alt

আন্তর্জাতিক

প্রথমবারের মত উ. কোরিয়ায় করোনা, দেশজুড়ে লকডাউন

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ১২ মে ২০২২

উত্তর কোরিয়ায় প্রথমবারের মতো করোনার প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) দেশটি প্রথমবারের মতো করোনার প্রাদুর্ভাবের কথা নিশ্চিত করে। এরপরই দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছে পিয়ংইয়ংয়ের ক্ষমতাসীন কিম জং উনের প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়া প্রথমবারের মতো করোনার প্রাদুর্ভাবের কথা নিশ্চিত করে এটিকে ‘গুরুতর জাতীয় জরুরি অবস্থা’ বলে অভিহিত করেছে। এরপরই সমগ্র উত্তর কোরিয়াজুড়ে লকডাউন জারি করে দেশটির সরকার।

এছাড়া রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে এক রোগীর শরীরে করোনাভাইরাসের অতিসংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের খোঁজ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে পূর্ব এশিয়ার এই দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম।

বিশ্বজুড়ে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনা মহামারি চললেও বিশ্বের একমাত্র দেশ হিসেবে উত্তর কোরিয়া এতোদিন দাবি করে আসছিল তাদের দেশে কেউ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়নি।

এমনকি দেশটি কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সহায়তা গ্রহণ করতে অস্বীকার করে এবং কোভিডবিধি মেনে সীমানা বন্ধ করতেও অস্বীকৃতি জানায়। আর তাই করোনা সংক্রমণের প্রথম এই প্রকাশ্য স্বীকৃতি সম্ভাব্য বড় একটি সংকটকেই সামনে আনছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তথ্য অনুযায়ী, গত মার্চ মাস পর্যন্ত উত্তর কোরিয়ায় কোভিড-১৯ সংক্রমণ বা শনাক্তের কোনো ঘটনাই রিপোর্ট করা হয়নি এবং এছাড়া দেশটির জনগণের করোনা টিকা নেওয়ার কোনো আনুষ্ঠানিক রেকর্ডও নেই।

করোনার অতিসংক্রামক ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের একটি উপ-ভ্যারিয়েন্টের শনাক্ত হওয়া তথ্য উল্লেখ করে উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদমাধ্যম দ্য কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) জানিয়েছে, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে গত দুই বছর এবং তিন মাস ধরে নিরাপদে রাখার পর দেশে সবচেয়ে বড় জরুরি ঘটনা ঘটেছে।’

প্রতিবেদনে এই সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, পিয়ংইয়ংয়ের বাসিন্দারা করোনার ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রামিত হয়েছেন। তবে ঠিক কতজন ভাইরাসের অতিসংক্রামক এই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত হয়েছেন বা সংক্রমণের সম্ভাব্য উৎস কী, সে সম্পর্কে বিস্তারিত কোনো দেয়নি কেসিএনএ। তবে এতে বলা হয়, গত ৮ মে আক্রান্তদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হওয়ার সময় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন করোনাভাইরাসের প্রথম প্রাদুর্ভাবের প্রতিক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করতে ওয়ার্কার্স পার্টির একটি বৈঠকের সভাপতিত্ব করছিলেন।

কেসিএনএ’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধ করতে দেশের সকল শহর ও কাউন্টিগুলোকে ‘কঠোরভাবে লকডাউন’ জারির এবং জরুরি চিকি’সা ব্যবস্থাপনাগুলোকে সচল করার নির্দেশ দেন। এছাড়া রাষ্ট্রীয় মহামারি প্রতিরোধের কর্মকাণ্ড সর্বোচ্চ জরুরি মহামারি প্রতিরোধ ব্যবস্থায় রূপান্তর করা হবে বলেও জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় এই সংবাদমাধ্যমটি।

উত্তর কোরিয়া অবশ্য আগে কখনো দেশে একটিও করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত না করলেও দক্ষিণ কোরিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা তা নিয়ে বরাবরই সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। বিশেষত প্রতিবেশী দক্ষিণ কোরিয়া ও চীনে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার পর পেয়ংইয়ংয়ের দাবি নিয়ে সন্দে আরও প্রকট হয়।

অবশ্য ২০২০ সালের শুরুতে মহামারি শুরু হওয়ার পর কঠোর লকডাউন, সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়াসহ বেশ কিছু কড়া পদক্ষেপ নিয়েছিল কিম জং উনের প্রশাসন। সেই বছরের জুলাই মাসে জরুরি অবস্থা জারির পর আন্ত-কোরিয়ান সীমান্তের কাছে কায়েসোং-এ তিন সপ্তাহের জন্য লকডাউন আরোপ করেছিলেন কিম।

মূলত ২০১৭ সালে দক্ষিণ কোরিয়ায় চলে যাওয়া এক ব্যক্তি করোনার উপসর্গ নিয়ে ফের উত্তরে ফিরে আসার পর ওই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন উত্তর কোরীয় নেতা।

ছবি

অবরুদ্ধ ইসলামাবাদ, আটক হতে পারেন ইমরান খান

ছবি

টেক্সাসে স্কুলে হামলা: সহপাঠীকে অস্ত্রের ছবি পাঠান বন্দুকধারী

ছবি

স্কুলে ঢোকার আগে নিজের দাদিকে গুলি করে টেক্সাসের বন্দুকধারী

ছবি

শ্রীলঙ্কায় প্রধানমন্ত্রীই অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে

ছবি

মেক্সিকোর হোটেল ও বারে বন্দুকধারী হামলা, নিহত ১১

ছবি

যুক্তরাষ্ট্র প্যারালাইজড হয়ে গেছে: ওবামা

ছবি

বাইডেন এশিয়া ছাড়তেই ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উত্তর কোরিয়া

ছবি

আমিরাতসহ আরও ৩ দেশে মাঙ্কিপক্স শনাক্ত

ছবি

করোনা: বিশ্বজুড়ে নতুন আক্রান্ত ছয় লাখের বেশি

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে স্কুলে গুলি, ১৯ শিক্ষার্থীসহ নিহত ২১

ভারতের ২০২৪-এর নির্বাচনঃ কংগ্রেসের একাধিক কমিটি গঠন করলেন সোনিয়া

ছবি

ভারত এবার চিনির রপ্তানি সীমিত করছে

ছবি

মিয়ানমারের সৈকতে ভেসে আসল ১৪ রোহিঙ্গার লাশ

ছবি

নাইজেরিয়ায় সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত ৫০

ছবি

রাশিয়ার তেলে ইউরোপের নিষেধাজ্ঞা কয়েকদিনের মধ্যেই

ছবি

ইরানে ভবন ধসে নিহত ৫, আটকা আরও ৮০

ছবি

বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত আরও সাড়ে ৪ লাখ

ছবি

ডব্লিউএইচও জানাচ্ছে : মাঙ্কিপক্স নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব

ছবি

যুদ্ধাপরাধ: ইউক্রেনে রুশ সৈন্যের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ছবি

ফিলিপাইনে যাত্রীবাহী ফেরিতে অগ্নিকাণ্ডে ৭ জনের মৃত্যু

ছবি

মাঙ্কিপক্স: বেলজিয়ামে ২১ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন

ছবি

ইউক্রেইন কোনো ছাড় বা যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব মানবে না

ছবি

বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৬৩ লাখ ছাড়াল

ছবি

কানাডায় ঝড়ে ৮ জনের মৃত্যু, লাখো মানুষ বিদ্যুৎহীন

ছবি

ডব্লিউএইচওর সতর্কতা : দ্রুত বিশ্বজুড়ে ছড়াচ্ছে মাঙ্কিপক্স

ছবি

মুখ ঢাকলেন আফগান টিভির নারী উপস্থাপকরা

ছবি

করোনা: ভারতসহ ১৬ দেশে সৌদির ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা

ছবি

সব নারী ক্রু নিয়ে সৌদি আরবে উড়ল প্রথম ফ্লাইট

ছবি

মালদ্বীপে বৈধ হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা

ছবি

ভারতে তরুণীকে গণধর্ষণের মামলায় ১১ বাংলাদেশির কারাদণ্ড

ছবি

ফিনল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করল রাশিয়া

ছবি

রাশিয়ার ‘সস্তার তেল’ চুপিসারে বেশি করে কিনছে চীন

ছবি

মাঙ্কিপক্স নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বসছে জরুরি বৈঠকে

ছবি

মারিউপোলে পূর্ণ বিজয় ঘোষণা রাশিয়ার

ছবি

তরুণীকে যৌন হেনস্থার অভিযোগ অস্বীকার করলেন মাস্ক

ছবি

লবণ পানি, আদা দিয়ে করোনা মোকাবেলা করছে উত্তর কোরিয়া

tab

আন্তর্জাতিক

প্রথমবারের মত উ. কোরিয়ায় করোনা, দেশজুড়ে লকডাউন

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ১২ মে ২০২২

উত্তর কোরিয়ায় প্রথমবারের মতো করোনার প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) দেশটি প্রথমবারের মতো করোনার প্রাদুর্ভাবের কথা নিশ্চিত করে। এরপরই দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছে পিয়ংইয়ংয়ের ক্ষমতাসীন কিম জং উনের প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়া প্রথমবারের মতো করোনার প্রাদুর্ভাবের কথা নিশ্চিত করে এটিকে ‘গুরুতর জাতীয় জরুরি অবস্থা’ বলে অভিহিত করেছে। এরপরই সমগ্র উত্তর কোরিয়াজুড়ে লকডাউন জারি করে দেশটির সরকার।

এছাড়া রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে এক রোগীর শরীরে করোনাভাইরাসের অতিসংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের খোঁজ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে পূর্ব এশিয়ার এই দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম।

বিশ্বজুড়ে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনা মহামারি চললেও বিশ্বের একমাত্র দেশ হিসেবে উত্তর কোরিয়া এতোদিন দাবি করে আসছিল তাদের দেশে কেউ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়নি।

এমনকি দেশটি কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সহায়তা গ্রহণ করতে অস্বীকার করে এবং কোভিডবিধি মেনে সীমানা বন্ধ করতেও অস্বীকৃতি জানায়। আর তাই করোনা সংক্রমণের প্রথম এই প্রকাশ্য স্বীকৃতি সম্ভাব্য বড় একটি সংকটকেই সামনে আনছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তথ্য অনুযায়ী, গত মার্চ মাস পর্যন্ত উত্তর কোরিয়ায় কোভিড-১৯ সংক্রমণ বা শনাক্তের কোনো ঘটনাই রিপোর্ট করা হয়নি এবং এছাড়া দেশটির জনগণের করোনা টিকা নেওয়ার কোনো আনুষ্ঠানিক রেকর্ডও নেই।

করোনার অতিসংক্রামক ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের একটি উপ-ভ্যারিয়েন্টের শনাক্ত হওয়া তথ্য উল্লেখ করে উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদমাধ্যম দ্য কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) জানিয়েছে, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে গত দুই বছর এবং তিন মাস ধরে নিরাপদে রাখার পর দেশে সবচেয়ে বড় জরুরি ঘটনা ঘটেছে।’

প্রতিবেদনে এই সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, পিয়ংইয়ংয়ের বাসিন্দারা করোনার ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রামিত হয়েছেন। তবে ঠিক কতজন ভাইরাসের অতিসংক্রামক এই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত হয়েছেন বা সংক্রমণের সম্ভাব্য উৎস কী, সে সম্পর্কে বিস্তারিত কোনো দেয়নি কেসিএনএ। তবে এতে বলা হয়, গত ৮ মে আক্রান্তদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হওয়ার সময় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন করোনাভাইরাসের প্রথম প্রাদুর্ভাবের প্রতিক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করতে ওয়ার্কার্স পার্টির একটি বৈঠকের সভাপতিত্ব করছিলেন।

কেসিএনএ’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধ করতে দেশের সকল শহর ও কাউন্টিগুলোকে ‘কঠোরভাবে লকডাউন’ জারির এবং জরুরি চিকি’সা ব্যবস্থাপনাগুলোকে সচল করার নির্দেশ দেন। এছাড়া রাষ্ট্রীয় মহামারি প্রতিরোধের কর্মকাণ্ড সর্বোচ্চ জরুরি মহামারি প্রতিরোধ ব্যবস্থায় রূপান্তর করা হবে বলেও জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় এই সংবাদমাধ্যমটি।

উত্তর কোরিয়া অবশ্য আগে কখনো দেশে একটিও করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত না করলেও দক্ষিণ কোরিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা তা নিয়ে বরাবরই সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। বিশেষত প্রতিবেশী দক্ষিণ কোরিয়া ও চীনে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার পর পেয়ংইয়ংয়ের দাবি নিয়ে সন্দে আরও প্রকট হয়।

অবশ্য ২০২০ সালের শুরুতে মহামারি শুরু হওয়ার পর কঠোর লকডাউন, সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়াসহ বেশ কিছু কড়া পদক্ষেপ নিয়েছিল কিম জং উনের প্রশাসন। সেই বছরের জুলাই মাসে জরুরি অবস্থা জারির পর আন্ত-কোরিয়ান সীমান্তের কাছে কায়েসোং-এ তিন সপ্তাহের জন্য লকডাউন আরোপ করেছিলেন কিম।

মূলত ২০১৭ সালে দক্ষিণ কোরিয়ায় চলে যাওয়া এক ব্যক্তি করোনার উপসর্গ নিয়ে ফের উত্তরে ফিরে আসার পর ওই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন উত্তর কোরীয় নেতা।

back to top