alt

আন্তর্জাতিক

আদানি বিতর্ক: সোমবারও অচল ভারতের পার্লামেন্ট

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

গৌতম আদানিকে ঘিরে বিতর্কের জেরে আজ সোমবারও অচল হয়ে গেল ভারতের পার্লামেন্টের দুই কক্ষের অধিবেশন। এই শিল্পপতির বিরুদ্ধে শেয়ারবাজারে কারচুপির অভিযোগ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের অস্বাভাবিক নীরবতার প্রতিবাদে বিরোধীরা দুই সভাই অচল করে দেন। আগামীকাল মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাবে অংশ নিতে বিরোধীরা রাজি হলেও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আদানি প্রসঙ্গে ওঠা যাবতীয় প্রশ্নের জবাব দিতে হবে। অগ্রাধিকার এটাই।

বিরোধীরা দাবি করলেও মঙ্গলবার লোকসভা ও রাজ্যসভায় প্রধানমন্ত্রী কোনো মন্তব্য করবেন কি না, তার কোনো ইঙ্গিত সরকার দেয়নি। বিরোধীদের দাবি মেনে গত আট বছরে একবারের জন্যও প্রধানমন্ত্রী কোনো বিষয়ে সংসদে মুখ খোলেননি। কোনো প্রশ্নের জবাব দেননি। সোমবার লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা এবং রাজ্যসভার চেয়ারম্যান উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখড় বিরোধীদের জানিয়ে দেন, তাঁরা যে বিষয়ে দাবি জানাচ্ছেন, তার সঙ্গে সংসদের কোনো সম্পর্ক নেই। জনস্বার্থের বিষয় নয়। বিরোধীদের উদ্দেশে ধনখড় বলেন, ‘আপনারা মানুষের মন বোঝার চেষ্টা করুন। মানুষের কথা বলুন। জনস্বার্থবিষয়ক প্রশ্নের অবতারণা করুন।’ লোকসভায় ওম বিড়লাও বিরোধীদের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনাদের এই স্লোগানবাজির সঙ্গে জনস্বার্থের কোনো যোগাযোগ নেই।’

গত সপ্তাহের মতো সোমবার সকালেও সংসদের অধিবেশন শুরুর আগে রাজ্যসভার বিরোধী নেতা কংগ্রেস সদস্য মল্লিকার্জুন খাড়গের ডাকে ১৬টি বিরোধী দলের সদস্যরা যোগ দেন। সেখানে সভাকক্ষে বিরোধীদের ভূমিকা কী হবে, তা নিয়ে কথা হয়। ঠিক হয়, সরকার নীরব থাকলে অধিবেশন চলতে দেওয়া হবে না। যদিও সোমবার থেকেই রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ জ্ঞাপক প্রস্তাব আলোচনা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিরোধীরা তা করতে দেননি। সরকারের বিবৃতির দাবিতে তাঁরা সরব থাকেন।

সরকারবিরোধী স্লোগান দিতে থাকেন। ফলে প্রথমে বেলা দুইটা, তারপর সারা দিনের মতো দুই কক্ষের অধিবেশন মুলতবি হয়ে যায়। বিরোধীরা সংসদ ভবন চত্বরে মহাত্মা গান্ধীর মূর্তির সামনে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। খাড়গের ডাকা বৈঠকে যোগ না দিলেও ওই সমাবেশে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মহুয়া মৈত্র উপস্থিত ছিলেন।

বিরোধীদের দাবি, আদানির বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগের তদন্ত করতে হয় যুগ্ম সংসদীয় কমিটি গঠিত হোক নতুবা সুপ্রিম কোর্টের গড়ে দেওয়া কমিটি তদন্ত করুক। সংসদে নীরব থাকলেও অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন। বলছেন, ভারতীয় শেয়ারবাজার সুনিয়ন্ত্রিত। রেগুলেটর হিসেবে ‘সেবি’ তার দায়িত্ব পালন করছে। তারা স্বশাসিত সংস্থা। সরকারনিয়ন্ত্রিত নয়। এলআইসি ও স্টেট ব্যাংকের লগ্নি সামান্যই। সাধারণের স্বার্থ সুরক্ষিত। ভারতের অর্থনীতির ভিত ও কাঠামোও অত্যন্ত পোক্ত। সংসদ চলাকালে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সংসদেই বলা রীতি। বিশেষ করে কোনো দাবিতে বিরোধীরা যখন সরব হন।

আদানির বিভিন্ন শিল্পে ভারতের জীবনবিমা করপোরেশন (এলআইসি) ও স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার বিপুল লগ্নির বিরুদ্ধে কংগ্রেস সোমবার দেশজুড়ে ওই দুই সংস্থার বিভিন্ন অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখায়। তাদের অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে তাঁর ঘনিষ্ঠ উদ্যোগপতি আদানির বিভিন্ন প্রকল্পে এই দুই রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা আগুপিছু বিবেচনা না করে বিপুল লগ্নি করেছে। জনগণের টাকা নয়ছয় করেছে।

সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু হওয়ার সময়েই যুক্তরাষ্ট্রের হিনডেনবার্গ রিসার্চ এক গবেষণাপত্রে আদানি সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে শেয়ারবাজারে কারচুপি করে ধনী হওয়ার অভিযোগ আনে। ওই প্রতিবেদনের ফলে আদানির সব প্রকল্পের শেয়ারের মূল্য মারাত্মকভাবে পড়ে যায়। অবস্থা এতই সঙিন হয়ে যায় যে আদানি এন্টারপ্রাইজের আনা নতুন শেয়ার বিক্রি হয়ে যাওয়ার পরও তা বাতিল ঘোষণা করতে হয়। শেয়ারবাজারের লোকসানের ফলে গৌতম আদানি বিশ্বের তৃতীয় ধনী থেকে নেমে যান ২২ নম্বরে।

সোমবারও আদানি সাম্রাজ্যের শেয়ারের দরপতন সেভাবে বন্ধ হয়নি। আদানি পোর্টস অ্যান্ড স্পেশাল ইকোনমিক জোনের শেয়ার ৮ দশমিক ৬৫ শতাংশ ও আদানি এন্টারপ্রাইজের শেয়ার শূন্য দশমিক ৩৩ শতাংশ ও এনডিটিভির শেয়ার ১ দশমিক ৫৫ শতাংশ বৃদ্ধি ছাড়া অন্য সব শেয়ারের দরপতন ঘটেছে। সবচেয়ে বেশি দাম কমেছে আদানি ট্রান্সমিশনের, ১০ শতাংশ। আদানি টোটাল গ্যাস, আদানি গ্রিন এনার্জি, আদানি পাওয়ার ও আদানি উইলমারের দরপতন হয়েছে ৫ শতাংশ করে। অম্বুজা সিমেন্টের দাম পড়েছে ৩ দশমিক ২৪ শতাংশ ও এসিসির ১ দশমিক ০৩ শতাংশ। বিতর্ক দানা বাঁধার পর থেকে গত ১০ দিনে আদানি গোষ্ঠীর মোট লোকসানের পরিমাণ ১১ হাজার ৮০০ কোটি ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় পৌনে ১০ হাজার কোটি রুপি।

ছবি

কংগ্রেসের সাথে হাত মেলাবেনা সপা-টিএমসি

ছবি

কুয়েতে ছড়িয়ে পড়ছে তেল, জরুরি অবস্থা ঘোষণা

ছবি

মস্কোতে পৌঁছালেন চীনের প্রেসিডেন্ট, আলোচনার শীর্ষে থাকবে ইউক্রেন যুদ্ধ

ছবি

নেতৃত্বে বিজ্ঞানী-মন্ত্রী, রফতানির বাজার খুঁজছে বাংলাদেশের কৃষি: আনন্দবাজার

ছবি

সবচেয়ে সুখী দেশ ফিনল্যান্ড, ১১৮তম বাংলাদেশ

ছবি

ফ্রান্সে বিক্ষোভ অব্যাহত, গ্রেপ্তার ৩ শতাধিক

ছবি

ইরানের প্রেসিডেন্টকে সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছে সৌদি, দাবি তেহরানের

ছবি

আজ রাশিয়া সফরে যাচ্ছেন চীনের প্রেসিডেন্ট

ছবি

রাশিয়ার সামরিক বিমানকে বাধা দিল ন্যাটোর জঙ্গিবিমান

ছবি

কলকাতার স্টুডিও পাড়ায় আগুন, পুড়ে ছাই একাংশ

ছবি

সৌদিতে ১০ রমজান শেষ হচ্ছে হজ আবেদন

ছবি

‘ক্রেডিট সুইস’ কিনতে আলোচনায় ইউবিএস ব্যাংক

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধে প্রস্তুত ৮ লাখ উত্তর কোরীয়

ছবি

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশ হামলায় নিহত ২, আহত ১০

ছবি

এমপিদের ফোনে টিকটক নিষিদ্ধ করল নিউজিল্যান্ড

ছবি

গ্রেফতারি পরোয়ানার পর ক্রিমিয়া পরিদর্শনে গেলেন পুতিন

ছবি

ইকুয়েডরে শক্তিশালী ভূমিকম্প, নিহত অন্তত ১৪

ছবি

বাংলাদেশে আসছে সৌদির ৫ ভাসমান হাসপাতাল, সেবা দেবে গ্রামে গ্রামে

ছবি

পর্ন তারকাকে ঘুষ, ট্রাম্প বললেন গ্রেপ্তার হচ্ছেন সে

ছবি

মার্কিন ড্রোন বিধ্বস্ত: দুই পাইলটকে পুরস্কৃত করল রাশিয়া

ছবি

মালয়েশিয়ায় শ্রমিক নেওয়ার প্রক্রিয়া স্থগিত ঘোষণা

ছবি

ইমরানের বাসভবনে পুলিশের ‘তাণ্ডব’, গ্রেপ্তার ২০

ছবি

পুতিনের বিরুদ্ধে আনা যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ যৌক্তিক: বাইডেন

ছবি

সাভার : টোকেন দিয়ে অটোরিকশায় চাঁদাবাজি, মাসে আয় অর্ধকোটি টাকা

ছবি

কৃষ্ণ সাগরে ফের নজরদারি ড্রোন ফ্লাইট শুরু যুক্তরাষ্ট্রের

ছবি

ক্যাম্পের মাঝামাঝিতে যোগ দিলেন ২ জন

ছবি

পুঁজি কমলো সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা

ছবি

সব মহানগরে বিএনপির সমাবেশ আজ

ছবি

ফেইসবুকে ফিরলেন ট্রাম্প, লিখলেন ‘আই অ্যাম ব্যাক’

ছবি

করোনায় দৈনিক মৃত্যুতে শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্র, সংক্রমণে রাশিয়া

ছবি

ডলার সংকট : পাকিস্তানে হুমকির মুখে বিমান চলাচল

ছবি

পেনশনের বয়স বাড়ানোয় তীব্র আন্দোলন ফ্রান্সে, জনতা-পুলিশ সংঘর্ষ

ছবি

অস্ট্রেলিয়ার নদীতে হঠাৎ লাখ লাখ মাছের মৃত্যু

ছবি

ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধ: পুতিনের বিরুদ্ধে আইসিসির গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

ছবি

ডেঙ্গু প্রতিষেধক: বানরে প্রয়োগ, মিলল কার্যকারিতা

ছবি

মোজাম্বিকে ঘূর্ণিঝড় ফ্রেডিতে মৃত্যু ৪০০ ছাড়াল

tab

আন্তর্জাতিক

আদানি বিতর্ক: সোমবারও অচল ভারতের পার্লামেন্ট

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

গৌতম আদানিকে ঘিরে বিতর্কের জেরে আজ সোমবারও অচল হয়ে গেল ভারতের পার্লামেন্টের দুই কক্ষের অধিবেশন। এই শিল্পপতির বিরুদ্ধে শেয়ারবাজারে কারচুপির অভিযোগ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের অস্বাভাবিক নীরবতার প্রতিবাদে বিরোধীরা দুই সভাই অচল করে দেন। আগামীকাল মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাবে অংশ নিতে বিরোধীরা রাজি হলেও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আদানি প্রসঙ্গে ওঠা যাবতীয় প্রশ্নের জবাব দিতে হবে। অগ্রাধিকার এটাই।

বিরোধীরা দাবি করলেও মঙ্গলবার লোকসভা ও রাজ্যসভায় প্রধানমন্ত্রী কোনো মন্তব্য করবেন কি না, তার কোনো ইঙ্গিত সরকার দেয়নি। বিরোধীদের দাবি মেনে গত আট বছরে একবারের জন্যও প্রধানমন্ত্রী কোনো বিষয়ে সংসদে মুখ খোলেননি। কোনো প্রশ্নের জবাব দেননি। সোমবার লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা এবং রাজ্যসভার চেয়ারম্যান উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখড় বিরোধীদের জানিয়ে দেন, তাঁরা যে বিষয়ে দাবি জানাচ্ছেন, তার সঙ্গে সংসদের কোনো সম্পর্ক নেই। জনস্বার্থের বিষয় নয়। বিরোধীদের উদ্দেশে ধনখড় বলেন, ‘আপনারা মানুষের মন বোঝার চেষ্টা করুন। মানুষের কথা বলুন। জনস্বার্থবিষয়ক প্রশ্নের অবতারণা করুন।’ লোকসভায় ওম বিড়লাও বিরোধীদের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনাদের এই স্লোগানবাজির সঙ্গে জনস্বার্থের কোনো যোগাযোগ নেই।’

গত সপ্তাহের মতো সোমবার সকালেও সংসদের অধিবেশন শুরুর আগে রাজ্যসভার বিরোধী নেতা কংগ্রেস সদস্য মল্লিকার্জুন খাড়গের ডাকে ১৬টি বিরোধী দলের সদস্যরা যোগ দেন। সেখানে সভাকক্ষে বিরোধীদের ভূমিকা কী হবে, তা নিয়ে কথা হয়। ঠিক হয়, সরকার নীরব থাকলে অধিবেশন চলতে দেওয়া হবে না। যদিও সোমবার থেকেই রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ জ্ঞাপক প্রস্তাব আলোচনা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিরোধীরা তা করতে দেননি। সরকারের বিবৃতির দাবিতে তাঁরা সরব থাকেন।

সরকারবিরোধী স্লোগান দিতে থাকেন। ফলে প্রথমে বেলা দুইটা, তারপর সারা দিনের মতো দুই কক্ষের অধিবেশন মুলতবি হয়ে যায়। বিরোধীরা সংসদ ভবন চত্বরে মহাত্মা গান্ধীর মূর্তির সামনে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। খাড়গের ডাকা বৈঠকে যোগ না দিলেও ওই সমাবেশে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মহুয়া মৈত্র উপস্থিত ছিলেন।

বিরোধীদের দাবি, আদানির বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগের তদন্ত করতে হয় যুগ্ম সংসদীয় কমিটি গঠিত হোক নতুবা সুপ্রিম কোর্টের গড়ে দেওয়া কমিটি তদন্ত করুক। সংসদে নীরব থাকলেও অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন। বলছেন, ভারতীয় শেয়ারবাজার সুনিয়ন্ত্রিত। রেগুলেটর হিসেবে ‘সেবি’ তার দায়িত্ব পালন করছে। তারা স্বশাসিত সংস্থা। সরকারনিয়ন্ত্রিত নয়। এলআইসি ও স্টেট ব্যাংকের লগ্নি সামান্যই। সাধারণের স্বার্থ সুরক্ষিত। ভারতের অর্থনীতির ভিত ও কাঠামোও অত্যন্ত পোক্ত। সংসদ চলাকালে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সংসদেই বলা রীতি। বিশেষ করে কোনো দাবিতে বিরোধীরা যখন সরব হন।

আদানির বিভিন্ন শিল্পে ভারতের জীবনবিমা করপোরেশন (এলআইসি) ও স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার বিপুল লগ্নির বিরুদ্ধে কংগ্রেস সোমবার দেশজুড়ে ওই দুই সংস্থার বিভিন্ন অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখায়। তাদের অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে তাঁর ঘনিষ্ঠ উদ্যোগপতি আদানির বিভিন্ন প্রকল্পে এই দুই রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা আগুপিছু বিবেচনা না করে বিপুল লগ্নি করেছে। জনগণের টাকা নয়ছয় করেছে।

সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু হওয়ার সময়েই যুক্তরাষ্ট্রের হিনডেনবার্গ রিসার্চ এক গবেষণাপত্রে আদানি সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে শেয়ারবাজারে কারচুপি করে ধনী হওয়ার অভিযোগ আনে। ওই প্রতিবেদনের ফলে আদানির সব প্রকল্পের শেয়ারের মূল্য মারাত্মকভাবে পড়ে যায়। অবস্থা এতই সঙিন হয়ে যায় যে আদানি এন্টারপ্রাইজের আনা নতুন শেয়ার বিক্রি হয়ে যাওয়ার পরও তা বাতিল ঘোষণা করতে হয়। শেয়ারবাজারের লোকসানের ফলে গৌতম আদানি বিশ্বের তৃতীয় ধনী থেকে নেমে যান ২২ নম্বরে।

সোমবারও আদানি সাম্রাজ্যের শেয়ারের দরপতন সেভাবে বন্ধ হয়নি। আদানি পোর্টস অ্যান্ড স্পেশাল ইকোনমিক জোনের শেয়ার ৮ দশমিক ৬৫ শতাংশ ও আদানি এন্টারপ্রাইজের শেয়ার শূন্য দশমিক ৩৩ শতাংশ ও এনডিটিভির শেয়ার ১ দশমিক ৫৫ শতাংশ বৃদ্ধি ছাড়া অন্য সব শেয়ারের দরপতন ঘটেছে। সবচেয়ে বেশি দাম কমেছে আদানি ট্রান্সমিশনের, ১০ শতাংশ। আদানি টোটাল গ্যাস, আদানি গ্রিন এনার্জি, আদানি পাওয়ার ও আদানি উইলমারের দরপতন হয়েছে ৫ শতাংশ করে। অম্বুজা সিমেন্টের দাম পড়েছে ৩ দশমিক ২৪ শতাংশ ও এসিসির ১ দশমিক ০৩ শতাংশ। বিতর্ক দানা বাঁধার পর থেকে গত ১০ দিনে আদানি গোষ্ঠীর মোট লোকসানের পরিমাণ ১১ হাজার ৮০০ কোটি ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় পৌনে ১০ হাজার কোটি রুপি।

back to top