alt

অপরাধ ও দুর্নীতি

ঢাবির অধ্যাপককে ‘টাকার জন্য’ হত্যা করেন কন্ট্রাক্টর

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

‘টাকার জন্য’ নিজ বাড়ির নির্মাণ শ্রমিকের হাতে খুন হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা গাফফার খালেক। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার কন্ট্রাক্টর আনারুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছেন।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে গাজীপুর মহানগরীর দক্ষিণ পাইনশাইল এলাকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আবাসন প্রকল্পের ভেতরে একটি ঝোপ থেকে গলায় ওড়না পেঁচানো মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আনারুল ইসলাম (২৫) নামের এক যুবককে গাইবান্ধা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি ওই অধ্যাপকের নির্মাণাধীন বাড়ির কন্ট্রাক্টর ও রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন।

এ ঘটনায় একটি মামলা করেছেন নিহত অধ্যাপকের ছেলে সাউদ ইফখার বিন জহির। পরবর্তীতে মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয় নির্মাণ শ্রমিক আনোয়ার হোসেনকে।

অধ্যাপক সাইদা গাফফার ঢাকা বিশ্বদ্যালয়ের শিক্ষক আবাসন প্রকল্পে তার মালিকানাধীন প্লটে বাড়ি করার জন্য প্রকল্প সংলগ্ন দক্ষিণ পানিশাইল মোশারফ মৃধার বাড়ির দ্বিতীয় তলায় একটি ফ্ল্যাটে ভাড়া থাকতেন। সেখানে থেকেই বাড়ি নির্মাণ কার্যক্রম দেখাশোনা করতেন।

গাজীপুরের কাশিমপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দীপঙ্কর রায় বলেন, অধ্যাপক প্রতিদিন তার বাড়ির নির্মাণকাজ দেখতে ওই প্রকল্পে যেতেন। ১১ জানুয়ারি সন্ধ্যার আগে সব শ্রমিক চলে গেলেও আনোয়ারুলকে কয়েকটি গাছ কাটার জন্য রেখে দিয়েছিলেন তিনি।

‘কাজ শেষে পারিশ্রমিক দেয়ার সময় অধ্যাপকের কাছে অনেক টাকা দেখতে পেয়ে লোভ সামলাতে পারেননি আনোয়ারুল। নির্মাণাধীন বাড়ি থেকে ৪০০ গজ দূরে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। পরে টাকাগুলো নিয়ে পালিয়ে যান তিনি।’

নিহত সাইদা খালেকের বয়স ৭১। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবসরে যান ২০১৬ সাল। গত ১১ জানুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি।

এর দু’দিন পর বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সাইদা গাফফারের নিখোঁজের ঘটনায় তার মেয়ে সাদিয়া আফরিন কাশিমপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন কাশিমপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শেখ মিজানুর রহমান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার আনারুল হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছেন। তিনি অধ্যাপক সাইদার হাতে টাকা দেখে তা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। এতে তিনি চিৎকার শুরু করলে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যান আনারুল।

নিহত সাইদা গাফফারের স্বামী মৃত জহিরুল হক। তার ছেলে সাউদ ইফখার বিন জহির ঢাকার উত্তরার পশ্চিম থানার ১২ নম্বর রোডের ১৭ নম্বর বাড়িতে বসবাস করেন। তার তিন মেয়ের মধ্যে দুই মেয়ে অস্ট্রেলিয়ায় এবং একজন দেশে থাকেন।

ছবি

শাবি শিক্ষককে ফেনসিডিল সাপ্লাই দিতে গিয়ে গার্ড আটক!

ছবি

সিদ্ধিরগঞ্জে ফ্ল্যাটে হাত-পা বাঁধা গৃহবধূর লাশ, স্বামী পলাতক

ছবি

শিক্ষককে ৬ মাসের বেশি সাময়িক বরখাস্ত নয়: হাইকোর্ট

স্বর্ণসহ অজ্ঞান পার্টির ২ সদস্য গ্রেপ্তার

ছবি

মিজান-বাছিরের সর্বোচ্চ সাজা চায় দুদক

লালমনিরহাটে ৩ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস

ভেড়ামারায় ১৭ ভাটাকে জরিমানা ৪৩ লাখ টাকা

চট্টগ্রাম সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয় সহকারীর স্ত্রীর ৭ বছর জেল

ছবি

২০ বছর পর হত্যা মামলার রায়, ৫ জনকে মৃত্যুদণ্ড

চাঁদা দাবিতে ছেলেসহ কনস্টেবল গ্রেপ্তার

ছবি

নাসির-তামিমার বিয়েকাণ্ড : অভিযোগ গঠনের আদেশ ৯ ফেব্রুয়ারি

ছবি

মোবাইল গ্রাহকদের অভিযোগ শুনতে কমিটি গঠনের নির্দেশ

কুমিল্লায় নদীর মাটি কাটায় দন্ডিত ৭

যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে রক্তাক্ত করে রাস্তায় ফেলে গেল স্বামী

ছবি

পল্লবীর ওসিসহ ১৭ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন খারিজ

আধিপত্য বিবাদে বাড়িঘর ভাঙচুর : আহত ১০

মামলা না তোলায় যুবলীগ নেতার হাত-পা ভাঙল

বাড়িতে ঢুকে কৃষককে হত্যা

ছবি

ট্রান্সজেন্ডার বিউটি ব্লগারকে যৌন নির্যাতন ও হত্যাচেষ্টা, গ্রেফতার ৩

ছবি

নারায়ণগঞ্জে ২ চাঁদাবাজ গ্রেফতার

ছবি

প্রশ্নফাঁস: উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যানসহ ১০ জন আটক

ছবি

গৃহকর্মী নির্যাতন, অভিযুক্ত সুমি গ্রেপ্তার

ছবি

ক্লু-লেস হত্যার রহস্য উদঘাটন

ছবি

শিমু হত্যা: নোবেল একা নয়, হত্যাকাণ্ডের সময় ছিলেন বন্ধু

মেজর জিয়াসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

ছবি

সিদ্ধিরগঞ্জে যুবককে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যা ॥ থানায় মামলা

চাটখিলে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি, আসামি হাজতে

টঙ্গীতে ২ শিশুকে ধর্ষণ : গ্রেপ্তার ১

মতলবে সিডিউল ছিনতাই, আটক ১

বদলগাছীতে পর্নোগ্রাফি ভিডিও সরবরাহকারী ৭ জন গ্রেপ্তার

পচা চাল সংগ্রহে রৌমারী খাদ্য গুদাম সিলগালা

ছবি

টেকনাফে দুই দ্বীপকে ঘিরে মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া

ছবি

আবরার হত্যা: ফাঁসির আসামি সেতুর হাইকোর্টে আপিল

ছবি

রাজধানীতে ৫১৩টি চোরাই মোবাইলসহ ৮ সদস্য আটক

ছবি

সেফাতউল্লাহর মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ পিছিয়ে ৪ জুলাই

ফরিদপুরে অস্ত্র-মাদক গ্রেপ্তার দুই জন

tab

অপরাধ ও দুর্নীতি

ঢাবির অধ্যাপককে ‘টাকার জন্য’ হত্যা করেন কন্ট্রাক্টর

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

ছবি: সংগৃহীত

শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২২

‘টাকার জন্য’ নিজ বাড়ির নির্মাণ শ্রমিকের হাতে খুন হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা গাফফার খালেক। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার কন্ট্রাক্টর আনারুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছেন।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে গাজীপুর মহানগরীর দক্ষিণ পাইনশাইল এলাকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আবাসন প্রকল্পের ভেতরে একটি ঝোপ থেকে গলায় ওড়না পেঁচানো মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আনারুল ইসলাম (২৫) নামের এক যুবককে গাইবান্ধা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি ওই অধ্যাপকের নির্মাণাধীন বাড়ির কন্ট্রাক্টর ও রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন।

এ ঘটনায় একটি মামলা করেছেন নিহত অধ্যাপকের ছেলে সাউদ ইফখার বিন জহির। পরবর্তীতে মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয় নির্মাণ শ্রমিক আনোয়ার হোসেনকে।

অধ্যাপক সাইদা গাফফার ঢাকা বিশ্বদ্যালয়ের শিক্ষক আবাসন প্রকল্পে তার মালিকানাধীন প্লটে বাড়ি করার জন্য প্রকল্প সংলগ্ন দক্ষিণ পানিশাইল মোশারফ মৃধার বাড়ির দ্বিতীয় তলায় একটি ফ্ল্যাটে ভাড়া থাকতেন। সেখানে থেকেই বাড়ি নির্মাণ কার্যক্রম দেখাশোনা করতেন।

গাজীপুরের কাশিমপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দীপঙ্কর রায় বলেন, অধ্যাপক প্রতিদিন তার বাড়ির নির্মাণকাজ দেখতে ওই প্রকল্পে যেতেন। ১১ জানুয়ারি সন্ধ্যার আগে সব শ্রমিক চলে গেলেও আনোয়ারুলকে কয়েকটি গাছ কাটার জন্য রেখে দিয়েছিলেন তিনি।

‘কাজ শেষে পারিশ্রমিক দেয়ার সময় অধ্যাপকের কাছে অনেক টাকা দেখতে পেয়ে লোভ সামলাতে পারেননি আনোয়ারুল। নির্মাণাধীন বাড়ি থেকে ৪০০ গজ দূরে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। পরে টাকাগুলো নিয়ে পালিয়ে যান তিনি।’

নিহত সাইদা খালেকের বয়স ৭১। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবসরে যান ২০১৬ সাল। গত ১১ জানুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি।

এর দু’দিন পর বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সাইদা গাফফারের নিখোঁজের ঘটনায় তার মেয়ে সাদিয়া আফরিন কাশিমপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন কাশিমপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শেখ মিজানুর রহমান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার আনারুল হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছেন। তিনি অধ্যাপক সাইদার হাতে টাকা দেখে তা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। এতে তিনি চিৎকার শুরু করলে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যান আনারুল।

নিহত সাইদা গাফফারের স্বামী মৃত জহিরুল হক। তার ছেলে সাউদ ইফখার বিন জহির ঢাকার উত্তরার পশ্চিম থানার ১২ নম্বর রোডের ১৭ নম্বর বাড়িতে বসবাস করেন। তার তিন মেয়ের মধ্যে দুই মেয়ে অস্ট্রেলিয়ায় এবং একজন দেশে থাকেন।

back to top