alt

জাতীয়

বজ্রপাতের ঝুঁকি কমাতে পারে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্র

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : সোমবার, ২০ মে ২০২৪

ভৌগলিক অবস্থানের কারণে বিশ্বের অন্য অনেক দেশের তুলনায় বাংলাদেশে বজ্রপাতে হতাহতের ঘটনা বেশি ঘটে।

বর্ষা মৌসুমে তো বটেই, এর আগে-পরেও এখানে বজ্রপাত মানুষের দুর্ভোগ ডেকে আনে। দেশে বর্ষা মৌসুম শুরু হতে এখনো অনেক দিন বাকি। তাপপ্রবাহের ফাঁকে দেশের কোনো কোনো অঞ্চলে বৃষ্টি হচ্ছে, বজ্রপাত হচ্ছে। এতে ঘটছে হতাহতের ঘটনা।

গত শনিবার দেশের চার জেলায় বজ্রপাতে মারা গেছেন আটজন। বজ্রপাতে যারা মারা গেছেন তাদের প্রায় সবাই কোনো না কোনোভাবে কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। সাধারণ দেখা যায় যে, কৃষিজমি, খেলার মাঠ বা উন্মুক্ত প্রান্তরে অবস্থানরত মানুষ বজ্রপাতে বেশি হতাহত হন। কারণ বৃষ্টির সময় এসব স্থানে বজ্রপাতের ঘটনা বেশি ঘটে। বৃষ্টির সময় এসব স্থানে থাকা মানুষ সাধারণত আশ্রয় খুঁজে পায় না। আর এই কারণে তারা বজ্রপাতের সহজ শিকার হয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

আবার যারা আশ্রয় খুঁজে পান তাদের কিছু অসচেতনতার কারণেও তারা দুর্ঘটনার শিকার হন। টিনের ঘরে আশ্রয় নেয়া ঝুঁকিপূর্ণ। বজ্রপাতের সময় কোথায় আশ্রয় নিতে হবে সেটা সম্পর্কে অনেকেরই ধারণা নেই। বজ্রপাতের ভয়াবহতা সম্পর্কে সাধারণ মানুষ অসচেতন। বজ্রপাতের ক্ষতি সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়ানো দরকার। কখন কোথায় বজ্রপাতের আশঙ্কা থাকে, বজ্রপাতের সময় জনসাধারণের কী সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে, কোথায় আশ্রয় নিতে হবে সেসব বিষয়ে মানুষকে বিশেষ করে বজ্রপাতপ্রবণ এলাকার বাসিন্দাদের জানানো জরুরি।

বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস প্রভৃতির মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে যোগ হয়েছে বজ্রপাত। বন্যা বা সাইক্লোনের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের তুলনায় বজ্রপাতে এখন বেশি মানুষ মারা যাচ্ছে। বজ্রপাতে প্রতি বছর তিন শতাধিক মানুষ মারা যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, বৈশ্বিক জলবায়ু পরির্বতনজনিত প্রভাবে কোনো কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগের তীব্রতা বাড়ছে। জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের প্রায় ৮৩ শতাংশ মানুষ বজ্রপাত ও দাবদাহের মতো দুর্যোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ২০১৬ সালে বজ্রপাতকে দুর্যোগ হিসেবে ঘোষণা করেছে সরকার।

পর্যাপ্ত আশ্রয়কেন্দ্র থাকলে বজ্রপাতের ঝুঁকি কার্যকরভাবে মোকাবিলা করা যেত বলে আমরা বিশ্বাস করতে চাই। অধিক ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করে বজ্রপাতপ্রতিরোধী আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা যায় কিনা সেটা সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করে দেখতে হবে।

ছবি

সবুজ বাংলাদেশ গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

২০ বছরে হেফাজতে মৃত্যুর সংখ্যা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

ছবি

খালেদা জিয়া কৃষকের ভাগ্য নিয়েও ছিনিমিনি খেলেছিল

ছবি

ঈদ নিরাপত্তায় যেসব পরামর্শ দিলো পুলিশ

ছবি

সাভার-আশুলিয়া সড়কে কমেছে যানবাহনের চাপ

ছবি

আজ পবিত্র হজ

ছবি

চোরাইপথে আসা চিনি ছিনতাইচেষ্টায় ‘ছাত্রলীগের’ ৫ জন আটক

রঞ্জন সেনের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ ২ বছর বাড়ানো হলো

ছবি

মিঠা পানির মাছ উৎপাদনে চীনকে ছাড়িয়ে দ্বিতীয় বাংলাদেশ

ছবি

ওয়াশিংটন অ্যাকর্ডের সিগনেটরি স্বীকৃতি পেলো আইইবি

ছবি

এ বছরের পর আর টিকিট কালোবাজারি থাকবে না: র‌্যাব

ছবি

সৌদিতে আরও দুই বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

ওমানের ভিসা নিষেধাজ্ঞা শিথিলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশ

ছবি

মাসুমা খান মজলিস ইন্তেকাল করেছেন

মজলিসের স্ত্রী মাসুমা খান মজলিস আজ সকালে ইন্তেকাল করে

ছবি

আরও ৭০ উপজেলা ‘ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত’

ছবি

১৫২ কোটি টাকার সুদ মওকুফ করায় সাবেক ভ্যাট কমিশনারের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ছবি

এয়ার অ্যারাবিয়ার ফ্লাইট ‘জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা করে ঢাকায় ফিরল

ছবি

কক্সবাজারকে গৃহহীন ও ভূমিহীন মুক্ত ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

নেপাল থেকে ৪০ মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ কিনবে সরকার

ছবি

প্রতিরক্ষা খাতে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতে চায় ইইউ : রাষ্ট্রদূত

ছবি

ভূমিহীন-গৃহহীনমুক্ত হলো আরও ৭০ উপজেলা

ছবি

এমপি আজিম চোরাচালানে যুক্ত ছিল, কখনোই বলিনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান

ছবি

আজিজ আহমেদের স্বজনদের পাসপোর্ট অনুসন্ধানে দুদকের চিঠি, ইসির তদন্ত কমিটি গঠন

ছবি

স্কাইডাইভে আশিক চৌধুরীর বিশ্বরেকর্ড উদযাপন করল স্পন্সর ইউসিবি

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি

জঙ্গি-সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলুন- সিলেটে আইজিপি

ছবি

শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আগামী কাল

ছবি

পাকিস্তানে হামলায় সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেনসহ ৭ সৈন্য নিহত

ছবি

চেনা দুর্যোগগুলো অচেনা হয়ে উঠছে : দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ডিজি

ছবি

নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন শেখ হাসিনা

ছবি

বাজেট ডিব্রিফিং সেশনের উদ্বোধন করলেন স্পীকার

ছবি

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে আন্তর্জাতিক সদিচ্ছার প্রয়োজন- সুইডেনের রাষ্ট্রদূতকে স্পিকার

আপাতত চাঁদপুর জেলায় কোন ভূমিহীন নেই

tab

জাতীয়

বজ্রপাতের ঝুঁকি কমাতে পারে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্র

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

সোমবার, ২০ মে ২০২৪

ভৌগলিক অবস্থানের কারণে বিশ্বের অন্য অনেক দেশের তুলনায় বাংলাদেশে বজ্রপাতে হতাহতের ঘটনা বেশি ঘটে।

বর্ষা মৌসুমে তো বটেই, এর আগে-পরেও এখানে বজ্রপাত মানুষের দুর্ভোগ ডেকে আনে। দেশে বর্ষা মৌসুম শুরু হতে এখনো অনেক দিন বাকি। তাপপ্রবাহের ফাঁকে দেশের কোনো কোনো অঞ্চলে বৃষ্টি হচ্ছে, বজ্রপাত হচ্ছে। এতে ঘটছে হতাহতের ঘটনা।

গত শনিবার দেশের চার জেলায় বজ্রপাতে মারা গেছেন আটজন। বজ্রপাতে যারা মারা গেছেন তাদের প্রায় সবাই কোনো না কোনোভাবে কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। সাধারণ দেখা যায় যে, কৃষিজমি, খেলার মাঠ বা উন্মুক্ত প্রান্তরে অবস্থানরত মানুষ বজ্রপাতে বেশি হতাহত হন। কারণ বৃষ্টির সময় এসব স্থানে বজ্রপাতের ঘটনা বেশি ঘটে। বৃষ্টির সময় এসব স্থানে থাকা মানুষ সাধারণত আশ্রয় খুঁজে পায় না। আর এই কারণে তারা বজ্রপাতের সহজ শিকার হয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

আবার যারা আশ্রয় খুঁজে পান তাদের কিছু অসচেতনতার কারণেও তারা দুর্ঘটনার শিকার হন। টিনের ঘরে আশ্রয় নেয়া ঝুঁকিপূর্ণ। বজ্রপাতের সময় কোথায় আশ্রয় নিতে হবে সেটা সম্পর্কে অনেকেরই ধারণা নেই। বজ্রপাতের ভয়াবহতা সম্পর্কে সাধারণ মানুষ অসচেতন। বজ্রপাতের ক্ষতি সম্পর্কে জনসচেতনতা বাড়ানো দরকার। কখন কোথায় বজ্রপাতের আশঙ্কা থাকে, বজ্রপাতের সময় জনসাধারণের কী সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে, কোথায় আশ্রয় নিতে হবে সেসব বিষয়ে মানুষকে বিশেষ করে বজ্রপাতপ্রবণ এলাকার বাসিন্দাদের জানানো জরুরি।

বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস প্রভৃতির মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে যোগ হয়েছে বজ্রপাত। বন্যা বা সাইক্লোনের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের তুলনায় বজ্রপাতে এখন বেশি মানুষ মারা যাচ্ছে। বজ্রপাতে প্রতি বছর তিন শতাধিক মানুষ মারা যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, বৈশ্বিক জলবায়ু পরির্বতনজনিত প্রভাবে কোনো কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগের তীব্রতা বাড়ছে। জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের প্রায় ৮৩ শতাংশ মানুষ বজ্রপাত ও দাবদাহের মতো দুর্যোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ২০১৬ সালে বজ্রপাতকে দুর্যোগ হিসেবে ঘোষণা করেছে সরকার।

পর্যাপ্ত আশ্রয়কেন্দ্র থাকলে বজ্রপাতের ঝুঁকি কার্যকরভাবে মোকাবিলা করা যেত বলে আমরা বিশ্বাস করতে চাই। অধিক ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করে বজ্রপাতপ্রতিরোধী আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা যায় কিনা সেটা সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করে দেখতে হবে।

back to top