alt

রাজনীতি

বিএনপির হারিছ চৌধুরীর মৃত্যু , সাড়ে তিন মাস পর জানালো পরিবার

বিশেষ প্রতিনিধি, সিলেট : বুধবার, ১২ জানুয়ারী ২০২২

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী যুক্তরাজ্যে মারা গেছেন। প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে তিনি মারা গেলেও তা প্রকাশ হয় গতকাল। তার চাচাতো ভাই আশিক উদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মঙ্গলবার রাতে সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরীর ফেসবুক স্ট্যাটাসের পর বিষয়টি জানাজানি হয়।

তিনি তার ফেসবুক আইডিতে হারিছ চৌধুরী ও তার ছবি সংযুক্ত করে লেখেন, ‘ভাই বড় ধন, রক্তের বাঁধন’। এর পর থেকে বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ অনেকে মন্তব্যের ঘরে হারিছ চৌধুরীর মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করেন।

আশিক চৌধুরী বলেন, প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে যুক্তরাজ্যে হারিছ চৌধুরী মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল প্রায় ৬৮ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। যুক্তরাজ্যেই তার দাফন হয়েছে।

ওয়ান ইলেভেন বা ২০০৭ সালের জানুয়ারীতে সেনা-সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমাতায় আসার পর থেকেই পলাতক ছিলেন হারিস চৌধুরী।

হারিছ চৌধুরীর মৃত্যুর সময় আশিক চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে ছিলেন। তিনি বলেন, ‘যে সময় তিনি মারা যান, আমি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছিলাম। চাচাতো ভাই মারা যাওয়ার বিষয়টি মুঠোফোনে জানতে পারি। হারিছ চৌধুরীর স্ত্রী জোসনা আরা চৌধুরী, ছেলে নায়েম শাফি চৌধুরী ও মেয়ে সামিরা তানজিন চৌধুরী যুক্তরাজ্যে অবস্থা করছেন। সিলেটের কানাইঘাটের দিঘিরপাড় পূর্ব ইউনিয়নের দর্পনগর গ্রামে হারিছ চৌধুরীর গ্রামের বাড়িতে কেউ থাকেন না।’

হারিছ চৌধুরী করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বলে জানান আশিক চৌধুরী। হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফেরেন। পরে আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেপ্টেম্বর মাসের দিকে তিনি যুক্তরাজ্যের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এত দিন পরে মৃত্যুর খবর প্রকাশের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যারা জিজ্ঞেস করেন, তাদের বিষয়টি জানিয়েছি। হারিছ চৌধুরীর খোঁজ-খবর রাখার মতো কেউ নেই। এ জন্য বিষয়টি এত দিন জানাজানি হয়নি।’

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও তৎকালীন বিরোধী দলের নেতা শেখ হাসিনার সমাবেশে গ্রেনেড হামলার মামলায় হারিছ চৌধুরীর যাবজ্জীবন সাজা হয় ২০১৮ সালের ১০ অক্টোবর। একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হারিছ চৌধুরীর ৭ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা হয়। সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলায়ও তিনি আসামি ছিলেন।

ছবি

ইসি গঠন নিয়ে ‘নাটক’ শুরু করেছে সরকার : ড. মোশাররফ

ছবি

ময়মনসিংহ কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) চতুর্দশ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

ছবি

জিয়াউর রহমানের ৮৬তম জন্মবার্ষিকী আজ

ছবি

বিএনপি থেকে তৈমুর ও এটিএম কামালকে বহিষ্কার

ছবি

ভোটের লড়াই শেষে চাচা-ভাতিজির মিষ্টিমুখ

ছবি

তৈমুর আলম বললেন, ইভিএম ডাকাতির বাক্স

ছবি

ইভিএমের গতিতে সন্তুষ্ট নন বিজয়ী আইভী, বললেন আরো ভোট পেতাম

নোয়াখালীতে ছাত্রদলের ১৫ নেতার পদত্যাগ

মদারীপুরে নির্বাচনী প্রচারে সংঘর্ষ : পুলিশসহ আহত ১০

ছবি

নাসিক নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক কম হয়েছে: সংসদে এমপি হারুন

ছবি

‘মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় পড়া কর্মকর্তারা দক্ষ ও দেশপ্রেমিক’

নারায়ণগঞ্জ সিটি ভোট সর্বোত্তম : মাহবুব তালুকদার

ছবি

যেমন হলো নারায়ণগঞ্জ ভোট

কারচুপির অভিযোগ তৈমুরের

ছবি

শামীম ওসমানের কেন্দ্রে হেরেছে নৌকা

ছবি

ইভিএম ‘কারচুপি’র জন্য আমাদের পরাজয়: তৈমূর

সরকার বিরোধীদল শূন্য করছে : রিজভী

ছবি

টাঙ্গাইল-৭ উপনির্বাচনে বিপুল ভোটে নৌকার জয়

বাউফলে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় মেয়র জিয়াউল হক

ছবি

হ্যাটট্রিক জয়, নাসিক মেয়র আইভী

ছবি

কো‌নো ব্যক্তি নয়, প্রতীকের পক্ষে আমি: শামীম ওসমান

ছবি

নাসিক নির্বাচন: ইভিএমে ত্রুটি, নিধারিত সময়ের পরও ভোটগ্রহণ!

তৈমুর আলম কারচুপি না হলে রায় মেনে নেবেন

ছবি

কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলার পর যুবক আটক

ছবি

কেন্দ্রে ঢুকে নিয়ম ভঙ্গ করে ভোট চাইলেন তৈমুর

সিদ্ধিরগঞ্জে হাতি প্রতীকের এজেন্টকে বের করে দেয়ার অভিযোগ সঠিক নয়

ছবি

পৌনে ১২টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৩৫ থেকে ৪০ শতাংশ : জেলা প্রশাসক

ছবি

নাসিক নির্বাচন: ইভিএমে ভোটগ্রহণে ধীরগতি

ছবি

ভোট দিলেন আইভী, ভোটগ্রহণের ধীড়গতির অভিযোগ

ছবি

এক লাখ ভোটের ব্যবধান জয়লাভ করবো : তৈমুর আলম

ছবি

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে

ছবি

আইভী, নৌকা, তৈমুর এবং শামীম ওসমান

ছবি

তৈমুরের প্রধান নির্বাচনী এজেন্টের বাড়িতে পুলিশের অভিযান

ছবি

মরে গেলেও মাঠ ছাড়বেন না তৈমূর

ছবি

কাউন্সিলর প্রার্থীদের অনেকে একাধিক মামলার আসামি

প্রতিবাদী আইভীকে ঠেকাতে রাজনীতির গডফাদাররা ঐক্যবদ্ধ

tab

রাজনীতি

বিএনপির হারিছ চৌধুরীর মৃত্যু , সাড়ে তিন মাস পর জানালো পরিবার

বিশেষ প্রতিনিধি, সিলেট

বুধবার, ১২ জানুয়ারী ২০২২

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী যুক্তরাজ্যে মারা গেছেন। প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে তিনি মারা গেলেও তা প্রকাশ হয় গতকাল। তার চাচাতো ভাই আশিক উদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মঙ্গলবার রাতে সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরীর ফেসবুক স্ট্যাটাসের পর বিষয়টি জানাজানি হয়।

তিনি তার ফেসবুক আইডিতে হারিছ চৌধুরী ও তার ছবি সংযুক্ত করে লেখেন, ‘ভাই বড় ধন, রক্তের বাঁধন’। এর পর থেকে বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ অনেকে মন্তব্যের ঘরে হারিছ চৌধুরীর মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করেন।

আশিক চৌধুরী বলেন, প্রায় সাড়ে তিন মাস আগে যুক্তরাজ্যে হারিছ চৌধুরী মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল প্রায় ৬৮ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। যুক্তরাজ্যেই তার দাফন হয়েছে।

ওয়ান ইলেভেন বা ২০০৭ সালের জানুয়ারীতে সেনা-সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমাতায় আসার পর থেকেই পলাতক ছিলেন হারিস চৌধুরী।

হারিছ চৌধুরীর মৃত্যুর সময় আশিক চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে ছিলেন। তিনি বলেন, ‘যে সময় তিনি মারা যান, আমি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছিলাম। চাচাতো ভাই মারা যাওয়ার বিষয়টি মুঠোফোনে জানতে পারি। হারিছ চৌধুরীর স্ত্রী জোসনা আরা চৌধুরী, ছেলে নায়েম শাফি চৌধুরী ও মেয়ে সামিরা তানজিন চৌধুরী যুক্তরাজ্যে অবস্থা করছেন। সিলেটের কানাইঘাটের দিঘিরপাড় পূর্ব ইউনিয়নের দর্পনগর গ্রামে হারিছ চৌধুরীর গ্রামের বাড়িতে কেউ থাকেন না।’

হারিছ চৌধুরী করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বলে জানান আশিক চৌধুরী। হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফেরেন। পরে আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেপ্টেম্বর মাসের দিকে তিনি যুক্তরাজ্যের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এত দিন পরে মৃত্যুর খবর প্রকাশের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যারা জিজ্ঞেস করেন, তাদের বিষয়টি জানিয়েছি। হারিছ চৌধুরীর খোঁজ-খবর রাখার মতো কেউ নেই। এ জন্য বিষয়টি এত দিন জানাজানি হয়নি।’

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও তৎকালীন বিরোধী দলের নেতা শেখ হাসিনার সমাবেশে গ্রেনেড হামলার মামলায় হারিছ চৌধুরীর যাবজ্জীবন সাজা হয় ২০১৮ সালের ১০ অক্টোবর। একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হারিছ চৌধুরীর ৭ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা হয়। সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলায়ও তিনি আসামি ছিলেন।

back to top