alt

জাতীয়

বিদ্যুৎ-জ্বালানি পরিস্থিতিতে ‘বিব্রত’ আওয়ামী লীগ

ফয়েজ আহমেদ তুষার : সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২

শতভাগ বিদ্যুতায়নের উৎসবের মধ্যে দেশে ফিরে এসেছে লোডশেডিং। এর মধ্যে আবার জ্বালানি তেলের রেকর্ড দাম বৃদ্ধি। রাজনীতিতে নতুন ইস্যু পেয়েছে মাঠের বিরোধীদল বিএনপি। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। এই প্রেক্ষাপটে অনেকটাই বিব্রত ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

জাতীয় নির্বাচনের আর খুব বেশি সময় বাকি নেই। আগামী বছর ডিসেম্বরেই দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। সে হিসেবে বাকি এক বছর পাঁচ মাস। চাল, ডাল, সয়াবিন তেলেসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনদুর্ভোগের কারণে অনেকদিন ধরেই অস্বস্তিতে সরকার। এই পরিস্থিতিতে নতুন করে জ্বালানি খাতের সংকট এবং বিদ্যুৎ সরবরাহে ঘাটতি যেন ‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’।

জ্যেষ্ঠ কয়েকজন নেতা প্রকাশ্যে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে সাফাই গাইলেও আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই এই ইস্যুতে বিব্রত।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি ইস্যুতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর বক্তব্যেও বিরক্তি প্রকাশ পেয়েছে।

শনিবার (৬ আগস্ট) জাতীয় জাদুঘরে এক অনুষ্ঠানে এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আপনারা এই বিষয়ে প্রথমে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের প্রতিক্রিয়া নেন। আমার প্রতিক্রিয়া কেন? আমি তো বিদ্যুৎ মন্ত্রী না।’

তবে পরদিন রোববার সেতুমন্ত্রী নিজের সরকারি বাসভবনে এক ব্রিফিংয়ে সাফাই দিয়ে তিনি বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধিতে শেখ হাসিনা সরকার নিরুপায় হয়ে দাম বাড়িয়েছে।’ আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য হ্রাস পেলে সরকার আবারও জ্বালানির মূল্য সমন্বয় করবে বলে জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের সহসম্পাদক পদে ছিলেন, এমন কয়েকজনের সঙ্গে কথা হয় সংবাদের। তাদের একজন বলেন, ‘কাদের ভাইয়ের জ্বালানি তেলের এই মূল্যবৃদ্ধিটা আসলে পছন্দ হয়নি। তাই জ্বালানি প্রতিমন্ত্রীকে জিজ্ঞেস করতে বলেছেন।’

আরেকজন বলেন, ‘তার বক্তব্য হয়তো নেত্রীর পছন্দ হয়নি। তাই পরেরদিন সাফাই গেয়েছেন।’

আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ একাধিক নেতার মতে, নির্বাচনের আগে জ্বালানি তেলের দাম এতটা বাড়ানো ঠিক হয়নি। তারা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজার পর্যবেক্ষণ করে ‘ধাপে ধাপে বাড়ানো’ যেত। তাদের মতে এখন যেটা করা হয়েছে, তাতে গণপরিবহেনর ভাড়া নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে পড়বে। পণ্য পরিবহনে ভাড়া বেড়ে যাবে। এর প্রভাব পড়বে দ্রব্যমূল্যে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের একজন কেন্দ্রীয় নেতা সংবাদকে বলেন, ‘আমার মনে হয়, সরকারকে বিব্রত করতেই কিছু আমলা এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে ভূমিকা রাখছে।’

এ ধরনের ‘জনবিরোধী’ সিদ্ধান্ত সরকারের বড় বড় অর্জনকে নিমেষেই ম্লান করে দিতে পারে বলে আশঙ্কা তার।

আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই বলছেন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে সরকার যে বড় সুবিধা পেয়েছিল তার অনেকটাই এখন ‘ম্লান হয়ে যাচ্ছে’ জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর কারণে।

তাদের ধারণা সব মিলিয়ে মাঠ গরম করার সুযোগ পেয়েছে টানা ১৫ বছরের বেশি ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি। আর দীর্ঘদিন সরকারের সঙ্গে থেকে জাতীয় পার্টিও এখন সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে তুলনা করে প্রতিদিনই সরকারবিরোধী নানা বক্তব্য দিচ্ছেন। ‘রাজপথে সরকার হটাও’ আন্দোলনের কথাও বলছেন তিনি।

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা জি এম কাদেরও আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারকে ‘ব্যর্থ’ সরকার বলছেন।

দেশে ‘ভয়াবহ’ লোডশেডিং চলছে মন্তব্য করে সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে জাপা চেয়ারম্যান ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘ব্যবস্থাপনা করতে না পারলে সরে দাঁড়ান। পারেবনও না আবার ছাড়বেনও না, তা হবে না।’ বর্তমান সরকার মেগা-প্রকল্পের নামে বিদেশে ‘হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার’ করেছে বলেও অভিযোগ তার।

হঠাৎ জ্বালানি তেলের রেকর্ড দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সোমবার (৮ আগস্ট) রাজধানীর কাকরাইলে দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে জি এম কাদের বলেন, ‘সরকারের লুটপাটের কারণে জ্বালানি তেলের দাম বাড়াতে হয়েছে। কুইক রেন্টালের নামে সরকারের কিছু লোককে হাজার হাজার কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। যার কারণে দেশের এ অবস্থা।’

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দেশের সব রাজনৈতিক দলকে বিলুপ্ত করে দেয়ার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ জাপা চেয়ারম্যানের।

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, মেগা-প্রকল্পের নামে বিদেশে টাকা পাচার, মার্কিন ডলারের বিপরীতে বাংলাদেশি টাকার মান পড়ে যাওয়া, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংকট- এসবের জন্য আওয়ামী লীগ সরকারকে দায়ী করে সম্প্রতি বিভিন্ন বাম সংগঠন প্রতিবাদ কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নেমেছে।

ছবি

করোনা: একজনের মৃত্যু, নতুন রোগী ৫৩৫

ছবি

কারাগারে গিয়ে দেখুন অনেক র‍্যাব-পুলিশ সদস্য জেল খাটছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

উৎপাদনশীলতা বাড়াতে পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

জাতীয় পথশিশু দিবস আজ

ছবি

নামজারির দুই ফি শুধু অনলাইনে

ছবি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার, বেশি অভিযোগ শিক্ষকদের বিরুদ্ধে

ছবি

করোনা: একদিনে মৃত্যু ৫, নতুন রোগী ৪৮০

ছবি

বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে দেশে ফেরানোর চেষ্টা চলছে

ছবি

সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশের দেয়া তথ্য সঠিক নয়: ইলিয়াস কাঞ্চন

ছবি

তোয়াব খানর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি

র‍্যাব সংস্কারের প্রশ্নই ওঠে না: র‍্যাব ডিজি

আজ থেকে দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু

ছবি

আট মাসে ধর্ষণের শিকার ৫৭৪ কন্যাশিশু

৯ মাসে রাজনৈতিক সহিংসতায় নিহত ৫৮

ছবি

সেপ্টেম্বরে অর্ধশতাধিক রাজনৈতিক সহিংসতা

ছবি

৮ মাসে ৫৭৪ শিশু ধর্ষণ, বাল্যবিয়ে ২৩০১ জনের: প্রতিবেদন

ছবি

আইজিপির দায়িত্ব নিলেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন

ছবি

করোনা: দৈনিক শনাক্ত ফের ৭০০ ছাড়াল, মৃত্যু ১

ছবি

৮০ ভাগ রোগী বিদেশে চিকিৎসা নিতে যাচ্ছে: পরিকল্পনা মন্ত্রী

ছবি

দেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো বিএনপির প্রধান কাজ : প্রধানমন্ত্রী

বৈশ্বিক উষ্ণতায় উপকূল অঞ্চল বিলীন হচ্ছে

ছবি

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বই পড়ার অধিকার নিশ্চিতে মারাকেশ চুক্তিতে অনুস্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ

ছবি

নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের মূল্যায়নে প্রথম বিআইডব্লিউটিএ

ছবি

দুর্গাপূজায় জঙ্গি হামলার আশঙ্কা রয়েছে: ডিএমপি কমিশনার

ছবি

র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান পরিবর্তন হয়নি: রাষ্ট্রদূত

ছবি

করোনা: শনাক্ত বেড়ে ৬৭৯, মৃত্যু ২

ছবি

দেশে নষ্ট রাজনীতির দুষ্টচর্চা ছিল, এখনো আছে: বিদায়ী আইজিপি

ছবি

পাঁচ দিনের সফরে ঢাকা আসছেন কসোভোর উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

রোহিঙ্গাদের অবশ্যই নিজ দেশে ফিরে যেতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

মিছিল-মিটিংয়ে লাঠিসোঁটা আনা যাবে না: পুলিশ

ছবি

ডেঙ্গু: ২৮ দিনে ৯ হাজার রোগী হাসপাতালে ভর্তি

শিশুদের নিয়ে শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপন

ছবি

বাংলাদেশের নির্দিষ্ট কোনো দলকে সমর্থন করি না: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

ছবি

করোনা: ৩ অক্টোবরের পর টিকার প্রথম ডোজ বন্ধ

ছবি

করোনা: মৃত্যুশূন্য দিনে শনাক্ত কমে ৬৬৫

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা র‍্যাবের কর্মকাণ্ডে কোনো প্রভাব ফেলেনি

tab

জাতীয়

বিদ্যুৎ-জ্বালানি পরিস্থিতিতে ‘বিব্রত’ আওয়ামী লীগ

ফয়েজ আহমেদ তুষার

সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২

শতভাগ বিদ্যুতায়নের উৎসবের মধ্যে দেশে ফিরে এসেছে লোডশেডিং। এর মধ্যে আবার জ্বালানি তেলের রেকর্ড দাম বৃদ্ধি। রাজনীতিতে নতুন ইস্যু পেয়েছে মাঠের বিরোধীদল বিএনপি। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। এই প্রেক্ষাপটে অনেকটাই বিব্রত ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

জাতীয় নির্বাচনের আর খুব বেশি সময় বাকি নেই। আগামী বছর ডিসেম্বরেই দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। সে হিসেবে বাকি এক বছর পাঁচ মাস। চাল, ডাল, সয়াবিন তেলেসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনদুর্ভোগের কারণে অনেকদিন ধরেই অস্বস্তিতে সরকার। এই পরিস্থিতিতে নতুন করে জ্বালানি খাতের সংকট এবং বিদ্যুৎ সরবরাহে ঘাটতি যেন ‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’।

জ্যেষ্ঠ কয়েকজন নেতা প্রকাশ্যে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে সাফাই গাইলেও আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই এই ইস্যুতে বিব্রত।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি ইস্যুতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর বক্তব্যেও বিরক্তি প্রকাশ পেয়েছে।

শনিবার (৬ আগস্ট) জাতীয় জাদুঘরে এক অনুষ্ঠানে এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আপনারা এই বিষয়ে প্রথমে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের প্রতিক্রিয়া নেন। আমার প্রতিক্রিয়া কেন? আমি তো বিদ্যুৎ মন্ত্রী না।’

তবে পরদিন রোববার সেতুমন্ত্রী নিজের সরকারি বাসভবনে এক ব্রিফিংয়ে সাফাই দিয়ে তিনি বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধিতে শেখ হাসিনা সরকার নিরুপায় হয়ে দাম বাড়িয়েছে।’ আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য হ্রাস পেলে সরকার আবারও জ্বালানির মূল্য সমন্বয় করবে বলে জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের সহসম্পাদক পদে ছিলেন, এমন কয়েকজনের সঙ্গে কথা হয় সংবাদের। তাদের একজন বলেন, ‘কাদের ভাইয়ের জ্বালানি তেলের এই মূল্যবৃদ্ধিটা আসলে পছন্দ হয়নি। তাই জ্বালানি প্রতিমন্ত্রীকে জিজ্ঞেস করতে বলেছেন।’

আরেকজন বলেন, ‘তার বক্তব্য হয়তো নেত্রীর পছন্দ হয়নি। তাই পরেরদিন সাফাই গেয়েছেন।’

আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ একাধিক নেতার মতে, নির্বাচনের আগে জ্বালানি তেলের দাম এতটা বাড়ানো ঠিক হয়নি। তারা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজার পর্যবেক্ষণ করে ‘ধাপে ধাপে বাড়ানো’ যেত। তাদের মতে এখন যেটা করা হয়েছে, তাতে গণপরিবহেনর ভাড়া নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে পড়বে। পণ্য পরিবহনে ভাড়া বেড়ে যাবে। এর প্রভাব পড়বে দ্রব্যমূল্যে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের একজন কেন্দ্রীয় নেতা সংবাদকে বলেন, ‘আমার মনে হয়, সরকারকে বিব্রত করতেই কিছু আমলা এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে ভূমিকা রাখছে।’

এ ধরনের ‘জনবিরোধী’ সিদ্ধান্ত সরকারের বড় বড় অর্জনকে নিমেষেই ম্লান করে দিতে পারে বলে আশঙ্কা তার।

আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই বলছেন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে সরকার যে বড় সুবিধা পেয়েছিল তার অনেকটাই এখন ‘ম্লান হয়ে যাচ্ছে’ জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর কারণে।

তাদের ধারণা সব মিলিয়ে মাঠ গরম করার সুযোগ পেয়েছে টানা ১৫ বছরের বেশি ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি। আর দীর্ঘদিন সরকারের সঙ্গে থেকে জাতীয় পার্টিও এখন সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে তুলনা করে প্রতিদিনই সরকারবিরোধী নানা বক্তব্য দিচ্ছেন। ‘রাজপথে সরকার হটাও’ আন্দোলনের কথাও বলছেন তিনি।

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা জি এম কাদেরও আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারকে ‘ব্যর্থ’ সরকার বলছেন।

দেশে ‘ভয়াবহ’ লোডশেডিং চলছে মন্তব্য করে সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে জাপা চেয়ারম্যান ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘ব্যবস্থাপনা করতে না পারলে সরে দাঁড়ান। পারেবনও না আবার ছাড়বেনও না, তা হবে না।’ বর্তমান সরকার মেগা-প্রকল্পের নামে বিদেশে ‘হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার’ করেছে বলেও অভিযোগ তার।

হঠাৎ জ্বালানি তেলের রেকর্ড দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে সোমবার (৮ আগস্ট) রাজধানীর কাকরাইলে দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে জি এম কাদের বলেন, ‘সরকারের লুটপাটের কারণে জ্বালানি তেলের দাম বাড়াতে হয়েছে। কুইক রেন্টালের নামে সরকারের কিছু লোককে হাজার হাজার কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। যার কারণে দেশের এ অবস্থা।’

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দেশের সব রাজনৈতিক দলকে বিলুপ্ত করে দেয়ার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ জাপা চেয়ারম্যানের।

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, মেগা-প্রকল্পের নামে বিদেশে টাকা পাচার, মার্কিন ডলারের বিপরীতে বাংলাদেশি টাকার মান পড়ে যাওয়া, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংকট- এসবের জন্য আওয়ামী লীগ সরকারকে দায়ী করে সম্প্রতি বিভিন্ন বাম সংগঠন প্রতিবাদ কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নেমেছে।

back to top