alt

শিক্ষা

তিন কর্মদিবসের মধ্যে হো চি মিনের ঘটনার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে ইউজিসি

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

তিন দিনের সময় দিয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেয়েও ট্রান্সজেন্ডার হো চি মিন ইসলামের যোগ দিতে না পারার ঘটনার ব্যাখ্যা চেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। গত রোববার ইউজিসি এ ঘটনার ব্যাখ্যা চেয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়কে চিঠি পাঠিয়েছে।

ইউজিসি বলছে, ‘নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে হো চি মিন ইসলামকে “উইমেনস ক্যারিয়ার কার্নিভ্যাল–এক্সপ্লোর ইয়োর ফিউচার উইথ আস” অনুষ্ঠানে যোগদানের অনুমতি কেন প্রদান করা হয়নি এবং এ ধরনের ঘটনা বা চর্চার পুনরাবৃত্তি যেন ভবিষ্যতে আর না ঘটে, সে বিষয়ে কী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে, সে বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বক্তব্য তিন কর্মদিবসের মধ্যে পাঠাতে হবে।’

ইউজিসি এ–সংক্রান্ত নোটিশে বলেছে, ‘বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তচিন্তা ও মুক্তবুদ্ধিচর্চার সূতিকাগার। এরূপ চর্চা ও বিশ্ববিদ্যালয় একে অপরের পরিপূরক। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এরূপ আচরণ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০১০, মুক্তচিন্তার বিকাশ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, বাংলাদেশের সংবিধান এবং সর্বোপরি বিশ্ববিদ্যালয় ধারণার পরিপন্থী।’

একটি গোষ্ঠীর আন্দোলনের ফলে শেষ পর্যন্ত হো চি মিন ইসলাম নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তব্য দিতে পারেননি। বেসরকারি সংগঠন হিরোজ ফর অল ও আইসোশ্যাল আয়োজিত ‘উইমেনস ক্যারিয়ার কার্নিভ্যাল-এক্সপ্লোর ইয়োর ফিউচার উইথ আস’–এর একটি সেশনে শুক্রবার হো চি মিন ইসলাম বক্তা হিসেবে আমন্ত্রিত ছিলেন। তিনি লিঙ্গ রূপান্তরিত নারী (ট্রান্সজেন্ডার)। হো চি মিন ইসলামের নিরাপত্তার কথা উল্লেখ করে আয়োজক সংস্থাও শেষ পর্যন্ত তাঁকে অনুষ্ঠানে যেতে নিষেধ করে।

শনিবার হো চি মিন ইসলাম জানান, সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি হিসেবে তাঁকে বক্তা হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। আয়োজক সংস্থা তাঁর ছবি দিয়ে পোস্টারও ছাপিয়েছিল। তবে তারপর একটি গোষ্ঠী (বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একটি অংশ) অনুষ্ঠানে তাঁর উপস্থিতি আটকাতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ই-মেইল দিয়ে ও বিভিন্নভাবে আন্দোলনের হুমকি দিতে থাকে।

হোচিমিন ইসলাম বলেন, ‘বিভিন্ন সময় আমি উগ্র গোষ্ঠীর আক্রমণের শিকার হয়েছি। তবে একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমন ঘটনা এবারই প্রথম ঘটল। আমার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে আয়োজক সংস্থাও শেষ পর্যন্ত পিছিয়ে গেল। জাতিসংঘের এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা পূরণে কেউ পিছিয়ে থাকবে না বলা হচ্ছে। অথচ আমাকে বাদ দিয়েই অনুষ্ঠান হলো। আয়োজক সংস্থা প্রতিবাদ হিসেবে অনুষ্ঠান বর্জন করেনি বা অনুষ্ঠানস্থলও পরিবর্তন করেনি।’

বেসরকারি সংগঠন হিরোজ ফর অলের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক রেহনুমা করিম। হো চি মিন ইসলামকে বক্তা হিসেবে বাদ দেওয়ার প্রসঙ্গে রোববার তিনি প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক দিন ধরে হো চি মিন ইসলাম যাতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে না পারেন, সে নিয়ে অনেক হুমকি দেওয়া হচ্ছিল।

এদিকে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে হো চি মিন ইসলামের বক্তব্য দিতে না পারার বিষয়ে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তারা বলছে, শিক্ষার মান ধরে রাখার পাশাপাশি সবার জন্য একটি সম্মানজনক পরিবেশ বজায় রাখতে কর্তৃপক্ষ সচেষ্ট। তবে উইমেনস ক্যারিয়ার কার্নিভ্যালে ঘটে যাওয়া ঘটনায় এই লক্ষ্য অর্জন চ্যালেঞ্জের মুখে।

রোববার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নিজেদের এ অবস্থান তুলে ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘আমরা এই অনুষ্ঠানে হো চি মিন ইসলামের অংশগ্রহণের বিষয়ে জনগণের ভিন্ন মতামতকে সম্মান করি। এসব দৃষ্টিভঙ্গি আমাদের সমাজের বিভিন্ন বিশ্বাস ও মূল্যবোধকে প্রতিফলিত করে। দৃষ্টিভঙ্গির বিস্তৃতি ও সংলাপকে উৎসাহিত করতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার শক্তিতে বিশ্বাস করে। হো চি মিনের অংশগ্রহণের উদ্দেশ্য ছিল, কর্মক্ষেত্রে প্রান্তিক সম্প্রদায়ের অর্জন তুলে ধরা।’

অনুষ্ঠানে হো চি মিন অন্যতম বক্তা হলেও কিছু অপ্রত্যাশিত ঘটনার ফলে নির্ধারিত আলোচনা বাতিল করা হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয়টির বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, বক্তা ও আয়োজক উভয়ের জন্য দুঃখজনক এ ঘটনাকে বিশ্ববিদ্যালয় বিবেচনায় নিয়েছে। এ ঘটনা সম্পর্কে ভুল তথ্য ছড়ানো হচ্ছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। উদাহরণ টেনে তারা বলেছে, বলা হচ্ছে, হো চি মিনের আলোচনা বাতিল করেছে উপাচার্য কার্যালয়। অথচ উপাচার্য আতিকুল ইসলাম ওই সময় দেশের বাইরে ছিলেন। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে কোনো সহ–উপাচার্যও নেই।

ছবি

যৌন নির্যাতন ও হয়রানির অভিযোগ আমলে নেওয়ার আহ্বান: ইউজিসি

ছবি

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ২০ হাজার প্রার্থী

ছবি

দ্বিতীয় ধাপের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ২০ হাজার ৬৪৭

ছবি

নতুন শিক্ষাক্রমে শিক্ষক প্রশিক্ষণের ব্যয় নিয়ে জটিলতা

ছবি

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা, ওএমআর শিট ছেড়ার অভিযোগ মিথ্যা: তদন্ত কমিটির মহাপরিচালক

ছবি

সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ২০২৫ সালের এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে

ছবি

খুবির শিক্ষার্থীদের ‘মারধর’, প্রতিবাদে সড়কে বিক্ষোভ

ছবি

৪৬তম বিসিএস: পরীক্ষা হতে পারে এপ্রিলের শেষে

ছবি

পদোন্নতিতে বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে ‘বঞ্চনা ও অসন্তোষ’

ছবি

বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধে ইইডি প্রধান প্রকৌশলীর শ্রদ্ধা

ছবি

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিনই অনুপস্থিত ১৯ হাজার ৩৫৯ জন শিক্ষার্থী

ছবি

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য ডিএমপির কুইক রেসপন্স টিম

ছবি

ইইডির প্রধান প্রকৌশলীর মেয়াদ ২ বছর বাড়ল

ছবি

মায়ানমারে সংঘর্ষের কারণে ঘুমধুমের এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিবর্তন

ছবি

রাবিতে ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ও শিক্ষকের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ

নতুন শিক্ষাক্রম মূল্যায়ন কমিটির প্রধানই তদন্তের আওতায়

ছবি

মেডিকেলে ভর্তির ফল প্রকাশ হতে পারে কাল বা পরশু

ছবি

প্রশ্ন ফাঁস বন্ধের লক্ষ্যে এমবিবিএস ভর্তি প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজ করা হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ডাক্তার হতে চাওয়া লাখো শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসেছেন

নতুন শিক্ষাক্রমে এসএসসি পরীক্ষা কীভাবে হবে সেই বিষয়ে উদ্বেগ

ছবি

চলতি শিক্ষাবর্ষের ছুটির তালিকায় রোজায় চলবে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলের ক্লাস

ছবি

‘দ্বন্ধ-সংঘাতমুক্ত’ সমাজ নির্মাণে শিক্ষকদের ভূমিকা অনস্বীকার্য

ছবি

জাবিতে ধর্ষণকাণ্ডে জড়িতদের শাস্তি চেয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ, মিছিল

ছবি

চবিতে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ, শিক্ষকের বহিষ্কার দাবিতে আন্দোলন

ছবি

রাবিতে ধর্ষণবিরোধী বিক্ষোভ-মিছিলে ছাত্রলীগের বাধা

ছবি

এসএসসি পরীক্ষায় কেন্দ্র পরিদর্শনে যাবেন না শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

ধর্ষণের ঘটনায় বিক্ষোভে উত্তাল জাবি

ছবি

উপবৃত্তি, প্রতিষ্ঠান ও প্রকল্প দ্রুত বাড়লেও শিক্ষার্থী এনরোলমেন্টে ধীরগতি

ছবি

২২ জেলায় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কাল

ছবি

নতুন শিক্ষাক্রমের বই বিতরণে অনীহা, শ্রেণীকক্ষে মূল্যায়নে জটিলতার শঙ্কা

ছবি

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পরিবর্তন

ছবি

মায়ানমার সীমান্তে গোলাগুলি, নাইক্ষ্যংছড়ির ৫ স্কুলে ‘ছুটি’

ছবি

বদলি না করলে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে না পাঠানোর সিদ্ধান্ত

ছবি

এসএসসি পরীক্ষা জন্য এক মাস কোচিং সেন্টার বন্ধ

ছবি

রাবি ভর্তি পরীক্ষার চূড়ান্ত আবেদন শুরু

ছবি

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

tab

শিক্ষা

তিন কর্মদিবসের মধ্যে হো চি মিনের ঘটনার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে ইউজিসি

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

তিন দিনের সময় দিয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেয়েও ট্রান্সজেন্ডার হো চি মিন ইসলামের যোগ দিতে না পারার ঘটনার ব্যাখ্যা চেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। গত রোববার ইউজিসি এ ঘটনার ব্যাখ্যা চেয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়কে চিঠি পাঠিয়েছে।

ইউজিসি বলছে, ‘নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে হো চি মিন ইসলামকে “উইমেনস ক্যারিয়ার কার্নিভ্যাল–এক্সপ্লোর ইয়োর ফিউচার উইথ আস” অনুষ্ঠানে যোগদানের অনুমতি কেন প্রদান করা হয়নি এবং এ ধরনের ঘটনা বা চর্চার পুনরাবৃত্তি যেন ভবিষ্যতে আর না ঘটে, সে বিষয়ে কী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে, সে বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বক্তব্য তিন কর্মদিবসের মধ্যে পাঠাতে হবে।’

ইউজিসি এ–সংক্রান্ত নোটিশে বলেছে, ‘বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তচিন্তা ও মুক্তবুদ্ধিচর্চার সূতিকাগার। এরূপ চর্চা ও বিশ্ববিদ্যালয় একে অপরের পরিপূরক। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এরূপ আচরণ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০১০, মুক্তচিন্তার বিকাশ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, বাংলাদেশের সংবিধান এবং সর্বোপরি বিশ্ববিদ্যালয় ধারণার পরিপন্থী।’

একটি গোষ্ঠীর আন্দোলনের ফলে শেষ পর্যন্ত হো চি মিন ইসলাম নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তব্য দিতে পারেননি। বেসরকারি সংগঠন হিরোজ ফর অল ও আইসোশ্যাল আয়োজিত ‘উইমেনস ক্যারিয়ার কার্নিভ্যাল-এক্সপ্লোর ইয়োর ফিউচার উইথ আস’–এর একটি সেশনে শুক্রবার হো চি মিন ইসলাম বক্তা হিসেবে আমন্ত্রিত ছিলেন। তিনি লিঙ্গ রূপান্তরিত নারী (ট্রান্সজেন্ডার)। হো চি মিন ইসলামের নিরাপত্তার কথা উল্লেখ করে আয়োজক সংস্থাও শেষ পর্যন্ত তাঁকে অনুষ্ঠানে যেতে নিষেধ করে।

শনিবার হো চি মিন ইসলাম জানান, সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি হিসেবে তাঁকে বক্তা হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। আয়োজক সংস্থা তাঁর ছবি দিয়ে পোস্টারও ছাপিয়েছিল। তবে তারপর একটি গোষ্ঠী (বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একটি অংশ) অনুষ্ঠানে তাঁর উপস্থিতি আটকাতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ই-মেইল দিয়ে ও বিভিন্নভাবে আন্দোলনের হুমকি দিতে থাকে।

হোচিমিন ইসলাম বলেন, ‘বিভিন্ন সময় আমি উগ্র গোষ্ঠীর আক্রমণের শিকার হয়েছি। তবে একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমন ঘটনা এবারই প্রথম ঘটল। আমার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে আয়োজক সংস্থাও শেষ পর্যন্ত পিছিয়ে গেল। জাতিসংঘের এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা পূরণে কেউ পিছিয়ে থাকবে না বলা হচ্ছে। অথচ আমাকে বাদ দিয়েই অনুষ্ঠান হলো। আয়োজক সংস্থা প্রতিবাদ হিসেবে অনুষ্ঠান বর্জন করেনি বা অনুষ্ঠানস্থলও পরিবর্তন করেনি।’

বেসরকারি সংগঠন হিরোজ ফর অলের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক রেহনুমা করিম। হো চি মিন ইসলামকে বক্তা হিসেবে বাদ দেওয়ার প্রসঙ্গে রোববার তিনি প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক দিন ধরে হো চি মিন ইসলাম যাতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে না পারেন, সে নিয়ে অনেক হুমকি দেওয়া হচ্ছিল।

এদিকে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে হো চি মিন ইসলামের বক্তব্য দিতে না পারার বিষয়ে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তারা বলছে, শিক্ষার মান ধরে রাখার পাশাপাশি সবার জন্য একটি সম্মানজনক পরিবেশ বজায় রাখতে কর্তৃপক্ষ সচেষ্ট। তবে উইমেনস ক্যারিয়ার কার্নিভ্যালে ঘটে যাওয়া ঘটনায় এই লক্ষ্য অর্জন চ্যালেঞ্জের মুখে।

রোববার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নিজেদের এ অবস্থান তুলে ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘আমরা এই অনুষ্ঠানে হো চি মিন ইসলামের অংশগ্রহণের বিষয়ে জনগণের ভিন্ন মতামতকে সম্মান করি। এসব দৃষ্টিভঙ্গি আমাদের সমাজের বিভিন্ন বিশ্বাস ও মূল্যবোধকে প্রতিফলিত করে। দৃষ্টিভঙ্গির বিস্তৃতি ও সংলাপকে উৎসাহিত করতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার শক্তিতে বিশ্বাস করে। হো চি মিনের অংশগ্রহণের উদ্দেশ্য ছিল, কর্মক্ষেত্রে প্রান্তিক সম্প্রদায়ের অর্জন তুলে ধরা।’

অনুষ্ঠানে হো চি মিন অন্যতম বক্তা হলেও কিছু অপ্রত্যাশিত ঘটনার ফলে নির্ধারিত আলোচনা বাতিল করা হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয়টির বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, বক্তা ও আয়োজক উভয়ের জন্য দুঃখজনক এ ঘটনাকে বিশ্ববিদ্যালয় বিবেচনায় নিয়েছে। এ ঘটনা সম্পর্কে ভুল তথ্য ছড়ানো হচ্ছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। উদাহরণ টেনে তারা বলেছে, বলা হচ্ছে, হো চি মিনের আলোচনা বাতিল করেছে উপাচার্য কার্যালয়। অথচ উপাচার্য আতিকুল ইসলাম ওই সময় দেশের বাইরে ছিলেন। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে কোনো সহ–উপাচার্যও নেই।

back to top