alt

আন্তর্জাতিক

আফগানিস্তানে বন্যায় মৃত্যু বেড়ে ১৫৩

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : শনিবার, ১১ মে ২০২৪

আফগানিস্তানে আকস্মিক বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫৩ জন হয়েছে। আহত হয়েছেন শতাধিক মানুষ। এছাড়া ভারী বৃষ্টিপাতের জেরে সৃষ্ট এই বন্যায় নিখোঁজ রয়েছেন আরও বহু মানুষ।

শনিবার (১১ মে) জানিয়েছে তালেবান সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল মতিন কানি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, বাগলান, তাখার এবং বাদাখশান প্রদেশে শুক্রবার ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট আকস্মিক বন্যায় আরও অন্তত ১৩৮ জন আহত হয়েছেন।

আকস্মিক বন্যায় অনেক অঞ্চল তলিয়ে গেলে শতাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। তাদের উদ্ধারে তালেবান কর্তৃপক্ষ হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে এবং রাতভর সেগুলো উদ্ধার কাজ চালিয়েছে বলেও জানান তিনি।

বন্যায় দেশটিতে বহু মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছেন। সড়ক যোগাযোগ, পানি এবং বর্জ্য নিষ্কাশন ব্যবস্থা ‘মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত’ হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-ডব্লিউএইচও।

শুক্রবার রাতে ডব্লিউএইচওর আফগানিস্তান কার্যালয় থেকে বলা হয়, “বন্যার প্রভাব ছিল অনেক গভীর। অনেক মানুষ হতাহত হয়েছেন। অনেকে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।”

বন্যায় চারটি স্বাস্থ্য কেন্দ্র ক্ষতিগস্ত হয়েছে এবং একটি স্বাস্থ্য কেন্দ্র ভেসে গেছে বলেও জানিয়েছে ডব্লিউএইচও কর্তৃপক্ষ। বলেছে, তারা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মানুষদের সহায়তার জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের পাঠিয়েছে।

অন্যদিকে সকালে বিবিসি এক প্রতিবেদনে বলছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া বেশ কিছু ছবিতে বেশ কয়েকটি গ্রামের বাড়িঘরের মধ্য দিয়ে পানির স্রোত বয়ে যেতে দেখা যাচ্ছে। এছাড়া ভয়াবহ এই বন্যা দেশটির এই অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করেছে।

মূলত গত কয়েক সপ্তাহ ধরে আফগানিস্তানে অস্বাভাবিকভাবে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। গত এপ্রিলের মাঝামাঝি থেকে বন্যায় দেশটিতে ১০০ জনেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল মতিন কানি বিবিসিকে বলেছেন, যারা মারা গেছেন তারা বাঘলান প্রদেশের বোরকা জেলার মানুষ। সেখানে দুই শতাধিক মানুষ তাদের ঘরের মধ্যে আটকা পড়েছেন।

আফগান সরকারের এই কর্মকর্তা এর আগে বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেন, আটকে পড়া মানুষকে উদ্ধারের জন্য হেলিকপ্টারগুলোকে বাঘলানে পাঠানো হয়েছে। এই এলাকাটি রাজধানী কাবুলের সরাসরি উত্তরে অবস্থিত। তবে রাতে দৃষ্টিশক্তির ঘাটতির কারণে ‘অপারেশন সফল নাও হতে পারে’ বলে জানান তিনি।

এদিকে, স্থানীয় কর্মকর্তা হেদায়তুল্লাহ হামদর্দ বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেছেন, সেনাবাহিনীসহ জরুরি কর্মীরা ‘কাদা ও ধ্বংসস্তূপের নিচে সম্ভাব্য ক্ষতিগ্রস্তদের সন্ধান করছেন’। এই কর্মকর্তা আরও বলেছেন, ঘরবাড়ি হারিয়েছে এমন কিছু পরিবারকে তাঁবু, কম্বল এবং খাবার সরবরাহ করা হয়েছে।

এছাড়া বন্যার জেরে কাবুলের সাথে উত্তর আফগানিস্তানের সংযোগকারী প্রধান সড়কটিও বন্ধ রয়েছে।

গত মাসে আফগানিস্তানের পশ্চিমে বন্যায় কয়েক ডজন লোক মারা যাওয়ার পরে এবার উত্তরাঞ্চলে বন্যার এই ঘটনা ঘটল। এর ফলে হাজার হাজার মানুষের মানবিক সহায়তার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে। প্রায় ২ হাজার ঘরবাড়ি, তিনটি মসজিদ এবং চারটি স্কুলও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

মূলত আকস্মিক বন্যা যখন ঘটে তখন এত বেশি বৃষ্টিপাত হয় যে, স্বাভাবিক নিষ্কাশন ব্যবস্থা সেটি মোকাবিলা করতে পারে না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অপেক্ষাকৃত শুষ্ক ঠান্ডা মাটির জন্য বৃষ্টিপাত শোষণ করা আরও কঠিন করে তুলেছে।

মূলত আফগানিস্তানে প্রতি বছর মুষলধারে বৃষ্টি এবং বন্যায় মানুষ মারা যায়। এছাড়া বিচ্ছিন্ন গ্রামীণ এলাকায় দুর্বলভাবে নির্মিত ঘরগুলো বিশেষভাবে ঝুঁকিপূর্ণ।

বিশেষজ্ঞদের মতে, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে আফগানিস্তান বিশ্বের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর একটি হয়ে উঠেছে।

ছবি

পশ্চিমবঙ্গে রেল দুর্ঘটনায় নিহত ৮, আহত ৫০

ছবি

ক্যান্সার চিকিৎসার পর প্রথমবার জনসমক্ষে কেট মিডলটন

ছবি

যুদ্ধ বন্ধে ইউক্রেনকে যে শর্ত দিলেন পুতিন

ছবি

লেবাননে ইসরায়েলের বিমান হামলা

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পেট্রো-ডলার চুক্তি নবায়ন করবে না সৌদি, বৈশ্বিক অর্থনীতির বাঁকবদল

ছবি

ঈদের আগে পেট্রোলের দাম কমালেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

ছবি

ফের গাজার ভাসমান বন্দর সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

গাজাকে বসবাসের অযোগ্য করে ফেলা হয়েছে : ইউএনআরডব্লিউএ

ছবি

দুবাইয়ে টেকসই ফ্যাশন শো অনুষ্ঠানে কনসালটেন্ট জেনারেল

ছবি

সারাবিশ্বে ১২ কোটি মানুষ জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হয়েছে : জাতিসংঘ

ছবি

গাজায় ৫ বছরের কম বয়সী ৮ হাজার শিশু তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছে

ছবি

গাজায় বিপুল হত্যাযজ্ঞ মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের সামিল: জাতিসংঘ

ছবি

মায়ানমারের অর্থনৈতিক বিপর্যয়: গৃহযুদ্ধ ও দারিদ্র্যের গভীরতা

ছবি

কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ৩৯

ছবি

হজের সময় এবার মক্কায় থাকতে পারে প্রচণ্ড গরম

ছবি

ভারতের জম্মু-কাশ্মিরে সেনা ঘাঁটিতে হামলা, চলছে গোলাগুলি

ছবি

ঝাঁকুনিতে আহত যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স

ছবি

গাজায় যুদ্ধবিরতি নিয়ে হামাসের ইতিবাচক অবস্থান

ছবি

মালাবির ভাইস প্রেসিডেন্ট বহনকারী বিমানের কেউ বেঁচে নেই

ছবি

গাজায় বাইডেনের শান্তি প্রস্তাব প্রশ্নের মুখে

ছবি

মন্ত্রিত্ব নিয়ে মোদীর জোটে অসন্তোষ, উঠলো বৈষম্যের অভিযোগ

ছবি

মোজাম্বিকে সড়ক দুর্ঘটনায় ২২ জন নিহত

ছবি

মালাউইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমান নিখোঁজ

ছবি

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব পাস

ছবি

গাজায় নিহত আরও ২৮৩, প্রাণহানি ছাড়িয়ে গেল ৩৭ হাজার

ছবি

ফ্রান্সে পার্লামেন্ট ভেঙে দিলেন ম্যাক্রোঁ, আগাম নির্বাচনের ঘোষণা

ছবি

গাজা যুদ্ধ : ইসরায়েলের কাছে কয়লা বিক্রি বন্ধ করেছে কলম্বিয়া

ছবি

মোদীর নতুন মেয়াদ বিশ্বে যেসব প্রভাব ফেলতে পারে

ছবি

গাজায় যুদ্ধবিরতির আহ্বান ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁর

ছবি

কলকাতার বাগজোলা খাল থেকে হাড় উদ্ধার

ছবি

ভারত ম্যাচের আগে স্বস্তির খবর পাকিস্তানের

ছবি

টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদির শপথ আজ

ছবি

থাকছেন ৮ হাজার অতিথি, দিল্লিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা

ছবি

শেখ হাসিনা ছাড়াও মোদির শপথে থাকছেন যেসব বিদেশি নেতা

ছবি

সামরিক সহায়তা পাঠাতে দেরি হওয়ায় জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চাইলেন বাইডেন

ছবি

রাশিয়াতে চার ভারতীয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

tab

আন্তর্জাতিক

আফগানিস্তানে বন্যায় মৃত্যু বেড়ে ১৫৩

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

শনিবার, ১১ মে ২০২৪

আফগানিস্তানে আকস্মিক বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫৩ জন হয়েছে। আহত হয়েছেন শতাধিক মানুষ। এছাড়া ভারী বৃষ্টিপাতের জেরে সৃষ্ট এই বন্যায় নিখোঁজ রয়েছেন আরও বহু মানুষ।

শনিবার (১১ মে) জানিয়েছে তালেবান সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল মতিন কানি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, বাগলান, তাখার এবং বাদাখশান প্রদেশে শুক্রবার ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট আকস্মিক বন্যায় আরও অন্তত ১৩৮ জন আহত হয়েছেন।

আকস্মিক বন্যায় অনেক অঞ্চল তলিয়ে গেলে শতাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। তাদের উদ্ধারে তালেবান কর্তৃপক্ষ হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে এবং রাতভর সেগুলো উদ্ধার কাজ চালিয়েছে বলেও জানান তিনি।

বন্যায় দেশটিতে বহু মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছেন। সড়ক যোগাযোগ, পানি এবং বর্জ্য নিষ্কাশন ব্যবস্থা ‘মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত’ হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-ডব্লিউএইচও।

শুক্রবার রাতে ডব্লিউএইচওর আফগানিস্তান কার্যালয় থেকে বলা হয়, “বন্যার প্রভাব ছিল অনেক গভীর। অনেক মানুষ হতাহত হয়েছেন। অনেকে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।”

বন্যায় চারটি স্বাস্থ্য কেন্দ্র ক্ষতিগস্ত হয়েছে এবং একটি স্বাস্থ্য কেন্দ্র ভেসে গেছে বলেও জানিয়েছে ডব্লিউএইচও কর্তৃপক্ষ। বলেছে, তারা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মানুষদের সহায়তার জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের পাঠিয়েছে।

অন্যদিকে সকালে বিবিসি এক প্রতিবেদনে বলছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া বেশ কিছু ছবিতে বেশ কয়েকটি গ্রামের বাড়িঘরের মধ্য দিয়ে পানির স্রোত বয়ে যেতে দেখা যাচ্ছে। এছাড়া ভয়াবহ এই বন্যা দেশটির এই অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করেছে।

মূলত গত কয়েক সপ্তাহ ধরে আফগানিস্তানে অস্বাভাবিকভাবে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। গত এপ্রিলের মাঝামাঝি থেকে বন্যায় দেশটিতে ১০০ জনেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল মতিন কানি বিবিসিকে বলেছেন, যারা মারা গেছেন তারা বাঘলান প্রদেশের বোরকা জেলার মানুষ। সেখানে দুই শতাধিক মানুষ তাদের ঘরের মধ্যে আটকা পড়েছেন।

আফগান সরকারের এই কর্মকর্তা এর আগে বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেন, আটকে পড়া মানুষকে উদ্ধারের জন্য হেলিকপ্টারগুলোকে বাঘলানে পাঠানো হয়েছে। এই এলাকাটি রাজধানী কাবুলের সরাসরি উত্তরে অবস্থিত। তবে রাতে দৃষ্টিশক্তির ঘাটতির কারণে ‘অপারেশন সফল নাও হতে পারে’ বলে জানান তিনি।

এদিকে, স্থানীয় কর্মকর্তা হেদায়তুল্লাহ হামদর্দ বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেছেন, সেনাবাহিনীসহ জরুরি কর্মীরা ‘কাদা ও ধ্বংসস্তূপের নিচে সম্ভাব্য ক্ষতিগ্রস্তদের সন্ধান করছেন’। এই কর্মকর্তা আরও বলেছেন, ঘরবাড়ি হারিয়েছে এমন কিছু পরিবারকে তাঁবু, কম্বল এবং খাবার সরবরাহ করা হয়েছে।

এছাড়া বন্যার জেরে কাবুলের সাথে উত্তর আফগানিস্তানের সংযোগকারী প্রধান সড়কটিও বন্ধ রয়েছে।

গত মাসে আফগানিস্তানের পশ্চিমে বন্যায় কয়েক ডজন লোক মারা যাওয়ার পরে এবার উত্তরাঞ্চলে বন্যার এই ঘটনা ঘটল। এর ফলে হাজার হাজার মানুষের মানবিক সহায়তার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে। প্রায় ২ হাজার ঘরবাড়ি, তিনটি মসজিদ এবং চারটি স্কুলও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

মূলত আকস্মিক বন্যা যখন ঘটে তখন এত বেশি বৃষ্টিপাত হয় যে, স্বাভাবিক নিষ্কাশন ব্যবস্থা সেটি মোকাবিলা করতে পারে না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অপেক্ষাকৃত শুষ্ক ঠান্ডা মাটির জন্য বৃষ্টিপাত শোষণ করা আরও কঠিন করে তুলেছে।

মূলত আফগানিস্তানে প্রতি বছর মুষলধারে বৃষ্টি এবং বন্যায় মানুষ মারা যায়। এছাড়া বিচ্ছিন্ন গ্রামীণ এলাকায় দুর্বলভাবে নির্মিত ঘরগুলো বিশেষভাবে ঝুঁকিপূর্ণ।

বিশেষজ্ঞদের মতে, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে আফগানিস্তান বিশ্বের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর একটি হয়ে উঠেছে।

back to top