alt

জাতীয়

দেশি পণ্যের নতুন বাজার খুঁজতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩

ইউক্রেইন যুদ্ধের কারণে চাহিদা বাড়ায় বাংলাদেশি পণ্যের জন্যে নতুন বাজার খোঁজার সুযোগ বিশ্বব্যাপী তৈরি হয়েছে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমাদেরকে এসব বাজার ধরতে হবে। আজ সোমবার গণভবনে রপ্তানি বিষয়ক জাতীয় কমিটির ১১তম সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

নতুন বাজার খোঁজার পাশাপাশি পোশাক, ওষুধ, ডিজিটাল ডিভাইসসহ রপ্তানি পণ্যে বৈচিত্র্য আনার নির্দেশনা দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের নতুন বাজার অন্বেষণ করতে হবে এবং রপ্তানি পণ্যের মধ্যে বৈচিত্র্য আনতে হবে। চার থেকে পাঁচটি রপ্তানি পণ্য ঠিক করতে হবে। অনেক দেশ আমাদের পণ্য আমদানি করতে চায়, তাই কোন দেশের কোন পণ্য দরকার- সেটি আমাদের খুঁজে বের করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী ডিজিটাল ডিভাইসের চাহিদা বাড়ছে, তাই একে গুরুত্বপূর্ণ রপ্তানি পণ্য হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। বিশ্বজুড়ে প্রক্রিয়াজাত খাবারের চাহিদা বৃদ্ধির বিষয়টিকে বিবেচনায় রেখে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প স্থাপনের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, অনেক দেশ আমাদের খাদ্য আমদানি করতে ইচ্ছে প্রকাশ করছে। এজন্য আমাদের খাদ্য সামগ্রী রপ্তানিতে মনোযোগ দিতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা থেকে উদ্ভূত পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে টেকসই রপ্তানি প্রবৃদ্ধি অর্জনে পদক্ষেপ নিতে হবে।

২০২৪ সালে মেয়াদ শেষ হতে যাওয়া বিদ্যমান রপ্তানি নীতিমালার সংশোধন, পরিবর্তন ও উন্নয়ন করে আরও চার কিংবা পাঁচ বছরের জন্যে নতুন রপ্তানি নীতিমালা প্রণয়নেরও আহ্বান জানান সরকার প্রধান। চলমান বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা, যুদ্ধের নিষেধাজ্ঞা ও পাল্টা নিষেধাজ্ঞা এবং ২০২৬ সালের মধ্যে এলডিসি থেকে উত্তরণের পর বাংলাদেশে যেসব চ্যালেঞ্জ ও সুযোগ তৈরি হতে পারে তা বিশ্লেষণ করে নতুন রপ্তানি নীতি গ্রহণ করা উচিত।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রপ্তানি বৃদ্ধির জন্য একটি দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রয়োজন, এছাড়া কিছুই অর্জন করা যাবে না। একটি দেশের অর্থনীতি মূলত রপ্তানির ওপর নির্ভর করায় আমরা রপ্তানি বাড়াতে অগ্রাধিকারের বিষয়গুলো নিয়ে নিয়ে ভাবছি। কাজেই আমরা এর ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি।

রপ্তানি বাড়াতে বেসরকারি খাতকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সরকার তাদের সব ধরনের সহায়তা দেবে। রপ্তানি বাড়ানোর জন্য আমরা বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ দিয়েছি এবং এর জন্য একটি বিশেষ তহবিল গঠন করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে রপ্তানি খাতের বিকাশে বেসরকারি খাতের জন্য সবকিছু উন্মুক্ত করে দিয়েছিল বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

কোভিড মহামারীর ক্ষয়ক্ষতি পূরণের জন্য প্রণোদনা প্যাকেজসহ সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, রপ্তানি আয় ২০২২-২৩ অর্থবছরে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) ৩৭ দশমিক ০৭ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে, আগের অর্থবছরের একই সময়ে রপ্তানি আয় ছিল ৩৩ দশমিক ৮৪ বিলিয়ন ডলার। আমরা কোভিড-১৯ মহামারী এবং ইউক্রেন যুদ্ধ সত্ত্বেও রপ্তানির প্রবৃদ্ধি বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছি।

সরকার প্রধান বলেন, ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার সময় রপ্তানি থেকে আয় ছিল ১৬ দশমিক ৫৬ বিলিয়ন ডলার। ২০২১-২২ অর্থবছরে সেই রপ্তানি আয় দাঁড়িয়েছে ৬০ দশমিক ৯৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে।

ছবি

কোটা সংস্কার আন্দোলন : রোববার গণপদযাত্রা, রাষ্ট্রপতিকে স্মারকলিপি

ছবি

কোটা সংস্কারের দাবিতে কাল রাষ্ট্রপতিকে স্মারকলিপি ও গণপদযাত্রা

ছবি

কোটাবিরোধীদের আন্দোলন থামানো উচিত : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

ভুল বোঝাবুঝি মিটেছে, শিক্ষকদের ‘প্রত্যয়’ স্কিম আগামী বছর চালু হবে

ছবি

বৈঠকে তিন দফা দাবি নিয়ে আলোচনা হয়েছে: শিক্ষক নেতা নিজামুল হক

ছবি

কোটা আন্দোলনে অনুপ্রবেশকারী, অন্যদিকে ধাবিত করার চেষ্টা : ডিবিপ্রধান

ছবি

রোববার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

আন্দোলনকারীদের উপর হামলার প্রতিবাদে ইবিতে বিক্ষোভ মিছিল

ছবি

কক্সবাজারে শুরু হয়েছে অষ্টাদশ বিডিনগ সম্মেলন

ছবি

ইন্টারনেটে দিনভর ধীরগতি থাকতে পারে

ছবি

কোটার হিসাব-নিকাশ, যেভাবে হয় প্রয়োগ

ছবি

কোটা সংস্কার ও হামলার বিচারের দাবিতে আবারো রাবি শিক্ষার্থীদের রেলপথ অবরোধ করে বিক্ষোভ

ছবি

কোটা সংস্কারের দাবি : ছুটির দিনেও শাহবাগ অবরোধ করলেন আন্দোলনকারীরা

ছবি

জাতির পিতার সমাধিতে মো: মোস্তাফিজুর রহমানের শ্রদ্ধা নিবেদন

ছবি

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার, মোদির সাথে বিমসটেক পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাক্ষাত

ছবি

সাধারণ মানুষের জানমালের ক্ষতি হলে আইন মোতাবেক ব্যবস্থা: আইনমন্ত্রী

ছবি

সেমিকন্ডাক্টর শিল্পের জন্য দক্ষ মানবসম্পদ প্রয়োজনঃ প্রতিমন্ত্রী পলক

আন্দোলনকারীকে ‘শিবির অ্যাখ্যা’ দিয়ে মারধরের অভিযোগ রাবি ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে

ছবি

কোটা সংস্কার আন্দোলন: জাবিতে পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ

ছবি

আদালতের রায় প্রকাশ : সরকার চাইলে কোটা পরিবর্তন-পরিবর্ধন করতে পারবে

ছবি

সমন্বয়কারীদের পদত্যাগ, প্রধান ফটক ভেঙে শাহবাগ গেলেন জবির শিক্ষার্থীরা

ছবি

পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে শাহবাগে শিক্ষার্থীরা

ছবি

গ্রন্থাগারের সামনে আন্দোলনকারীদের অবস্থান, মধুর ক্যানটিনের সামনে ছাত্রলীগ

ছবি

কোটা আন্দোলনকারীদের জন্য আদালতের দরজা সবসময় খোলা : প্রধান বিচারপতি

ছবি

কোটা নিয়ে আন্দোলনে জনদুর্ভোগ হলে ব্যবস্থা : ডিএমপি

ছবি

স্পীকারের সাথে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ

কাল অর্ধদিবস ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করবে কোটাসংস্কার আন্দোলনকারীরা

ছবি

কোটাবিরোধীরা ফের অবরোধের ঘোষণা দিয়ে রাস্তা ছাড়লেন

ছবি

ইউনূসের মামলা: যুক্তরাষ্ট্রে শ্রম আইন অপব্যবহারের একটি উদাহরণ

ছবি

শেখ হাসিনার শিং জিনপিং সঙ্গে বৈঠক

ছবি

আদালত নয়, সরকারের কাছে চূড়ান্ত সমাধান চান আন্দোলনকারীরা

ছবি

কেন একদিন আগেই দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী, জানালেন কাদের

ছবি

চীনের গ্রেট হল অব দ্য পিপলে শেখ হাসিনাকে উষ্ণ সংবর্ধনা

ছবি

২১ সমঝোতা স্মারক-চুক্তি এবং ৭ ঘোষণাপত্র সই করল বাংলাদেশ-চীন

ছবি

হজে ৬৩ বাংলাদেশির মৃত্যু, ফিরেছেন ৬১ হাজার হাজি

ছবি

মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে দুই আবেদনের শুনানি একসঙ্গে সাড়ে ১১টায়

tab

জাতীয়

দেশি পণ্যের নতুন বাজার খুঁজতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩

ইউক্রেইন যুদ্ধের কারণে চাহিদা বাড়ায় বাংলাদেশি পণ্যের জন্যে নতুন বাজার খোঁজার সুযোগ বিশ্বব্যাপী তৈরি হয়েছে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমাদেরকে এসব বাজার ধরতে হবে। আজ সোমবার গণভবনে রপ্তানি বিষয়ক জাতীয় কমিটির ১১তম সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

নতুন বাজার খোঁজার পাশাপাশি পোশাক, ওষুধ, ডিজিটাল ডিভাইসসহ রপ্তানি পণ্যে বৈচিত্র্য আনার নির্দেশনা দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের নতুন বাজার অন্বেষণ করতে হবে এবং রপ্তানি পণ্যের মধ্যে বৈচিত্র্য আনতে হবে। চার থেকে পাঁচটি রপ্তানি পণ্য ঠিক করতে হবে। অনেক দেশ আমাদের পণ্য আমদানি করতে চায়, তাই কোন দেশের কোন পণ্য দরকার- সেটি আমাদের খুঁজে বের করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী ডিজিটাল ডিভাইসের চাহিদা বাড়ছে, তাই একে গুরুত্বপূর্ণ রপ্তানি পণ্য হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। বিশ্বজুড়ে প্রক্রিয়াজাত খাবারের চাহিদা বৃদ্ধির বিষয়টিকে বিবেচনায় রেখে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প স্থাপনের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, অনেক দেশ আমাদের খাদ্য আমদানি করতে ইচ্ছে প্রকাশ করছে। এজন্য আমাদের খাদ্য সামগ্রী রপ্তানিতে মনোযোগ দিতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা থেকে উদ্ভূত পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে টেকসই রপ্তানি প্রবৃদ্ধি অর্জনে পদক্ষেপ নিতে হবে।

২০২৪ সালে মেয়াদ শেষ হতে যাওয়া বিদ্যমান রপ্তানি নীতিমালার সংশোধন, পরিবর্তন ও উন্নয়ন করে আরও চার কিংবা পাঁচ বছরের জন্যে নতুন রপ্তানি নীতিমালা প্রণয়নেরও আহ্বান জানান সরকার প্রধান। চলমান বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা, যুদ্ধের নিষেধাজ্ঞা ও পাল্টা নিষেধাজ্ঞা এবং ২০২৬ সালের মধ্যে এলডিসি থেকে উত্তরণের পর বাংলাদেশে যেসব চ্যালেঞ্জ ও সুযোগ তৈরি হতে পারে তা বিশ্লেষণ করে নতুন রপ্তানি নীতি গ্রহণ করা উচিত।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রপ্তানি বৃদ্ধির জন্য একটি দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রয়োজন, এছাড়া কিছুই অর্জন করা যাবে না। একটি দেশের অর্থনীতি মূলত রপ্তানির ওপর নির্ভর করায় আমরা রপ্তানি বাড়াতে অগ্রাধিকারের বিষয়গুলো নিয়ে নিয়ে ভাবছি। কাজেই আমরা এর ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি।

রপ্তানি বাড়াতে বেসরকারি খাতকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সরকার তাদের সব ধরনের সহায়তা দেবে। রপ্তানি বাড়ানোর জন্য আমরা বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ দিয়েছি এবং এর জন্য একটি বিশেষ তহবিল গঠন করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে রপ্তানি খাতের বিকাশে বেসরকারি খাতের জন্য সবকিছু উন্মুক্ত করে দিয়েছিল বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

কোভিড মহামারীর ক্ষয়ক্ষতি পূরণের জন্য প্রণোদনা প্যাকেজসহ সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, রপ্তানি আয় ২০২২-২৩ অর্থবছরে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) ৩৭ দশমিক ০৭ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে, আগের অর্থবছরের একই সময়ে রপ্তানি আয় ছিল ৩৩ দশমিক ৮৪ বিলিয়ন ডলার। আমরা কোভিড-১৯ মহামারী এবং ইউক্রেন যুদ্ধ সত্ত্বেও রপ্তানির প্রবৃদ্ধি বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছি।

সরকার প্রধান বলেন, ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার সময় রপ্তানি থেকে আয় ছিল ১৬ দশমিক ৫৬ বিলিয়ন ডলার। ২০২১-২২ অর্থবছরে সেই রপ্তানি আয় দাঁড়িয়েছে ৬০ দশমিক ৯৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে।

back to top