alt

সারাদেশ

গণহত্যা দিবস এলেই হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয় : চসিক মেয়র

চট্টগ্রাম ব্যুরো : মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, নব্বইয়ের স্বৈরাচার পতনের মাত্র দুইবছর আগে বীর চট্টল্লার মাটি রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল। সেদিন বীর শহীদদের অপরাধ ছিল স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠা গণতন্ত্র কামী জনতার সমাবেশে তারা অংশ নিয়েছিল। স্বৈরাচারী এরশাদ ভেবেছিল জনতার রক্তে থমকে যাবে সব প্রতিরোধ। কিন্তু মাত্র দুই বছরের মাথায় তাকে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য করেছিল দামাল জনতা। ২৪ জানুয়ারি তাই যতবার আসে ততবারই জাতির বিবেকবান হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়। সেদিনের ভয়াবহতা ও মানুষের আহাজারী কখনও স্মৃতি থেকে মুছে যাওয়ার মতো নয়।

যারা সেদিন বুকের তাজা রক্ত ঢেলে আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছিল দীর্ঘ ৩৩ বছর পর তাদের বিচারের রায় ঘোষিত হয়েছে। আদালত রায়ে এটাকে পরিকল্পিত গণহত্যা বলে পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন। সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সকালে চট্টগ্রাম কোর্টহিল চত্ত্বরে ১৯৮৮ সনের ২৪ জানুয়ারি জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রাণ নাশের প্রচেষ্টায় সংগঠিত ঐতিহাসিক চট্টগ্রামের গণহত্যা দিবসে শহীদ বেদীতে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর আবদুস সালাম মাসুম, অধ্যাপক মো. ইসমাইল, হাসান মুরাদ বিপ্লব, ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী, শৈবাল দাশ সুমন, আতাউল্লাহ চৌধুরী, মো. ইলিয়াছ, গোলাম মো. জোবায়ের, নূর মোস্তফা টিনু, সংরক্ষিত কাউন্সিলর নীলু নাগ, আঞ্জুমান আরা, শাহীন আক্তার রোজী প্রমুখ।

মেয়র আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বহুবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছেন, চেষ্টা হয়েছে বারবার তাকে হত্যা করার। তার সাহসিকতা ও দৃঢ় সংকল্প তাকে আজ অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছে। দীর্ঘ ৩৪ বছর আগের এই ঘটনায় ২৪ জন মুহূর্তের মধ্যে নিহত হন এবং ২ শতাধিক নেতা কর্মী আহত হন এটি ছিল গণহত্যা। তার ত্যাগ তিতিক্ষা, কঠিন অধ্যবসায়, অবিচল নিষ্ঠা ও দৃঢ় সংকল্পে আজ বিশ্বে বাংলাদেশ এক আলোচিত নাম। মানবিক, উন্নয়নশীল ও অসীম সম্ভাবনার দেশ এবং উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত। তিনি শুধু প্রধানমন্ত্রী নন, তিনি বয়ে চলেছেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন এবং তার দায়ভার। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশকে উন্নত দেশে রূপান্তরের জন্য তিনি দলমত নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। মেয়র বর্তমান করোনার নতুন ধরণ ওমিক্রণ সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় সবাইকে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে এবং ভ্যাক্সিন গ্রহণ করে নিজে ও অন্যের সুরক্ষার বিষয়ে পরামর্শ দেন।

ছবি

নরসিংদীতে নির্বাচনী সংঘাতে আহত ১৫

ছবি

উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সাথে ট্রেন চলাচল শুরু

অহিংস অগ্নিযাত্রা : তরুণীকে হেনস্থার প্রতিবাদ

ছবি

ভরা মৌসুমে ধান সরবরাহ কম, বাড়ছে দাম

ছবি

তারেককে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে: তথ্যমন্ত্রী

ছবি

‘যারা দেশের টাকা পাচার করেছে তাদের নামের তালিকা করা হচ্ছে’

ছবি

শহরের মুদি দোকানগুলো বাকিতে পণ্য বিক্রি বন্ধ করায় দুর্দশায় ক্রেতারা

ছবি

খুলনা-কলকাতা রুটে রোববার থেকে চলবে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’

ছবি

‘জাতীয়ভাবে এমন উদ্যোগ নিতে হবে যেন আমাদের সন্তানেরা থাকে নিরাপদে’

ছবি

আজ আসছে খিরসাপাত, আমের বাজার চড়া

ছবি

আশ্রয়ণ প্রকল্প নিয়ে দুর্নীতি করলেই ব্যবস্থা: আইনমন্ত্রী

ছবি

ফরিদপুরের নগরকান্দায় রাতের আঁধারে সরকারি পুকুর দখল

ছবি

প্রধান শিক্ষকের ‘স্বেচ্ছাচারিতা’, বিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত

ছবি

প্রশিক্ষণে নেদারল্যান্ডস গিয়ে ‘নিখোঁজ’ ২ পুলিশ

বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ স্মরণে সভা

শটসার্কিটের আগুনে দগ্ধ শিশুসহ দুজন

২ জেলায় হামলা-সংঘর্ষে নিহত দুই, গ্রেপ্তার সাত

ছবি

হাতির ভয় দেখিয়ে মাহুতের চাঁদাবাজি

বগুড়ায় জাল টাকা ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার চারজন

তিন দিন পর উল্টো লুটপাটের মামলা

বান্দরবানে পর্যটকবাহী মাইক্রো খাদে : নিহত ৩

হাতিয়ায় ১৭ জেলেকে অর্থদন্ড

ছবি

পদ্মায় বিলীন কয়েকশ’ একর ফসলি জমি

ছবি

মিরসরাইয়ে র‍্যাবের ওপর হামলার ঘটনায় গ্রেপ্তার ১৩

ছবি

হরিরামপুরে পদ্মায় বিলীন কাঞ্চনপুরের দুই তৃতীয়াংশ

সাভারে অনিবন্ধিত দুই হাসপাতাল সিলগালা

কুমিল্লায় রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়েছে

কুমিল্লায় ট্রেন লাইনচ্যুত, সিলেট-চট্টগ্রামের ট্রেন বন্ধ

রংপুরে শিশু ধর্ষণ মামলায় ইমামের যাবজ্জীবন

ছবি

করোনা চিকিৎসায় বিবাহিত স্বাস্থ্যকর্মীরা বেশী মানসিক রোগে আক্রান্ত

ছবি

তেজগাঁও ট্রাকে পিষ্ট হয়ে শিশু নিহত

ছবি

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, খোয়ালেন টাকা-মোবাইল

ছবি

বিদ্যুৎপৃষ্টে প্রাণ গেল ছাত্রলীগ নেতার, আহত ২

বাঁশকালীতে জমি বিবাদে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের শঙ্কা

পাকুন্দিয়ায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

ছবি

অবৈধ অটোরিকশার চোখ ধাঁধাঁনো এলইডির আলোতে বাড়ছে দুর্ঘটনা

tab

সারাদেশ

গণহত্যা দিবস এলেই হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয় : চসিক মেয়র

চট্টগ্রাম ব্যুরো

মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, নব্বইয়ের স্বৈরাচার পতনের মাত্র দুইবছর আগে বীর চট্টল্লার মাটি রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল। সেদিন বীর শহীদদের অপরাধ ছিল স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠা গণতন্ত্র কামী জনতার সমাবেশে তারা অংশ নিয়েছিল। স্বৈরাচারী এরশাদ ভেবেছিল জনতার রক্তে থমকে যাবে সব প্রতিরোধ। কিন্তু মাত্র দুই বছরের মাথায় তাকে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য করেছিল দামাল জনতা। ২৪ জানুয়ারি তাই যতবার আসে ততবারই জাতির বিবেকবান হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়। সেদিনের ভয়াবহতা ও মানুষের আহাজারী কখনও স্মৃতি থেকে মুছে যাওয়ার মতো নয়।

যারা সেদিন বুকের তাজা রক্ত ঢেলে আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছিল দীর্ঘ ৩৩ বছর পর তাদের বিচারের রায় ঘোষিত হয়েছে। আদালত রায়ে এটাকে পরিকল্পিত গণহত্যা বলে পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন। সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সকালে চট্টগ্রাম কোর্টহিল চত্ত্বরে ১৯৮৮ সনের ২৪ জানুয়ারি জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রাণ নাশের প্রচেষ্টায় সংগঠিত ঐতিহাসিক চট্টগ্রামের গণহত্যা দিবসে শহীদ বেদীতে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর আবদুস সালাম মাসুম, অধ্যাপক মো. ইসমাইল, হাসান মুরাদ বিপ্লব, ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী, শৈবাল দাশ সুমন, আতাউল্লাহ চৌধুরী, মো. ইলিয়াছ, গোলাম মো. জোবায়ের, নূর মোস্তফা টিনু, সংরক্ষিত কাউন্সিলর নীলু নাগ, আঞ্জুমান আরা, শাহীন আক্তার রোজী প্রমুখ।

মেয়র আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বহুবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছেন, চেষ্টা হয়েছে বারবার তাকে হত্যা করার। তার সাহসিকতা ও দৃঢ় সংকল্প তাকে আজ অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছে। দীর্ঘ ৩৪ বছর আগের এই ঘটনায় ২৪ জন মুহূর্তের মধ্যে নিহত হন এবং ২ শতাধিক নেতা কর্মী আহত হন এটি ছিল গণহত্যা। তার ত্যাগ তিতিক্ষা, কঠিন অধ্যবসায়, অবিচল নিষ্ঠা ও দৃঢ় সংকল্পে আজ বিশ্বে বাংলাদেশ এক আলোচিত নাম। মানবিক, উন্নয়নশীল ও অসীম সম্ভাবনার দেশ এবং উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত। তিনি শুধু প্রধানমন্ত্রী নন, তিনি বয়ে চলেছেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন এবং তার দায়ভার। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশকে উন্নত দেশে রূপান্তরের জন্য তিনি দলমত নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। মেয়র বর্তমান করোনার নতুন ধরণ ওমিক্রণ সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় সবাইকে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে এবং ভ্যাক্সিন গ্রহণ করে নিজে ও অন্যের সুরক্ষার বিষয়ে পরামর্শ দেন।

back to top