alt

আন্তর্জাতিক

ফ্রান্সের আইনসভার নিয়ন্ত্রণ হারালেন প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : সোমবার, ২০ জুন ২০২২

প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হওয়ার দুই মাসেরও কম সময়ের মধ্যে ফ্রান্সের জাতীয় আইনসভার নিয়ন্ত্রণ হারালেন ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। পার্লামেন্ট নির্বাচনে তার ক্ষমতাসীন জোট নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখতে ব্যর্থ হয়েছে।

রোববারের জাতীয় নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোটে ক্ষমতাসীন জোটের এ বিপর্যয়ে ফ্রান্সে রাজনৈতিক অচলাবস্থা তৈরির শঙ্কা দেখা দিয়েছে, তবে ম্যাক্রোঁ অন্যান্য দলের সঙ্গে জোট গঠনে সক্ষম হলে এ পরিস্থিতি এড়াতে পারবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে; জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

নির্বাচনে অপেক্ষাকৃত ভালো ফলাফলে পার্লামেন্টে নিজেদের অবস্থান শক্ত করেছে বাম দলীয় জোট এবং কট্টর ডানপন্থি দল।

বিবিসি জানিয়েছে, নির্বাচনের আগে ম্যাক্রোঁ তাকে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা দিতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন, কিন্তু নির্বাচনে তার মধ্যপন্থি জোট আসামব্ল বহু আসন হারিয়েছে।

তবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেও জাতীয় আইনসভার ৫৭৭টি আসনের মধ্যে আসামব্ল ২৪৫টি আসনে জয় পেয়ে সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রেখেছে, কিন্তু নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে তাদের ২৮৯টি আসন পেতে হতো।

কট্টর বামপন্থি নেতা জ্যঁ-লুক মিলশ্যঁ কমিউনিস্ট ও পরিবেশবাদী গ্রিন্সসহ মূলধারার বামপন্থি দলগুলোর জোট নিউফ গঠন করে বড় ধরনের সাফল্য পেয়েছেন। জাতীয় পরিষদের ১৩১টি আসনে জয় পেয়ে নিউফ প্রধান বিরোধীদল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

এই জোটের বাইরে থাকা অন্যান্য বাম দল আরও ২২টি আসন জিতেছে। ফলে বৃহত্তর বাম জোটের মোট আসন দাঁড়িয়েছে ১৫৩টি আর তাতে তারাই জাতীয় পরিষদে বৃহত্তম বিরোধীদলীয় শক্তি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

মারিন লু পেনের কট্টর ডানপন্থি ন্যাশনাল র‌্যালি পার্টি নতুন আটটি আসনে জয় পাওয়ায় তাদের আসন সংখ্যা ৮৯ হয়েছে। এ উন্নতিতে তারাও খোশ মেজাজে আছে। নির্বাচনের ফলাফল আসার পর লু পেন বলেছেন, “ইমানুয়েল মাক্রোঁর অ্যাডভেঞ্চার শেষ।”

রিপাবলিকান-ইউডিআই ৬৪ আসন এবং অন্যান্যরা ২৬টি আসন পেয়েছে।

সম্প্রতি নিয়োগ পাওয়া ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী এলিজাবেথ বোর্ন নির্বাচনের এ ফলাফলকে ‘নজিরবিহীন’ বলে আখ্যা দিয়েছেন। নির্বাচনে ফলাফল বিপর্যয়ের পর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের এলিজে প্রাসাদ থেকে দীর্ঘ বৈঠক শেষে নিজ বাসভবনে ফেরার পর তিনি বলেছেন, আধুনিক ফ্রান্স কখনোই এরকম জাতীয় পরিষদ দেখেনি।

ছবি

মায়ানমারে আগুনে পুড়লো ৬৪ কোটি ডলারের মাদক

ছবি

ফিলিপাইন উপকূলে নৌযানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

ছবি

সেফ ড্রাইভ বার্তা নিয়ে সাইকেলে চেপে ভারতীয় যুবক বাংলাদেশে

বাজেপি ৩, কংগ্রেস ১ আসন জয়

ছবি

সৌদি আরবে হজে গিয়ে ভিক্ষা, গ্রেপ্তার বাংলাদেশি

ছবি

সুইডেন ও ফিনল্যান্ডের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন এরদোয়ান

ছবি

এশিয়ার দুই দেশে সফরে আসছেন পুতিন

ছবি

সুদানের ৭ সেনার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর ইথিওপিয়া, বদলার হুমকি

ছবি

রুবলের মান বৃদ্ধি : কতটা লাভ হচ্ছে রাশিয়ার?

ছবি

কলম্বিয়ায় ষাঁড়ের লড়াই চলাকালে স্টেডিয়ামের স্ট্যান্ড ধসে নিহত ৬

ছবি

চীনকে টেক্কা দিতে ৬০ হাজার কোটি ডলার জোগাড় করছে জি-৭

ছবি

২৪ ঘণ্টায় কমেছে সংক্রমণ, মৃত্যু পাঁচশোর নিচে

ছবি

১০০ বছরের মধ্যে প্রথম ঋণখেলাপি রাশিয়া

ছবি

বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সাথে কমেছে সংক্রমণও

ছবি

দক্ষিণ আফ্রিকার নাইটক্লাবে মিললো ১৭ তরুণের মরদেহ

ছবি

কঙ্গোতে সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহীদের সংঘর্ষ : ৮০০ শিশু পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন

ছবি

শ্রীলঙ্কায় জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি : এক লিটার ডিজেল ৪৬০, পেট্রোল ৫৫০ রুপি

ছবি

গর্ভপাত: যুক্তরাষ্ট্রের আদালতের আদেশে বিশ্বজুড়ে ক্ষোভ, উদ্বেগ

ছবি

স্পেনের মেলিলা ছিটমহলে অনুপ্রবেশকালে ২৩ জন অভিবাসীর মৃত্যু

ছবি

বেলারুশকে ‘ইস্কান্দার-এম’ পারমাণবিক সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র দেবে রাশিয়া

ছবি

আবারও পরমাণু আলোচনা শুরু করতে সম্মত ইরান–ইইউ

ছবি

ঘরভর্তি ঘুষের টাকা, গুনতে নাজেহাল কর্মকর্তারা

ছবি

অবশেষে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ বিলে বাইডেনের স্বাক্ষর

ছবি

মদ্যপ অবস্থয় স্ত্রীর বদলে শ্যালিকার গলায় মালা!

ছবি

শেখ হাসিনা বাপের বেটি পদ্মা ব্রীজ করে দেখিয়ে দিয়েছেন, পবিত্র সরকার

ছবি

ইউক্রেনের সামরিক ঘাঁটিতে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ছবি

বিনা বিচারে ১৫ বছর গুয়ানতানামো কারাগারে, অবশেষে মুক্ত আফগান বন্দী

ছবি

চীনকে ঠেকাতে প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলে নতুন জোট যুক্তরাষ্ট্রের

ছবি

ডিউটিরত পুলিশের ফোন নিয়ে পালালো চোর!

ছবি

পদ্মা সেতু উদ্বোধন: শেখ হাসিনার প্রশংসায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বাংলাদেশের উন্নয়ন যাত্রায় পদ্মা সেতু দৃষ্টান্ত : পা‌কিস্তান

ছবি

রাশিয়ায় কার্গো বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ৩

ছবি

আফগানিস্তানে ভূমিকম্প: বেঁচে যাওয়াদের মধ্যে কলেরা ছড়ানোর শঙ্কা

ছবি

মার্কিন সিনেটে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ বিল পাস

ছবি

পাকিস্তানে কাগজ সংকট চরমে, শিক্ষার্থীদের নতুন বই পাওয়া নিয়ে শঙ্কা

ছবি

আসামে বন্যায় মৃত্যু বেড়ে ১০৭

tab

আন্তর্জাতিক

ফ্রান্সের আইনসভার নিয়ন্ত্রণ হারালেন প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

সোমবার, ২০ জুন ২০২২

প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হওয়ার দুই মাসেরও কম সময়ের মধ্যে ফ্রান্সের জাতীয় আইনসভার নিয়ন্ত্রণ হারালেন ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। পার্লামেন্ট নির্বাচনে তার ক্ষমতাসীন জোট নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখতে ব্যর্থ হয়েছে।

রোববারের জাতীয় নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোটে ক্ষমতাসীন জোটের এ বিপর্যয়ে ফ্রান্সে রাজনৈতিক অচলাবস্থা তৈরির শঙ্কা দেখা দিয়েছে, তবে ম্যাক্রোঁ অন্যান্য দলের সঙ্গে জোট গঠনে সক্ষম হলে এ পরিস্থিতি এড়াতে পারবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে; জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

নির্বাচনে অপেক্ষাকৃত ভালো ফলাফলে পার্লামেন্টে নিজেদের অবস্থান শক্ত করেছে বাম দলীয় জোট এবং কট্টর ডানপন্থি দল।

বিবিসি জানিয়েছে, নির্বাচনের আগে ম্যাক্রোঁ তাকে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা দিতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন, কিন্তু নির্বাচনে তার মধ্যপন্থি জোট আসামব্ল বহু আসন হারিয়েছে।

তবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেও জাতীয় আইনসভার ৫৭৭টি আসনের মধ্যে আসামব্ল ২৪৫টি আসনে জয় পেয়ে সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রেখেছে, কিন্তু নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে তাদের ২৮৯টি আসন পেতে হতো।

কট্টর বামপন্থি নেতা জ্যঁ-লুক মিলশ্যঁ কমিউনিস্ট ও পরিবেশবাদী গ্রিন্সসহ মূলধারার বামপন্থি দলগুলোর জোট নিউফ গঠন করে বড় ধরনের সাফল্য পেয়েছেন। জাতীয় পরিষদের ১৩১টি আসনে জয় পেয়ে নিউফ প্রধান বিরোধীদল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

এই জোটের বাইরে থাকা অন্যান্য বাম দল আরও ২২টি আসন জিতেছে। ফলে বৃহত্তর বাম জোটের মোট আসন দাঁড়িয়েছে ১৫৩টি আর তাতে তারাই জাতীয় পরিষদে বৃহত্তম বিরোধীদলীয় শক্তি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

মারিন লু পেনের কট্টর ডানপন্থি ন্যাশনাল র‌্যালি পার্টি নতুন আটটি আসনে জয় পাওয়ায় তাদের আসন সংখ্যা ৮৯ হয়েছে। এ উন্নতিতে তারাও খোশ মেজাজে আছে। নির্বাচনের ফলাফল আসার পর লু পেন বলেছেন, “ইমানুয়েল মাক্রোঁর অ্যাডভেঞ্চার শেষ।”

রিপাবলিকান-ইউডিআই ৬৪ আসন এবং অন্যান্যরা ২৬টি আসন পেয়েছে।

সম্প্রতি নিয়োগ পাওয়া ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী এলিজাবেথ বোর্ন নির্বাচনের এ ফলাফলকে ‘নজিরবিহীন’ বলে আখ্যা দিয়েছেন। নির্বাচনে ফলাফল বিপর্যয়ের পর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের এলিজে প্রাসাদ থেকে দীর্ঘ বৈঠক শেষে নিজ বাসভবনে ফেরার পর তিনি বলেছেন, আধুনিক ফ্রান্স কখনোই এরকম জাতীয় পরিষদ দেখেনি।

back to top