alt

অপরাধ ও দুর্নীতি

যাত্রাবাড়ী থেকে অপহরণ, লাশ মিললো কালীগঞ্জে

বাকী বিল্লাহ : শনিবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২২

একটি বিদেশি জাহাজে শেফ বা বাবুর্চির চাকরি করতেন জয়নাল আবেদীন। বাড়ি মাগুরায়। ছুটিতে চট্টগ্রাম থেকে যাচ্ছিলেন বাড়ি। রাত ৮টার দিকে বাসযোগে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন তিনি। রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি মোবাইল ফোনে স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। স্ত্রীকে জানান, বাসটি তখন চট্টগ্রামের সীতাকু- অতিক্রম করছে।

পরদিন ভোর সাড়ে ৫টার দিকে জয়নালের মোবাইল ফোন থেকে তার স্ত্রীর কাছে ফোন আসে। কিন্তু অন্য পাশে অপরিচিত কণ্ঠ। ওই ব্যক্তি জানায়, জয়নালকে অপহরণ করা হয়েছে। তাকে সুস্থ ফেরত পেতে হলে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দিতে হবে। জয়নালের মায়ের সঙ্গেও কথা বলে অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি। পরে জয়নালের স্ত্রী ও তার ভাই মারুফ হোসেন অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি ও তার সহযোগীদের সঙ্গে কথা বলে ৫০ হাজার টাকা দিতে রাজি হন। অপহরণকারীরা একটি বিকাশ নম্বর পাঠায়। এরপর আসামিদের চাহিদামত প্রথমে বিকাশের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেন তারা।

পরে বিষয়টি মাগুরা থানা পুলিশকে জানালে তারা মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে জয়নালের অবস্থান চিহ্নিত করে। তার অবস্থান নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের পারটেক্স নামে এক প্রতিষ্ঠানের কারখানায় বলে জানতে পারে পুলিশ। পরে পুলিশ জানায়, জয়নালকে অপহরণকারীরা হত্যা করেছে এবং তার লাশ উদ্ধার করা হয় গাজীপুরের কালীগঞ্জ সড়কের কাছে। ঘটনাটি ২০১৫ সালে ৮ অক্টোবরের। ওই ঘটনায় পর গত ৯ অক্টোবর ২০১৫ নিহতের ভাই ইছহাক আলী কালীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আড়াই বছরেরও বেশি সময় (২০১৫ সালের ৯ অক্টোবর থেকে ২০১৮ সালের ১ মে পর্যন্ত) তদন্ত করে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। তদন্ত কর্মকর্তাও পরিবর্তন করা হয়। কিন্তু তারা কোন কূল-কিনারা করতে পারেননি। রহস্য উদ্ঘাটন করতে না পেরে আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্ট পেশ করে পুলিশ।

তবে আদালত চূড়ান্ত রিপোর্ট গ্রহণ না করে মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেয় গাজীপুর জেলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেসটিগেশন পিবিআইকে।

পিবিআইয়ের তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক হাফিজুর রহমান সংবাদকে জানান, পিবিআই ২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করে। আলোচিত এ ঘটনাটি তারা মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে এবং যে বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠানো হয়েছে তার ক্লু ধরে রহস্য উদ্ঘাটন করে। এরপর ঘটনায় জড়িত রাসেল খান ও আমজাদকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা ঘটনায় জড়িত আরও চারজনের নাম বলেছে। মোট অভিযুক্ত ছয়জন। তার মধ্যে পাঁচ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অভিযুক্ত দুইজন আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেন, আরও এক আসামিকে গ্রেপ্তার করে শীঘ্রই চার্জশিট দেয়া হবে। হত্যাকা-ে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসসহ অন্যান্য আলামত জব্দ করা হয়েছে।

পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর বাড়ি-দোকান ভাঙচুর

৩ জেলায় দুই খুন, ১ জনের মৃত্যু রহস্যজনক

ছবি

অবাধে রেণু চিংড়ি আহরণ-বিকিকিনি, হুমকিতে দেশের মৎস্যসম্পদ

ছবি

কিশোরীকে আটক রেখে ধর্ষণের অভিযোগ গ্রেফতার ১

দক্ষিণখানে ২৪০ গ্রাম আইসসহ নারী মাদক কারবারি গ্রেপ্তার

ছবি

নববর্ষে আতশবাজি-ফানুস নিষিদ্ধ চেয়ে হাইকোর্টে রিট

ছবি

বাঁকখালী নদীর প্যারাবন কেটে বসতি নির্মাণ বন্ধে আইনি নোটিশ

পীরগাছায় জমি বিবাদে তিন দিন অবরুদ্ধ পরিবার আতঙ্কে

চট্টগ্রামে আট জুয়াড়ি গ্রেপ্তার

আ’লীগ নেতাকে হত্যা চেষ্টা : গ্রেপ্তার ২

ছবি

দুদকের জিজ্ঞাসাবাদের মুখে শিল্পকলার মহাপরিচালক লাকী

মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্মম নির্যাতন

ভান্ডারিয়ায় জমি বিবাদে ছোট ভাই হত

ফরিদপুরে ইজিবাইক চোর গ্রেপ্তার তিন

আড়াইহাজারে জমি বিবাদে আহত ১০

ছবি

ঢাবির অধ্যাপক হত্যা: কন্ট্রাক্টর ৩ দিনের রিমান্ডে

ছবি

ফেরিতে স্থাপিত ফগলাইট কারসাজি

ছবি

ঢাবির অধ্যাপককে ‘টাকার জন্য’ হত্যা করেন কন্ট্রাক্টর

ছবি

মিতু হত্যা: বাবুলের দুই সন্তানের সঙ্গে কথা বলতে চায় পিবিআই

মাদক মামলায় ৩ জনের জেল

ছবি

কক্সবাজারে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদন্ড, ৪ জনের যাবজ্জীবন

কলাপাড়ায় ১০ মণ জাটকা জব্দ

ছবি

চাঞ্চল্যকর জাকিয়া হত্যা মামলার রায় ২৭ জানুয়ারি

ছবি

একের পর এক খুন, ‘বাউল বেশে’ ঘুরতেন হেলাল

সরকারি সার প্যাকেটজাত, ডিলারকে জরিমানা

নওগাঁ পাসপোর্ট অফিসে মাসে কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য

ছবি

শিক্ষকতার আড়ালে ‘জঙ্গি কার্যক্রম’ চালাতেন ওয়াহিদুল

ছবি

কন্ঠশিল্পী আসিফের বিচার শুরু

সৈয়দপুরে মাদক দুজন গ্রেপ্তার

আগ্নেয়াস্ত্রসহ সন্ত্রাসী আটক

গৌরনদীতে সাবেক চেয়ারম্যানের ওপর হামলা

রাজশাহীতে বিভিন্ন অপরাধে আটক ১৬

ইয়াবাসহ উপজেলা চেয়ারম্যানের সিএ আটক

কুষ্টিয়ায় যৌতুক না পেয়ে নববধূকে পুড়িয়ে হত্যা

বন্ধুত্বের ফাঁদে অপহরণ মুক্তিপণ : গ্রেপ্তার এক

শিশুসন্তানকে ধর্ষণ মামলায় বিএনপি নেতা কারাগারে

tab

অপরাধ ও দুর্নীতি

যাত্রাবাড়ী থেকে অপহরণ, লাশ মিললো কালীগঞ্জে

বাকী বিল্লাহ

শনিবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২২

একটি বিদেশি জাহাজে শেফ বা বাবুর্চির চাকরি করতেন জয়নাল আবেদীন। বাড়ি মাগুরায়। ছুটিতে চট্টগ্রাম থেকে যাচ্ছিলেন বাড়ি। রাত ৮টার দিকে বাসযোগে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন তিনি। রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি মোবাইল ফোনে স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। স্ত্রীকে জানান, বাসটি তখন চট্টগ্রামের সীতাকু- অতিক্রম করছে।

পরদিন ভোর সাড়ে ৫টার দিকে জয়নালের মোবাইল ফোন থেকে তার স্ত্রীর কাছে ফোন আসে। কিন্তু অন্য পাশে অপরিচিত কণ্ঠ। ওই ব্যক্তি জানায়, জয়নালকে অপহরণ করা হয়েছে। তাকে সুস্থ ফেরত পেতে হলে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দিতে হবে। জয়নালের মায়ের সঙ্গেও কথা বলে অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি। পরে জয়নালের স্ত্রী ও তার ভাই মারুফ হোসেন অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি ও তার সহযোগীদের সঙ্গে কথা বলে ৫০ হাজার টাকা দিতে রাজি হন। অপহরণকারীরা একটি বিকাশ নম্বর পাঠায়। এরপর আসামিদের চাহিদামত প্রথমে বিকাশের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেন তারা।

পরে বিষয়টি মাগুরা থানা পুলিশকে জানালে তারা মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে জয়নালের অবস্থান চিহ্নিত করে। তার অবস্থান নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের পারটেক্স নামে এক প্রতিষ্ঠানের কারখানায় বলে জানতে পারে পুলিশ। পরে পুলিশ জানায়, জয়নালকে অপহরণকারীরা হত্যা করেছে এবং তার লাশ উদ্ধার করা হয় গাজীপুরের কালীগঞ্জ সড়কের কাছে। ঘটনাটি ২০১৫ সালে ৮ অক্টোবরের। ওই ঘটনায় পর গত ৯ অক্টোবর ২০১৫ নিহতের ভাই ইছহাক আলী কালীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আড়াই বছরেরও বেশি সময় (২০১৫ সালের ৯ অক্টোবর থেকে ২০১৮ সালের ১ মে পর্যন্ত) তদন্ত করে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। তদন্ত কর্মকর্তাও পরিবর্তন করা হয়। কিন্তু তারা কোন কূল-কিনারা করতে পারেননি। রহস্য উদ্ঘাটন করতে না পেরে আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্ট পেশ করে পুলিশ।

তবে আদালত চূড়ান্ত রিপোর্ট গ্রহণ না করে মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেয় গাজীপুর জেলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেসটিগেশন পিবিআইকে।

পিবিআইয়ের তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক হাফিজুর রহমান সংবাদকে জানান, পিবিআই ২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করে। আলোচিত এ ঘটনাটি তারা মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে এবং যে বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠানো হয়েছে তার ক্লু ধরে রহস্য উদ্ঘাটন করে। এরপর ঘটনায় জড়িত রাসেল খান ও আমজাদকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা ঘটনায় জড়িত আরও চারজনের নাম বলেছে। মোট অভিযুক্ত ছয়জন। তার মধ্যে পাঁচ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অভিযুক্ত দুইজন আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেন, আরও এক আসামিকে গ্রেপ্তার করে শীঘ্রই চার্জশিট দেয়া হবে। হত্যাকা-ে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসসহ অন্যান্য আলামত জব্দ করা হয়েছে।

back to top