alt

আন্তর্জাতিক

আফগানিস্তানে ফের গৃহযুদ্ধের শঙ্কা দেখছেন হিলারি

সংবাদ :
  • সংবাদ অনলাইন ডেস্ক
image
মঙ্গলবার, ০৪ মে ২০২১

মার্কিন ও নেটো সেনা প্রত্যাহারের পর আফগানিস্তানে ফের গৃহযুদ্ধ দেখা দিতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ডেমোক্র্যাটিকের হয়ে প্রেসিডেন্ট পদে লড়াই করা হিলারি ক্লিন্টন। তার মতে, যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তের পর দেশটিতে তালেবান আবার ক্ষমতা দখল করে নিতে পারে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন শঙ্কার কথা জানিয়েছেন ওবামা প্রশাসনের এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

সেনা ফেরানোর সিদ্ধান্তকে কঠিন হিসেবে উল্লেখ করে হিলারি বলেন, ‘অনেক কঠিন একটি সিদ্ধান্ত। আমি এই বিষয়টিকে উভয় সমস্যা হিসেবে দেখি। সেনা প্রত্যাহার কিংবা থেকে যাওয়া, দুটো বিষয়ের একটা পরিণতি আছে বলে আমি মনে করি। তবে এই প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে কঠিন পরিণতির সৃষ্টি হতে পারে।’

আশঙ্কার কথা জানিয়ে হিলারি বলেন, কাবুল সরকারের পতন হতে পারে এবং ক্ষমতা চলে যেতে পারে তালেবানের হাতে। আর তাতে বিশ্বে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড আবার বেড়ে যেতে পারে।

হিলারি বলেন, ‘আমার মতে, এই দুটি কঠিন বিষয় মোকাবিলা করতে হবে। আফগান নিরাপত্তা বাহিনী ও সেনাবাহিনীকে সমর্থন দেওয়া সেনাদের প্রত্যাহার করে নিলে তাদের প্রতিরোধ ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে। কিন্তু সেই সম্ভাব্য পরিণতি থেকে আমরা মুখ ফিরিয়ে নিতে পারি না।’

১৪ এপ্রিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ঘোষণার পর শনিবার (১ মে) আফগানিস্তান থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সেনা প্রত্যাহার শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও নেটো জোট। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন এর মাধ্যমে একটি অন্তহীন যুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হল।সেপ্টেম্বরের ১১ তারিখের পর্যন্ত চলবে সেনা ফেরানোর প্রক্রিয়া।

২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর টুইন টাওয়ারসহ তালিবানদের আরও দুটি হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে বহু মানুষের মৃত্যু হয়। এই হামলার জন্য জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়দার প্রধান ওসামা বিন লাদেনকে দায়ী করা হয়।

সেসময় আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণে থাকা ইসলামী কট্টরপন্থী তালিবান ওসামা বিন লাদেনকে নিরাপত্তা দিয়েছিল এবং তাকে মার্কিন বাহিনীর হাতে হস্তান্তর করতে প্রত্যাখ্যান করে। নাইন ইলেভেন হামলার এক মাস পর আফগানিস্তানে বিমান হামলা শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন মিত্র দেশগুলো এত যোগ দেয় এবং দ্রুতই তালিবানদের ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। তখন থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় দেশগুলোর জোট নেটোর সেনাবাহিনী আফগানিস্তানে অবস্থান করছে।

ছবি

মন্ত্রিসভায় একাধিক নতুন মুখ আনছেন মমতা

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে জন্মদিনের পার্টিতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা

ছবি

করোনায় মৃত্যু ৩৩ লাখ ছাড়াল

ছবি

‘ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ’ করেছেন নরেন্দ্র মোদি: ল্যানসেট

ছবি

নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে শিশুসহ গুলিবিদ্ধ তিন

ছবি

করোনায় বিপর্যস্ত ভারত, টানা চার দিন ৪ হাজারের বেশি মৃত্যু

ছবি

আল-আকসায় ইসরায়েলি হামলা, ১৬৩ ফিলিস্তিনি আহত

ছবি

মমতার মন্ত্রিসভায় এবারও ৪৪ জন সদস্য থাকছেন

ছবি

কঠিন পরিস্থিতি ভারতে, একদিনে চার হাজারের বেশি মৃত্যু

ছবি

ভারতে করোনার দুই ডোজ টিকা পেয়েছেন মাত্র ৩ শতাংশ মানুষ

ছবি

বিধ্বস্ত ভারতে সংক্রমণের নতুন রেকর্ড

ছবি

কিশোরদের জন্যে ফাইজারের টিকার ছাড়পত্র দিল কানাডা

ছবি

ভেঙে পড়েছে ভারতের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা

ছবি

বিল-মেলিন্ডার সন্তানরা কে কত টাকার সম্পদ পাচ্ছেন

ছবি

টানা তৃতীয় দফায় শপথ নিলেন মমতা

ছবি

তৃণমূল বিপুল জয় পেলেও বিজেপির ভোটও কম নয়

ছবি

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা, নিহত ১২

ছবি

মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করলেন মমতা

ছবি

মেক্সিকোতে মেট্রো ট্রেন দুর্ঘটনা, নিহত ১৫

ছবি

সাত বছর তুমুল প্রেম করে বিয়ে করেছিলেন বিল-মেলিন্ডা

ছবি

মেক্সিকোতে মেট্রোরেল ভেঙে পড়ে নিহত ১৫, আহত ৭০

ছবি

বিধ্বস্ত ভারতে করোনা আক্রান্ত দুই কোটি পার

ছবি

তৃতীয় দফায় মুখ্যমন্ত্রী পদে কাল শপথ নিচ্ছেন মমতা

ছবি

টেকনো’র গ্লোবাল ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন ক্যাপ্টেন আমেরিকা খ্যাত সুপারস্টার ক্রিস ইভানস

ছবি

যেকোনো গণজমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করুন: ভারত সুপ্রিম কোর্ট

ছবি

পাল্টা আক্রমণেই জয় তুলে নিলো মমতা

ছবি

ইসরায়েলি সেনার গুলিতে ফিলিস্তিনি বৃদ্ধা নিহত

ছবি

ফের রক্তাক্ত মিয়ানমার, গুলিতে ঝরল ৮ বিক্ষোভকারীর প্রাণ

ছবি

পশ্চিমবঙ্গ ভোটের ফল এবং মমতার ভবিষ্যৎ

ছবি

বিভাজনের প্রচারই কী গড়ে দিলো ব্যাবধান

ছবি

পশ্চিমবঙ্গের নন্দীগ্রামে কে জিতেছে, মমতা না শুভেন্দু, চরম বিভ্রান্তি

ছবি

অভিনন্দন বার্তায় ভাসছেন মমতা

ছবি

টিকার জন্য চাপ, ভারত ছাড়লেন সেরামের সিইও

ছবি

আফগানিস্তান থেকে ন্যাটো-যুক্তরাষ্ট্রের আনুষ্ঠানিক সেনা প্রত্যাহার

ছবি

পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা: ভোট গণনায় মমতার দল এগিয়ে

ছবি

স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যাচ্ছে নিউইয়র্ক, ১ জুলাই খুলছে সবকিছু

tab

আন্তর্জাতিক

আফগানিস্তানে ফের গৃহযুদ্ধের শঙ্কা দেখছেন হিলারি

সংবাদ :
  • সংবাদ অনলাইন ডেস্ক
image
মঙ্গলবার, ০৪ মে ২০২১

মার্কিন ও নেটো সেনা প্রত্যাহারের পর আফগানিস্তানে ফের গৃহযুদ্ধ দেখা দিতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ডেমোক্র্যাটিকের হয়ে প্রেসিডেন্ট পদে লড়াই করা হিলারি ক্লিন্টন। তার মতে, যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তের পর দেশটিতে তালেবান আবার ক্ষমতা দখল করে নিতে পারে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন শঙ্কার কথা জানিয়েছেন ওবামা প্রশাসনের এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

সেনা ফেরানোর সিদ্ধান্তকে কঠিন হিসেবে উল্লেখ করে হিলারি বলেন, ‘অনেক কঠিন একটি সিদ্ধান্ত। আমি এই বিষয়টিকে উভয় সমস্যা হিসেবে দেখি। সেনা প্রত্যাহার কিংবা থেকে যাওয়া, দুটো বিষয়ের একটা পরিণতি আছে বলে আমি মনে করি। তবে এই প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে কঠিন পরিণতির সৃষ্টি হতে পারে।’

আশঙ্কার কথা জানিয়ে হিলারি বলেন, কাবুল সরকারের পতন হতে পারে এবং ক্ষমতা চলে যেতে পারে তালেবানের হাতে। আর তাতে বিশ্বে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড আবার বেড়ে যেতে পারে।

হিলারি বলেন, ‘আমার মতে, এই দুটি কঠিন বিষয় মোকাবিলা করতে হবে। আফগান নিরাপত্তা বাহিনী ও সেনাবাহিনীকে সমর্থন দেওয়া সেনাদের প্রত্যাহার করে নিলে তাদের প্রতিরোধ ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে। কিন্তু সেই সম্ভাব্য পরিণতি থেকে আমরা মুখ ফিরিয়ে নিতে পারি না।’

১৪ এপ্রিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ঘোষণার পর শনিবার (১ মে) আফগানিস্তান থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সেনা প্রত্যাহার শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও নেটো জোট। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন এর মাধ্যমে একটি অন্তহীন যুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হল।সেপ্টেম্বরের ১১ তারিখের পর্যন্ত চলবে সেনা ফেরানোর প্রক্রিয়া।

২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর টুইন টাওয়ারসহ তালিবানদের আরও দুটি হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে বহু মানুষের মৃত্যু হয়। এই হামলার জন্য জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়দার প্রধান ওসামা বিন লাদেনকে দায়ী করা হয়।

সেসময় আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণে থাকা ইসলামী কট্টরপন্থী তালিবান ওসামা বিন লাদেনকে নিরাপত্তা দিয়েছিল এবং তাকে মার্কিন বাহিনীর হাতে হস্তান্তর করতে প্রত্যাখ্যান করে। নাইন ইলেভেন হামলার এক মাস পর আফগানিস্তানে বিমান হামলা শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন মিত্র দেশগুলো এত যোগ দেয় এবং দ্রুতই তালিবানদের ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। তখন থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় দেশগুলোর জোট নেটোর সেনাবাহিনী আফগানিস্তানে অবস্থান করছে।

back to top