alt

রাজনীতি

চূড়ান্ত আঘাতের জন্য জনগণ প্রস্তুত : রিজভী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, জনগণ প্রস্তুত হয়ে আছে চূড়ান্ত আঘাতের জন্য। প্রধানমন্ত্রী আপনি বন্দুক দিয়ে জনগণের শক্তিকে দমাতে পারবেন না। সেই রাইফেল জনগণের শক্তি কোন দিকে ঘুরিয়ে দেবে সেটা চিন্তা করে কথা বলবেন। এখনো সময় আছে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ লেবার পার্টি আয়োজিত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণের দাবিতে সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সারা দেশের মানুষ উত্তাল হয়ে উঠেছে, আর কোনো ব্যারিকেড দিয়ে রাখতে পারবেন না। পথে ঘাটে মাঠে এমন বেরিকেট তৈরি হবে। আজ যারা ফালতু কথা বলছে। হত্যা করার পরেও যারা নানা ভাবে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। জনগণের আক্রোশ থেকে কেউ রেহাই পাবেন না।

রিজভী বলেন, বর্তমান দেশের যে পরিস্থিতি, এ অবস্থা আর চলতে দেওয়া যাবে না। গুলি করবেন? সেই গুলিতে শরীর থেকে রক্ত ঝরবে। সেই রক্ত যে মাটিতে পড়বে সেই মাটি আরও তেজস্বী হয়। সেই মাটি অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিরোধে আরও অঙ্গীকারবদ্ধ হয়। দুই শাওন, নারায়ণগঞ্জের এবং মুন্সিগঞ্জের, আব্দুর রহিম, নূরে আলমের যে রক্ত ঝরেছে নিশ্চয়ই এটা বৃথা যাওয়ার জন্য নয়।

নির্বাচন কমিশনারদের উদ্দেশ্য করে রিজভী বলেন, এরা নির্বাচন কী করবে। শেখ হাসিনা যদি দিনকে রাত বলে এরা তাই বলবে। তাই এই সমস্ত চাকর-বাকরদের দিয়ে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব হবে না। তত্ত্বাবধায়ক সরকার এসে সবার গ্রহণযোগ্য একটা নির্বাচন কমিশন গঠন করবে, সেই কমিশনের অধীনেই সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচনের গ্যারান্টি গণতন্ত্রের মায়ের মুক্তি।

তিনি বলেন, যিনি তার জীবনের সব সুখ শান্তি বিসর্জন দিয়ে গণতন্ত্রের পক্ষে জনগণের হয়ে আজীবন সংগ্রাম করেছে এবং এই সরকারের নির্যাতন সহ্য করছেন। এখনো বন্দি হয়ে আছেন। তারপর তিনি মাথা নত করেননি। এই উন্নত মাথার আদর্শ অনুসারী আমরা। সেই মাথা আরও উন্নত হবে শেখ হাসিনার মাথা থুপড়ে পড়বে জনগণের আদালতে।

বিএনপির সিনিয়র এই নেতা বলেন, শেখ হাসিনা বলেছিলেন আমাদের একজনকে মারলে ওদের ১০ জনকে মারো, আবার তিনি জাতিসংঘে গিয়ে বক্তব্য দিচ্ছেন যুদ্ধ বন্ধ এবং শান্তির কথা বলছে। তিনি জাতিসংঘে শান্তির কথা বলছেন, আর দেশে তার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিরোধী দলের চার সিপাহ শালার হত্যা করছে। তিনি জাতিসংঘের শান্তির কথা বলছে, একই সময়ে এদেশে রক্ত ঝরছে।

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মীর সরাফত আলী সফু, অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় সহ সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মীরা।

ছবি

বিএনপির সমাবেশ গোলাপবাগ মাঠে

ছবি

বন্ধুত্বটা নষ্ট করবেন না : কাদের

ছবি

মির্জা ফখরুল-আব্বাস গ্রেপ্তার: ডিবি প্রধান

ছবি

যেকোনো মূল্যে ১০ই ডিসেম্বরের সমাবেশ হবে: টুকু

ছবি

বেলা ৩টায় গুলশানের বিএনপির জরুরি সংবাদ সম্মেলন

ছবি

মির্জা ফখরুল-আব্বাসকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়েছে : ডিবি

ছবি

ফখরুল ও আব্বাস ‘আটক’, বলছে পরিবার, ডিএমপি কমিশনার ‘অবগত নন’

ছবি

জরুরি বৈঠকে বসেছে বিএনপির স্থায়ী কমিটি

ছবি

আতঙ্কিত, ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ

ছবি

গণসমাবেশ নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনেই হবে : ফখরুল

ছবি

বিএনপিকে আর রাস্তায় সমাবেশ করতে দেয়া হবে না, আ’লীগও করবে না : কাদের

ছবি

এবার যে হাত দিয়ে মারতে আসবে, সেই হাত ভেঙে দিতে হবে : শেখ হাসিনা

ছবি

কমলাপুর স্টেডিয়ামে সমাবেশ করতে চায় বিএনপি, পুলিশ বলেছে বাঙলা কলেজ

ছবি

বিএনপি আন্দোলনের নামে নাশকতা শুরু করেছে : ওবায়দুল কাদের 

ছবি

বিএনপি মানুষের পাশে থাকে না,তারা মানুষ পোড়ায় : এনামুল হক শামীম

ছবি

তদন্তের স্বার্থে বিএনপির অফিস ও সামনের রাস্তা বন্ধ রেখেছে পুলিশ: তথ্যমন্ত্রী

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রদলকে প্রতিহত করতে ছাত্রলীগের মহড়া, বিএনপিপন্থী সাদা দলের মৌন অবস্থান

ছবি

আওয়ামী লীগ জনগণের ভোট চুরি করে না, সংরক্ষণ করে: শেখ হাসিনা

ছবি

‘মাথা ঠান্ডা রাখতে হবে যেনো বদনাম না হয়’, নেতাকর্মীদের কাদের

ছবি

পল্টন সংঘর্ষঃ মেয়েকে নিয়ে নিহত মকবুলের স্ত্রীর উৎকণ্ঠা

ছবি

গলির মুখ বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ, বিএনপির কার্যালয়ে ঝুলছে তালা

ছবি

শেরপুর জেলা আ.লীগের সম্মেলন আজ

ছবি

আজ সারাদেশে বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচি

ছবি

২০২৪ সালের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নির্বাচন, নৌকায় ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

এটা কোনো সভ্য দেশে পুলিশ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী করতে পারে, এটা আমাদের ধারণার বাইরে

ছবি

দেশে একটা নিরব দুর্ভিক্ষ চলছে

রিজভী, শহীদ, জুয়েল এ্যানীসহ অনেক নেতা-কর্মী আটক, বিএনপি কার্যালয় ঘিরে পুলিশ

নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি কর্মীদের সংঘর্ষে ১জন নিহত

ছবি

নয়াপল্টনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

ছবি

পুলিশ যেনো দলীয় ভূমিকা পালন না করে: মির্জা আব্বাস

ছবি

কক্সবাজার-টেকনাফে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগ দিতে নেতাকর্মীদের ঢল

২৪ ডিসেম্বরের মধ্যে হবে ছাত্রলীগের কমিটি

ছবি

১০ ডিসেম্বর ঢাকায় সমাবেশ হবেই, দ্বিধা রাখবেন না: ফখরুল

ছবি

ছাত্রলীগের কমিটি সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি

বিএনপি ১৩ বছরে ১৩ মিনিটও রাজপথে দাঁড়াতে পারেনি

ছবি

নতুন করে যেখানে সমাবেশের অনুমতি চায় বিএনপি

tab

রাজনীতি

চূড়ান্ত আঘাতের জন্য জনগণ প্রস্তুত : রিজভী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, জনগণ প্রস্তুত হয়ে আছে চূড়ান্ত আঘাতের জন্য। প্রধানমন্ত্রী আপনি বন্দুক দিয়ে জনগণের শক্তিকে দমাতে পারবেন না। সেই রাইফেল জনগণের শক্তি কোন দিকে ঘুরিয়ে দেবে সেটা চিন্তা করে কথা বলবেন। এখনো সময় আছে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ লেবার পার্টি আয়োজিত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণের দাবিতে সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সারা দেশের মানুষ উত্তাল হয়ে উঠেছে, আর কোনো ব্যারিকেড দিয়ে রাখতে পারবেন না। পথে ঘাটে মাঠে এমন বেরিকেট তৈরি হবে। আজ যারা ফালতু কথা বলছে। হত্যা করার পরেও যারা নানা ভাবে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। জনগণের আক্রোশ থেকে কেউ রেহাই পাবেন না।

রিজভী বলেন, বর্তমান দেশের যে পরিস্থিতি, এ অবস্থা আর চলতে দেওয়া যাবে না। গুলি করবেন? সেই গুলিতে শরীর থেকে রক্ত ঝরবে। সেই রক্ত যে মাটিতে পড়বে সেই মাটি আরও তেজস্বী হয়। সেই মাটি অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিরোধে আরও অঙ্গীকারবদ্ধ হয়। দুই শাওন, নারায়ণগঞ্জের এবং মুন্সিগঞ্জের, আব্দুর রহিম, নূরে আলমের যে রক্ত ঝরেছে নিশ্চয়ই এটা বৃথা যাওয়ার জন্য নয়।

নির্বাচন কমিশনারদের উদ্দেশ্য করে রিজভী বলেন, এরা নির্বাচন কী করবে। শেখ হাসিনা যদি দিনকে রাত বলে এরা তাই বলবে। তাই এই সমস্ত চাকর-বাকরদের দিয়ে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব হবে না। তত্ত্বাবধায়ক সরকার এসে সবার গ্রহণযোগ্য একটা নির্বাচন কমিশন গঠন করবে, সেই কমিশনের অধীনেই সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচনের গ্যারান্টি গণতন্ত্রের মায়ের মুক্তি।

তিনি বলেন, যিনি তার জীবনের সব সুখ শান্তি বিসর্জন দিয়ে গণতন্ত্রের পক্ষে জনগণের হয়ে আজীবন সংগ্রাম করেছে এবং এই সরকারের নির্যাতন সহ্য করছেন। এখনো বন্দি হয়ে আছেন। তারপর তিনি মাথা নত করেননি। এই উন্নত মাথার আদর্শ অনুসারী আমরা। সেই মাথা আরও উন্নত হবে শেখ হাসিনার মাথা থুপড়ে পড়বে জনগণের আদালতে।

বিএনপির সিনিয়র এই নেতা বলেন, শেখ হাসিনা বলেছিলেন আমাদের একজনকে মারলে ওদের ১০ জনকে মারো, আবার তিনি জাতিসংঘে গিয়ে বক্তব্য দিচ্ছেন যুদ্ধ বন্ধ এবং শান্তির কথা বলছে। তিনি জাতিসংঘে শান্তির কথা বলছেন, আর দেশে তার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিরোধী দলের চার সিপাহ শালার হত্যা করছে। তিনি জাতিসংঘের শান্তির কথা বলছে, একই সময়ে এদেশে রক্ত ঝরছে।

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মীর সরাফত আলী সফু, অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় সহ সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মীরা।

back to top