alt

শিক্ষা

রাবিতে ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ও শিক্ষকের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : রোববার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক

শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছে একই বিভাগের এক শিক্ষার্থী।

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) এ ঘটনায় বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে ওই শিক্ষকের অব্যাহতি ও নিপীড়ন-হয়রানির বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায়ে তাঁরা ক্লাস বর্জন এবং এই কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ওই ছাত্রী আজ দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামালের কাছে কিছু তথ্যপ্রমাণসহ লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর আগে গতকাল শনিবার প্রক্টর মো. মাকসুদুর রহমানের কাছেও লিখিত অভিযোগ দেন। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত অধ্যাপকের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ

রাজনীতি

বাংলাদেশ

অপরাধ

বিশ্ব

বাণিজ্য

মতামত

খেলা

বিনোদন

চাকরি

জীবনযাপন

Eng

By using this site, you agree to our Privacy Policy.

OK

ভিডিও

ছবি

ভিডিও

বাংলাদেশ

ঢাবির সাংবাদিকতা বিভাগ

ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ওঠা শিক্ষকের বিচার চেয়ে দিনভর বিক্ষোভ

প্রতিবেদকঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশ: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৯: ০৪

ফলো করুন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষকের বিচার দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভছবি: প্রথম আলো

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও মানসিক নিপীড়নের অভিযোগ করেছেন একই বিভাগের এক ছাত্রী। এ ঘটনায় বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে ওই শিক্ষকের অব্যাহতি ও নিপীড়ন-হয়রানির বিচারের দাবিতে আজ রোববার দিনভর বিক্ষোভ করেছেন বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায়ে তাঁরা ক্লাস বর্জন করেছেন এবং এই কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ওই ছাত্রী আজ দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামালের কাছে কিছু তথ্যপ্রমাণসহ লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর আগে গতকাল শনিবার প্রক্টর মো. মাকসুদুর রহমানের কাছেও লিখিত অভিযোগ দেন। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত অধ্যাপকের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর সাংবাদিকতা বিভাগের ওই শিক্ষকের শাস্তি চেয়ে গতকাল রাত থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব হন বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। বিভাগের চলমান সব ব্যাচের (১৩, ১৪, ১৫, ১৬ ও ১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেন।

আজ সকাল থেকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের নবম তলায় সাংবাদিকতা বিভাগের বারান্দায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ভবনের দেয়ালে সাঁটানো পোস্টারে ওই শিক্ষককে ‘যৌন নিপীড়ক’ আখ্যা দিয়ে ‘ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত’ও ঘোষণা করা হয়।

বেলা দেড়টার দিকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন শিক্ষার্থীরা। মিছিলে তাঁরা ‘নিপীড়কের কালো হাত, ভেঙে দাও গুঁড়িয়ে দাও’ প্রভৃতি বলে স্লোগান দেন। শিক্ষার্থীদের মিছিলটি উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। শিক্ষার্থীদের আগেই সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান আবুল মনসুর আহাম্মদসহ কয়েকজন শিক্ষক উপাচার্যের কার্যালয়ে যান।

পরে শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধিদল উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলতে ভেতরে প্রবেশ করেন। অন্যরা উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

বিভাগের চেয়ারম্যান আবুল মনসুর বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সিন্ডিকেট সদস্যও। তিনি বলেন, ‘প্রক্টরকে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরে শিক্ষার্থীরা আমাকে একটি স্মারকলিপি দিয়েছে। পরে বিষয়টি নিয়ে আমি ও বিভাগের দুজন শিক্ষক আজ উপাচার্যের সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে সভা করেছি৷ প্রক্টরও সভায় উপস্থিত ছিলেন। উপাচার্য সেখানে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদেরও ডেকে নিয়েছেন। উপাচার্য শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করেছেন যে এ বিষয়ে দ্রুত একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের কাছে অভিযুক্ত অধ্যাপককে তাৎক্ষণিকভাবে শিক্ষা কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পক্ষে নানা যুক্তি তুলে ধরেন। পরে বেরিয়ে এসে অপরাজেয় বাংলায় সমাবেশে যোগ দিয়ে প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী রাফিজ খান বলেন, উপাচার্য তাঁদের দাবির ব্যাপারে আশ্বস্ত করতে পারেননি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের ক্লাস বর্জনসহ আন্দোলন-কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

সার্বিক বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামাল প্রথম আলোকে বলেন, আগামীকাল সোমবারের মধ্যে প্রশাসনের একটি সভা করে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ও দাবির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

গার্ল গাইডের শিক্ষা কার্যক্রম নারীর নেতৃত্ব বিকাশের ক্ষেত্র তৈরী : ফার্স্ট লেডী প্রধান অতিথি ড. রেবেকা সুলতানা

ছবি

যৌন নির্যাতন ও হয়রানির অভিযোগ আমলে নেওয়ার আহ্বান: ইউজিসি

ছবি

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ২০ হাজার প্রার্থী

ছবি

দ্বিতীয় ধাপের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ২০ হাজার ৬৪৭

ছবি

নতুন শিক্ষাক্রমে শিক্ষক প্রশিক্ষণের ব্যয় নিয়ে জটিলতা

ছবি

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা, ওএমআর শিট ছেড়ার অভিযোগ মিথ্যা: তদন্ত কমিটির মহাপরিচালক

ছবি

সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ২০২৫ সালের এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে

ছবি

খুবির শিক্ষার্থীদের ‘মারধর’, প্রতিবাদে সড়কে বিক্ষোভ

ছবি

৪৬তম বিসিএস: পরীক্ষা হতে পারে এপ্রিলের শেষে

ছবি

পদোন্নতিতে বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে ‘বঞ্চনা ও অসন্তোষ’

ছবি

বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধে ইইডি প্রধান প্রকৌশলীর শ্রদ্ধা

ছবি

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিনই অনুপস্থিত ১৯ হাজার ৩৫৯ জন শিক্ষার্থী

ছবি

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য ডিএমপির কুইক রেসপন্স টিম

ছবি

ইইডির প্রধান প্রকৌশলীর মেয়াদ ২ বছর বাড়ল

ছবি

মায়ানমারে সংঘর্ষের কারণে ঘুমধুমের এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিবর্তন

নতুন শিক্ষাক্রম মূল্যায়ন কমিটির প্রধানই তদন্তের আওতায়

ছবি

মেডিকেলে ভর্তির ফল প্রকাশ হতে পারে কাল বা পরশু

ছবি

প্রশ্ন ফাঁস বন্ধের লক্ষ্যে এমবিবিএস ভর্তি প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজ করা হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ডাক্তার হতে চাওয়া লাখো শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসেছেন

নতুন শিক্ষাক্রমে এসএসসি পরীক্ষা কীভাবে হবে সেই বিষয়ে উদ্বেগ

ছবি

চলতি শিক্ষাবর্ষের ছুটির তালিকায় রোজায় চলবে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলের ক্লাস

ছবি

‘দ্বন্ধ-সংঘাতমুক্ত’ সমাজ নির্মাণে শিক্ষকদের ভূমিকা অনস্বীকার্য

ছবি

জাবিতে ধর্ষণকাণ্ডে জড়িতদের শাস্তি চেয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ, মিছিল

ছবি

চবিতে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ, শিক্ষকের বহিষ্কার দাবিতে আন্দোলন

ছবি

রাবিতে ধর্ষণবিরোধী বিক্ষোভ-মিছিলে ছাত্রলীগের বাধা

ছবি

এসএসসি পরীক্ষায় কেন্দ্র পরিদর্শনে যাবেন না শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

ধর্ষণের ঘটনায় বিক্ষোভে উত্তাল জাবি

ছবি

উপবৃত্তি, প্রতিষ্ঠান ও প্রকল্প দ্রুত বাড়লেও শিক্ষার্থী এনরোলমেন্টে ধীরগতি

ছবি

২২ জেলায় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কাল

ছবি

নতুন শিক্ষাক্রমের বই বিতরণে অনীহা, শ্রেণীকক্ষে মূল্যায়নে জটিলতার শঙ্কা

ছবি

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার তারিখ পরিবর্তন

ছবি

মায়ানমার সীমান্তে গোলাগুলি, নাইক্ষ্যংছড়ির ৫ স্কুলে ‘ছুটি’

ছবি

বদলি না করলে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে না পাঠানোর সিদ্ধান্ত

ছবি

এসএসসি পরীক্ষা জন্য এক মাস কোচিং সেন্টার বন্ধ

ছবি

রাবি ভর্তি পরীক্ষার চূড়ান্ত আবেদন শুরু

ছবি

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

tab

শিক্ষা

রাবিতে ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ও শিক্ষকের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

রোববার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক

শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছে একই বিভাগের এক শিক্ষার্থী।

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) এ ঘটনায় বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে ওই শিক্ষকের অব্যাহতি ও নিপীড়ন-হয়রানির বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায়ে তাঁরা ক্লাস বর্জন এবং এই কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ওই ছাত্রী আজ দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামালের কাছে কিছু তথ্যপ্রমাণসহ লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর আগে গতকাল শনিবার প্রক্টর মো. মাকসুদুর রহমানের কাছেও লিখিত অভিযোগ দেন। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত অধ্যাপকের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ

রাজনীতি

বাংলাদেশ

অপরাধ

বিশ্ব

বাণিজ্য

মতামত

খেলা

বিনোদন

চাকরি

জীবনযাপন

Eng

By using this site, you agree to our Privacy Policy.

OK

ভিডিও

ছবি

ভিডিও

বাংলাদেশ

ঢাবির সাংবাদিকতা বিভাগ

ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ওঠা শিক্ষকের বিচার চেয়ে দিনভর বিক্ষোভ

প্রতিবেদকঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশ: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৯: ০৪

ফলো করুন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষকের বিচার দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভছবি: প্রথম আলো

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক অধ্যাপকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও মানসিক নিপীড়নের অভিযোগ করেছেন একই বিভাগের এক ছাত্রী। এ ঘটনায় বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে ওই শিক্ষকের অব্যাহতি ও নিপীড়ন-হয়রানির বিচারের দাবিতে আজ রোববার দিনভর বিক্ষোভ করেছেন বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায়ে তাঁরা ক্লাস বর্জন করেছেন এবং এই কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ওই ছাত্রী আজ দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামালের কাছে কিছু তথ্যপ্রমাণসহ লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর আগে গতকাল শনিবার প্রক্টর মো. মাকসুদুর রহমানের কাছেও লিখিত অভিযোগ দেন। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত অধ্যাপকের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর সাংবাদিকতা বিভাগের ওই শিক্ষকের শাস্তি চেয়ে গতকাল রাত থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব হন বিভাগটির বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। বিভাগের চলমান সব ব্যাচের (১৩, ১৪, ১৫, ১৬ ও ১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেন।

আজ সকাল থেকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের নবম তলায় সাংবাদিকতা বিভাগের বারান্দায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ভবনের দেয়ালে সাঁটানো পোস্টারে ওই শিক্ষককে ‘যৌন নিপীড়ক’ আখ্যা দিয়ে ‘ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত’ও ঘোষণা করা হয়।

বেলা দেড়টার দিকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন শিক্ষার্থীরা। মিছিলে তাঁরা ‘নিপীড়কের কালো হাত, ভেঙে দাও গুঁড়িয়ে দাও’ প্রভৃতি বলে স্লোগান দেন। শিক্ষার্থীদের মিছিলটি উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। শিক্ষার্থীদের আগেই সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান আবুল মনসুর আহাম্মদসহ কয়েকজন শিক্ষক উপাচার্যের কার্যালয়ে যান।

পরে শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধিদল উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলতে ভেতরে প্রবেশ করেন। অন্যরা উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

বিভাগের চেয়ারম্যান আবুল মনসুর বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সিন্ডিকেট সদস্যও। তিনি বলেন, ‘প্রক্টরকে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরে শিক্ষার্থীরা আমাকে একটি স্মারকলিপি দিয়েছে। পরে বিষয়টি নিয়ে আমি ও বিভাগের দুজন শিক্ষক আজ উপাচার্যের সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে সভা করেছি৷ প্রক্টরও সভায় উপস্থিত ছিলেন। উপাচার্য সেখানে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদেরও ডেকে নিয়েছেন। উপাচার্য শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করেছেন যে এ বিষয়ে দ্রুত একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের কাছে অভিযুক্ত অধ্যাপককে তাৎক্ষণিকভাবে শিক্ষা কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পক্ষে নানা যুক্তি তুলে ধরেন। পরে বেরিয়ে এসে অপরাজেয় বাংলায় সমাবেশে যোগ দিয়ে প্রতিনিধিদলের পক্ষ থেকে ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী রাফিজ খান বলেন, উপাচার্য তাঁদের দাবির ব্যাপারে আশ্বস্ত করতে পারেননি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের ক্লাস বর্জনসহ আন্দোলন-কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

সার্বিক বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ এস এম মাকসুদ কামাল প্রথম আলোকে বলেন, আগামীকাল সোমবারের মধ্যে প্রশাসনের একটি সভা করে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ও দাবির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

back to top