alt

বাংলাদেশ

অব্যবহৃতই থাকছে আবু নাসের হাসপাতালের পরিচালক, উপ-পরিচালকের বাসভবন

জেলা বার্তা পরিবেশক, খুলনা : রোববার, ০৯ মে ২০২১
image

খুলনার শহীদ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের পরিচালক ও উপ-পরিচালকের জন্য তৈরি বাসভবন দু’টি হস্তান্তরের প্রায় দেড়বছর পরও অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে।

ভবন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠাণ গণপূর্ত বিভাগ বলছে, আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের পরিচালক ও উপ-পরিচালকের জন্য নির্দিষ্ট দু’টি বাসভবন ছাড়াও ডাক্তার ও নার্স ডরমেটরী এবং হাসপাতালের মূল ভবনের সম্প্রসারিত অংশ অনেক আগেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

হাসপাতালের তৎকালীন প্রকল্প পরিচালক ডা, কামরুল হক বলেন, ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর তিনি গণপূর্ত বিভাগের কাছ থেকে ওই দু’টি বাসভবনসহ হাসপাতালের ৫ম তলার সম্প্রসারিত অংশ বুঝে নেন। এরপর তিনি প্রকল্প পরিচালকের দায়িত্ব ছেড়ে দিলেও সেই থেকে এখন পর্যন্ত কোন পরিচালক-উপপরিচালক ভবন দু’টি ব্যবহার করেননি। তবে ডাক্তার ও নার্স ডরমেটরীতে অনেকেই বসবাস করছেন।

হাসপাতালের সাথে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ভবন দু’টি হস্তান্তরের পর শুরুতেই পরিচালক ছিলেন অধ্যাপক ডা, বিধান চন্দ্র গোস্বামী। তিনি আগে থেকেই বাইরে অবস্থান করছিলেন তাই চাকরী জীবনের শেষে এসে আর ওই ভবনে ওঠেননি। এরপর তিনি অবসরে গেলে সেখানে কিছুদিন ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন বর্তমান উপ-পরিচালক ডা. এসএম মোর্শেদ। পরে সেখানে যোগ দেন বর্তমান পরিচালক মুন্সি মো. রেজা সেকেন্দার। কিন্তু রেজা সেকেন্দারও ওই ভবনে না উঠে পাশের ডাক্তার ডরমেটরীতে ওঠেন।

এ ব্যাপারে পরিচালক ডা. মুন্সি মো. রেজা সেকেন্দার কোন মন্তব্য করতে রাজী হননি। তবে উপ-পরিচালক ডা. এসএম মোর্শেদ বলেন, তিনি যেহেতু আগে থেকেই নিজ বাড়িতে থাকছেন যে কারণে তার জন্য নির্দিষ্ট ভবনে উঠবেন কি না সে সিদ্ধান্ত এখনও নেননি।

এ প্রসঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রটি বলছে, কোন কর্মকর্তার জন্য আবাসিক ভবন নির্দিষ্ট থাকলে তিনি সেখানে থাকেন বা না থাকেন তার বাসা ভাড়া কর্তন করতে হবে। কিন্তু আবু নাসের হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভবন দু’টি হস্তান্তরের পর থেকে এখন পর্যন্ত কোন পরিচালক ও উপ-পরিচালকের বাসা ভাড়াই কর্তন করা হয়নি।

সচেতন নাগরিক সমাজ (সনাক) খুলনার সভাপতি এড. শামীমা সুলতানা শীলু বলেন, শুধু আবু নাসের হাসপাতাল নয়, সকল প্রতিষ্ঠানেই স্বচ্ছতা থাকা উচিত। যারজন্য আবাসিক ভবন নির্দিষ্ট তাকে সেখানে থেকেই স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা উচিত।

ছবি

আম বাগানের সাথী বোরো ত্রি-ফসলের উজ্জ্বল সম্ভাবনা

ছবি

ওবায়দুল কাদেরের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অশালীন পোস্ট, নোবিপ্রবির কর্মকর্তা আটক

সীমান্ত জেলায় কঠোর লকডাউন বাড়ছে মৃত্যু-সংক্রমণ

কুমিল্লায় অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার

গোয়ালন্দে দুটি বসতঘর ছাই

চাটখিলে বাল্যবিয়ে বন্ধ করল ইউএনও

ছবি

৬ বছর শিকলবন্দী আবির অর্থাভাবে চিকিৎসা বঞ্চিত

কুয়াকাটায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

কিশোরগঞ্জে লেবুর কেজি ৩০ টাকা

নান্দাইলে ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্বার

দশমিনায় আদালত চালুর দাবিতে আইনজীবীদের মানববন্ধন

ছবি

নারায়ণপাড়া উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কার্যক্রম চলছে পরিত্যক্ত ভবনে

ছবি

এবার পাগলা মসজিদের দান সিন্দুকে ১২ বস্তা টাকা

ছবি

শিবগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের নিহত ৩

ছবি

জবির বিতর্কিত শিক্ষককে ফের অর্থ পরিচালক করার পাঁয়তারা

ছবি

ঢাকা-গাজীপুর মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট, বিপর্যস্ত জনজীবন

ছবি

খুলনায় করোনায় মৃত্যুর মিছিল থামছেই না

ছবি

কুষ্টিয়া পৌর এলাকায় আরো ৭ দিন বাড়লো কঠোর বিধিবিনিষেধ

ছবি

সামাজিক উন্নয়নে ২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

ছবি

শিশু তৃষা ধর্ষণ ও হত্যা : স্বীকারোক্তি, আলামত, প্রমাণ, তারপরও খালাস

শাজাহান খান সেনা সমর্থিত সরকারের সাথে আতাত করেছিল: মাদারীপুর আ’লীগ নেতা

ছবি

উত্তর-দক্ষিণাঞ্চলে রোগীর ভিড়, হাসপাতালে শয্যা সংকট

ঢাকায় বেড়েছে শনাক্তের হার, মৃত্যু কমেছে

ছবি

ধর্ষণ-নিপীড়নের বিচার ও পৃথক স্বাধীন ভূমি কমিশন চায় আদিবাসীরা

ছবি

সাড়ে ৮ শ’ ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবার জমিসহ বাড়ি পাচ্ছেন

ছবি

মুজিববর্ষের ঘর উদ্বোধনের আগেই ভাঙ্গন তালিকা নিয়ে বির্তক

ছবি

ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনা হলে বিচারিক তথ্য ঘরে বসেই সংগ্রহ করা যাবে: সিলেট মহানগর দায়রা জজ

ছবি

ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শ্যামলসহ পাঁচশ’ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দুটি মামলা

ছবি

সিলেটে তিন শিশু নিখোঁজ

ছবি

গাইবান্ধায় আত্মগোপনে ছিলেন আবু ত্ব-হা : পুলিশ

বেতনের দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন

জনগণকে পুলিশি সহায়তায় মোবাইল নম্বর বিতরণ

ছবি

শেরপুর পৌর শহরের প্রধান রাস্তা বেহাল জনদুর্ভোগ চরমে

মির্জাগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শ্রমিকের মৃত্যু

শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের ঘটনায় শিক্ষক গ্রেপ্তার

ছবি

চার জেলায় করোনায় মৃত্যু ৪, শনাক্ত ২৪৮

tab

বাংলাদেশ

অব্যবহৃতই থাকছে আবু নাসের হাসপাতালের পরিচালক, উপ-পরিচালকের বাসভবন

জেলা বার্তা পরিবেশক, খুলনা
image

রোববার, ০৯ মে ২০২১

খুলনার শহীদ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের পরিচালক ও উপ-পরিচালকের জন্য তৈরি বাসভবন দু’টি হস্তান্তরের প্রায় দেড়বছর পরও অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে।

ভবন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠাণ গণপূর্ত বিভাগ বলছে, আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের পরিচালক ও উপ-পরিচালকের জন্য নির্দিষ্ট দু’টি বাসভবন ছাড়াও ডাক্তার ও নার্স ডরমেটরী এবং হাসপাতালের মূল ভবনের সম্প্রসারিত অংশ অনেক আগেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

হাসপাতালের তৎকালীন প্রকল্প পরিচালক ডা, কামরুল হক বলেন, ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর তিনি গণপূর্ত বিভাগের কাছ থেকে ওই দু’টি বাসভবনসহ হাসপাতালের ৫ম তলার সম্প্রসারিত অংশ বুঝে নেন। এরপর তিনি প্রকল্প পরিচালকের দায়িত্ব ছেড়ে দিলেও সেই থেকে এখন পর্যন্ত কোন পরিচালক-উপপরিচালক ভবন দু’টি ব্যবহার করেননি। তবে ডাক্তার ও নার্স ডরমেটরীতে অনেকেই বসবাস করছেন।

হাসপাতালের সাথে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ভবন দু’টি হস্তান্তরের পর শুরুতেই পরিচালক ছিলেন অধ্যাপক ডা, বিধান চন্দ্র গোস্বামী। তিনি আগে থেকেই বাইরে অবস্থান করছিলেন তাই চাকরী জীবনের শেষে এসে আর ওই ভবনে ওঠেননি। এরপর তিনি অবসরে গেলে সেখানে কিছুদিন ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন বর্তমান উপ-পরিচালক ডা. এসএম মোর্শেদ। পরে সেখানে যোগ দেন বর্তমান পরিচালক মুন্সি মো. রেজা সেকেন্দার। কিন্তু রেজা সেকেন্দারও ওই ভবনে না উঠে পাশের ডাক্তার ডরমেটরীতে ওঠেন।

এ ব্যাপারে পরিচালক ডা. মুন্সি মো. রেজা সেকেন্দার কোন মন্তব্য করতে রাজী হননি। তবে উপ-পরিচালক ডা. এসএম মোর্শেদ বলেন, তিনি যেহেতু আগে থেকেই নিজ বাড়িতে থাকছেন যে কারণে তার জন্য নির্দিষ্ট ভবনে উঠবেন কি না সে সিদ্ধান্ত এখনও নেননি।

এ প্রসঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রটি বলছে, কোন কর্মকর্তার জন্য আবাসিক ভবন নির্দিষ্ট থাকলে তিনি সেখানে থাকেন বা না থাকেন তার বাসা ভাড়া কর্তন করতে হবে। কিন্তু আবু নাসের হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভবন দু’টি হস্তান্তরের পর থেকে এখন পর্যন্ত কোন পরিচালক ও উপ-পরিচালকের বাসা ভাড়াই কর্তন করা হয়নি।

সচেতন নাগরিক সমাজ (সনাক) খুলনার সভাপতি এড. শামীমা সুলতানা শীলু বলেন, শুধু আবু নাসের হাসপাতাল নয়, সকল প্রতিষ্ঠানেই স্বচ্ছতা থাকা উচিত। যারজন্য আবাসিক ভবন নির্দিষ্ট তাকে সেখানে থেকেই স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা উচিত।

back to top