alt

জাতীয়

সরকার চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন,মুরগির চড়া দাম, সমাধানের এখনও পাননি: কৃষিমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক: : বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩

বাজারে দফায় দফায় বেড়ে চলছে নিত্যপণ্যের দাম। আজ এক পণ্যের দাম বাড়লে কাল বাড়ছে আরেক পণ্যের দাম। সব মানুষের জন্য প্রোটিন তথা পুষ্টিকর খাবার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সরকার চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন ব্রয়লার মুরগির দামের অস্থিরতার পেছনে কারণ খুঁজে পেলেও এর সমাধানের পথ এখনও পাননি বলে জানান কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক।

বৃহস্পতিবার ঢাকায় দ্বাদশ ‘ইন্টারন্যাশনাল পোলট্রি শো’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

‘টেস্টি অ্যান্ড হেলদি প্রোটিন ফর অল’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ওয়ার্ল্ড পোলট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ শাখা এবং বাংলাদেশ পোলট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিলের আয়োজনে শুরু হয়েছে তিনদিনব্যাপী এই শো।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এই বাজার কেন অস্থির তা বিশ্লেষণ করে খুঁজে বের করতে হবে।বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বলেন, “আমি জানি না কীভাবে এটা সমাধান হবে। ২০১৮ এর নির্বাচনে আমরা খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের কথা দিয়েছিলাম। শস্যে আমরা তা অর্জন করেছি। এখন আমাদের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবার নিশ্চিত করা।”

“অনেক চালনির্ভর দেশের চেয়ে আমরা বেশি চাল খাই, কিন্তু আমাদের প্রোটিন খাওয়ার হার কম। দুধ, ডিম, মাছ-মাংস, ফল-সবজি যেন মানুষ পায় আমরা এখন সেই চ্যালেঞ্জের সামনে আছি।”

“কৃষির সবকিছুই পারস্পরিক নির্ভরশীল। মুরগি-ডেইরি করতে ফসল লাগে। মুরগির খাবার ভুট্টা, সয়াবিন থেকে তৈরি হয়। এসবের দাম আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিক। দীর্ঘদিন খামারিরা লস করেছে, অনেক খামার বন্ধ হয়ে গেছে, নতুন বাচ্চা তুলেনি, যার কারণে উৎপাদন ও সরবরাহ অনেক কমেছে। এ কারণে বাজার অনেক চড়া, মানুষ কিনতে পারছে না।”

আবার যখন উৎপাদন বেশি ছিল, তখনও মানুষ ক্রয় ক্ষমতা হারার কারণে কিনতে পারেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, “এই কারণে খামারি ও কোম্পানিগুলোকে লস দিয়েছে। আবার আমাদের এত বড় পোলট্রি খাতের জন্য খাবার হিসেবে ট্যানারির বর্জ্য সরবরাহ করা হয়- এ কথার কোনো ভিত্তি নেই, অথচ এই তথ্য ব্যাপকহারে ছড়িয়ে এই খাতের ক্ষতি করা হয়েছে।”

সমাধানের পথ এখনও খুঁজে না পেলেও রোজায় পোলট্রি পণ্যের দাম না বাড়ার আশা করছেন রাজ্জাক।

তিনি বলেন, “এই সময়ে চাহিদা কমে যায়, এর দাম বাড়বে না। সমস্যা হচ্ছে এখনই অনেক বেড়ে আছে। বাজার যেহেতু ভালো, তাই এখন অনেকেই নতুন করে বাচ্চা উৎপাদন করবে। পোল্ট্রি সবার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, তাই আমরা সজাগ থাকব যে এর দাম মানুষের ক্ষমতার মধ্যে থাকে।

“অস্বাভাবিকভাবে অনেক সময় বাচ্চা ও খাদ্যের দাম বাড়ায়। একটা বাচ্চা করতে ৩০-৩৫ টাকা লাগে, এটা কেন ৬০ টাকা হবে? কোনোক্রমেই যেন এটা ৪৫ টাকার উপরে না যায়। এটা দেখার জন্য সরকারের তরফ থেকে একটা রেগুলেটরি বডি থাকতে হবে।”

এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পোল্ট্রিতে দাম বাড়ায় ভোক্তা ও উৎপাদনকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ফিড প্রস্তুতকারীরা বরাবরই লাভ করে।

“বাংলাদেশে একটা ব্যাপার হচ্ছে, খাদ্যওয়ালারা কখনও লস করে না। যারা মুরগি উৎপাদন করে, বাচ্চা উৎপাদন করে, আর ভোক্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।”

উদ্বোধনী পর্বে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরনারি সায়েন্স অনুষদের ডিন প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তিনি তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরে আমিষের চাহিদা মেটানোর জন্য পোলট্রির সম্ভাবনা ও প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন।

ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ শাখার সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হাসান বলেন, “ব্রয়লারের মাংসের গুণমান নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানো হয়। অনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে নানা গবেষণার নাম দিয়ে বাংলাদেশের ব্রয়লার নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার করা হয়।”

এই খাতে সঠিক গবেষণার জন্য এবার থেকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ জন স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীকে অনুদান দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, “২০২৫ সাল নাগাদ এই শিল্পকে আমরা রপ্তানিমুখী রূপ দিতে চাই।”

ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ শাখার সহ-সভাপতি শামসুল আরেফিন খালেদ পোল্ট্রি খাতে চলমান সংকট নিরসনে সরকারের সহায়তা চান।

এই সংগঠনের সভাপতি মশিউর রহমান বলেন, “যে দাম বেড়েছে সেটা অযৌক্তিক নয়। এটি মূলত প্রাইস কারেকশন। কম দামের পর কিছুদিন আগে আমাদের অনেক খামারি শেড বন্ধ করে ফেলেছিল। এই প্রাইস কারেকশনের পর তারা তৈরি হচ্ছেন, আমার সাথে কথা হয়েছে, তারা এই খাতে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।”

মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব নাহিদ রশিদ বলেন, “দেশের পোলট্রি খাত এখন অনেক সুসংগঠিত। এই খাতে অনেকের কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে। কিছুদিনের মধ্যেই তৈরি পোশাক খাতের পর এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম কর্মসংস্থান তৈরি করা খাতে পরিণত হবে।”

দ্বাদশ পোলট্রি শোতে দেশ ও দেশের বাইরের ৫৯১টি প্রতিষ্ঠান স্টল দিয়ে তাদের পণ্য প্রদর্শন করছে। পোলট্রি খাতে মাছ, মুরগি ও গবাদিপশু পালনে প্রয়োজনীয় সব পণ্যের সমারোহে সেজেছে এই পোলট্রি শো।

পোলট্রি খাতে নতুন নতুন সব উদ্ভাবন ঠাঁই পেয়েছে এই মেলায়। মাছ-মুরগির ফিড, ওষুধ, শেড তৈরির সরঞ্জাম থেকে শুরু করে গরু-ছাগল মোটাতাজাকরণের পণ্য, বিভিন্ন জেনেটিক বুস্টার, আধুনিক স্মার্ট ওয়েট মেশিন, ফিড মিলের যন্ত্রপাতি, হ্যাচারির যন্ত্রাংশসহ নানা পণ্যের প্রদর্শন আকৃষ্ট করেছে খাতসংশ্লিষ্টদের।

শ্রীমঙ্গল থেকে আসা পোলট্রি খামারি হাসান মাহমুদ বলেন, “সবাই গতানুগতিকভাবে খামার করে। এখানে এসে বুঝা গেলো কতকিছু আবিষ্কার হয়ে গেছে। খুবই ভাল লাগছে। এখান থেকে কিছু শিখে গিয়ে নিজের খামারে কাজে লাগানোর চেষ্টা করব।”

স্টল দেওয়া বিভিন্ন কোম্পানির প্রতিনিধিরা জানান, করোনা মহামারীর পর ক্রেতাদের সাথে সামনাসামনি যোগাযোগের এই সুযোগ পোলট্রি খাতকে সমৃদ্ধ করবে।

ছবি

গ্যাস সংকটে আগামীর ‘ভরসা’ এলএনজি

ছবি

রানা প্লাজা ধসের ১১ বছর : ‘আমার স্বপ্নও ভেঙে গেছে’

ছবি

এভিয়েশন শিল্পের উন্নয়নে সহযোগিতা করতে চায় যুক্তরাজ্য

ছবি

থাইল্যান্ডে প্রধানমন্ত্রীকে লাল গালিচা সংবর্ধনা

ছবি

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে ৩ নতুন বিচারক

ছবি

কক্সবাজারে ভোটার হওয়া রোহিঙ্গাদের তালিকা চায় হাই কোর্ট

ছবি

ব্যাংকক পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

তাপপ্রবাহের এলাকা আরও বাড়বে

ছবি

ব্যাংককের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করলেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বাংলাদেশ ও কাতারের মধ্যে ৫টি চুক্তি ও ৫টি সমঝোতা স্মারক সই

ছবি

ঢাকা ছাড়লেন কাতারের আমির

ছবি

সোমালি জলদস্যুদের দ্বারা জব্দ করা জাহাজ সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছেছে; ২৩ জন বাংলাদেশি নাবিকের সবাই নিরাপদ

ছবি

পদে থেকেই ইউপি চেয়ারম্যানরা উপজেলা নির্বাচন করতে পারবেন

ছবি

পদত্যাগ না করেই ইউপি চেয়ারম্যানরা উপজেলা নির্বাচন করতে পারবেন

ছবি

বান্দরবানের তিন উপজেলায় ভোট স্থগিত : ইসি সচিব

ছবি

তীব্র দাবদাহের মধ্যেও বিদ্যুৎ উৎপাদনে রেকর্ড , আছে লোড শেডিংও

ছবি

বাংলাদেশ-কাতার ১০ চুক্তি সই

ছবি

ঢাকা থেকে প্রধান ১৫টি রুটে ট্রেনের ভাড়া যত বাড়ল

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে কাতারের আমির

ছবি

তাপপ্রবাহের সতর্কবার্তা বাড়লো আরও ৩ দিন, দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ

ছবি

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও যুক্তরাষ্ট্রের প্যাসিফিক আর্মি কমান্ড এর যৌথ অংশগ্রহণে টিএল-২০২৪ উদ্বোধন

ছবি

শিশু অধিকার বিষয়ক সচেতনতা সৃষ্টিতে মিডিয়ার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ--স্পীকার

ছবি

দু’দিনের সফরে কাতারের আমির ঢাকায়

ছবি

পাঁচ দিনের সফরে বুধবার থাইল্যান্ড যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

৪ মে থেকে বাড়ছে ট্রেনের ভাড়া

ছবি

আনু মুহাম্মদের পায়ে ‌‘কম্বাইন্ড অপারেশন’ দরকার: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

আমরা জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার হ্রাস করেছি : শেখ হাসিনা

ছবি

তাপপ্রবাহের সতর্কবার্তা, বাড়লো আরও ৩ দিন

ছবি

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই কি এত তাপ?

ছবি

ভারতের উজানে পানি প্রত্যাহার করে নেয়ায় তিস্তা মরা খালে পরিনত হয়েছে

ছবি

তাপদাহ : হাসপাতাল প্রস্তুত রাখার নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

ছবি

পিছিয়ে নেই নারীরাও তামিলনাড়ু থেকে ট্রাক নিয়ে বেনাপোল এলেন অন্নপূর্ণা

ছবি

দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ঢাকা আসছেন কাতারের আমির, ১১ টি চুক্তি-সমঝোতা

ছবি

অন্যায় আবদারের কাছে মাথানত করবো না: ইসি আলমগীর

ছবি

তীব্র গরম : হাসপাতালগুলো প্রস্তুত রাখতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নির্দেশ

ছবি

দাবদাহ : হাসপাতালগুলোকে প্রস্তুত রাখার নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

tab

জাতীয়

সরকার চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন,মুরগির চড়া দাম, সমাধানের এখনও পাননি: কৃষিমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক:

বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩

বাজারে দফায় দফায় বেড়ে চলছে নিত্যপণ্যের দাম। আজ এক পণ্যের দাম বাড়লে কাল বাড়ছে আরেক পণ্যের দাম। সব মানুষের জন্য প্রোটিন তথা পুষ্টিকর খাবার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সরকার চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন ব্রয়লার মুরগির দামের অস্থিরতার পেছনে কারণ খুঁজে পেলেও এর সমাধানের পথ এখনও পাননি বলে জানান কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক।

বৃহস্পতিবার ঢাকায় দ্বাদশ ‘ইন্টারন্যাশনাল পোলট্রি শো’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

‘টেস্টি অ্যান্ড হেলদি প্রোটিন ফর অল’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ওয়ার্ল্ড পোলট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ শাখা এবং বাংলাদেশ পোলট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিলের আয়োজনে শুরু হয়েছে তিনদিনব্যাপী এই শো।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এই বাজার কেন অস্থির তা বিশ্লেষণ করে খুঁজে বের করতে হবে।বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বলেন, “আমি জানি না কীভাবে এটা সমাধান হবে। ২০১৮ এর নির্বাচনে আমরা খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের কথা দিয়েছিলাম। শস্যে আমরা তা অর্জন করেছি। এখন আমাদের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবার নিশ্চিত করা।”

“অনেক চালনির্ভর দেশের চেয়ে আমরা বেশি চাল খাই, কিন্তু আমাদের প্রোটিন খাওয়ার হার কম। দুধ, ডিম, মাছ-মাংস, ফল-সবজি যেন মানুষ পায় আমরা এখন সেই চ্যালেঞ্জের সামনে আছি।”

“কৃষির সবকিছুই পারস্পরিক নির্ভরশীল। মুরগি-ডেইরি করতে ফসল লাগে। মুরগির খাবার ভুট্টা, সয়াবিন থেকে তৈরি হয়। এসবের দাম আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিক। দীর্ঘদিন খামারিরা লস করেছে, অনেক খামার বন্ধ হয়ে গেছে, নতুন বাচ্চা তুলেনি, যার কারণে উৎপাদন ও সরবরাহ অনেক কমেছে। এ কারণে বাজার অনেক চড়া, মানুষ কিনতে পারছে না।”

আবার যখন উৎপাদন বেশি ছিল, তখনও মানুষ ক্রয় ক্ষমতা হারার কারণে কিনতে পারেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, “এই কারণে খামারি ও কোম্পানিগুলোকে লস দিয়েছে। আবার আমাদের এত বড় পোলট্রি খাতের জন্য খাবার হিসেবে ট্যানারির বর্জ্য সরবরাহ করা হয়- এ কথার কোনো ভিত্তি নেই, অথচ এই তথ্য ব্যাপকহারে ছড়িয়ে এই খাতের ক্ষতি করা হয়েছে।”

সমাধানের পথ এখনও খুঁজে না পেলেও রোজায় পোলট্রি পণ্যের দাম না বাড়ার আশা করছেন রাজ্জাক।

তিনি বলেন, “এই সময়ে চাহিদা কমে যায়, এর দাম বাড়বে না। সমস্যা হচ্ছে এখনই অনেক বেড়ে আছে। বাজার যেহেতু ভালো, তাই এখন অনেকেই নতুন করে বাচ্চা উৎপাদন করবে। পোল্ট্রি সবার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, তাই আমরা সজাগ থাকব যে এর দাম মানুষের ক্ষমতার মধ্যে থাকে।

“অস্বাভাবিকভাবে অনেক সময় বাচ্চা ও খাদ্যের দাম বাড়ায়। একটা বাচ্চা করতে ৩০-৩৫ টাকা লাগে, এটা কেন ৬০ টাকা হবে? কোনোক্রমেই যেন এটা ৪৫ টাকার উপরে না যায়। এটা দেখার জন্য সরকারের তরফ থেকে একটা রেগুলেটরি বডি থাকতে হবে।”

এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পোল্ট্রিতে দাম বাড়ায় ভোক্তা ও উৎপাদনকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ফিড প্রস্তুতকারীরা বরাবরই লাভ করে।

“বাংলাদেশে একটা ব্যাপার হচ্ছে, খাদ্যওয়ালারা কখনও লস করে না। যারা মুরগি উৎপাদন করে, বাচ্চা উৎপাদন করে, আর ভোক্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।”

উদ্বোধনী পর্বে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরনারি সায়েন্স অনুষদের ডিন প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তিনি তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরে আমিষের চাহিদা মেটানোর জন্য পোলট্রির সম্ভাবনা ও প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন।

ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ শাখার সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হাসান বলেন, “ব্রয়লারের মাংসের গুণমান নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানো হয়। অনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে নানা গবেষণার নাম দিয়ে বাংলাদেশের ব্রয়লার নিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার করা হয়।”

এই খাতে সঠিক গবেষণার জন্য এবার থেকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ জন স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীকে অনুদান দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, “২০২৫ সাল নাগাদ এই শিল্পকে আমরা রপ্তানিমুখী রূপ দিতে চাই।”

ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ শাখার সহ-সভাপতি শামসুল আরেফিন খালেদ পোল্ট্রি খাতে চলমান সংকট নিরসনে সরকারের সহায়তা চান।

এই সংগঠনের সভাপতি মশিউর রহমান বলেন, “যে দাম বেড়েছে সেটা অযৌক্তিক নয়। এটি মূলত প্রাইস কারেকশন। কম দামের পর কিছুদিন আগে আমাদের অনেক খামারি শেড বন্ধ করে ফেলেছিল। এই প্রাইস কারেকশনের পর তারা তৈরি হচ্ছেন, আমার সাথে কথা হয়েছে, তারা এই খাতে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।”

মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব নাহিদ রশিদ বলেন, “দেশের পোলট্রি খাত এখন অনেক সুসংগঠিত। এই খাতে অনেকের কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে। কিছুদিনের মধ্যেই তৈরি পোশাক খাতের পর এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম কর্মসংস্থান তৈরি করা খাতে পরিণত হবে।”

দ্বাদশ পোলট্রি শোতে দেশ ও দেশের বাইরের ৫৯১টি প্রতিষ্ঠান স্টল দিয়ে তাদের পণ্য প্রদর্শন করছে। পোলট্রি খাতে মাছ, মুরগি ও গবাদিপশু পালনে প্রয়োজনীয় সব পণ্যের সমারোহে সেজেছে এই পোলট্রি শো।

পোলট্রি খাতে নতুন নতুন সব উদ্ভাবন ঠাঁই পেয়েছে এই মেলায়। মাছ-মুরগির ফিড, ওষুধ, শেড তৈরির সরঞ্জাম থেকে শুরু করে গরু-ছাগল মোটাতাজাকরণের পণ্য, বিভিন্ন জেনেটিক বুস্টার, আধুনিক স্মার্ট ওয়েট মেশিন, ফিড মিলের যন্ত্রপাতি, হ্যাচারির যন্ত্রাংশসহ নানা পণ্যের প্রদর্শন আকৃষ্ট করেছে খাতসংশ্লিষ্টদের।

শ্রীমঙ্গল থেকে আসা পোলট্রি খামারি হাসান মাহমুদ বলেন, “সবাই গতানুগতিকভাবে খামার করে। এখানে এসে বুঝা গেলো কতকিছু আবিষ্কার হয়ে গেছে। খুবই ভাল লাগছে। এখান থেকে কিছু শিখে গিয়ে নিজের খামারে কাজে লাগানোর চেষ্টা করব।”

স্টল দেওয়া বিভিন্ন কোম্পানির প্রতিনিধিরা জানান, করোনা মহামারীর পর ক্রেতাদের সাথে সামনাসামনি যোগাযোগের এই সুযোগ পোলট্রি খাতকে সমৃদ্ধ করবে।

back to top