alt

সারাদেশ

করোনার নতুন ধরনে উদ্বেগ

সবাইকে সতর্ক থাকতে বললেন বিশেষজ্ঞরা

রাকিব উদ্দিন : শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১

করোনাভাইরাসের ‘ডেল্টা’ ধরনের চেয়েও ‘ওমিক্রন’ অধিক সংক্রামক বলে বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা। এটি বিশ্বব্যাপী উদ্বেগ ছড়াচ্ছে। বিভিন্ন দেশে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে নতুন ধরনটি। ওমিক্রন আতঙ্কে দেশে দেশে ফের শুরু হয়েছে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা।

বিশ্বের প্রায় সব দেশের সঙ্গেই বর্তমানে বাংলাদেশের যোগাযোগের পথ উন্মুক্ত থাকায় এখানেও ‘ওমিক্রন’ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি রয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তারা বলেন, ‘ওমিক্রন’ সম্পর্কে বিস্তারিত জানার আগ পর্যন্ত এটি ঠেকানোর মূল উপায় হলো- স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

গত ২৪ নভেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার নতুন ধরন শনাক্তের ঘোষণা দেয়। ডব্লিউএইচও এর নাম দেয় ‘ওমিক্রন’ এবং এটির বৈজ্ঞানিক নাম রাখা হয়েছে ‘বি.১.১.৫২৯’।

২৬ নভেম্বর এক জরুরি বৈঠক ডাকে ডব্লিএইচও। পরে করোনার নতুন এই ধরন ‘উদ্বেগজনক’ বলে জানানো হয়। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা বলছেন, তারা ভাইরাসের নতুন ধরনটির বিষয়ে আরও জানার চেষ্টা করছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরনটি ব্যাপকভাবে মিউটেট (আচরণ পরিবর্তন) করেছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার সেন্টার ফর এপিডেমিক রেসপন্স অ্যান্ড ইনোভেশনের পরিচালক টুলিও ডি অলিভিয়েরা গণমাধ্যমকে বলেছেন, এই ভ্যারিয়েন্টের ‘মিউটেশনের ধারা অস্বাভাবিক’ এবং অন্যান্য ভ্যারিয়েন্ট থেকে এটি ‘অনেক ভিন্ন’। তার কথায়, ‘এই ভ্যারিয়েন্ট আমাদের অবাক করেছে। বিবর্তনের হিসেবে এবং পরবর্তী মিউটেশনের হিসেব করলে এটি কয়েক ধাপ লাফ দিয়েছে।’

করোনার ‘ওমিক্রন’ ভ্যারিয়েন্টের বিস্তার ঠেকাতে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে যোগাযোগ স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ। শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকালে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় অনুষ্ঠিতব্য ‘ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলি সেকেন্ড স্পেশাল সেশন’-এ অংশ নিতে যাত্রাকালে এক অডিও বার্তায় এ কথা জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী এক বিবৃতিতে বলেন, সম্প্রতি আফ্রিকাসহ ইউরোপের কিছু দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ওমিক্রন নামক করোনার নতুন একটি ভ্যারিয়েন্ট। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অবগত রয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হচ্ছে। এই ভাইরাসটি করোনার অন্যান্য ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় কিছুটা বেশি ‘এগ্রেসিভ’।

জানতে চাইলে সরকারের ‘রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. তাহমিনা শিরিন সংবাদকে বলেন, ‘যেকোন ভাইরাস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে গবেষণা প্রয়োজন। স্বাভাবিকভাবেই করোনার ‘ওমিক্রন’ ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কে জানতেও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। আমরা সতর্ক আছি, খোঁজখবর রাখছি।’

বাংলাদেশে ‘ওমিক্রন’ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই এখানে সম্ভাবনা আছে, ঝুঁকি আছে। কারণ সব দেশের সঙ্গেই এখনও আমাদের যোগাযোগ উন্মুক্ত রয়েছে। এই অবস্থায় সবচেয়ে জরুরি উপায় হলো- সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।’

আফ্রিকার সঙ্গে স্থগিত হচ্ছে যোগাযোগ

ওমিক্রন নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে দেশবাসীকে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘আফ্রিকার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ স্থগিত করা হচ্ছে। সব বিমানবন্দর, স্থলবন্দর বা দেশের সব প্রবেশপথে স্ক্রিনিং আরও জোরদার করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সারাদেশে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলতে ও মাস্ক পরতে জেলা প্রশাসনকে নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে।’

মন্ত্রী জানান, বিশ্বের আক্রান্ত অন্যান্য জায়গা থেকেও যারা আসবে তাদের বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। স্ক্রিনিং ছাড়া যেন আক্রান্ত দেশের কোন ব্যক্তি দেশে প্রবেশ করতে না পারে সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শাখাগুলোকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

যেসব দেশে ওমিক্রন শনাক্ত

ওমিক্রন বি.১.১.৫২৯ নামের ‘ভ্যারিয়েন্টটি’ বা ধরনটি করোনার সবচেয়ে বেশিবার জিন বদলানো সংস্করণ। এখন পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা ও হংকংয়ে মোট ৫৯ জনের শরীরে ‘ওমিক্রন’র সংক্রমণ শনাক্তের তথ্য পাওয়া গেছে। এছাড়া ইসরায়েল ও ইউরোপের দেশ বেলজিয়ামে ‘ওমিক্রন’ শনাক্ত হয়েছে।

ইসরায়েল জানিয়েছে, মালাবি ফেরত একজনের শরীরে করোনার এ ধরন শনাক্ত হওয়ার পরে আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলে নাগরিকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে তারা।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর বরাত দিয়ে তার দপ্তরের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বর্তমানে আমরা জরুরি অবস্থার দ্বারপ্রান্তে রয়েছি। আমাদের মূল নীতি হলো দ্রুত, বলিষ্ঠভাবে ও এখনই পদক্ষেপ নেয়া।’

করোনার ‘ডেল্টা’ (ভারত) ধরনের প্রাদুর্ভাবে ইউরোপের দেশগুলোতে বর্তমানে ভাইরাসটির চতুর্থ ঢেউ চলছে। বাংলাদেশেও ডেল্টার প্রভাবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয় গত মার্চের শুরুতে। দেশে এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণের পথে রয়েছে ডেল্টা।

ওমিক্রন আতঙ্কে এরই মধ্যে বিধিনিষেধ জোরালো পদক্ষেপের পাশাপাশি টিকার বুস্টার ডোজ দেয়ার কার্যক্রম সম্প্রসারণ করেছে ইউরোপের দেশগুলো। সেখানকার অনেক দেশেই দৈনিক সংক্রমণের রেকর্ড হচ্ছে।

‘ওমিক্রন’ নিষেধাজ্ঞায় বিভিন্ন দেশ

করোনার ‘ওমিক্রন’ ধরন শনাক্ত হওয়ার পর আবার ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ও কোয়ারেন্টিনের বিধিনিষেধ আরোপ হচ্ছে বিশ্বব্যাপী। ইতোমধ্যে যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর ও জাপান কোয়ারেন্টিন জোরদারের পাশাপাশি দক্ষিণ আফ্রিকা ও আশপাশের দেশগুলো থেকে ফ্লাইট নিষিদ্ধ করেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭টি দেশের জোটের নির্বাহী বিভাগ ইউরোপিয়ান কমিশন করোনার নতুন ধরনের ঝুঁকি সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু না জানা পর্যন্ত অঞ্চলটির দেশগুলোর সঙ্গে স্থায়ী ফ্লাইট নিষিদ্ধের প্রস্তাব করেছে। ‘লকডাউন’র চিন্তা করছে অনেক দেশ।

দক্ষিণ আফ্রিকাসহ ৭টি দেশের ওপর ভ্রমণ সীমিত করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। স্থানীয় সময় আগামীকাল (২৯ নভেম্বর) থেকে শুধু যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক ও বাসিন্দারা ওই অঞ্চল থেকে ফিরতে পারবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, লেসোথো, ইসোয়াতিনি, মোজাম্বিক থেকে ফ্লাইট বন্ধ করা হবে। তবে এসব দেশ থেকে পরোক্ষভাবে ট্রানজিট ভিসা ব্যবহার করে যেতে পারবেন ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিশরে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এক বিবৃতিতে একে ‘সতর্কতামূলক ব্যবস্থা’ বলে জানিয়েছেন।

যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে ফ্লাইট বন্ধের কড়া নিয়ম জারি করা হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ও প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল করেছে ব্রিটেন। ওইসব দেশ থেকে আসা ব্রিটিশ ভ্রমণকারীদেরও কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেছেন, করোনার নতুন ধরনটি নিয়ে ব্যাপক আন্তর্জাতিক উদ্বেগ রয়েছে। যদিও এখন পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে নতুন ধরনটি কারও শনাক্ত হয়নি।

কানাডাও দেশটি থেকে ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারি করেছে। এছাড়া ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিশর আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের ৭টি দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। সরাসরি আফ্রিকার এসব দেশ থেকে কেউ ভ্রমণ করতে পারবেন না। এর আগে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও ভারত বিধিনিষেধ বাড়ানোর কথা জানিয়েছে।

এ পরিস্থিতিতে গত ১৪ দিনে আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশগুলো ভ্রমণ করে আসা ব্যক্তিদের ওপর ইতালিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকাকে ভাইরাসের নতুন ধরনের এলাকা (ভাইরাস ভেরিয়েন্ট এরিয়া) ঘোষণা করেছে জার্মানি।

দক্ষিণ আফ্রিকাসহ অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ দেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের পরীক্ষা ও নজরদারিতে রাখতে রাজ্য সরকারগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকাসহ পাঁচটি আফ্রিকান দেশ থেকে ভ্রমণকারীদের জন্য সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করেছে জাপান। সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আফ্রিকার ওই অঞ্চল থেকে লোকজন আসায় বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দিয়েছে।

তবে ‘ওমিক্রন’ নিয়ে উদ্বেগ থেকে এখনই তড়িঘড়ি ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থাটি জানিয়েছে, ধরনটির সংক্রমণের ক্ষমতা এবং শারীরিক জটিলতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে সম্ভাব্য পরিবর্তন নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে।

বিজ্ঞানীরা যা বলছেন

বিজ্ঞানীরা এখনও করোনার ‘ওমিক্রন’ ধরন সম্পর্ক খুব বেশি জানতে পারেননি। তবে তাদের সতর্কবার্তা, এটা খুবই উদ্বেগের। ‘ওমিক্রন’ কতটা সংক্রামক, তা বোঝার চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এটা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পেতে কয়েক সপ্তাহ লেগে যাবে।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সংস্থা বলেছে, ‘ওমিক্রন’ ধরনে যে স্পাইক প্রোটিন রয়েছে, সেটি মূল করোনাভাইরাসের স্পাইক প্রোটিন থেকে ভিন্ন। ওই স্পাইক প্রোটিনকে বিবেচনায় নিয়েই করোনার টিকাগুলো তৈরি করা হয়েছে। সে কারণে এসব টিকা করোনার নতুন ধরনটি প্রতিরোধে কার্যকর হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনার নতুন ধরনের নাম দিয়েছে ‘ওমিক্রন’। ধরনটিকে ‘উদ্বেগজনক’ বলে আখ্যায়িত করে সংস্থাটি জানিয়েছে, এ ধরনটি নিয়ে এখন পর্যন্ত ডব্লিউএইচওর হাতে আসা নানা প্রমাণ করোনা মহামারী ক্ষতিকর দিকে মোড় নেয়ার আভাস দিচ্ছে।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা সংস্থার শীর্ষ মেডিকেল উপদেষ্টা ড. সুসান হপকিন্স বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হওয়া করোনার নতুন ধরনটি ভয়াবহ।

হপকিন্স বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় এখন দৈনিক খুব অল্প পরিমাণে আক্রান্ত শনাক্ত হচ্ছে। কিন্তু দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সেখানে মহামারীগত চিত্র দ্বিগুণ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘তারা বলছে, সংক্রমণের হার আর ভ্যালু এখন ২। এটি অনেক বেশি। মহামারীর শুরু থেকে এখন পর্যন্ত’ এমন সংক্রমণ আমরা দেখিনি। সংক্রমণের হার যদি বেশি থাকে তাহলে সমস্যা।

যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রাভি গুপ্তা বলেন, ‘বেটা শুধু ইমিউন সিস্টেমকে ফাঁকি দিতো, আর কিছু না। ডেল্টার সংক্রমণের ক্ষমতা ছিল বেশি। নতুন ভ্যারিয়েন্টের এই দুই ধরনের ক্ষতি করারই সামর্থ্য রয়েছে।’

২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়। এরপর সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে এর সংক্রমণ। এরই মধ্যে বিশ্বের ২৬ কোটি ১১ লাখ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং প্রাণ হারিয়েছেন ৫২ লাখ দশ হাজারের বেশি মানুষ।

ছবি

পশ্চিমাঞ্চল রেল : লেভেল ক্রসিং যেন মরণফাঁদ

ছবি

পরীক্ষা কমেছে, শনাক্ত কমেছে, হারও কমেছে

করোনা সংক্রমণের হার বেড়েই চলেছে

হাসপাতাল থেকে ক্লিনিকে রোগী পাঠিয়ে ভুল অস্ত্রোপচারের অভিযোগ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে

দুর্গাপুরে লিজপ্রাপ্ত সম্পত্তি দখল চেষ্টার অভিযোগ

ছবি

পুলিশে যুক্ত হচ্ছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স: আইজিপি

রংপুর ভিকটিম সেন্টারে তরুণীর আত্মহত্যা, প্রেমিক গ্রেপ্তার

ছবি

চাঁপাইয়ে দুটি পৌর সড়কে অসংখ্য গর্ত : নিত্য দুর্ঘটনা

ক্লিনিকে অবহেলায় নবজাতক মৃত্যুর অভিযোগ

ছবি

সুফিয়ান হত্যা: অগ্রগতি নেই তদন্তে, গ্রেফতার নেই এক সপ্তাহেও

কুষ্টিয়ায় অসুস্থ বৃদ্ধার পাশে ইউএনও

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ৫ বছরে ঝরেছে ২৪৯ প্রাণ

ছবি

শাবিপ্রবির আটক সাবেক ৫ শিক্ষার্থীর জামিন

ছবি

শাবির ঘটনায় পুলিশের দায় থাকলে ব্যবস্থা

ছবি

বগুড়ায় বাসচাপায় অটোরিকশা চালকসহ নিহত ৫

ছবি

মাঘের বিকেলে রাজধানীতে মুষলধারে বৃষ্টি

ওয়াচ ইউকের অর্থ পেল দগ্ধ ৩০ জন

নবাবগঞ্জে নতুন শনাক্ত ২৭

ঝালকাঠিতে করোনা আক্রান্ত ১৪

কিশোরগঞ্জে একাদশের শিক্ষার্থীদের টিকাদান কার্যক্রম শুরু

মাছ রক্ষায় জলমহাল ইজারা ১০ বছরে ২ বছর বন্ধের দাবি

ফকিরহাটে কৃষক হত্যা হত্যাকারী শনাক্ত গ্রেপ্তার নেই

ছবি

ভাসমান বাগানে সজীব বাঁধাকপি

ছবি

সিংগাইরে যত্রতত্র ইটভাটা, হুমকিতে ফসল-জনস্বাস্থ্য

ছবি

কুষ্টিয়ায় তীব্র নদী ভাঙন প্রতিদিন বিলীন ৭০ মি.

বড়াল সচলে ১১৭৮ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের উদ্যোগ

ছবি

উপরমহলের অনুরোধে এসেছি, আশা করি কথা রাখবেনঃ জাফর ইকবাল

ছবি

পুলিশ সদস্যের বাড়ি থেকে কষ্টিমূর্তি উদ্ধার, গ্রেফতার ২

ছবি

ঢাকায় ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপন

ছবি

সুনামগঞ্জে ট্রাক্টরচাপায় চালক নিহত

ছবি

একই পরিবারের চারজনকে কুপিয়ে আহত

ছবি

বরেন্দ্র এক্সপ্রেসের ধাক্কা, প্রাণ গেলো ৩ শ্রমিকের

ছবি

করোনা : একদিনে শনাক্ত ১৬ হাজার ছাড়ালো

ছবি

ইউরোপ যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগরে ৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

ছবি

চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রেলপথে নতুন ইঞ্জিনের ট্রায়াল;নতুন ট্রেন পাওয়ার সম্ভাবনা!

ছবি

কক্সবাজারে সড়ক নির্মাণে ধীরগতি

tab

সারাদেশ

করোনার নতুন ধরনে উদ্বেগ

সবাইকে সতর্ক থাকতে বললেন বিশেষজ্ঞরা

রাকিব উদ্দিন

শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১

করোনাভাইরাসের ‘ডেল্টা’ ধরনের চেয়েও ‘ওমিক্রন’ অধিক সংক্রামক বলে বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা। এটি বিশ্বব্যাপী উদ্বেগ ছড়াচ্ছে। বিভিন্ন দেশে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে নতুন ধরনটি। ওমিক্রন আতঙ্কে দেশে দেশে ফের শুরু হয়েছে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা।

বিশ্বের প্রায় সব দেশের সঙ্গেই বর্তমানে বাংলাদেশের যোগাযোগের পথ উন্মুক্ত থাকায় এখানেও ‘ওমিক্রন’ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি রয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তারা বলেন, ‘ওমিক্রন’ সম্পর্কে বিস্তারিত জানার আগ পর্যন্ত এটি ঠেকানোর মূল উপায় হলো- স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

গত ২৪ নভেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার নতুন ধরন শনাক্তের ঘোষণা দেয়। ডব্লিউএইচও এর নাম দেয় ‘ওমিক্রন’ এবং এটির বৈজ্ঞানিক নাম রাখা হয়েছে ‘বি.১.১.৫২৯’।

২৬ নভেম্বর এক জরুরি বৈঠক ডাকে ডব্লিএইচও। পরে করোনার নতুন এই ধরন ‘উদ্বেগজনক’ বলে জানানো হয়। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা বলছেন, তারা ভাইরাসের নতুন ধরনটির বিষয়ে আরও জানার চেষ্টা করছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরনটি ব্যাপকভাবে মিউটেট (আচরণ পরিবর্তন) করেছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার সেন্টার ফর এপিডেমিক রেসপন্স অ্যান্ড ইনোভেশনের পরিচালক টুলিও ডি অলিভিয়েরা গণমাধ্যমকে বলেছেন, এই ভ্যারিয়েন্টের ‘মিউটেশনের ধারা অস্বাভাবিক’ এবং অন্যান্য ভ্যারিয়েন্ট থেকে এটি ‘অনেক ভিন্ন’। তার কথায়, ‘এই ভ্যারিয়েন্ট আমাদের অবাক করেছে। বিবর্তনের হিসেবে এবং পরবর্তী মিউটেশনের হিসেব করলে এটি কয়েক ধাপ লাফ দিয়েছে।’

করোনার ‘ওমিক্রন’ ভ্যারিয়েন্টের বিস্তার ঠেকাতে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে যোগাযোগ স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ। শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকালে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় অনুষ্ঠিতব্য ‘ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলি সেকেন্ড স্পেশাল সেশন’-এ অংশ নিতে যাত্রাকালে এক অডিও বার্তায় এ কথা জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী এক বিবৃতিতে বলেন, সম্প্রতি আফ্রিকাসহ ইউরোপের কিছু দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ওমিক্রন নামক করোনার নতুন একটি ভ্যারিয়েন্ট। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অবগত রয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হচ্ছে। এই ভাইরাসটি করোনার অন্যান্য ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় কিছুটা বেশি ‘এগ্রেসিভ’।

জানতে চাইলে সরকারের ‘রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. তাহমিনা শিরিন সংবাদকে বলেন, ‘যেকোন ভাইরাস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে গবেষণা প্রয়োজন। স্বাভাবিকভাবেই করোনার ‘ওমিক্রন’ ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কে জানতেও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। আমরা সতর্ক আছি, খোঁজখবর রাখছি।’

বাংলাদেশে ‘ওমিক্রন’ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই এখানে সম্ভাবনা আছে, ঝুঁকি আছে। কারণ সব দেশের সঙ্গেই এখনও আমাদের যোগাযোগ উন্মুক্ত রয়েছে। এই অবস্থায় সবচেয়ে জরুরি উপায় হলো- সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।’

আফ্রিকার সঙ্গে স্থগিত হচ্ছে যোগাযোগ

ওমিক্রন নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে দেশবাসীকে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘আফ্রিকার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ স্থগিত করা হচ্ছে। সব বিমানবন্দর, স্থলবন্দর বা দেশের সব প্রবেশপথে স্ক্রিনিং আরও জোরদার করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সারাদেশে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলতে ও মাস্ক পরতে জেলা প্রশাসনকে নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে।’

মন্ত্রী জানান, বিশ্বের আক্রান্ত অন্যান্য জায়গা থেকেও যারা আসবে তাদের বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। স্ক্রিনিং ছাড়া যেন আক্রান্ত দেশের কোন ব্যক্তি দেশে প্রবেশ করতে না পারে সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শাখাগুলোকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

যেসব দেশে ওমিক্রন শনাক্ত

ওমিক্রন বি.১.১.৫২৯ নামের ‘ভ্যারিয়েন্টটি’ বা ধরনটি করোনার সবচেয়ে বেশিবার জিন বদলানো সংস্করণ। এখন পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা ও হংকংয়ে মোট ৫৯ জনের শরীরে ‘ওমিক্রন’র সংক্রমণ শনাক্তের তথ্য পাওয়া গেছে। এছাড়া ইসরায়েল ও ইউরোপের দেশ বেলজিয়ামে ‘ওমিক্রন’ শনাক্ত হয়েছে।

ইসরায়েল জানিয়েছে, মালাবি ফেরত একজনের শরীরে করোনার এ ধরন শনাক্ত হওয়ার পরে আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলে নাগরিকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে তারা।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর বরাত দিয়ে তার দপ্তরের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বর্তমানে আমরা জরুরি অবস্থার দ্বারপ্রান্তে রয়েছি। আমাদের মূল নীতি হলো দ্রুত, বলিষ্ঠভাবে ও এখনই পদক্ষেপ নেয়া।’

করোনার ‘ডেল্টা’ (ভারত) ধরনের প্রাদুর্ভাবে ইউরোপের দেশগুলোতে বর্তমানে ভাইরাসটির চতুর্থ ঢেউ চলছে। বাংলাদেশেও ডেল্টার প্রভাবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয় গত মার্চের শুরুতে। দেশে এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণের পথে রয়েছে ডেল্টা।

ওমিক্রন আতঙ্কে এরই মধ্যে বিধিনিষেধ জোরালো পদক্ষেপের পাশাপাশি টিকার বুস্টার ডোজ দেয়ার কার্যক্রম সম্প্রসারণ করেছে ইউরোপের দেশগুলো। সেখানকার অনেক দেশেই দৈনিক সংক্রমণের রেকর্ড হচ্ছে।

‘ওমিক্রন’ নিষেধাজ্ঞায় বিভিন্ন দেশ

করোনার ‘ওমিক্রন’ ধরন শনাক্ত হওয়ার পর আবার ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ও কোয়ারেন্টিনের বিধিনিষেধ আরোপ হচ্ছে বিশ্বব্যাপী। ইতোমধ্যে যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর ও জাপান কোয়ারেন্টিন জোরদারের পাশাপাশি দক্ষিণ আফ্রিকা ও আশপাশের দেশগুলো থেকে ফ্লাইট নিষিদ্ধ করেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭টি দেশের জোটের নির্বাহী বিভাগ ইউরোপিয়ান কমিশন করোনার নতুন ধরনের ঝুঁকি সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু না জানা পর্যন্ত অঞ্চলটির দেশগুলোর সঙ্গে স্থায়ী ফ্লাইট নিষিদ্ধের প্রস্তাব করেছে। ‘লকডাউন’র চিন্তা করছে অনেক দেশ।

দক্ষিণ আফ্রিকাসহ ৭টি দেশের ওপর ভ্রমণ সীমিত করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। স্থানীয় সময় আগামীকাল (২৯ নভেম্বর) থেকে শুধু যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক ও বাসিন্দারা ওই অঞ্চল থেকে ফিরতে পারবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, লেসোথো, ইসোয়াতিনি, মোজাম্বিক থেকে ফ্লাইট বন্ধ করা হবে। তবে এসব দেশ থেকে পরোক্ষভাবে ট্রানজিট ভিসা ব্যবহার করে যেতে পারবেন ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিশরে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এক বিবৃতিতে একে ‘সতর্কতামূলক ব্যবস্থা’ বলে জানিয়েছেন।

যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে ফ্লাইট বন্ধের কড়া নিয়ম জারি করা হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ও প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল করেছে ব্রিটেন। ওইসব দেশ থেকে আসা ব্রিটিশ ভ্রমণকারীদেরও কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেছেন, করোনার নতুন ধরনটি নিয়ে ব্যাপক আন্তর্জাতিক উদ্বেগ রয়েছে। যদিও এখন পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে নতুন ধরনটি কারও শনাক্ত হয়নি।

কানাডাও দেশটি থেকে ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারি করেছে। এছাড়া ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিশর আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের ৭টি দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। সরাসরি আফ্রিকার এসব দেশ থেকে কেউ ভ্রমণ করতে পারবেন না। এর আগে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও ভারত বিধিনিষেধ বাড়ানোর কথা জানিয়েছে।

এ পরিস্থিতিতে গত ১৪ দিনে আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশগুলো ভ্রমণ করে আসা ব্যক্তিদের ওপর ইতালিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকাকে ভাইরাসের নতুন ধরনের এলাকা (ভাইরাস ভেরিয়েন্ট এরিয়া) ঘোষণা করেছে জার্মানি।

দক্ষিণ আফ্রিকাসহ অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ দেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের পরীক্ষা ও নজরদারিতে রাখতে রাজ্য সরকারগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকাসহ পাঁচটি আফ্রিকান দেশ থেকে ভ্রমণকারীদের জন্য সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করেছে জাপান। সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আফ্রিকার ওই অঞ্চল থেকে লোকজন আসায় বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দিয়েছে।

তবে ‘ওমিক্রন’ নিয়ে উদ্বেগ থেকে এখনই তড়িঘড়ি ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থাটি জানিয়েছে, ধরনটির সংক্রমণের ক্ষমতা এবং শারীরিক জটিলতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে সম্ভাব্য পরিবর্তন নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে।

বিজ্ঞানীরা যা বলছেন

বিজ্ঞানীরা এখনও করোনার ‘ওমিক্রন’ ধরন সম্পর্ক খুব বেশি জানতে পারেননি। তবে তাদের সতর্কবার্তা, এটা খুবই উদ্বেগের। ‘ওমিক্রন’ কতটা সংক্রামক, তা বোঝার চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, এটা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পেতে কয়েক সপ্তাহ লেগে যাবে।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সংস্থা বলেছে, ‘ওমিক্রন’ ধরনে যে স্পাইক প্রোটিন রয়েছে, সেটি মূল করোনাভাইরাসের স্পাইক প্রোটিন থেকে ভিন্ন। ওই স্পাইক প্রোটিনকে বিবেচনায় নিয়েই করোনার টিকাগুলো তৈরি করা হয়েছে। সে কারণে এসব টিকা করোনার নতুন ধরনটি প্রতিরোধে কার্যকর হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনার নতুন ধরনের নাম দিয়েছে ‘ওমিক্রন’। ধরনটিকে ‘উদ্বেগজনক’ বলে আখ্যায়িত করে সংস্থাটি জানিয়েছে, এ ধরনটি নিয়ে এখন পর্যন্ত ডব্লিউএইচওর হাতে আসা নানা প্রমাণ করোনা মহামারী ক্ষতিকর দিকে মোড় নেয়ার আভাস দিচ্ছে।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা সংস্থার শীর্ষ মেডিকেল উপদেষ্টা ড. সুসান হপকিন্স বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হওয়া করোনার নতুন ধরনটি ভয়াবহ।

হপকিন্স বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় এখন দৈনিক খুব অল্প পরিমাণে আক্রান্ত শনাক্ত হচ্ছে। কিন্তু দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সেখানে মহামারীগত চিত্র দ্বিগুণ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘তারা বলছে, সংক্রমণের হার আর ভ্যালু এখন ২। এটি অনেক বেশি। মহামারীর শুরু থেকে এখন পর্যন্ত’ এমন সংক্রমণ আমরা দেখিনি। সংক্রমণের হার যদি বেশি থাকে তাহলে সমস্যা।

যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রাভি গুপ্তা বলেন, ‘বেটা শুধু ইমিউন সিস্টেমকে ফাঁকি দিতো, আর কিছু না। ডেল্টার সংক্রমণের ক্ষমতা ছিল বেশি। নতুন ভ্যারিয়েন্টের এই দুই ধরনের ক্ষতি করারই সামর্থ্য রয়েছে।’

২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়। এরপর সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে এর সংক্রমণ। এরই মধ্যে বিশ্বের ২৬ কোটি ১১ লাখ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং প্রাণ হারিয়েছেন ৫২ লাখ দশ হাজারের বেশি মানুষ।

back to top