alt

খেলা

এমবাপ্পের জোড়া গোলে শেষ আটে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা

ফ্রান্স ৩ : ১ পোল্যান্ড

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক : সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স দাপটের সঙ্গে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। গতকাল রোববার দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে ফ্রান্স শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ভালো খেলে পোল্যান্ডকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে। ফ্রান্স ম্যাচে অনেক সুযোগ সৃষ্টি করলেও প্রতিপক্ষের গোলরক্ষকের দৃঢ়তার তিনটির বেশি গোল করতে পারেনি। ফ্রান্সের হয়ে অলিভার জিরু একটি এবং সুপার স্টার এমবাপ্পে দুইটি গোল করেন। এ নিয়ে চলতি বিশ্বকাপে এমবাপ্পের গোল সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫টি। অপর দিকে জিরু হয়েছেন ফ্রান্সের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করা খেলোয়াড়।

কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্স খেলবে ইংল্যান্ডের সঙ্গে।

শুরুর কয়েক মিনিট মনে হয়েছিল পোল্যান্ড আসলেই বিপজ্জনক দল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে এ ম্যাচে। কিন্তু তা বেশিক্ষণ টিকেনি। দশ মিনিটের মধ্যেই ফরাসিরা বুঝিয়ে দিয়েছে দল হিসেবে তারা অনেক বেশি শক্তিশালী। ফ্রান্স ১১ থেকে ১৫ মিনিটের মধ্যে তিনবার গোলের সুযোগ সৃষ্টি করে। যদিও প্রত্যেকবারই পোলিশ গোলরক্ষক সেজনি রুখে দেন প্রচেষ্টাগুলো। এ সময় পোল্যান্ডের পোস্টে শট মেরেছিলেন ডেম্বেলে এবং চুয়ামেনি। জিরু খেলেন স্ট্রাইকার হিসেবে। এমবাপ্পে খেলেন উইঙ্গার হিসেবে। ২৮ মিনিটে জিরু করেন অবিশ্বাস্য মিস। ডান দিক থেকে ডেম্বেলের ক্রসে গোলমুখে ঠিকমতো পা লাগাতে ব্যর্থ হন জিরু। এর ফলে গোল খাওয়া থেকে রক্ষা পায় পোল্যান্ড। এ ঘটনার পর আবার পোল্যান্ড আক্রমণে চেপে ধরে ফ্রান্সকে। ৩৭ মিনিটে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে তিনবার গোলে শট নেয় পোল্যান্ড এবং প্রতিবারই গোললাইন থেকে সেগুলো প্রতিহত হয়। প্রথমে জিলেনস্কির শট ঠেকিয়ে দেন লরিস, এর পর ফিরতি বলে শট মারেন কামিনস্কি এবং সেটি ঠেকিয়ে দেন হার্নান্ডেজ।

ফ্রান্স তাদের চেষ্টার ফল হিসেবে ৪৪ মিনিটে অলিভার জিরুর গোলে এগিয়ে যায়। কিলিয়ান এমবাপ্পের থ্রু পাস থেকে থেকে গোলটি করেন জিরু। এর ফলে তিনি ফ্রান্সের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ডটি নিজের করে নিলেন। চলতি বিশ্বকাপে এটা ছিল তার তৃতীয় গোল।

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হয় ফ্রান্সের প্রাধান্য স্থাপনের মাধ্যমে। প্রথম চার মিনিটের মধ্যেই তারা দুইবার পোস্টে শট মারে এবং দুইবারই তা বাঁচিয়ে দেন পোলিশ গোলরক্ষক সেজনি। এর মধ্যে ৪৮ মিনিটে গ্রিজম্যানের ফ্রি-কিকটি তিনি ফিরিয়ে দেন দারুন দক্ষতায়। ফ্রান্স জানে এক গোলের ওপর নির্ভর করলে বিপদ হতে পারে। তাই তারা ব্যবধান বাড়ানোর চেষ্টা অব্যাহত রাখে। অন্যদিকে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা অব্যাহত রাখে পোল্যান্ড। মাঝ মাঠে সৃষ্টিশীলতার কারণে ফ্রান্স গোলের সুযোগ সৃষ্টিতে বেশ এগিয়ে থাকে। কিন্তু ফিনিশিংয়ের অভাব তাদের জন্য সমস্যা হিসেবেই দেখা যায়।

৬৫ মিনিটে চুয়ামেনিকে তুলে নামানো হয় ফোফানাকে। খেলোয়াড় পরিবর্তন করে পোল্যান্ডও। খেলার ৭৪ মিনিটে কিলিয়ান এমবাপ্পে দ্বিতীয় গোল করে ফ্রান্সের জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন। নিজেদের পেনাল্টি-বক্স থেকে শুরু করা কাউন্টার অ্যাটাকের সফল পরিনতি দেন তিনি। পোল্যান্ডের আক্রমণ প্রতিহত করার জন্য ডিফেন্ডার বল ক্লিয়ার করেন লম্বা শটে। সেটি মাঝ মাঠে ধরে জিরু বেশ খানিকটা এগিয়ে গিয়ে ডান দিকে ডেম্বেলেকে দিলে তিনি পেনাল্টি বক্সের কোনায় থাকা এমবাপ্পেকে দেন। এমবাপ্পে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দেখে শুনে কোনাকুনি শটে পরাস্ত করেন পোল্যান্ডের গোলরক্ষককে। এমবাপ্পে প্রথম খেলোয়াড় যিনি নিজের ২৪তম জন্মদিনের আগে বিশ্বকাপে অষ্টম গোল করলেন। এ গোলের আগে এমবাপ্পে তেমন সুবিধা করতে পারছিলেন না। তার কাছ থেকে প্রতিপক্ষ বেশ কয়েকবার বল কেড়ে নিয়েছিল। খেলার নির্ধারিত সময়ের একেবারে শেষদিকে এমবাপ্পে করেন তৃতীয় গোল। এটা ছিল তার প্রথম গোলের কার্বন কপি। পার্থক্য কেবল এবার তাকে বলটি দিয়েছেন বাম দিক থেকেই থুরাম।

ইনজুরি টাইমের শেষ সময়ে একটি পেনাল্টি পায় পোল্যান্ড। বক্সের মধ্যে উপামেকানোর হাতে বল লাগলে রেফারি ভিএআর দেখে পেনাল্টির নির্দেশ দেন। লেভানদভস্কির প্রথম প্রচেষ্টা রুখে দেন লরিস। বল শট মারর আগে তিনি লাইন ছেড়ে সামনে যাওয়ায় রেফারি পুনরায় পেনাল্টি মারার নির্দেশ দেন। দ্বিতীয়বার অবশ্য লেভানদভস্কি বল জালে পাঠিয়ে সান্তনার গোলটি করতে সক্ষম হন। এ গোলের সঙ্গে সঙ্গেই ম্যাচ শেষ হয় এবং ফ্রান্স উঠে যায় কোয়ার্টার ফাইনালে।

ছবি

অ্যাটলেটিকোকে হারিয়ে রিয়াল সেমিফাইনালে

ছবি

আইসিসির বর্ষসেরা ক্রিকেটার হলেন বাবর আজম

ছবি

এবারও আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটার বাবর

ছবি

জিতেও সেমিফাইনালে খেলা হলো না বাংলাদেশের

ছবি

ডেম্বেলের গোলে বার্সেলোনা সেমিফাইনালে

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

নরসিংদীতে শেখ কামাল আন্তঃস্কুল এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে মিরাজ

ছবি

‘ব্রাজিলের নতুন কোচের তালিকায় এনরিকে কেন?’

ছবি

ছুটছেন জোকোভিচ

ছবি

চাকরি হারালেন এভারটন কোচ ল্যাম্পার্ড

ছবি

টটেনহ্যামের হয়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড স্পর্শ করলেন কেইন

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

জুনে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

বিলবাওকে হারিয়ে লড়াইয়ে টিকে রইলো রিয়াল

ছবি

ম্যানইউকে ৩-২ গোলে হারিয়ে দিয়েছে আর্সেনাল

ছবি

চোট শঙ্কা এড়িয়ে জোকোভিচের দাপুটে জয়

ছবি

আলভেসের গ্রেফতার হওয়ার ঘটনায় বিস্মিত জাভি

ছবি

ভারতের কাছে হেরে শীর্ষস্থান হারাল নিউজিল্যান্ড

ছবি

বিশ্বকাপ দলে নেই ফারজানা, নতুন মুখ স্বর্ণা

ছবি

ম্যানসিটি ছাড়তে পারেন গার্দিওয়ালা!

ছবি

দ. আফ্রিকার বিপক্ষে পারল না বাংলাদেশ

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

লিভারপুল ও চেলসি গোলশূন্য ড্র করেছে

ছবি

বিসিবির চুক্তির তিন সংস্করণেই মিরাজ, শুধু ওয়ানডেতে মাহমুদউল্লাহ

ছবি

ব্রাজিলের ক্লাবে যাচ্ছেন বাংলাদেশি ফুটবলার নাজমুল

ছবি

দলবদল নিয়ে মিথ্যাচারের দায়ে জুভেন্টাসের ১৫ পয়েন্ট জরিমানা, নেমে গেল দশে

ছবি

রোনালদোর বিপক্ষে ম্যাচে মেসির জার্সির দাম উঠেছে ২৮ লাখ টাকা

ছবি

২০২৮ অলিম্পিকেও জায়গা পেল না ক্রিকেট

ছবি

প্রেমিকার চড় খাওয়ায় ভারতে ধারাভাষ্য থেকে বাদ পড়তে পারেন ক্লার্ক

ছবি

জেলে যাওয়া আলভেজের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করল ক্লাব

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

দারুণ শুরুর পরও খেই হারালো চট্টগ্রাম

ছবি

সাকিবের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ইফতিখার

tab

খেলা

এমবাপ্পের জোড়া গোলে শেষ আটে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা

ফ্রান্স ৩ : ১ পোল্যান্ড

ক্রীড়া বার্তা পরিবেশক

সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স দাপটের সঙ্গে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। গতকাল রোববার দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে ফ্রান্স শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ভালো খেলে পোল্যান্ডকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে। ফ্রান্স ম্যাচে অনেক সুযোগ সৃষ্টি করলেও প্রতিপক্ষের গোলরক্ষকের দৃঢ়তার তিনটির বেশি গোল করতে পারেনি। ফ্রান্সের হয়ে অলিভার জিরু একটি এবং সুপার স্টার এমবাপ্পে দুইটি গোল করেন। এ নিয়ে চলতি বিশ্বকাপে এমবাপ্পের গোল সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫টি। অপর দিকে জিরু হয়েছেন ফ্রান্সের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করা খেলোয়াড়।

কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্স খেলবে ইংল্যান্ডের সঙ্গে।

শুরুর কয়েক মিনিট মনে হয়েছিল পোল্যান্ড আসলেই বিপজ্জনক দল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে এ ম্যাচে। কিন্তু তা বেশিক্ষণ টিকেনি। দশ মিনিটের মধ্যেই ফরাসিরা বুঝিয়ে দিয়েছে দল হিসেবে তারা অনেক বেশি শক্তিশালী। ফ্রান্স ১১ থেকে ১৫ মিনিটের মধ্যে তিনবার গোলের সুযোগ সৃষ্টি করে। যদিও প্রত্যেকবারই পোলিশ গোলরক্ষক সেজনি রুখে দেন প্রচেষ্টাগুলো। এ সময় পোল্যান্ডের পোস্টে শট মেরেছিলেন ডেম্বেলে এবং চুয়ামেনি। জিরু খেলেন স্ট্রাইকার হিসেবে। এমবাপ্পে খেলেন উইঙ্গার হিসেবে। ২৮ মিনিটে জিরু করেন অবিশ্বাস্য মিস। ডান দিক থেকে ডেম্বেলের ক্রসে গোলমুখে ঠিকমতো পা লাগাতে ব্যর্থ হন জিরু। এর ফলে গোল খাওয়া থেকে রক্ষা পায় পোল্যান্ড। এ ঘটনার পর আবার পোল্যান্ড আক্রমণে চেপে ধরে ফ্রান্সকে। ৩৭ মিনিটে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে তিনবার গোলে শট নেয় পোল্যান্ড এবং প্রতিবারই গোললাইন থেকে সেগুলো প্রতিহত হয়। প্রথমে জিলেনস্কির শট ঠেকিয়ে দেন লরিস, এর পর ফিরতি বলে শট মারেন কামিনস্কি এবং সেটি ঠেকিয়ে দেন হার্নান্ডেজ।

ফ্রান্স তাদের চেষ্টার ফল হিসেবে ৪৪ মিনিটে অলিভার জিরুর গোলে এগিয়ে যায়। কিলিয়ান এমবাপ্পের থ্রু পাস থেকে থেকে গোলটি করেন জিরু। এর ফলে তিনি ফ্রান্সের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ডটি নিজের করে নিলেন। চলতি বিশ্বকাপে এটা ছিল তার তৃতীয় গোল।

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হয় ফ্রান্সের প্রাধান্য স্থাপনের মাধ্যমে। প্রথম চার মিনিটের মধ্যেই তারা দুইবার পোস্টে শট মারে এবং দুইবারই তা বাঁচিয়ে দেন পোলিশ গোলরক্ষক সেজনি। এর মধ্যে ৪৮ মিনিটে গ্রিজম্যানের ফ্রি-কিকটি তিনি ফিরিয়ে দেন দারুন দক্ষতায়। ফ্রান্স জানে এক গোলের ওপর নির্ভর করলে বিপদ হতে পারে। তাই তারা ব্যবধান বাড়ানোর চেষ্টা অব্যাহত রাখে। অন্যদিকে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা অব্যাহত রাখে পোল্যান্ড। মাঝ মাঠে সৃষ্টিশীলতার কারণে ফ্রান্স গোলের সুযোগ সৃষ্টিতে বেশ এগিয়ে থাকে। কিন্তু ফিনিশিংয়ের অভাব তাদের জন্য সমস্যা হিসেবেই দেখা যায়।

৬৫ মিনিটে চুয়ামেনিকে তুলে নামানো হয় ফোফানাকে। খেলোয়াড় পরিবর্তন করে পোল্যান্ডও। খেলার ৭৪ মিনিটে কিলিয়ান এমবাপ্পে দ্বিতীয় গোল করে ফ্রান্সের জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন। নিজেদের পেনাল্টি-বক্স থেকে শুরু করা কাউন্টার অ্যাটাকের সফল পরিনতি দেন তিনি। পোল্যান্ডের আক্রমণ প্রতিহত করার জন্য ডিফেন্ডার বল ক্লিয়ার করেন লম্বা শটে। সেটি মাঝ মাঠে ধরে জিরু বেশ খানিকটা এগিয়ে গিয়ে ডান দিকে ডেম্বেলেকে দিলে তিনি পেনাল্টি বক্সের কোনায় থাকা এমবাপ্পেকে দেন। এমবাপ্পে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দেখে শুনে কোনাকুনি শটে পরাস্ত করেন পোল্যান্ডের গোলরক্ষককে। এমবাপ্পে প্রথম খেলোয়াড় যিনি নিজের ২৪তম জন্মদিনের আগে বিশ্বকাপে অষ্টম গোল করলেন। এ গোলের আগে এমবাপ্পে তেমন সুবিধা করতে পারছিলেন না। তার কাছ থেকে প্রতিপক্ষ বেশ কয়েকবার বল কেড়ে নিয়েছিল। খেলার নির্ধারিত সময়ের একেবারে শেষদিকে এমবাপ্পে করেন তৃতীয় গোল। এটা ছিল তার প্রথম গোলের কার্বন কপি। পার্থক্য কেবল এবার তাকে বলটি দিয়েছেন বাম দিক থেকেই থুরাম।

ইনজুরি টাইমের শেষ সময়ে একটি পেনাল্টি পায় পোল্যান্ড। বক্সের মধ্যে উপামেকানোর হাতে বল লাগলে রেফারি ভিএআর দেখে পেনাল্টির নির্দেশ দেন। লেভানদভস্কির প্রথম প্রচেষ্টা রুখে দেন লরিস। বল শট মারর আগে তিনি লাইন ছেড়ে সামনে যাওয়ায় রেফারি পুনরায় পেনাল্টি মারার নির্দেশ দেন। দ্বিতীয়বার অবশ্য লেভানদভস্কি বল জালে পাঠিয়ে সান্তনার গোলটি করতে সক্ষম হন। এ গোলের সঙ্গে সঙ্গেই ম্যাচ শেষ হয় এবং ফ্রান্স উঠে যায় কোয়ার্টার ফাইনালে।

back to top