alt

খেলা

সৌম্যর অল রাউন্ড নৈপুন্যে টি২০ সিরিজ জিতল টাইগাররা

বিশেষ প্রতিনিধি : রোববার, ২৫ জুলাই ২০২১

অনেক প্রতিভা নিয়ে বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলে ঠাঁই পেয়েছিলেন অল- রাউন্ডার সৌম্য সরকার। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরেই নিজেকে হারিয়ে খুঁজছিলেন তিনি। জিম্বাবুয়ে সফরের টি২০ সিরিজে অবশেষে দেখা দিলেন চিরচেনা রূপে। প্রথম ম্যাচে একটি উইকেট শিকারসহ হাফ সেঞ্চুরির ইনিংস খেলে ম্যাচ জেতানো নৈপুন্য দেখিয়ে সেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন। প্রথম ম্যাচে জয়ের পর জিম্বাবুয়ের কাছে দ্বিতীয় ম্যাচে টাইগাররা পরাজয় বরণ করলে সিরিজে ফেরে ১-১ সমতা। রবিবারের ম্যাচটা তাই হয়ে উঠেছিলো সিরিজ নির্ধারনী। এই ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নামা জিম্বাবুয়ের রান বন্যা আটকানোর পথে সৌম্য শিকার করেন টপ অর্ডারের দুই ব্যাটারকে, জয়ের জন্য ১৯৪ রানের বিশাল টার্গেট তাড়া করতে নেমে ক্যারিয়ারের পঞ্চম হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ৪৯ বলে ৯ বাউন্ডারি ও এক ছক্কার মারে তোলেন ৬৮ রান। সৌম্যর ম্যাচ সেরা হয়ে সিরিজ সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার জেতার পথে কোনো কাঁটা পড়তে দেননি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন ও শামীম পাটোয়ারী। তৃতীয় ম্যাচে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ দল জয় পেয়েছে ৫ উইকেটের। ফলে একমাত্র টেস্ট ও তিন ম্যাচ ওডিআই সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জয়ের পর টি২০ সিরিজ টাইগাররা জিতে নিয়েছে ২-১ ব্যবধানে। অর্থাৎ হ্যাট্রিক জয়ের মধুর স্মৃতি নিয়ে জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফিরে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশের টি২০ দল।

রবিবারের ম্যাচের পিচ ছিলো ব্যাটসম্যানদের স্বর্গরাজ্য। জিম্বাবুয়ের ইনিংসেই ওটা স্পষ্ট হয়ে ফুটে ওঠে। ফলে জিম্বাবুয়ের আগে ব্যাট করে তোলা ১৯৩ রান কিছুটা বড় সংগ্রহ হলেও, ওটা তাড়া করে জয় পাওয়াটা কঠিন হলেও অসম্ভব ছিলোনা টাইগারদের জন্য।

মোহাম্মদ নাইমকে নিয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামা সৌম্য সরকার শুরু থেকেই ছিলেন মারমুখো মেজাজে। তৃতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে নাঈম ব্যক্তিগত ৩ রানে আউট হওয়ার সময়ে স্কোরবোর্ডে ২০ রানের মধ্যে ১৭ই ছিলো সৌম্যর। মুজারাবানির বলে উইকেটের পেছনে ধরা পড়ে নাঈম ফেরার সাকিবের সাথে সৌম্যর জুটিটা ছিলো ৫০ রানের। লুক জঙ্গুয়ের বলে মুসাকান্ডার হাতে ক্যাচ দিয়ে সাকিব (১৩ বলে ২৫ রান) সৌম্য সঙ্গী হিসাবে পান অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে। দু’জনের ৬৩ রানের এই জুটিটা ভেঙে যায় সৌম্য ফিরলে। তিনিও সাকিবের মতই জঙ্গুয়ের বলে মুসাকান্ডার হাতেই ক্যাচ দেন। দলীয় ১৩৩ রানে তিন উইকেট হারানো টাইগারদের জয়ের পথে এগিয়ে যাওয়ার কাজটা গতি পায় নবাগত আফিফ হোসেন হোসেন মাত্র ৫ বলে দুই ছক্কায় ১৪ রানের ইনিংস খেললে। দলীয় ১৫০ রানে তিনি ওয়েলিংটন মাসাকাদজার বলে লেগ স্ট্যাম্প খোয়ানোর পর রিয়াদের সাথে যোগ দেয়া শামীম হোসেন পাটোয়ারীও দেখা দেন বিধ্বংসী রূপে। রিয়াদ (২৮ বলে দুটো বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৩৪ রান) দলীয় ১৮৭ রানে মুজারাবানির বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরার পর ফেরার সময়ে জয়ের জন্য ৮ বলে ৭ রান প্রয়োজন পড়ে বাংলাদেশ দলের। টি২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ১৩ বলে ২৯ রানের ইনিংস খেলা শামীম পাটোয়ারী ১৫ বলে ৬ বাউন্ডারীতে ৩১ রানে অপরাজিত থেকে সেই কাজটা সারার সময়ে তার সাথে নুরুল হাসান অপরাজিত ১ রানে, আর ইনিংসের বাকী তখনো চারটি বল।

এর আগে টস হেরে ফিল্ডিংয়ের আমন্ত্রন পাওয়া টাইগার বোলারদের ওপর দাপট দেখিয়ে সিরিজ নির্ধারণী জিম্বাবুয়ে ১৯৩ রান তোলে।

মোস্তাফিজুর রহমানবিহীন ছাড়া টাইগারদের বোলিং ডিপার্টমেন্টকে ফ্ল্যাট উইকেটে রীতিমত তুলোধূনো করেন স্বাগতিক ব্যাটাররা তিন পেসার তাসকিন, সাইফউদ্দিন, শরীফুল এবং মেহেদী হাসানের জায়গায় নামা বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ বেদম মার খেয়েছেন। একমাত্র সাকিবকেই একটু বুঝেশুনে খেলেছে জিম্বাবুয়ে। বোলারদের অমন দুর্দশার দিনে মাত্র ২৬ বলে জিম্বাবুয়ের স্কোর পঞ্চাশ ছাড়িয়ে যায়। ২০ বলে ২৭ করা মারুমানিকে টাইগারদের পেস বোলিং অল রাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন বোল্ড করে দিলে ৬৩ রানে প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। এতেও জিম্বাবুয়ের রানের গতি কমেনি। উইকেটে এসেই ঝড় তোলেন রেজিস চাকাভা। আরেক ওপেনার মাধভেরের ব্যাটও চলেছে দাপটের সাথে। এই দু’জনের ৩১ বলে ৫৯ রানের দ্বিতীয় উইকেটের পার্টনারশিপটাও ভাঙেন সৌম্য সরকার।

মাত্র ২২ বলে ছ’টি ছক্কায় রেজিস চাকাভার ৪৮ রানের ঝড়ো ইনিংসটা ১২তম ওভারের প্রথম বলে নাটকীয়ভাবেই থেমে যায়। ডিপ মিড উইকেটে ক্যাচটা শেষ পর্যন্ত শামিম হোসেন পাটোয়ারীর নামের পাশে লেখা হলেও বাউন্ডারি লাইনের ওপর দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার আগেই শূন্যে লাফিয়ে বল ভেতরে ঠেলে দিয়েছিলেন নাঈম। এরপর শূন্যে ভেসে থাকা বল কিছুটা দৌড়ে গিয়ে তালুবন্দি করেন শামিম। ফেরার আগে নাসুমের এক ওভারে ৩টিসহ সাকিবের ওভারেও ছক্কা মেরেছেন চাকাভা। একই ওভারের পঞ্চম বলে স্বাগতিক দলের অধিনায়ক সিকান্দার রাজাকে রানের খাতা খোলার আগেই ফেরান সৌম্য।

রাজার বিদায়ের পর জিম্বাবুয়ের রানের চাকা সচল রাখেন মাধেভেরে। মাত্র ৩১ বলে হাফ সেঞ্চুরিতে পৌছান এই ওপেনার। তবে, সাকিবের করা ইনিংসের ১৬তম ওভারের প্রথম বলেই থার্ড ম্যান অঞ্চলে থাকা শরিফুলের হাতে ক্যাচ তুলে দিলে থামে মাধেভেরের ৩৬ বলে ৪ ছক্কায় ৫৪ রানের ইনিংস।

শেষদিকে আবারো অকৃপনভাবে রান কদেন সাইফউদ্দিন। ইনিংসের ১৮তম ওভারে রায়ান বার্লের কাছে ১ ছক্কা ও ৩ বাউন্ডারি হজম করেন তিনি। ওই ওভারে তার খরচ ১৯ রান। তবে পরের ওভারের প্রথম বলেই ডিয়ন মায়ার্সকে (২৩) নাসুম আহমেদের ক্যাচ বানিয়ে থামান শরিফুল। ওই ওভারে রান আসে মাত্র ২টি। কিন্তু সাইফের করা শেষ ওভারে আবারো বার্ল ঝড়ে আসে ১৬ রান। শেষ দশ ওভারেই আসে ৯২ রান।

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান মনে করেন তিনি‘মারা যাওয়ার আগ পর্যন্ত এই পদ কেউ নিতে চাইবে না।

ছবি

ইরানের বিপক্ষে লড়বেন সাবিনারা

ছবি

আমার কোন প্যানেল নেই, যে খুশি নির্বাচনে দাঁড়াতে পারে : পাপন

ছবি

কোম্যানকে পরিবর্তন করেতে চায় বার্সা

ছবি

ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহীকে ‘জোরপূর্বক’ সরিয়ে দিলো তালেবান

ছবি

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

ক্রিকেট কোচ-লেখক জালাল আহমেদ চৌধুরী আর নেই

ছবি

শেষ সময়ের গোলে পরাজয় এড়ালো বার্সেলোনা

ছবি

গুরুকে ক্লাবে পেলেন তামিম

ছবি

এবার ‘আসল বিশ্বকাপ’ থেকে ভালো কিছু আনব : শামীম

ছবি

পয়েন্টের রেকর্ড গড়ে লীগ শেষ কিংসের

ছবি

পাকিস্তানের আমন্ত্রণে বিসিবির না

ছবি

সাকিবদের বিশেষ বার্তা দিলেন শাহরুখ

ছবি

বিশ্বকাপের আগে স্পোর্টিং উইকেটে কিছু ম্যাচ খেললে ভালো হতো

ছবি

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রাথমিক নারী দলে দুই নতুন মুখ

ছবি

রোনালদো-লিনগার্ডের গোলে ম্যানইউর জয়

ছবি

টটেনহ্যামকে উড়িয়ে শীর্ষে চেলসি

ছবি

নেইমার-ইকার্দির গোলে লিওঁকে হারিয়ে পিএসজির জয়

ছবি

টিভিতে আজকের খেলার সূচি

ছবি

নেইমার ও ইকার্ডির গোলে পিএসজি হারালো লিওকে

ছবি

বেনজামা ও ভিনিসিয়ুসের গোলে নাটকীয় জয় রিয়ালের

ছবি

সাকিবের অনুশীলনের ভিডিও প্রকাশ করল কেকেআর

ছবি

অনুশীলনে ফিরলেন তামিম

ছবি

জয় দিয়ে শেষ করল আফগান যুবারা

ছবি

সাবিনাদের ৫ গোল দিলো জর্ডান

ছবি

রোনালদোকে কোচের ভূমিকায় ভালো লাগেনি ফার্ডিনান্ডের

ছবি

যে কারণে ভারতের কোচ হবেন না জয়াবর্ধনে

ছবি

বার্সায় নিজের সেরাটা দেওয়ার অপেক্ষায় মেমফিস

ছবি

প্যালেসকে হারিয়ে শীর্ষে লিভারপুল : সাউদাম্পটনের সাথে ড্র করেছে ম্যানসিটি

ছবি

শেরেবাংলায় ফিরে স্মৃতিকাতর মাশরাফি

ছবি

আমিরাতে আইপিএলের বাকি অংশ শুরু কাল

ছবি

গান গেয়ে গলফ অনুষ্ঠান মাতালেন রাষ্ট্রদূতরা

ছবি

ক্যারমে চ্যাম্পিয়ন হেমায়েত-সাবিনা

ছবি

কাল জর্ডানের মুখোমুখি সাবিনারা

ছবি

বাফুফে যে কারণে জেমিকে সরিয়ে অস্কারকে বেছে নিল

tab

খেলা

সৌম্যর অল রাউন্ড নৈপুন্যে টি২০ সিরিজ জিতল টাইগাররা

বিশেষ প্রতিনিধি

রোববার, ২৫ জুলাই ২০২১

অনেক প্রতিভা নিয়ে বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলে ঠাঁই পেয়েছিলেন অল- রাউন্ডার সৌম্য সরকার। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরেই নিজেকে হারিয়ে খুঁজছিলেন তিনি। জিম্বাবুয়ে সফরের টি২০ সিরিজে অবশেষে দেখা দিলেন চিরচেনা রূপে। প্রথম ম্যাচে একটি উইকেট শিকারসহ হাফ সেঞ্চুরির ইনিংস খেলে ম্যাচ জেতানো নৈপুন্য দেখিয়ে সেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন। প্রথম ম্যাচে জয়ের পর জিম্বাবুয়ের কাছে দ্বিতীয় ম্যাচে টাইগাররা পরাজয় বরণ করলে সিরিজে ফেরে ১-১ সমতা। রবিবারের ম্যাচটা তাই হয়ে উঠেছিলো সিরিজ নির্ধারনী। এই ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নামা জিম্বাবুয়ের রান বন্যা আটকানোর পথে সৌম্য শিকার করেন টপ অর্ডারের দুই ব্যাটারকে, জয়ের জন্য ১৯৪ রানের বিশাল টার্গেট তাড়া করতে নেমে ক্যারিয়ারের পঞ্চম হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ৪৯ বলে ৯ বাউন্ডারি ও এক ছক্কার মারে তোলেন ৬৮ রান। সৌম্যর ম্যাচ সেরা হয়ে সিরিজ সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার জেতার পথে কোনো কাঁটা পড়তে দেননি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন ও শামীম পাটোয়ারী। তৃতীয় ম্যাচে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ দল জয় পেয়েছে ৫ উইকেটের। ফলে একমাত্র টেস্ট ও তিন ম্যাচ ওডিআই সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জয়ের পর টি২০ সিরিজ টাইগাররা জিতে নিয়েছে ২-১ ব্যবধানে। অর্থাৎ হ্যাট্রিক জয়ের মধুর স্মৃতি নিয়ে জিম্বাবুয়ে থেকে দেশে ফিরে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশের টি২০ দল।

রবিবারের ম্যাচের পিচ ছিলো ব্যাটসম্যানদের স্বর্গরাজ্য। জিম্বাবুয়ের ইনিংসেই ওটা স্পষ্ট হয়ে ফুটে ওঠে। ফলে জিম্বাবুয়ের আগে ব্যাট করে তোলা ১৯৩ রান কিছুটা বড় সংগ্রহ হলেও, ওটা তাড়া করে জয় পাওয়াটা কঠিন হলেও অসম্ভব ছিলোনা টাইগারদের জন্য।

মোহাম্মদ নাইমকে নিয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামা সৌম্য সরকার শুরু থেকেই ছিলেন মারমুখো মেজাজে। তৃতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে নাঈম ব্যক্তিগত ৩ রানে আউট হওয়ার সময়ে স্কোরবোর্ডে ২০ রানের মধ্যে ১৭ই ছিলো সৌম্যর। মুজারাবানির বলে উইকেটের পেছনে ধরা পড়ে নাঈম ফেরার সাকিবের সাথে সৌম্যর জুটিটা ছিলো ৫০ রানের। লুক জঙ্গুয়ের বলে মুসাকান্ডার হাতে ক্যাচ দিয়ে সাকিব (১৩ বলে ২৫ রান) সৌম্য সঙ্গী হিসাবে পান অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে। দু’জনের ৬৩ রানের এই জুটিটা ভেঙে যায় সৌম্য ফিরলে। তিনিও সাকিবের মতই জঙ্গুয়ের বলে মুসাকান্ডার হাতেই ক্যাচ দেন। দলীয় ১৩৩ রানে তিন উইকেট হারানো টাইগারদের জয়ের পথে এগিয়ে যাওয়ার কাজটা গতি পায় নবাগত আফিফ হোসেন হোসেন মাত্র ৫ বলে দুই ছক্কায় ১৪ রানের ইনিংস খেললে। দলীয় ১৫০ রানে তিনি ওয়েলিংটন মাসাকাদজার বলে লেগ স্ট্যাম্প খোয়ানোর পর রিয়াদের সাথে যোগ দেয়া শামীম হোসেন পাটোয়ারীও দেখা দেন বিধ্বংসী রূপে। রিয়াদ (২৮ বলে দুটো বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৩৪ রান) দলীয় ১৮৭ রানে মুজারাবানির বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরার পর ফেরার সময়ে জয়ের জন্য ৮ বলে ৭ রান প্রয়োজন পড়ে বাংলাদেশ দলের। টি২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ১৩ বলে ২৯ রানের ইনিংস খেলা শামীম পাটোয়ারী ১৫ বলে ৬ বাউন্ডারীতে ৩১ রানে অপরাজিত থেকে সেই কাজটা সারার সময়ে তার সাথে নুরুল হাসান অপরাজিত ১ রানে, আর ইনিংসের বাকী তখনো চারটি বল।

এর আগে টস হেরে ফিল্ডিংয়ের আমন্ত্রন পাওয়া টাইগার বোলারদের ওপর দাপট দেখিয়ে সিরিজ নির্ধারণী জিম্বাবুয়ে ১৯৩ রান তোলে।

মোস্তাফিজুর রহমানবিহীন ছাড়া টাইগারদের বোলিং ডিপার্টমেন্টকে ফ্ল্যাট উইকেটে রীতিমত তুলোধূনো করেন স্বাগতিক ব্যাটাররা তিন পেসার তাসকিন, সাইফউদ্দিন, শরীফুল এবং মেহেদী হাসানের জায়গায় নামা বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ বেদম মার খেয়েছেন। একমাত্র সাকিবকেই একটু বুঝেশুনে খেলেছে জিম্বাবুয়ে। বোলারদের অমন দুর্দশার দিনে মাত্র ২৬ বলে জিম্বাবুয়ের স্কোর পঞ্চাশ ছাড়িয়ে যায়। ২০ বলে ২৭ করা মারুমানিকে টাইগারদের পেস বোলিং অল রাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন বোল্ড করে দিলে ৬৩ রানে প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। এতেও জিম্বাবুয়ের রানের গতি কমেনি। উইকেটে এসেই ঝড় তোলেন রেজিস চাকাভা। আরেক ওপেনার মাধভেরের ব্যাটও চলেছে দাপটের সাথে। এই দু’জনের ৩১ বলে ৫৯ রানের দ্বিতীয় উইকেটের পার্টনারশিপটাও ভাঙেন সৌম্য সরকার।

মাত্র ২২ বলে ছ’টি ছক্কায় রেজিস চাকাভার ৪৮ রানের ঝড়ো ইনিংসটা ১২তম ওভারের প্রথম বলে নাটকীয়ভাবেই থেমে যায়। ডিপ মিড উইকেটে ক্যাচটা শেষ পর্যন্ত শামিম হোসেন পাটোয়ারীর নামের পাশে লেখা হলেও বাউন্ডারি লাইনের ওপর দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার আগেই শূন্যে লাফিয়ে বল ভেতরে ঠেলে দিয়েছিলেন নাঈম। এরপর শূন্যে ভেসে থাকা বল কিছুটা দৌড়ে গিয়ে তালুবন্দি করেন শামিম। ফেরার আগে নাসুমের এক ওভারে ৩টিসহ সাকিবের ওভারেও ছক্কা মেরেছেন চাকাভা। একই ওভারের পঞ্চম বলে স্বাগতিক দলের অধিনায়ক সিকান্দার রাজাকে রানের খাতা খোলার আগেই ফেরান সৌম্য।

রাজার বিদায়ের পর জিম্বাবুয়ের রানের চাকা সচল রাখেন মাধেভেরে। মাত্র ৩১ বলে হাফ সেঞ্চুরিতে পৌছান এই ওপেনার। তবে, সাকিবের করা ইনিংসের ১৬তম ওভারের প্রথম বলেই থার্ড ম্যান অঞ্চলে থাকা শরিফুলের হাতে ক্যাচ তুলে দিলে থামে মাধেভেরের ৩৬ বলে ৪ ছক্কায় ৫৪ রানের ইনিংস।

শেষদিকে আবারো অকৃপনভাবে রান কদেন সাইফউদ্দিন। ইনিংসের ১৮তম ওভারে রায়ান বার্লের কাছে ১ ছক্কা ও ৩ বাউন্ডারি হজম করেন তিনি। ওই ওভারে তার খরচ ১৯ রান। তবে পরের ওভারের প্রথম বলেই ডিয়ন মায়ার্সকে (২৩) নাসুম আহমেদের ক্যাচ বানিয়ে থামান শরিফুল। ওই ওভারে রান আসে মাত্র ২টি। কিন্তু সাইফের করা শেষ ওভারে আবারো বার্ল ঝড়ে আসে ১৬ রান। শেষ দশ ওভারেই আসে ৯২ রান।

back to top