alt

রাজনীতি

বিএনপির সংলাপ নিয়ে শরিকদের ক্ষোভ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : রোববার, ৩১ জুলাই ২০২২

সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে জাতীয় ঐক্য গড়ার লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিক সংলাপ শুরু করেছিল বিএনপি। এরই অংশ হিসেবে নাগরিক ঐক্যের সঙ্গে বৈঠকের মাধ্যমে সংলাপ শুরু করলেও এখনও শেষ করতে পারেনি। অনেকদিন সংলাপের কার্যক্রম স্থবির থাকায় গত ২১ জুলাই ডেমোক্রেটিক লীগ (ডিএল) ও সাম্যবাদী দলের সঙ্গে সংলাপ করে বিএনপি। ক্রমান্বয়ে সংলাপ অনুষ্ঠান না করায় বিএনপির এ উদ্যোগে শরিকদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

বিএনপির শরিক দলের এক শীর্ষ নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংবাদ মাধমে বলেন, বিএনপির সংলাপে কোন ক্রমধারা নেই। ওয়ানম্যান-ওয়ান পার্টি এমন দলগুলোর সঙ্গে বৈঠক করছে আবার যাদের জেলা পর্যায়ে সাংগঠনিক অফিস রয়েছে তাদের সঙ্গেও করেছে। এখানে ক্রমান্বয়ের দরকার ছিল। বিএনপি সেটা না করার ফলে শরিকদের কয়েকটি দলের শীর্ষ নেতারা অস্বস্তিবোধ করেন। বিএনপির এটা বোঝা উচিত ছিল।

প্রায় ১৩ বছরের বেশি সময় বারবার আন্দোলন-সংগ্রামের ঘোষণা দিয়েও বিশেষ সুবিধা করতে পারেনি দলটি। নির্বাচন থেকে দূরে সরতে সরতে জাতীয় সংসদে প্রধান বিরোধী দলের জায়গাটাও খুইয়েছে দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি। সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নানা ছক কষলেও কোন ছকই বাস্তবায়ন করতে পারছে না তারা।

দ্বিতীয় দফা বিএনপির সংলাপ যেদিন শুরু হয় ওইদিন তাদের দুই শরিক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি এলডিপি একাংশের মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম বলেন, বিএনপি রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছিল সেটা স্থগিত ছিল। নতুন করে শুরু করছে কি না আমার জানা নেই। সংলাপের আমন্ত্রণ পেয়েছেন কি না সাংবাদিকের করা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা এখনও জানি না। আমাদের সঙ্গে এখন পর্যন্ত কেউ যোগাযোগ করেনি, আমাদের পক্ষ থেকেও কারও সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি। শুনেছি ঈদের পর তারা সংলাপের উদ্যোগ নেবে, এখন পর্যন্ত কিছু জানি না।

দ্বিতীয় দফা সংলাপের বিষয়ে বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা কিছু জানেন না। তিনিও সংলাপের আমন্ত্রণপত্র পাননি এখনও। সংলাপ নিয়ে বিএনপিতে যে আশাবাদ তৈরি হয়েছিল তা এখন অনেকটাই ম্রিয়মাণ। অনেকেই মনে করছে পুরোনো মিত্রদের সঙ্গে সংলাপের ফলাফল কী হবে? নতুন মাত্র দুটি দলের সঙ্গে সংলাপ হয়েছে। বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ও গণসংহতি আন্দোলন। সংলাপের অবস্থা দেখে মনে হয়েছে নতুন বোতলে পুরোনো মদ ।

প্রথম পর্যায়ে সরকারের পদত্যাগ ও নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরসহ তিন দফা দাবি নিয়ে আপাতত ৩০টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ হওয়ার কথা থাকলেও তা শেষ করতে পারেনি বিএনপি। পুরোনো মিত্রদের সঙ্গে সংলাপ শুরু করলেও মাঝপথে এসে থেমে গেছে সংলাপ। গত ২৩ মে স্থায়ী কমিটির সভায় ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের রূপরেখা প্রণয়নে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে বসার সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি। সেই অনুযায়ী ২৪ মে প্রথম দিন নাগরিক ঐক্যের তোপখানা রোডের কার্যালয়ে গিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সংলাপ শুরু করে বিএনপি। এরপর কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমেদের নেতৃত্বাধীন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি, মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ লেবার পার্টি (একাংশ), জুনায়েদ সাকির নেতৃত্বাধীন গণসংহতি আন্দোলন, কমরেড সাইফুল হকের নেতৃত্বাধীন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, মোস্তফা জামাল হায়দারের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর), মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীকের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি, অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলামের নেতৃত্বাধীন ন্যাপ-ভাসানী (একাংশ), ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদের নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টি-এনপিপি (একাংশ) ও খন্দকার লুৎফর রহমানের নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা (একাংশ), বাংলাদেশ মুসলিম লীগ-বিএমএল’র সঙ্গে সংলাপ শেষ করে বিএনপি।

ছবি

উন্নয়নের নৌকা এখন শ্রীলঙ্কার পথে: জিএম কাদের

ছবি

বিদেশি চাপে সমাবেশে ঝামেলা করছে না সরকার: মির্জা ফখরুল

ছবি

শ্রীলঙ্কা হওয়ার গুজব ভিত্তিহীন, দেশের মানুষ বেহেস্তে আছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

সরকার ও শাসনব্যবস্থা বদলাতে জনগণের বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তোলার ডাক

‘জিনিসপত্রের দাম বাড়ায় এখনো কেউ মারা যায়নি’

ছবি

আন্দোলনে থাকবে বিএনপি, তবে বড় কর্মসূচি এখনই নয়

ছবি

নতুন রাজনৈতিক জোট ‘গণতন্ত্র মঞ্চে’র আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ

ছবি

আমরা রাজপথের পুরাতন খেলোয়াড় : ওবায়দুল কাদের

ছবি

জ্বালানী তেলের মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণা পুনঃবিবেচনার দাবি গণতন্ত্রী পার্টির

ছবি

আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমলে দেশেও জ্বালানিমূল্য সমন্বয় করা হবে : সেতুমন্ত্রী

ছবি

আইএমএফের ঋণ পেতে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি: মির্জা ফখরুল

ছবি

দেশের মানুষের প্রতি সরকারের কোন দরদ নেই: জিএম কাদের

নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেত্রী নীলাকে দল থেকে অব্যাহতি

ছাত্রলীগ : চিঠির ফাঁকা স্থানে নাম বসিয়ে দিলেই কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা!

ছবি

বৃহস্পতিবার ভোলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল বিএনপির

ছবি

ভোলায় সংঘর্ষে আহত ছাত্রদল নেতা নুরে আলম মারা গেছেন

ছবি

হারিকেন ধরার সময় এসেছে সরকারের: মির্জা ফখরুল

ছবি

বিএনপি’র শাসনামলে দৈনিক ১৩-১৪ ঘণ্টা লোডশেডিং ছিল: ওবায়দুল কাদের

কৌশলপত্র তৈরির পর বিশেষ সংলাপে বসবে ইসি

ছবি

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রতিহিংসার রাজনীতির কারণে দেশে ভীতিকর পরিস্থিতি: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান

ছবি

হাজি সেলিমের লিভ টু আপিলের শুনানি ২৩ অক্টোবর

ছবি

৩০০ আসনেই ইভিএমে ভোট চায় আওয়ামী লীগ

রাতে ভোটের কাজ হয়, আমরাও করিয়েছি : ইসিকে জাপা

ছবি

২০১৪-২০১৮ সালের ভোট নিয়ে অতিমাত্রায় বিতর্ক হচ্ছে: সিইসি

ছবি

ইসির সঙ্গে সংলাপ: ৩০০ আসনেই ইভিএম চায় আ.লীগ

ছবি

আ.লীগের ব্যয়ের থেকে আয় তিনগুণ বেশি

ধাক্কা দিয়ে সরকারকে সরাতে পারবে না বিএনপি: কৃষিমন্ত্রী

ছবি

রেলপথের দুর্ঘটনাগুলো প্রমাণ করে কতটা পিছিয়ে আমরা : জিএম কাদের

ছবি

বিদ্যুৎ নিয়ে বিএনপির বিক্ষোভ হাস্যকর : আবদুস সবুর

ছবি

সরকার পতনের ঘণ্টা বাজতে শুরু করেছে: ফখরুল

ছবি

জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে বিএনপির বিক্ষোভ, রাস্তায় যানজট

ছবি

শেষ পর্যন্ত ‘অস্তিত্ব’ রক্ষায় নির্বাচনে যাবে বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

ছবি

রিমোট কন্ট্রোলের ডাকা আন্দোলনে জনগণ সাড়া দেবে না: কাদের

ছবি

আয়ের চেয়ে কোটি টাকা ব্যয় বেশি বিএনপির

ছবি

স্কুল মাঠে আ.লীগের সম্মেলন, বিব্রত ও লজ্জিত শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

আজ ন্যাপের ৬৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

tab

রাজনীতি

বিএনপির সংলাপ নিয়ে শরিকদের ক্ষোভ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

রোববার, ৩১ জুলাই ২০২২

সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে জাতীয় ঐক্য গড়ার লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিক সংলাপ শুরু করেছিল বিএনপি। এরই অংশ হিসেবে নাগরিক ঐক্যের সঙ্গে বৈঠকের মাধ্যমে সংলাপ শুরু করলেও এখনও শেষ করতে পারেনি। অনেকদিন সংলাপের কার্যক্রম স্থবির থাকায় গত ২১ জুলাই ডেমোক্রেটিক লীগ (ডিএল) ও সাম্যবাদী দলের সঙ্গে সংলাপ করে বিএনপি। ক্রমান্বয়ে সংলাপ অনুষ্ঠান না করায় বিএনপির এ উদ্যোগে শরিকদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

বিএনপির শরিক দলের এক শীর্ষ নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংবাদ মাধমে বলেন, বিএনপির সংলাপে কোন ক্রমধারা নেই। ওয়ানম্যান-ওয়ান পার্টি এমন দলগুলোর সঙ্গে বৈঠক করছে আবার যাদের জেলা পর্যায়ে সাংগঠনিক অফিস রয়েছে তাদের সঙ্গেও করেছে। এখানে ক্রমান্বয়ের দরকার ছিল। বিএনপি সেটা না করার ফলে শরিকদের কয়েকটি দলের শীর্ষ নেতারা অস্বস্তিবোধ করেন। বিএনপির এটা বোঝা উচিত ছিল।

প্রায় ১৩ বছরের বেশি সময় বারবার আন্দোলন-সংগ্রামের ঘোষণা দিয়েও বিশেষ সুবিধা করতে পারেনি দলটি। নির্বাচন থেকে দূরে সরতে সরতে জাতীয় সংসদে প্রধান বিরোধী দলের জায়গাটাও খুইয়েছে দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি। সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নানা ছক কষলেও কোন ছকই বাস্তবায়ন করতে পারছে না তারা।

দ্বিতীয় দফা বিএনপির সংলাপ যেদিন শুরু হয় ওইদিন তাদের দুই শরিক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি এলডিপি একাংশের মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম বলেন, বিএনপি রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছিল সেটা স্থগিত ছিল। নতুন করে শুরু করছে কি না আমার জানা নেই। সংলাপের আমন্ত্রণ পেয়েছেন কি না সাংবাদিকের করা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা এখনও জানি না। আমাদের সঙ্গে এখন পর্যন্ত কেউ যোগাযোগ করেনি, আমাদের পক্ষ থেকেও কারও সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি। শুনেছি ঈদের পর তারা সংলাপের উদ্যোগ নেবে, এখন পর্যন্ত কিছু জানি না।

দ্বিতীয় দফা সংলাপের বিষয়ে বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা কিছু জানেন না। তিনিও সংলাপের আমন্ত্রণপত্র পাননি এখনও। সংলাপ নিয়ে বিএনপিতে যে আশাবাদ তৈরি হয়েছিল তা এখন অনেকটাই ম্রিয়মাণ। অনেকেই মনে করছে পুরোনো মিত্রদের সঙ্গে সংলাপের ফলাফল কী হবে? নতুন মাত্র দুটি দলের সঙ্গে সংলাপ হয়েছে। বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ও গণসংহতি আন্দোলন। সংলাপের অবস্থা দেখে মনে হয়েছে নতুন বোতলে পুরোনো মদ ।

প্রথম পর্যায়ে সরকারের পদত্যাগ ও নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরসহ তিন দফা দাবি নিয়ে আপাতত ৩০টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ হওয়ার কথা থাকলেও তা শেষ করতে পারেনি বিএনপি। পুরোনো মিত্রদের সঙ্গে সংলাপ শুরু করলেও মাঝপথে এসে থেমে গেছে সংলাপ। গত ২৩ মে স্থায়ী কমিটির সভায় ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের রূপরেখা প্রণয়নে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে বসার সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি। সেই অনুযায়ী ২৪ মে প্রথম দিন নাগরিক ঐক্যের তোপখানা রোডের কার্যালয়ে গিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সংলাপ শুরু করে বিএনপি। এরপর কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমেদের নেতৃত্বাধীন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি, মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ লেবার পার্টি (একাংশ), জুনায়েদ সাকির নেতৃত্বাধীন গণসংহতি আন্দোলন, কমরেড সাইফুল হকের নেতৃত্বাধীন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, মোস্তফা জামাল হায়দারের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর), মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীকের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি, অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলামের নেতৃত্বাধীন ন্যাপ-ভাসানী (একাংশ), ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদের নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টি-এনপিপি (একাংশ) ও খন্দকার লুৎফর রহমানের নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা (একাংশ), বাংলাদেশ মুসলিম লীগ-বিএমএল’র সঙ্গে সংলাপ শেষ করে বিএনপি।

back to top