alt

জাতীয়

চীনের জিডিআইয়ে এখনই যুক্ত হচ্ছে না বাংলাদেশ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বুধবার, ২৪ মে ২০২৩

গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (জিডিআই)-এ বাংলাদেশকে পাশে চায় চীন। চীনের প্রেসিডেন্টের এ উদ্যোগে যুক্ত হতে বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে চাপও রয়েছে। তবে, এখনই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে কোনো নিশ্চিত বার্তার ইঙ্গিত দিতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা।

আগামী শনিবার ঢাকায় পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের সভায় (ফরেন অফিস কনসালটেশন- এফওসি) বসছে বাংলাদেশ ও চীন। দুই দেশের সামগ্রিক বিষয় নিয়ে হতে যাওয়া ওই সভায় থাকছে জিডিআই-এ ঢাকার যুক্ত হওয়ার প্রসঙ্গ। এক্ষেত্রে বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত বিস্তর আলোচনা ও সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সইয়ের বিষয়ে জোর দেওয়া হবে।

ঢাকার একটি কূটনৈতিক সূত্র বলছে, ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশল হুমকি হিসেবে দেখছে বেইজিং। তাছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার টোকিও সফরে দুই দেশের যৌথ বিবৃতিতে দক্ষিণ চায়না সাগর নিয়ে কথা উঠেছে। ধারণা করা হচ্ছে, বেইজিং বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন। এ দুই প্রেক্ষাপট বিবেচনায় যত দ্রুত সম্ভব জিডিআই-এ বাংলাদেশকে যুক্ত করতে পরিকল্পনা থাকবে বেইজিংয়ের।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে বলেন, ইন্দো-প্যাসিফিক রূপরেখা দেওয়া মানে এই নয় যে আমরা যুক্তরাষ্ট্র বা জাপানের সঙ্গে চলে গেলাম। আমরা তো চায়নার এক নীতিকে প্রকাশ্যে খুব জোরালোভাবে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছি। আমরা তাদের বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ (বিআরআই)-এ আছি। জিডিআই নিয়ে তাদের একটা আগ্রহ আছে। এটা নিয়ে আমরা এখনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি। আমাদের মিশনগুলোর (বেইজিং ও জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন) মতামত চেয়েছি। কারণ, এটাতে জাতিসংঘ রিলেটেড একটা ব্যাপার আছে। আমাদের সংশ্লিষ্ট মিশনগুলো থেকে ইনপুট চাওয়া হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা বলেন, আমরা এ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত নেব কি না, এখনও নিশ্চিত নয়। এটার ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক নিয়ে, ভেতরে লুকোনো কিছু আছে কি না বা অন্যরা এটাকে খারাপভাবে নেয় কি না, সবকিছুই দেখা হচ্ছে। এটা বলতে পারি, আমরা এ মুহূর্তে কোনো সিদ্ধান্তে যাচ্ছি না। ওদের দিক থেকে চাপ থাকবেই।

গত বছরের আগস্টে ঢাকা সফর করেছিলেন চীনের তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। সেই সফরে চীনের প্রেসিডেন্টের গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (জিডিআই) ও গ্লোবাল সিকিউরিটি ইনিশিয়েটিভ (জিএসআই)-এর মতো উদ্যোগে বাংলাদেশকে যুক্ত হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে ঢাকায় নিযুক্ত চীনের তৎকালীন রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমে বলেছিলেন, জিডিআই-এ যুক্ত হওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশ ইতিবাচক। লি’র উত্তরসূরি চীনের নতুন রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন গত মার্চের মাঝামাঝিতে এক অনুষ্ঠানে দাবি করেন, জিডিআই-এর বিষয়ে বাংলাদেশ ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, ঢাকায় হতে যাওয়া এফওসি-তে নেতৃত্বে দিতে চার সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল নিয়ে আগামী শুক্রবার তিন দিনের সফরে বাংলাদেশে আসছেন চীনের ভাইস মিনিস্টার সান ওয়েইডং।

ঢাকার পক্ষে এফওসি-তে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন এবং বেইজিংয়ের পক্ষে সান ওয়েইডং নেতৃত্ব দেবেন।

এফওসি-তে আলোচনার বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, আলোচনায় অনেক কিছু আসতে পারে। দ্বিপাক্ষিক সব ইস্যু থাকবে। আঞ্চলিক ইস্যু আসবে। আমাদের দ্বিপাক্ষিক ইস্যুগুলো কোন অবস্থায় আছে, সেগুলো নিয়ে আলোচনা হবে। চলমান বিভিন্ন ইস্যু নিয়েও আলোচনা হতে পারে।

আলোচনায় রোহিঙ্গাদের পাইলট প্রত্যাবাসনে বিশেষ গুরুত্বের কথা জানান মন্ত্রণালয়ের এ কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ত্রিপক্ষীয় উদ্যোগে মিয়ানমার ইস্যুতে আলোচনা হবে। রোহিঙ্গা ইস্যুতে মূল আলোচনা হবে। নির্বাচনের আগে কিছু রোহিঙ্গা পাঠানো দরকার। প্রসেসটা আমরা শুরু করতে চাই।

এদিকে কূটনৈতিক একটি সূত্র বলছে, এফওসি মুখ্য হলেও বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিসহ নির্বাচন প্রসঙ্গ আসতে পারে আলোচনার টেবিলে। এছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ ইস্যু তো থাকছেই।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র বলছে, চীনের সঙ্গে এফওসি’র প্রস্তুতি নিয়ে গত ১৮ মে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ইন্সপেক্টর জেনারেল অব মিশনস-এর আসাদ আলম সিয়ামের নেতৃত্বে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জানা গেছে, এর বাহিরে চীনের ভাইস মিনিস্টার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে একটি সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এছাড়া ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি পদ্মা সেতু দেখতে যাবেন চীনা প্রতিনিধিদল।

ছবি

তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর নির্দিষ্ট সংখ্যা আমাদের হাতে নেই : মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

ছবি

মন্ত্রিসভায় এপোস্টল কনভেনশন স্বাক্ষরের অনুমোদনের কারনে বছরে সাশ্রয় হবে ৫০০ কোটি টাকা : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসির মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

ছবি

বাজার মনিটরিং কঠোরভাবে শুরু করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

বজ্রপাতের ঝুঁকি কমাতে পারে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্র

ছবি

কত ভোটার উপস্থিত হলে সন্তোষজনক হবে তা নিয়ে ইসির দায়বদ্ধতা নেই

ছবি

ঢাকায় ব্যাটারিচালিত রিকশা চলবে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ : কাদের

ছবি

ডেঙ্গু নিয়ে বড় শঙ্কা : সাড়ে ৫ মাসে আক্রান্ত ২৬শ’ মৃত্যু ৩৩

ছবি

রক্তেভেজা চা শ্রমিক দিবস আজ

উপজেলা নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ভোটার উপস্থিতি বাড়তে পারে: আশায় ইসি

ই-ফাইলিং নিশ্চিত হলে কর আহরণ বাড়বে জিডিপি পাঁচ শতাংশ : সিপিডি

ডেঙ্গু নিয়ে বড় শঙ্কা

কারিগরি সমস্যা : বিটিসিএলের কল সেণ্টারের সেবা সাময়িক বিঘ্নিত হচ্ছে

চিকিৎসা খরচ মেটাতে হিমশিম খাচ্ছেন ৪৬ শতাংশ মানুষ

উপজেলা : ক্ষমতাসীনদের আয়, সম্পদ বৃদ্ধি পাচ্ছে

ছবি

কিরগিজস্তান সরকারকে উদ্বেগ জানানো হয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

মেট্রোরেলে ভ্যাট বসানো এনবিআরের ভুল সিদ্ধান্ত : ওবায়দুল কাদের

ছবি

ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধে বিআরটিএ’র নির্দেশনা

ছবি

কিরগিজস্তানে সহিংস জনতার হামলায় বাংলাদেশের উদ্বেগ

ছবি

দ্বিতীয় ধাপে ঋণগ্রস্ত প্রার্থী বেশি, কোটিপতি ১১৬

ছবি

শুরুতেই বড় পতন, ক্রেতা সংকটে শতাধিক প্রতিষ্ঠান

ছবি

চাকরির পেছনে না ছুটে তরুণদের উদ্যোক্তা হতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

সৌদি গেলেন ২৮৭৬০ হজযাত্রী, আরও একজনের মৃত্যু

ছবি

১১ বছর পর আরেক বাংলাদেশির এভারেস্ট জয়

ছবি

ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর উদ্বোধন, র‍্যালি, আলোচনা সভা

ছবি

নারী স্পিকারদের সম্মেলন বৈশ্বিক গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুর অনবদ্য প্লাটফর্ম: ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী

ছবি

আম নিয়ে সিন্ডিকেট হতে দেয়া হবে না : কৃষিমন্ত্রী

সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে লড়াই আজ একাত্তরের চেয়েও কঠিন

ছবি

কেরাণীগঞ্জে ক্যালিগ্রাফি কর্মশালা

ছবি

রুবেল আবারও আয়ারল্যান্ডের পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা কমিটিতে

ছবি

আজ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস

ছবি

বিদেশি অর্থায়নের প্রকল্প দ্রুত শেষ করার নির্দেশ: প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

পরিবেশবান্ধব, জ্বালানি সাশ্রয়ী গ্রীণ ভবন করা সময়ের দাবী: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ছবি

বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সংসদীয় কূটনীতি কার্যকর হাতিয়ার-- স্পীকার

ছবি

পর্যটন খাতে তুরস্ককে বিনিয়োগের আহ্বান জানালেন মন্ত্রী

ছবি

শেয়ার হস্তান্তরে স্থিতাবস্থায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ বন্ধ

tab

জাতীয়

চীনের জিডিআইয়ে এখনই যুক্ত হচ্ছে না বাংলাদেশ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বুধবার, ২৪ মে ২০২৩

গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (জিডিআই)-এ বাংলাদেশকে পাশে চায় চীন। চীনের প্রেসিডেন্টের এ উদ্যোগে যুক্ত হতে বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে চাপও রয়েছে। তবে, এখনই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে কোনো নিশ্চিত বার্তার ইঙ্গিত দিতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা।

আগামী শনিবার ঢাকায় পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের সভায় (ফরেন অফিস কনসালটেশন- এফওসি) বসছে বাংলাদেশ ও চীন। দুই দেশের সামগ্রিক বিষয় নিয়ে হতে যাওয়া ওই সভায় থাকছে জিডিআই-এ ঢাকার যুক্ত হওয়ার প্রসঙ্গ। এক্ষেত্রে বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত বিস্তর আলোচনা ও সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সইয়ের বিষয়ে জোর দেওয়া হবে।

ঢাকার একটি কূটনৈতিক সূত্র বলছে, ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশল হুমকি হিসেবে দেখছে বেইজিং। তাছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার টোকিও সফরে দুই দেশের যৌথ বিবৃতিতে দক্ষিণ চায়না সাগর নিয়ে কথা উঠেছে। ধারণা করা হচ্ছে, বেইজিং বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন। এ দুই প্রেক্ষাপট বিবেচনায় যত দ্রুত সম্ভব জিডিআই-এ বাংলাদেশকে যুক্ত করতে পরিকল্পনা থাকবে বেইজিংয়ের।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে বলেন, ইন্দো-প্যাসিফিক রূপরেখা দেওয়া মানে এই নয় যে আমরা যুক্তরাষ্ট্র বা জাপানের সঙ্গে চলে গেলাম। আমরা তো চায়নার এক নীতিকে প্রকাশ্যে খুব জোরালোভাবে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছি। আমরা তাদের বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ (বিআরআই)-এ আছি। জিডিআই নিয়ে তাদের একটা আগ্রহ আছে। এটা নিয়ে আমরা এখনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি। আমাদের মিশনগুলোর (বেইজিং ও জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন) মতামত চেয়েছি। কারণ, এটাতে জাতিসংঘ রিলেটেড একটা ব্যাপার আছে। আমাদের সংশ্লিষ্ট মিশনগুলো থেকে ইনপুট চাওয়া হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা বলেন, আমরা এ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত নেব কি না, এখনও নিশ্চিত নয়। এটার ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক নিয়ে, ভেতরে লুকোনো কিছু আছে কি না বা অন্যরা এটাকে খারাপভাবে নেয় কি না, সবকিছুই দেখা হচ্ছে। এটা বলতে পারি, আমরা এ মুহূর্তে কোনো সিদ্ধান্তে যাচ্ছি না। ওদের দিক থেকে চাপ থাকবেই।

গত বছরের আগস্টে ঢাকা সফর করেছিলেন চীনের তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। সেই সফরে চীনের প্রেসিডেন্টের গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (জিডিআই) ও গ্লোবাল সিকিউরিটি ইনিশিয়েটিভ (জিএসআই)-এর মতো উদ্যোগে বাংলাদেশকে যুক্ত হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে ঢাকায় নিযুক্ত চীনের তৎকালীন রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমে বলেছিলেন, জিডিআই-এ যুক্ত হওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশ ইতিবাচক। লি’র উত্তরসূরি চীনের নতুন রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন গত মার্চের মাঝামাঝিতে এক অনুষ্ঠানে দাবি করেন, জিডিআই-এর বিষয়ে বাংলাদেশ ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, ঢাকায় হতে যাওয়া এফওসি-তে নেতৃত্বে দিতে চার সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল নিয়ে আগামী শুক্রবার তিন দিনের সফরে বাংলাদেশে আসছেন চীনের ভাইস মিনিস্টার সান ওয়েইডং।

ঢাকার পক্ষে এফওসি-তে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন এবং বেইজিংয়ের পক্ষে সান ওয়েইডং নেতৃত্ব দেবেন।

এফওসি-তে আলোচনার বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, আলোচনায় অনেক কিছু আসতে পারে। দ্বিপাক্ষিক সব ইস্যু থাকবে। আঞ্চলিক ইস্যু আসবে। আমাদের দ্বিপাক্ষিক ইস্যুগুলো কোন অবস্থায় আছে, সেগুলো নিয়ে আলোচনা হবে। চলমান বিভিন্ন ইস্যু নিয়েও আলোচনা হতে পারে।

আলোচনায় রোহিঙ্গাদের পাইলট প্রত্যাবাসনে বিশেষ গুরুত্বের কথা জানান মন্ত্রণালয়ের এ কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ত্রিপক্ষীয় উদ্যোগে মিয়ানমার ইস্যুতে আলোচনা হবে। রোহিঙ্গা ইস্যুতে মূল আলোচনা হবে। নির্বাচনের আগে কিছু রোহিঙ্গা পাঠানো দরকার। প্রসেসটা আমরা শুরু করতে চাই।

এদিকে কূটনৈতিক একটি সূত্র বলছে, এফওসি মুখ্য হলেও বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিসহ নির্বাচন প্রসঙ্গ আসতে পারে আলোচনার টেবিলে। এছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ ইস্যু তো থাকছেই।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র বলছে, চীনের সঙ্গে এফওসি’র প্রস্তুতি নিয়ে গত ১৮ মে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ইন্সপেক্টর জেনারেল অব মিশনস-এর আসাদ আলম সিয়ামের নেতৃত্বে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জানা গেছে, এর বাহিরে চীনের ভাইস মিনিস্টার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে একটি সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এছাড়া ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি পদ্মা সেতু দেখতে যাবেন চীনা প্রতিনিধিদল।

back to top