alt

অপরাধ ও দুর্নীতি

সন্ত্রাসীদের হাতে কাটা রাইফেল, রিভলভারসহ অত্যাধুনিক অস্ত্র

২২ মাসে ৭ হাজার অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার

বাকী বিল্লাহ : মঙ্গলবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩

চোরাই পথে অবৈধভাবে দেশে ঢুকছে অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র। এই সব অস্ত্র দিয়ে সন্ত্রাসীরা দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির চেষ্টা করছে। এমনকি এলাকাভিত্তিক আধিপত্য বিস্তার ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপে অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করছে। চিহ্নিত অস্ত্রবাজদের গ্রেপ্তার ও তাদের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান জোরদার করার জন্য সম্প্রতি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গত ২২ মাসে পুলিশ দেশব্যাপী অভিযান চালিয়ে প্রায় ৭ হাজার আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সদর দপ্তর।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে বলা হয়েছে, জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের এই অস্ত্র উদ্ধার অভিযান জোরদার করা হয়েছে।

পুলিশ সদর দপ্তরের তথ্য মতে, চলতি বছরের পহেলা জানুয়ারি থেকে গত ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে দেশে আনা ও নিজেদের কাছে রাখার অভিযোগে ১ হাজার ১৯২টি অস্ত্র উদ্ধার করছে। এর মধ্যে অস্ত্রধারীদের নিজ হেফাজত (পজিশন) থেকে ১ হাজার ৮১টি অস্ত্র উদ্ধার করছে। আর পরিত্যক্ত অবস্থায় ১১১টি অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে।

২০২২ সালে সারাদেশে পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার ৮৭৯টি অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এই সংক্রান্ত মামলা হয়েছে ১,৫৪০টি।

উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে- চাইনিজ এসএমজি ২টি, ৩০৩ রাইফেল ১৫টি, কাটারাইফেল ৪টি, ডিবিবিএল (দোনালা বন্দুক) ৫টি, এসবিবিএল ৫৮টি, দেশি রিভলভার ১৫টি, বিদেশি রিভলভার ৪৫টি, দেশি পিস্তল ৪১টি, বিদেশি পিস্তল ২০৪টি। বন্দুক ৯৯টি, কাটাবন্দুক ৪টি, পাইপগান ৯৮টি, শাটারগান ২৭টি।

গোয়েন্দা পুলিশের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, চোরাই পথে আসা রাইফেলের দাম তার জানা নেই। তবে একটি বিদেশি রিভলভার কেনাবেচা হচ্ছে ৬৫ হাজার থেকে ৯০ হাজার টাকা। একটি বিদেশি পিস্তল ৭২ হাজার টাকা থেকে এক লাখ ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত কেনাবেচা হচ্ছে এমন তথ্য তারা সন্ত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদে জেনেছেন।

এছাড়া দেশি পিস্তল ও রিভলভার বিক্রি হচ্ছে ১৫ হাজার থেকে ২৫ হাজার টাকা। আবার কোনো কোনো অস্ত্র ১০ থেকে ১২ হাজার টাকাও বিক্রি হচ্ছে। গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এই ধরনের অস্ত্র উদ্ধার করছেন। পুলিশ জানায়, কক্সবাজারের মহেশখালী, সমুদ্র পথে সন্ত্রাসীদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র পৌঁছায়। পরে এই সব অস্ত্র দেশের এলাকাভিত্তিক অপরাধীরা আধিপত্য বিস্তারে কিনে থাকে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) কমিশনার মাহবুব আলম সংবাদকে জানান, কক্সবাজারের মহেশখালী অস্ত্র চোরাচালানীদের একটি রুট, আবার সেখানে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের কাছে অস্ত্র রয়েছে। তাদের কাছে কাটারাইফেলসহ অন্যান্য অস্ত্র রয়েছে। তারা দেশে অস্ত্র তৈরি করে। আবার নদী ও সমুদ্র পথে এনে বিক্রিও করছে। সাতক্ষীরা ও যশোরসহ বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে দেশে অস্ত্র ঢুকছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এসব অস্ত্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী অপরাধমূলক কার্যক্রমে ব্যবহার করছে। কেউ ডাকাতি, কেউ ছিনতাই, কেউ আধিপত্য বিস্তার, জুট ব্যবসার প্রভাব, এমনকি উগ্র সন্ত্রাসীরা অস্ত্র বিস্ফোরক সংগ্রহ ও বিক্রি করতে পারে।

আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা প্রভাব বিস্তার করতে অবৈধ অস্ত্র সংগ্রহ করতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই আশঙ্কায় অস্ত্র উদ্ধার অভিযান বাড়ানো হয়েছে। অস্ত্র নিয়ে কোনো এলাকায় গোলাগুলি হয়েছে। কার কাছে অস্ত্র আছে এমন তথ্য উদ্ঘাটন করে অভিযান চালানো হচ্ছে।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ডিআইজি (অপারেশন) আনোয়ার হোসেন সংবাদকে জানান, নির্বাচনের আগে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান জোরদার করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে অভিযান শুরু করা হয়েছে। অস্ত্রবাজদের ধরতে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান। এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশাবাদী।

ছবি

শিশু আয়ানের মৃত্যু: তদন্ত প্রতিবেদনে হাইকোর্টের ‘অসন্তুষ্ট, পুন:তদন্তে নতুন কমিটি

ছবি

মোবাইল চুরির পর চোর হয়ে যেতেন প্রবাসী বন্ধু

ছবি

কিশোর গ্যাং-মাদকের বিরুদ্ধে‘অলআউট অ্যাকশনে’ যাবো ঃ র‌্যাব ডিজি

ছবি

আবারো পেছালো ৩৫ বছর আগের সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার রায়

ছবি

৩৫ বছর আগে খুন হওয়া সগিরা মোর্শেদের মামলার রায় আবার পেছাল

ছবি

দরবেশ বাবা পরিচয়দানকারি নতুন প্রতারক চক্রের সন্ধান ১৯ সদস্য গ্রেফতার,স্বীকারোক্তি : একজন নারী ডাক্তার থেকে ২৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এই চক্র

মাদ্রাসার শিক্ষকদের এমপিওভূক্তির আশ্বাস দিয়ে ৪ কোটি টাকা আত্মসাৎ, গ্রেফতার দুই বাটপারের স্বীকারোক্তি

ছবি

ফরিদপুরে অস্ত্র মামলায় রুবেল ও তার সহযোগীর কারাদণ্ড

ছবি

চার মাদ্রাসার শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, শিক্ষকের মৃত্যুদণ্ড

ছবি

চালক-হেলপারের সহায়তায় বাসে ছিনতাই করে ‘বমি পার্টি’র সদস্যরা

ছবি

সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ফজলুল করিম হত্যায় বিচার কার্যক্রম শুরু

ছবি

তরুণীকে ব্ল্যাক মেইল,ধর্ষণ,ভিডিও ভাইরালের হুমকি অবশেষে গ্রেফতার,স্বীকারোক্তি

ছবি

রেলের টিকিট কালোবাজারে বিক্রি আরেক বুকিং সহকারী গ্রেপ্তার

ছবি

গৃহকর্মীর মৃত্যুঃ সাংবাদিক আশফাক ও স্ত্রী ৪ দিনের রিমান্ডে

ছবি

জামালপুরে কলেজছাত্র লিটন হত্যা মামলায় ৭ জনের যাবজ্জীবন

সুবর্ণচরে মা- মেয়েকে ধর্ষনঃ প্রধান আসামি আওয়ামী লীগ সভাপতিকে রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরন

ছবি

এনআইডি জালিয়াতি: সাবরিনার বিচার শুরুর আদেশ

ছবি

মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে নিরব হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন ও প্রতিবাদ মিছিল

জামালপুরে বীরমুক্তিযোদ্ধাকে ভুয়া বাবা বানিয়ে সরকারি চাকরি করার অভিযোগ

রূপগঞ্জে সংঘর্ষে নারী ও শিশুসহ গুলিবিদ্ধ ১০

ছবি

সাজা বাতিল চেয়ে পিকে হালদারের বান্ধবীর হাইকোর্টে আপিল

ছবি

শ্রীনগরে এসএসসি পরিক্ষার্থী নীরব হত্যার ঘটনায় ৯ জন গ্রেফতার

হারুন আদালতে জবানবন্দি দিতে অস্বীকার করায় ৪ দিনের রিমান্ডে

ছবি

জাবিতে গণধর্ষণ পরিকল্পনাকারীসহ ২ জন গ্রেপ্তার

পাথরঘাটায় আদালতের আদেশ অমান্য করে ধান কাটার অভিযোগ

সুবর্নচরে মা - মেয়ে ধর্ষনঃ আওয়ামী লীগ সভাপতির ৪ দিনের রিমান্ড মন্জুর

বদলগাছীতে মাদক সেবনের দায়ে ছাত্রলীগনেতাসহ দুজনের জেল

ছবি

সুবর্ণচরে মা-মেয়েকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, আ’লীগ নেতা আবুল খায়ের মুন্সি গ্রেপ্তার

ডলারে আয়ের লোভনীয় ফাঁদ, কয়েক মাসে চক্র ৬-৭ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে

ছবি

কুমিল্লার সেই বিচারককে সাজা থেকে অব্যাহতি

ভোটের রাতে সুবর্ণচরে ধর্ষণ : ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড, ছয়জনের যাবজ্জীবন

সোনারগাঁয়ে চালক হত্যা করে অটোরিকশা ছিনতাই

ছবি

দুই মামলায় মামুনুল হককে জামিন দিলেন আপিল বিভাগ

নড়াইলে ঘের দখলকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত ১

ছবি

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি, সৌদি সরকারের সহায়তায় যুবদলের দুজন গ্রেপ্তার: সিটিটিসি

ছবি

ড. ইউনূসের সাজা স্থগিতের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন

tab

অপরাধ ও দুর্নীতি

সন্ত্রাসীদের হাতে কাটা রাইফেল, রিভলভারসহ অত্যাধুনিক অস্ত্র

২২ মাসে ৭ হাজার অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার

বাকী বিল্লাহ

মঙ্গলবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩

চোরাই পথে অবৈধভাবে দেশে ঢুকছে অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র। এই সব অস্ত্র দিয়ে সন্ত্রাসীরা দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির চেষ্টা করছে। এমনকি এলাকাভিত্তিক আধিপত্য বিস্তার ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপে অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করছে। চিহ্নিত অস্ত্রবাজদের গ্রেপ্তার ও তাদের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান জোরদার করার জন্য সম্প্রতি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গত ২২ মাসে পুলিশ দেশব্যাপী অভিযান চালিয়ে প্রায় ৭ হাজার আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সদর দপ্তর।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে বলা হয়েছে, জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের এই অস্ত্র উদ্ধার অভিযান জোরদার করা হয়েছে।

পুলিশ সদর দপ্তরের তথ্য মতে, চলতি বছরের পহেলা জানুয়ারি থেকে গত ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে দেশে আনা ও নিজেদের কাছে রাখার অভিযোগে ১ হাজার ১৯২টি অস্ত্র উদ্ধার করছে। এর মধ্যে অস্ত্রধারীদের নিজ হেফাজত (পজিশন) থেকে ১ হাজার ৮১টি অস্ত্র উদ্ধার করছে। আর পরিত্যক্ত অবস্থায় ১১১টি অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে।

২০২২ সালে সারাদেশে পুলিশের অভিযানে ৫ হাজার ৮৭৯টি অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এই সংক্রান্ত মামলা হয়েছে ১,৫৪০টি।

উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে- চাইনিজ এসএমজি ২টি, ৩০৩ রাইফেল ১৫টি, কাটারাইফেল ৪টি, ডিবিবিএল (দোনালা বন্দুক) ৫টি, এসবিবিএল ৫৮টি, দেশি রিভলভার ১৫টি, বিদেশি রিভলভার ৪৫টি, দেশি পিস্তল ৪১টি, বিদেশি পিস্তল ২০৪টি। বন্দুক ৯৯টি, কাটাবন্দুক ৪টি, পাইপগান ৯৮টি, শাটারগান ২৭টি।

গোয়েন্দা পুলিশের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, চোরাই পথে আসা রাইফেলের দাম তার জানা নেই। তবে একটি বিদেশি রিভলভার কেনাবেচা হচ্ছে ৬৫ হাজার থেকে ৯০ হাজার টাকা। একটি বিদেশি পিস্তল ৭২ হাজার টাকা থেকে এক লাখ ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত কেনাবেচা হচ্ছে এমন তথ্য তারা সন্ত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদে জেনেছেন।

এছাড়া দেশি পিস্তল ও রিভলভার বিক্রি হচ্ছে ১৫ হাজার থেকে ২৫ হাজার টাকা। আবার কোনো কোনো অস্ত্র ১০ থেকে ১২ হাজার টাকাও বিক্রি হচ্ছে। গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এই ধরনের অস্ত্র উদ্ধার করছেন। পুলিশ জানায়, কক্সবাজারের মহেশখালী, সমুদ্র পথে সন্ত্রাসীদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র পৌঁছায়। পরে এই সব অস্ত্র দেশের এলাকাভিত্তিক অপরাধীরা আধিপত্য বিস্তারে কিনে থাকে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) কমিশনার মাহবুব আলম সংবাদকে জানান, কক্সবাজারের মহেশখালী অস্ত্র চোরাচালানীদের একটি রুট, আবার সেখানে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের কাছে অস্ত্র রয়েছে। তাদের কাছে কাটারাইফেলসহ অন্যান্য অস্ত্র রয়েছে। তারা দেশে অস্ত্র তৈরি করে। আবার নদী ও সমুদ্র পথে এনে বিক্রিও করছে। সাতক্ষীরা ও যশোরসহ বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে দেশে অস্ত্র ঢুকছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এসব অস্ত্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী অপরাধমূলক কার্যক্রমে ব্যবহার করছে। কেউ ডাকাতি, কেউ ছিনতাই, কেউ আধিপত্য বিস্তার, জুট ব্যবসার প্রভাব, এমনকি উগ্র সন্ত্রাসীরা অস্ত্র বিস্ফোরক সংগ্রহ ও বিক্রি করতে পারে।

আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা প্রভাব বিস্তার করতে অবৈধ অস্ত্র সংগ্রহ করতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই আশঙ্কায় অস্ত্র উদ্ধার অভিযান বাড়ানো হয়েছে। অস্ত্র নিয়ে কোনো এলাকায় গোলাগুলি হয়েছে। কার কাছে অস্ত্র আছে এমন তথ্য উদ্ঘাটন করে অভিযান চালানো হচ্ছে।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ডিআইজি (অপারেশন) আনোয়ার হোসেন সংবাদকে জানান, নির্বাচনের আগে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান জোরদার করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে অভিযান শুরু করা হয়েছে। অস্ত্রবাজদের ধরতে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান। এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশাবাদী।

back to top