alt

রাজনীতি

যারা দেশই চায়নি, তারাই এখন ক্ষমতায় যেতে মরিয়া : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : রোববার, ২৬ মার্চ ২০২৩

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়ে যারা দেশের স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছে এবং ষড়যন্ত্র করেছে, তারাই এখন এদেশের ক্ষমতায় যেতে মরিয়া হয়ে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যানমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, তারা শুধু দেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাই করেনি, এদেশের মেধাবী চিকিৎসক, পেশাজীবিসহ বুদ্ধিজীবীদের নির্বিচারে হত্যা করেছে।

রোববার (২৬ মার্চ) সকালে রাজধানীর মহাখালীতে জাতীয় জনসংখ্যা ও পুষ্টি ইন্সটিটিউটের অডিটোরিয়াম হলে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি, এই দলটি এর আগে একবার ক্ষমতায় গিয়েছিল। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় তারা এদেশের পতাকাকে পদদলিত করেছিল, অথচ তারাই তাদের গাড়িতে আমাদের জাতীয় পতাকা ব্যবহার করার সুযোগ পেয়েছিল। আমরাই এক সময় তাদেরকে আমাদের জাতীয় পতাকা ব্যবহার করতে দিয়েছিলাম। তবে, সেই সুযোগ তারা আর কখনোই পাবে না। সেই দিন এখন আর নাই।

জাহিদ মালেক বলেন, এখন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ বিশ্বের রোল মডেল হয়ে গেছে। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দেয়া হয়েছে। দেশে খাদ্যের অভাব নেই, একটি মানুষও দেশে না খেয়ে থাকে না। করোনায় গোটা বিশ্ব লন্ডভন্ড হয়ে গেলেও বাংলাদেশ ঠিকই মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। এসব সম্ভব হচ্ছে কারণ জাতির জনকের মেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগামীতে যেন এই দেশকে নিয়ে আর কেউ ছিনিমিনি খেলতে না পারে সেজন্য আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনাকেই ক্ষমতায় নিয়ে আসতে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তান আমাদেরকে ধ্বংস করে নিশ্চিহ্ন করে দিতে চেয়েছিল। যুদ্ধকালীন দেশের চিকিৎসকদের মেরে ফেলা যায় না, নিয়ম নেই। অথচ সেসময়কার বিখ্যাত হৃদ্‌রোগ বিশেষজ্ঞের হৃৎপিণ্ড উপড়ে নেয়া হয়েছিল। চক্ষু বিশেষজ্ঞের চোখ তুলে নেয়া হয়েছিল। সে লাশগুলো পরে পাওয়া গেছে। যেগুলো লাশ পাওয়া যায়নি সেগুলো আরো কত কি করেছে। তারা দেশের ৩০ লক্ষ মানুষকে হত্যা করেছে, ২ লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রমহানি করেছে যা পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে বিরল। অথচ আজ তারাই এদেশের ক্ষমতায় যেতে চায়।

সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত বাহিনীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ৭৫ এর ১৫ই আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যা করতে জিয়াউর রহমান নেপথ্য ভূমিকা রেখেছে। শুধু তাদের সাথে হাতই মিলায়নি, সেই পরাজিত বাহিনীর সাথে একসাথে রাজনৈতিক দল গঠন করে এদেশের ক্ষমতায় বসেছে, এদেশের কপালে কলঙ্কের দাগ লাগিয়ে দিয়েছে।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব ড. মুহ. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিএম খুরশীদ আলম, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শাহান আরা বানু। সভায় সভাপতিত্ব করেন স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক অধ্যাপক টিটু মিয়া।

ছবি

রংপুর জেলা ছাত্র লীগের নেতা নির্বাচনে লিখিত পরীক্ষা

ছবি

সিরাজুল আলম খানের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত

ছবি

ঢাকা ১৭: নায়ক ফারুকের আসনে নৌকার মাঝি আরাফাত

ছবি

তিন সপ্তাহে আট শতাধিক নেতাকর্মী গ্রেপ্তারের অভিযোগ বিএনপির

ছবি

বিএনপির সঙ্গে সংলাপের কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই: তথ্যমন্ত্রী

ছবি

শাহজালাল (রহ.) ওরসে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে গিলাফ দিলেন আনোয়ারুজ্জামান

ছবি

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেয়া বিএনপি নেতা চাঁদ কারাগারে

ছবি

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সভা সন্ধ্যায়

ছবি

দুই মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানি পেছাল

ছবি

সংলাপের বিষয়ে আপাতত ভাবছি না : ওবায়দুল কাদের

ছবি

ফরিদপুরে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি পুলিশি বাধায় পণ্ড, পাল্টা কর্মসূচি আওয়ামী লীগের

ছবি

এবার স্মার্ট লুটপাটের বাজেট দিয়েছে সরকার,দাবি ফখরুলের

ছবি

কিছু মানুষ বিদেশিদের চাটুকারিতা করছে: দীপু মনি

শ্রমিকলীগ নেতার বাড়িতে বিএনপি নেতার হামলা

ছবি

বিএনপির সঙ্গে আলোচনার সিদ্ধান্ত হয়নি : কাদের

কুমিল্লায় আ’লীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষ, ভাঙচুর, আগুন : গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩০

ছবি

পিটার হাসের সঙ্গে মির্জা ফখরুলের এক ঘন্টার বৈঠক

ছবি

গণ্ডগোল করতেই বিদ্যুৎ অফিসের সামনে বিএনপির কর্মসূচি: তথ্যমন্ত্রী

ছবি

কাঙ্ক্ষিত স্যাংশন না পেয়ে মির্জা ফখরুল প্রলাপ বকছেন : কাদের

ছবি

রাজশাহী সিটি নির্বাচনে বিএনপিপন্থি-২২ প্রার্থীর বিরুদ্ধে; কেন্দ্রে সুপারিশ যাচ্ছে

ছবি

সিলেটে বিএনপির ৪৩ নেতাকে আজীবন বহিষ্কার

সিলেটে নৌকার পক্ষে ভােট চাওয়ায় জাপার ভাইস চেয়ারম্যানকে অব্যাহতি

কোনো ধরনের ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবে না- নজরুল ইসলাম বাবুল

দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে নির্বাচনে অংশ নিলে তাদের আর দলে আসতে দেয়া হবে না- হানিফ

নারায়ণগঞ্জে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের দোয়া অনুষ্ঠানে আ.লীগের বাধা

সিলেটে নৌকার পক্ষে মাঠে নেমেছেন প্রবাসীরা

নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চায় ঢাবির বিএনপিপন্থী শিক্ষকরা

ছবি

জামায়াতের আজকের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ স্থগিত

ছবি

শুধু উন্নয়ন করলেই হবে না, পরিকল্পিত এবং টেকশই উন্নয়ন প্রয়োজন : আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী

ছবি

ব্যবসাবান্ধব নগরী গড়তে চাই -নজরুল ইসলাম বাবুল

রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটিতে বিদ্রোহ

ছবি

দেখতে দেখতে ১৪ বছর, বিএনপির আন্দোলন কোন বছর : কাদের

নোয়াখালীতে ডিজিটার নিরাপত্তা আইনে বিএনপি নেতা গ্রেফতার

ছবি

নির্যাতনকারীদের তথ্য সংগ্রহে বিএনপির কমিটি গঠন

ছবি

মাজার জিয়ারত করে আনুষ্ঠানিক প্রচারণায় আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী

ছবি

আমেরিকার ভিসা ইস্যু বাংলাদেশের জন্য লজ্জাকর এবং অপমানের - কাদের সিদ্দিকী

tab

রাজনীতি

যারা দেশই চায়নি, তারাই এখন ক্ষমতায় যেতে মরিয়া : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

রোববার, ২৬ মার্চ ২০২৩

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়ে যারা দেশের স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছে এবং ষড়যন্ত্র করেছে, তারাই এখন এদেশের ক্ষমতায় যেতে মরিয়া হয়ে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যানমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, তারা শুধু দেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাই করেনি, এদেশের মেধাবী চিকিৎসক, পেশাজীবিসহ বুদ্ধিজীবীদের নির্বিচারে হত্যা করেছে।

রোববার (২৬ মার্চ) সকালে রাজধানীর মহাখালীতে জাতীয় জনসংখ্যা ও পুষ্টি ইন্সটিটিউটের অডিটোরিয়াম হলে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি, এই দলটি এর আগে একবার ক্ষমতায় গিয়েছিল। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় তারা এদেশের পতাকাকে পদদলিত করেছিল, অথচ তারাই তাদের গাড়িতে আমাদের জাতীয় পতাকা ব্যবহার করার সুযোগ পেয়েছিল। আমরাই এক সময় তাদেরকে আমাদের জাতীয় পতাকা ব্যবহার করতে দিয়েছিলাম। তবে, সেই সুযোগ তারা আর কখনোই পাবে না। সেই দিন এখন আর নাই।

জাহিদ মালেক বলেন, এখন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ বিশ্বের রোল মডেল হয়ে গেছে। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দেয়া হয়েছে। দেশে খাদ্যের অভাব নেই, একটি মানুষও দেশে না খেয়ে থাকে না। করোনায় গোটা বিশ্ব লন্ডভন্ড হয়ে গেলেও বাংলাদেশ ঠিকই মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। এসব সম্ভব হচ্ছে কারণ জাতির জনকের মেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগামীতে যেন এই দেশকে নিয়ে আর কেউ ছিনিমিনি খেলতে না পারে সেজন্য আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনাকেই ক্ষমতায় নিয়ে আসতে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তান আমাদেরকে ধ্বংস করে নিশ্চিহ্ন করে দিতে চেয়েছিল। যুদ্ধকালীন দেশের চিকিৎসকদের মেরে ফেলা যায় না, নিয়ম নেই। অথচ সেসময়কার বিখ্যাত হৃদ্‌রোগ বিশেষজ্ঞের হৃৎপিণ্ড উপড়ে নেয়া হয়েছিল। চক্ষু বিশেষজ্ঞের চোখ তুলে নেয়া হয়েছিল। সে লাশগুলো পরে পাওয়া গেছে। যেগুলো লাশ পাওয়া যায়নি সেগুলো আরো কত কি করেছে। তারা দেশের ৩০ লক্ষ মানুষকে হত্যা করেছে, ২ লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রমহানি করেছে যা পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে বিরল। অথচ আজ তারাই এদেশের ক্ষমতায় যেতে চায়।

সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত বাহিনীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ৭৫ এর ১৫ই আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যা করতে জিয়াউর রহমান নেপথ্য ভূমিকা রেখেছে। শুধু তাদের সাথে হাতই মিলায়নি, সেই পরাজিত বাহিনীর সাথে একসাথে রাজনৈতিক দল গঠন করে এদেশের ক্ষমতায় বসেছে, এদেশের কপালে কলঙ্কের দাগ লাগিয়ে দিয়েছে।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব ড. মুহ. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিএম খুরশীদ আলম, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শাহান আরা বানু। সভায় সভাপতিত্ব করেন স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক অধ্যাপক টিটু মিয়া।

back to top