্ষেত্রে গণতন্ত্রের মৌলিক ভূমিকাকে তুলে ধরতে চাই’।

বাংলাদেশে অবস্থিত ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও ১৪ দেশের রাষ্ট্রদূত এই দিবস উপলক্ষে এক যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন। এতে তারা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ এবং নির্বাচনি প্রক্রিয়ার গুরুত্ব পুনর্ব্যক্ত করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশ দূতাবাসের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে মঙ্গলবার রাতে বাংলা ও ইংরেজিতে এ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, “আমরা বাংলাদেশের বন্ধু ও অংশীদার হিসেবে এদেশের সাফল্যকে আরও উৎসাহিত করতে আগ্রহী এবং মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষণার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে অবাধ, সুষ্ঠু, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন প্রক্রিয়ার গুরুত্ব পুনর্ব্যক্ত করছি।”

বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বজায় থাকার প্রত্যাশা জানিয়ে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “অর্থপূর্ণ অংশগ্রহণ, সমতা, নিরাপত্তা ও অন্তর্ভুক্তিমূলক মানবিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য অনুসরণীয় মূল্যবোধ ও নীতি হিসেবে আমরা গণতান্ত্রিক শাসনকে সমর্থন ও উৎসাহিত করি।”

পরবর্তী সংসদ নির্বাচনের বছর খানেক আগে বাংলাদেশে যখন রাজনীতির মাঠে উত্তপ্ত হয়ে উঠছে, তখন বেশ কয়েকজন রাষ্ট্রদূত ভোট নিয়ে বক্তব্য রাখেন, যা নিয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া আসে সরকারের কাছ থেকে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে কূটনীতিকদের শিষ্টাচার মেনে চলার পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি বলেন, বাংলাদেশ এখন কারও উপনিবেশ নয়।

মঙ্গলবার বিদেশি কূটনীতিকদের বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “আগামী ১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আমরা মানবাধিকার সুরক্ষা ও উন্নয়ন উৎসাহিত করার ক্ষেত্রে গণতন্ত্রের মৌলিক ভূমিকাকে তুলে ধরতে চাই।

“আমরা মানবাধিকারের সার্বজনীন ঘোষণাপত্রে সংরক্ষিত স্বাধীনতা উদযাপন করি এবং ঘোষণাপত্রে বর্ণিত বিভিন্ন অঙ্গীকারের মধ্যে স্বাধীন মতপ্রকাশ, শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও নির্বাচন বিষয়ে জাতিসংঘের সব সদস্য রাষ্ট্রের অঙ্গীকার রক্ষার গুরুত্ব তুলে ধরি।”

বিবৃতিদাতা মিশনগুলো হলো- যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, স্পেন, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, জাপান, কানাডা ও অস্ট্রেলিয়া।

back to top