alt

সারাদেশ

নদী দখল রোধে কাজ করছে সরকার: খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২১

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ভালবাসা থেকে নদীমাতৃক দেশের নদী দখল রোধ ও পলি অপসারনের মাধ্যমে নাব্যতা রক্ষার চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলায় সরকার বসে নেই। এজন্য সরকার অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে। খনন করে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে সকল নদীর পলি অপসারনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এজন্য বিআইডব্লিউটিএ’র মাধ্যমে ৮০টি ড্রেজার কেনা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আবদুস সালাম হলে অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশের নদীর নাব্যতা ও পলি ব্যবস্থাপনার চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলনের ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের ঢাকা মহানগর কমিটির উদ্যোগে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়। নদী বাঁচাও আন্দোলন, ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি আনিসুর রহমান খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মহসীনুল করিম লেবুর সঞ্চালনায় সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্টাল অ্যান্ড জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সার্ভিসেস (সিইজিআইএস)-এর সিনিয়র অ্যাডভাইজার ড. মমিনুল হক সরকার।

সেমিনারে বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অখিল কুমার বিশ্বাস বিশেষ অতিথি হিসেবে এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান ও নদী বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় সভাপতি আনোয়ার সাদাত সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। এছাড়াও আলোচনায় অংশ নেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ড. লুৎফর রহমান ও ড. মহসীন আলী মণ্ডল, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ও জীববৈচিত্র বিষয়ক সম্পাদক খন্দকার হাছিবুর রহমান।

খালিদ মাহমুদ বলেন, নদীর গতিপ্রবাহ ঠিক রাখতে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে বর্তমান সরকার অনেক চ্যালেঞ্জ নিয়েছে। এসব উদ্যোগ নেয়া অত সহজ নয়। নদীর নাব্যতা ঠিক রাখতে এখন আর নদী শাসন নয়, বরং নদী ব্যবস্থাপনা করা হচ্ছে। একই সঙ্গে নদীর পলিগুলোরও ব্যবস্থাপনা করে তা কাজে লাগানো হচ্ছে। নদীমাতৃক বাংলাদেশের নদীগুলোকে টিকিয়ে রাখতে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা জরুরি। তবেই নদীর প্রবাহ ফিরে আসবে বলে মনে আমি মনে করি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান নদী ব্যবস্থাপনায় হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। নদী খননের মাধ্যমে নৌপথগুলোকে সচল করে সড়কের ও চাপ কমানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে এসব নদী কৃষকদের জন্য ফসল উৎপাদনেও কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক বলেন, মানুষকে সম্পৃক্ত করে নদীর নাব্যতা রক্ষায় অনেক উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নাব্যতা রক্ষা করতে পারলে নৌপরিবহন অনেক সহজ হবে। পরিবহন ব্যয় অনেক কমে যাবে। বর্তমান সরকার নগর দূষণ দূর করে নাব্যতা রক্ষার মাস্টারপ্ল্যান করেছে। যা বাস্তবায়ন করলে বাংলাদেশের নদীগুলো তার আগের অবস্থা ফিরে পাবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অখিল কুমার বিশ্বাস বলেন, আমরা নদীর নাব্যতা রক্ষা ও পলি ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন মেয়াদি কার্যক্রম নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। বর্তমান জনগণও এ বিষয়ে অনেক সচেতন। পানি আইনের আলোকে পানি উন্নয়ন বোর্ড জেলা পানি ব্যবস্থাপনা কমিটির মাধ্যমে বেশ কিছু উদ্যোগ সফল করার জন্য কাজ করছে।

সেমিনারে বক্তারা দেশের বিভিন্ন এলাকায় নদী দখলমুক্ত ও ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে আনার দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, প্রতি বছর উজানের পানির ঢলে দেশের নদ-নদীগুলোতে প্রায় ২৪০ কোটি মেট্রিক টন পলি জমে। যা দেশের নদ-নদীগুলোর অস্তিত্বকে বিলীন করে ফেলছে। ফলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পানির সংকট দেখা দিচ্ছে। একদিকে যেমন নাব্যতা সংকটে নৌযান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে, তেমনি সেচের পানিরও অভাব দেখা দিচ্ছে।

নাব্যতা রক্ষা করে স্বল্পব্যয়ের নদীপথগুলোকে সচল ও সেচের পানির অভাব পূরণে উপযুক্ত সময়ে নদ-নদী খননের মাধ্যমে পলি অপসারণ ছাড়া এসব নদ-নদীকে বাঁচিয়ে রাখা অসম্ভব। নদ-নদীগুলোকে বাঁচাতে খনন ও দখলমুক্ত করতে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

ছবি

লক্ষ্মীপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতা নিহত

ছবি

গোলা ভেঙে ধান খাওয়ায় বন্যহাতির বিরুদ্ধে জিডি

ছবি

তিন মাস বয়সী বাছুরের দাম দুই লাখ

মির্জাগঞ্জে সহকারী প্রিজাইডিং কর্তার মৃত্যু

অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ২১ লাখ আত্মসাতের অভিযোগ

সরিষাবাড়ীতে ৭ ইউপিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫১

বদরগঞ্জের এক পরিবারের চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬ জন

এরশাদ শিকদারের নামে বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন

ছবি

মশার যন্ত্রণায় নগরবাসী অতিষ্ঠ : ঘুমিয়ে খুশিক!

ছবি

বোয়ালখালীতে দিন দিন বাড়ছে বারি মাল্টার আবাদ

ঘরের দরজা ভেঙে কাস্টমস কর্মকর্তার দেহ উদ্ধার

বাগেরহাটে মাছের ঘের থেকে নিখোঁজ কৃষকের মরদেহ উদ্ধার

ছবি

আটক এড়াতে ছোটাছুটিতে আহত নীল গাইয়ের মৃত্যু

ছবি

কুমড়ো বড়ির আয়ে সচ্ছল অনেক সংসার

নারী ভোটকক্ষে সিল মারলেন নৌকার প্ল্যাকার্ড ঝোলানো যুবক

সুশাসন ছাড়া উন্নয়ন অর্থবহ হয় না : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ছবি

রংপুরের কাউনিয়ায় উৎসবমুখর ভোট

ছবি

খুলনায় প্রতিপক্ষের পিটুনিতে আহত নৌকা সমর্থকের মৃত্যু

ছবি

বাংলাদেশের নারীরা সারাবিশ্বে নিজেদের যোগ্যতার পরিচয় দিচ্ছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

নারায়ণগঞ্জে বিস্ফোরণ: দগ্ধ আরও ১ জনের মৃত্যু

ছবি

লক্ষ্মীপুরে ভোটের আগেই বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ আটক ৩১

ছবি

যশোরের শার্শায় ভোটের সংঘাতে নিহত ১

ছবি

করোনার নতুন ধরনে উদ্বেগ

ছবি

ফের শিক্ষার্থীরা সড়কে

ছবি

ভর্তুকি ছাড়া অর্ধেক ভাড়ায় রাজি নয় মালিকরা

ছবি

খুলনায় বার্জারের নতুন এক্সপেরিয়েন্স জোন চালু

ছবি

ডোমিনো’জ পিৎজা’র ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন তাসকিন আহমেদ

ছবি

রংপুরে ট্রাকের ধাক্কায় দুই নারী শ্রমিকসহ নিহত ৩

কুমারখালীতে মহিলা পরিষদের পক্ষকালব্যাপী কর্মসূচি

টঙ্গীতে আট দিন ধরে পানির সংকট

ছবি

ঢাকার ৮০ শতাংশ বাস মালিক গরিব, দাবি এনায়েত উল্লাহর

১৩০ টাকায় কনস্টেবল

বেগমগঞ্জে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

ছবি

পাইকগাছায় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা সংস্কার হয়নি আজও

ছবি

সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটিয়েছিলেন : কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন

নাটোরে নর্থ বেঙ্গল চিনিকলের আখ মাড়াই শুরু

tab

সারাদেশ

নদী দখল রোধে কাজ করছে সরকার: খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২১

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ভালবাসা থেকে নদীমাতৃক দেশের নদী দখল রোধ ও পলি অপসারনের মাধ্যমে নাব্যতা রক্ষার চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলায় সরকার বসে নেই। এজন্য সরকার অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে। খনন করে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে সকল নদীর পলি অপসারনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এজন্য বিআইডব্লিউটিএ’র মাধ্যমে ৮০টি ড্রেজার কেনা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আবদুস সালাম হলে অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশের নদীর নাব্যতা ও পলি ব্যবস্থাপনার চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলনের ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের ঢাকা মহানগর কমিটির উদ্যোগে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়। নদী বাঁচাও আন্দোলন, ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি আনিসুর রহমান খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মহসীনুল করিম লেবুর সঞ্চালনায় সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্টাল অ্যান্ড জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সার্ভিসেস (সিইজিআইএস)-এর সিনিয়র অ্যাডভাইজার ড. মমিনুল হক সরকার।

সেমিনারে বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক ও বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অখিল কুমার বিশ্বাস বিশেষ অতিথি হিসেবে এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান ও নদী বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় সভাপতি আনোয়ার সাদাত সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। এছাড়াও আলোচনায় অংশ নেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ড. লুৎফর রহমান ও ড. মহসীন আলী মণ্ডল, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ও জীববৈচিত্র বিষয়ক সম্পাদক খন্দকার হাছিবুর রহমান।

খালিদ মাহমুদ বলেন, নদীর গতিপ্রবাহ ঠিক রাখতে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে বর্তমান সরকার অনেক চ্যালেঞ্জ নিয়েছে। এসব উদ্যোগ নেয়া অত সহজ নয়। নদীর নাব্যতা ঠিক রাখতে এখন আর নদী শাসন নয়, বরং নদী ব্যবস্থাপনা করা হচ্ছে। একই সঙ্গে নদীর পলিগুলোরও ব্যবস্থাপনা করে তা কাজে লাগানো হচ্ছে। নদীমাতৃক বাংলাদেশের নদীগুলোকে টিকিয়ে রাখতে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা জরুরি। তবেই নদীর প্রবাহ ফিরে আসবে বলে মনে আমি মনে করি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান নদী ব্যবস্থাপনায় হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। নদী খননের মাধ্যমে নৌপথগুলোকে সচল করে সড়কের ও চাপ কমানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে এসব নদী কৃষকদের জন্য ফসল উৎপাদনেও কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক বলেন, মানুষকে সম্পৃক্ত করে নদীর নাব্যতা রক্ষায় অনেক উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নাব্যতা রক্ষা করতে পারলে নৌপরিবহন অনেক সহজ হবে। পরিবহন ব্যয় অনেক কমে যাবে। বর্তমান সরকার নগর দূষণ দূর করে নাব্যতা রক্ষার মাস্টারপ্ল্যান করেছে। যা বাস্তবায়ন করলে বাংলাদেশের নদীগুলো তার আগের অবস্থা ফিরে পাবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অখিল কুমার বিশ্বাস বলেন, আমরা নদীর নাব্যতা রক্ষা ও পলি ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন মেয়াদি কার্যক্রম নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। বর্তমান জনগণও এ বিষয়ে অনেক সচেতন। পানি আইনের আলোকে পানি উন্নয়ন বোর্ড জেলা পানি ব্যবস্থাপনা কমিটির মাধ্যমে বেশ কিছু উদ্যোগ সফল করার জন্য কাজ করছে।

সেমিনারে বক্তারা দেশের বিভিন্ন এলাকায় নদী দখলমুক্ত ও ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে আনার দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, প্রতি বছর উজানের পানির ঢলে দেশের নদ-নদীগুলোতে প্রায় ২৪০ কোটি মেট্রিক টন পলি জমে। যা দেশের নদ-নদীগুলোর অস্তিত্বকে বিলীন করে ফেলছে। ফলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পানির সংকট দেখা দিচ্ছে। একদিকে যেমন নাব্যতা সংকটে নৌযান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে, তেমনি সেচের পানিরও অভাব দেখা দিচ্ছে।

নাব্যতা রক্ষা করে স্বল্পব্যয়ের নদীপথগুলোকে সচল ও সেচের পানির অভাব পূরণে উপযুক্ত সময়ে নদ-নদী খননের মাধ্যমে পলি অপসারণ ছাড়া এসব নদ-নদীকে বাঁচিয়ে রাখা অসম্ভব। নদ-নদীগুলোকে বাঁচাতে খনন ও দখলমুক্ত করতে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

back to top